হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট খোলার নিয়ম

মেসেজিং এর কথা আসলে হোয়াটসঅ্যাপ সবচেয়ে এগিয়ে থাকবে। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস এর পাশাপাশি প্রায় সকল প্ল্যাটফর্মে হোয়াটসঅ্যাপ অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি মেসেজিং অ্যাপ।

ব্যবহার করা সহজ হওয়ার পাশাপাশি ফ্রি অ্যাপ হওয়ায় অসংখ্য ব্যবহারকারী রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ এর। আর যেকোনো প্ল্যাটফর্মে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যায় বলে সকল প্ল্যাটফর্ম থেকে সকল প্ল্যাটফর্মে মেসেজ পাঠানো সম্ভব হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে কয়েকটি সহজ ধাপে হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট খুলতে হয় ও হোয়াটসঅ্যাপ এর কিছু বেসিক ফিচার সম্পর্কে।

হোয়াটসঅ্যাপ কি

হোয়াটসঅ্যাপকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেওয়া সম্পূর্ণ অপ্রয়োজনীয়। তবুও সহজ ভাষায় হোয়াটসঅ্যাপ আসলে কি তা বলতে গেলে বলা যায়ঃ হোয়াটসঅ্যাপ একটি ক্রস-প্ল্যাটফর্ম ইন্সট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ যা ব্যবহার করে বিনামূল্যে আনলিমিটেড মেসেজ, অডিও, ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্ট, এমনকি লোকেশন ও শেয়ার করা যায়।

মোবাইল ডাটা বা ওয়াইফাই কানেকশন আছে এমন যেকোনো ডিভাইসে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যায়। পরিবার, বন্ধু বা সহকর্মীদের সাথে যোগাযোগ করতে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যাপক হারে ব্যবহৃত হয়।

হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে টেক্সট মেসেজ আদান প্রদান করলে তেমন একটা ইন্টারনেট খরচ হয়না। অডিও, ভিডিও বা ছবি আদান-প্রদান করলে তবেই ইন্টারনেট খরচ হতে দেখা যায় হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে। 

হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট খোলার নিয়ম

শুরুর দিকে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা সাইন-আপ এর প্রথম দুই বছর ফ্রি ছিলো ও পরের বছর থেকে প্রতি বছর ০.৯৯ ডলার প্রদান করতে হতো। তবে পরে ফেসবুক কিনে নেয় হোয়াটসঅ্যাপকে ও সম্পূর্ণরুপে ফ্রি করে দেওয়া হয় অ্যাপটি।

👉 ইমো নাকি হোয়াটসঅ্যাপ? কোনটি বেশি সুবিধাজনক?

হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট খুলতে কিছু সাধারণ বিষয় থাকা জরুরি, যথাঃ

  • স্মার্টফোন বা যেকোনো মোবাইল ডিভাইস, যেমনঃ ট্যাবলেট
  • মোবাইল ইন্টারনেট বা ওয়াইফাই কানেকশন
  • ফোনে যথেষ্ট স্টোরেজ স্পেস, কমপক্ষে ৭০এমবি
  • মোবাইল নাম্বার

এবার জানা যাক হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয়। উল্লেখ্য যে একটি ফোনে একটি মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করে একটি হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট খোলা যাবে। হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট খুলতেঃ

  • হোয়াটসঅ্যাপ এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন ও আপনার ডিভাইসের জন্য হোয়াটসঅ্যাপ ডাউনলোড করুন
  • হোয়াটসঅ্যাপ ইন্সটল করুন
  •  হোয়াটসঅ্যাপে প্রবেশ করুন ও “Agree & Continue” তে ট্যাপ করুন
how to open a whatsapp account 1
  • এরপর আপনার কান্ট্রি কোড সিলেক্ট করুন ও যে নাম্বার ব্যবহার করে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করতে চান সেটি লিখুন
how to open a whatsapp account 2
  • এরপর প্রদত্ত মোবাইল নাম্বারের এসএমএসে একটি ৬-ডিজিটের পিন পাবেন
  • উক্ত পিন নিজ থেকে ভেরিফাই হয়ে যাবে। অটোমেটিক ভেরিফাই না হলে এসএমএস থেকে কোড হোয়াটসঅ্যাপে প্রদান করুন
how to open a whatsapp account 3
  • আগে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে থাকলে ব্যাকাপ রিস্টোর করার অপশন পাবেন। ব্যাকাপ রিস্টোর করতে চাইলে “RESTORE” এ ট্যাপ করুন, আর ব্যাকাপ রিস্টোর করতে না চাইলে “Skip” এ ট্যাপ করুন
  • এরপর হোয়াটসঅ্যাপে প্রদর্শনের জন্য নাম প্রদান করুন
  • এরপর চাইলে হোয়াটসঅ্যাপ এর প্রোফাইল পিকচার সেট করতে পারেন বা Skip ও করতে পারবেন

