টুইটারের অর্ধেক কর্মী ছাঁটাই করলেন ইলন মাস্ক

গত মাসে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম টুইটার’কে ৪৪ বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে কিনে নেন মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্ক। টুইটার কিনে নেয়ার পরপরই কোম্পানিটির সিইও পরাগ আগারওয়াল সহ আরও বেশ কিছু উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে ছাঁটাই করেন ইলন মাস্ক। তিনি আগে থেকেই বলে আসছিলেন টুইটারকে লাভজনক করার জন্য কোম্পানিটির উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পদ থেকে কর্মী ছাঁটাই করার দরকার হবে। ৪ নভেম্বর শুক্রবার সেই দুঃস্বপ্নের দিন শুরু হলো টুইটারে কর্মরত হাজার হাজার মানুষের।

টুইটারের কর্মীসংখ্যা ছিল ৭,৫০০ এর মত। রয়টার্স, সিএনএন, ব্লুমবার্গ ও দ্যা ভার্জের মত পত্রিকার প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, শুক্রবার অর্ধেকের বেশি টুইটার কর্মীকে ছাঁটাই করে দেয়া হয়েছে। চাকরি হারানো এই বিশাল সংখ্যক টুইটার কর্মী টুইটার থেকে একাধিক ইমেইল পেয়েছেন। তারা চাকরি হারানোর বিষয়টি অবশ্য কিছুটা আগেই টের পেয়েছিলেন। কারণ ছাঁটাই করার আগেই টুইটার কোম্পানির বিভিন্ন টুল থেকে তাদের এক্সেস কেড়ে নেয়া হয়েছিল।

টুইটারে কর্মীরা কাজের প্রয়োজনে যেসব অ্যাপ ব্যবহার করে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ করতেন, অফিস থেকে তাদের যেসব ল্যাপটপ দেয়া হয়েছিল, সেসব অ্যাপ ও পিসিতে তারা লগিন করতে পারছিলেন না। এগুলো দেখে অনেকেই টুইট করতে শুরু করেন যে তাদেরকে সম্ভবত ছাঁটাই করে দেওয়া হচ্ছে।

যদিও ইলন মাস্ক এবং কোম্পানির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, টুইটারের ভালোর জন্যই এই বিশাল পরিমাণ ছাঁটাইয়ের মত “দুর্ভাগ্যজনক কঠিন সিদ্ধান্ত” নিতে হয়েছে। আইন অনুযায়ী প্রত্যেকে তাদের পাওনা পেয়ে যাবেন বলে কোম্পানির ইন্টারনাল ইমেইল থেকে জানা গেছে।

তবে গণহারে ছাঁটাই শুরু হওয়ার পর টুইটারের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন কিছু কর্মী। যদিও ইলন মাস্ক বিদ্যমান আইন মেনে কর্মীদের পাওনা বুঝিয়ে দিলে তার কোনো সমস্যা হওয়ার কথা না। যেসব ডিপার্টমেন্টে সবচেয়ে বেশি কর্মী ছাঁটাই করা হয়েছে সেগুলো হলোঃ

  • প্রোডাক্ট অ্যান্ড সেফটি
  • পলিসি
  • কমিউনিকেশনস
  • টুইট কিউরেশন
  • ইথিকাল এআই
  • ডাটা সায়েন্স
  • রিসার্স
  • মেশিন লার্নিং
  • সোশ্যাল গুড
  • এক্সেসিবিলিটি

তবে কোর ইঞ্জিনিয়ারিং টিম থেকেও কর্মী ছাঁটাই করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দ্যা ভার্জ এবং রয়টার্স। টুইটারের কার্যালয়গুলো সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে এবং অনেক কর্মীকেই ছাঁটাই করার ইমেইল না দিলেও তাদের বিভিন্ন এক্সেস বন্ধ রেখেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। কর্মীদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার পরে যাদের চাকরি থাকবে তাদেরকে আবার এক্সেস ফিরিয়ে দেয়া হবে।

গণহারে কর্মী ছাঁটাই করার কারণে সমালোচনার সম্মুখীন হলেও ইলন মাস্ক তার নিজের অবস্থানে অনড় আছেন। তিনি এক টুইট বার্তায় বলেছেন, দুর্ভাগ্যবশত যখন কোম্পানিটি প্রতিদিন ৪মিলিয়ন ডলার করে লোকসান দিচ্ছে তখন আর কোনো বিকল্প উপায় থাকেনা। অর্থাৎ তিনি বোঝাতে চাচ্ছেন, টুইটার দিনে ৪০ লাখ ডলার করে লোকসান দিচ্ছে, এমন অবস্থায় কর্মী ছাঁটাই করা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

টুইটারের অর্ধেক কর্মী ছাঁটাই করলেন ইলন মাস্ক

👉 ফেসবুক প্রফেশনাল মোড থেকে কিভাবে টাকা আয় করে?

টুইটার কেনার ইচ্ছা প্রকাশ থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন ইলন মাস্ক। তিনি প্রথমে টুইটার কেনার জন্য কোম্পানিটিকে অফার দেন। শুরুতে টুইটার বিক্রির ব্যাপারে কিছুটা দ্বিধা থাকলেও পরে টুইটারের পরিচালনা পর্ষদ কোম্পানিটিকে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু এরপর ইলন মাস্ক ফেইক টুইটার একাউন্টের কারণ দেখিয়ে টুইটারকে কিনতে অস্বীকৃতি জানান। এরপর মাস্ককে টুইটার কিনতে চাপ দিতে আদালতে যায় টুইটার কর্তৃপক্ষ। শেষ পর্যন্ত টুইটারকে কিনেই নেন ইলন মাস্ক। 

এরপর তিনি টুইটার ব্লু ব্যাজের জন্য ২০ ডলার করে মাসে খরচ হয় এমন একটি প্যাকেজ আনবেন বলে গুঞ্জন বের হয়। যদিও পরে সেই প্যাকেজের খরচ ৮ ডলার/মাস এ আনার কথা জানা গেছে। এখন পর্যন্ত সেই প্যাকেজটি লঞ্চ হয়নি। হয়ত এতে আরও পরিবর্তন আসতে পারে। আর এখন এলো এই গণহারে কর্মী ছাঁটাইয়ের খবর।

টুইটারের কপালে আর কী কী আছে তা দেখতে আমাদের সাথেই থাকুন।

👉 ভিডিওঃ উড়োজাহাজ নিয়ে অবিশ্বাস্য কিছু তথ্য জানুন

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,618 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.