নকিয়া ৮২১০ বাটন ফোন ফিরে এলো ২৩ বছর পরে!

অরিজিনাল নকিয়া ৮২১০ মুক্তি পায় সেই ১৯৯৯সালে। অনেক বছর পর আবার সেই আইকনিক ফোনকে ফিরিয়ে নিয়ে এসেছে এইচএমডি গ্লোবাল, নাম দেওয়ার হয়েছে নকিয়া ৮২১০ ৪জি। নাম থেকে তো আমরা জেনে গিয়েছি যে এই ফোনে ৪জি সুবিধা যুক্ত করা হয়েছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক কি কি নতুন থাকছে এই নকিয়া  ৮২১০ ৪জি ফোনটিতে।

স্মার্টফোন এর প্রচলনের আগের যুগের সেই বিখ্যাত ডিজাইন এর মধ্যে মডার্ন যুগের কিছু ফিচার যোগ করে তৈরী করা হয়েছে নকিয়া ৮২১০ ৪জি। অর্থাৎ নতুন ও পুরোনো ফিচারের এক অসাধারণ সংমিশ্রণ এই ফোনটি। অরিজিনাল মনোক্রোম ডিসপ্লের পরিবর্তে নতুন মডেলে স্থান পেয়েছে কালার ডিসপ্লে। তবে মেসেজ লিখতে বা নাম্বার ডায়াল করতে ব্যবহার হবে নস্টালজিক সেই কিপ্যাড।

১৯৯৯ সালের সেই নকিয়া ৮২১০ মডেলে কিন্তু ক্যামেরা ছিলোনা, তবে নকিয়া ৮২১০ ৪জি ফোনটিতে ০.৩মেগাপিক্সেল এর ক্যামেরা রয়েছে। তবে এই ক্যামেরা বাস্তব জীবনে কতটুকু কাজে আসবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।

এইচএমডি গ্লোবাল এর রিফ্রেশড ফিচার ফোনের দুনিয়ায় নকিয়া ৮২১০ ৪জি বেশ সমাদৃত হতে যাচ্ছে এর ফিচার ও স্মৃতিকাতর ডিজাইনের জন্য। নতুন করে মুক্তি পাওয়া নকিয়া ৩৩১০ ও অন্যসব ফোনের মত নকিয়া ৮২১০ ৪জি এর কালার ডিসপ্লে থাকায় আসল ফোনের সাথে এখানে বিশাল পার্থক্য থাকছে। তবে ডিজাইনের দিক দিয়ে সেই আগের ডিজাইন রেখেছে এইচএমডি গ্লোবাল।

নকিয়া ৮২১০ ৪জি এর ফ্রন্টে দেখবেন একটি টর্চ রয়েছে। আরো রয়েছে ৩.৫মি.মি. হেডফোন জ্যাক, এমপি৩ প্লেয়ার ও এফএম রেডিওর মত প্রয়োজনীয় ফিচার। সাপ খেলা বা স্নেক গেম এর কথা মনে আছে? নকিয়া ৮২১০ ৪জি ফোনটিতে সেই অসাধারণ গেমটিও রয়েছে, তবে এটি গেমলফট এর তৈরী মডার্ন ভার্সন।

নকিয়া ৮২১০ এর ব্যাটারি নিয়ে নতুন করে কিছুই বলার নেই, এই ব্যাটারি নিজেই এক বিস্ট। নকিয়া দাবি করছে একটানা ২৭দিন স্ট্যান্ডবাই টাইম পাওয়া যাবে ফোনটিতে। ইউনিসক টি১০৭ প্রসেসর দ্বারা চলবে ফোনটি, যা তেমন একটা গুরুত্বপূর্ণ কোনো তথ্য নয়। এছাড়া কোনো ধরনের হেডফোন কানেকশন ছাড়াই ফোনটির এফএম রেডিও ব্যবহার করা যাবে। 👉 Vivo V21 Price in Bangladesh .

নকিয়া ৮২১০ ৪জি ফোনটিতে ৪৮এমবি র‍্যাম ও ১২৮এমবি ইন্টারনাল স্টোরেজ রয়েছে। ফোনের ফিচার বলার সময় এমপি৩ প্লেয়ার এর কথা উল্লেখ করেছিলাম, যার ব্যবহার করে অডিও শোনার জন্য মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে ফোনটিতে। ব্লুটুথ ৫.০ থাকলেও থাকছেনা ওয়াইফাই কানেকটিভিটি, যা ফিচার ফোনে হিসেবে ঠিকঠাক বলা চলে।

ওহ হ্যাঁ, নকিয়া ৮২১০ ৪জি এর দামই তো জানা হলোনা। ভারতীয় ৪০০০রুপি বা ৫০ডলার দামে পাওয়া যাবে নকিয়া ৮২১০ ৪জি। বাংলাদেশে হয়ত ফোনটির দাম ৪হাজার টাকা থেকে ৫হাজার টাকার মধ্যে হবে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

নকিয়া ৮২১০ বাটন ফোন ফিরে এলো ২০ বছর পরে!

👉 নকিয়া ১১০ বাটন ফোনে থাকছে ৪জি – এক চার্জে ১ মাস চলবে

এইচএমডি গ্লোবাল এর রিফ্রেশড নকিয়া লাইন-আপে নকিয়া ৮২১০ ৪জি ফোনটি বেশ অদ্ভুত সংযোজন বলা চলে। ফোনটিতে যুক্ত হওয়া নতুন সব ফিচারের কল্যাণে এটিকে একদম পুরোপুরি নস্টালজিক বলা চলেনা। আবার দামের কথা বিবেচনা করলে সেক্ষেত্রেও অন্যান্য ফিচার ফোনের বিচারে এই ফোনটি কোনো আকর্ষণীয় ফিচার অফার করছেনা। ৪জি সুবিধা থাকলেও তা কাজে আসবে কলিং সুবিধার ক্ষেত্রে। মূল কথায় নকিয়া ৮২১০ ৪জি ফোনটিকে উচ্চবিত্তের ডাম্ব ফোন বলা চলে।

নকিয়া ৮২১০ ৪জি ফোনটি সম্পর্কে আপনার মতামত আমাদের জানাতে পারেন কমেন্ট সেকশনে। স্মৃতিকাতরতার কারণে এইচএমডি গ্লোবাল নির্মিত এই ফোন কি আসলেই কেনার যোগ্য? সেই বিষয়ে আপনার ভাবনা আমাদের জানাতে পারেন।

👉 ভিডিওঃ এটিএম থেকে টাকা তুলতে এই সতর্কতাগুলো মেনে চলুন

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,408 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.