উল্লেখিত প্রক্রিয়া সঠিকভাবে অনুসরণ করলে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট চালু হয়ে যাবে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

হোয়াটসঅ্যাপ এর ফিচারসমূহ

হোয়াটসঅ্যাপ একটি সাধারণ মেসেজিং অ্যাপ মনে হলে আসলে হোয়াটসঅ্যাপ অসংখ্য চমৎকার ফিচারে ভরা। ব্যক্তিগত মেসেজিং এর পাশাপাশি ব্যবসায়িক কাজে পর্যন্ত বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহৃত হচ্ছে। চলুন এক নজরে জেনে নেওয়া যাক হোয়াটসঅ্যাপ এর ফিচারসমূহ সম্পর্কে।

হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাপ
  • ফ্রিঃ হোয়াটসঅ্যাপ এর সবচেয়ে সেরা বিষয় হতে হবে এটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়
  • আনলিমিটেড মেসেজিংঃ বিশ্বের যেকোনো প্রান্তে আনলিমিটেড টেক্সট, ছবি, ভিডিও, অডিও মেসেজ পাঠানো যায়
  • ফ্রি কলঃ হোয়াটসঅ্যাপে বিনামূল্যে অডিও ও ভিডিও কল এর সুবিধা রয়েছে
  • গ্রুপ চ্যাটঃ বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করতে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ব্যবহার করা যায়
  • হোয়াটসঅ্যাপ ওয়েবঃ কিউআর কোড স্ক্যান করে ফোনের হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট সহজেই কম্পিউটারে ব্যবহার করা যায়

👉 হোয়াটসঅ্যাপে গোপনীয় মেসেজ অটো-ডিলিট করার উপায়

  • অটো ডিটেক্ট কনটাক্টঃ ফোনে কোনো কনটাক্ট সেভ করা হলে উক্ত কনটাক্ট অটোমেটিক হোয়াটসঅ্যাপ ডিটেক্ট করে নেয়, যাতে হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট থাকলে মেসেজিং করা যায়
  • ফাইল পাঠানোঃ হোয়াটসঅ্যাপ এর মাধ্যমে পিডিএফ, ছবি, ভিডিও, ইত্যাদির ফাইল সরাসরি পাঠানো যায়
  • ইন্টারন্যাশনাল চার্জ নেইঃ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে এক দেশ থেকে অন্য দেশে কল করতে কোনো ধরনের ইন্টারন্যাশনাল চার্জ নেই। যেকোনো স্থানের কনটাক্টের সাথে কলে কথা বলতে একই ইন্টারনেট খরচ হয় হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে

👉 হোয়াটসঅ্যাপের কিছু উপকারী ফিচার যা আপনার কাজে লাগবে

  • এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশনঃ হোয়াটসঅ্যাপ এর মেসেজিং ব্যবস্থা এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপটেড হওয়ায় কোনো তৃতীয় ব্যাক্তি নেটওয়ার্কের মাঝখানে বসে মেসেজ দেখতে পারেনা- এমনকি হোয়াটসঅ্যাপ কতৃপক্ষ নিজেই ব্যবহারকারীদের মেসেজ দেখতে পারেনা
  • মজার ফিচারঃ হোয়াটসঅ্যাপে থাকা ইমোজি, গিফ, স্টিকার, ইত্যাদি মেসেজিংকে মজার করে তোলে

👉 হোয়াটসঅ্যাপ লক করার নিয়ম (অ্যান্ড্রয়েড ও আইফোন)

আপনি কি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন? হোয়াটসঅ্যাপ সম্পর্কে আপনার মতামত আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 6,932 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.