টুইটার কোম্পানিকে কিনে নিলেন ইলন মাস্ক

অনেক নাটকীয়তার পর অবশেষে টুইটার’কে কিনে নিলেন ইলন মাস্ক। অর্থাৎ ৪৪বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে টুইটার এর নতুন মালিক হলেন ইলন মাস্ক। বৃহস্পতিবার টুইটার কেনার এই ডিল সম্পন্ন করেন মাস্ক, যেখানে সিইও পরাগ আগ্রাওয়াল সহ টুইটার এর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

দায়িত্ব হাতে পেয়ে ইতিমধ্যে কর্মী ছাঁটাই শুরু করে দিয়েছেন মাস্ক। সিইও পরাগ আগরওয়াল, সিএফও নেড সেগাল; লিগ্যাল, পলিসি ও ট্রাস্ট এর হেড, বিজয়া গাড্ডে ও জেনারেল কাউন্সেল শন এজেট কে প্রথম দিনেই টুইটার থেকে বের করে দিয়েছেন মাস্ক। টুইটারে মাস্কের প্রথম দিন হিসেবে এটি বেশ এগ্রেসিভ সিদ্ধান্ত বলা চলে। ইলন মাস্ক এর ভাষ্যমতে বর্ণবাদ সম্পর্কিত ঘৃণা ও হ্যারাসমেন্ট রুখে দিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন তিনি।

তবে টুইটার কিনতে ইলন মাস্ককে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে। টুইটার কেনার ইচ্ছা এপ্রিল মাসে প্রথম প্রকাশ করেন মাস্ক, যখন তিনি ৩বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে টুইটার এর ৯.২% শেয়ার কিনে নেন। এর মাত্র ১০দিন পর টুইটারকে ৪৪বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে কেনার ইচ্ছা জানান তিনি। কিন্তু এরই মধ্য্যে ডেলওয়্যার কোর্ট অফ চ্যান্সারিতে দৌড়াদৌড়ি করতে হয় মাস্ককে। বেশ অনেকটা ট্রায়ালের মধ্যে দিয়ে যাওয়ার পর মাস্ক সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেলেন যে তিনি এই কোম্পানি যেকোনো মূল্যে কিনেই ছাড়বেন।

একবার কিছুটা পিছিয়ে গেলেও পরিশেষে মাস্ক টুইটার ক্ষেত্রে পুরোপুরি ব্যাস্ত হয়ে যান। আর এরই মধ্যে অক্টোবর ১৭ থেকে শুরু হয় ট্রায়াল, যেখানে মাস্ককে কোর্টে নিয়ে যায় টুইটার। নিজের ডিফেন্সে মাস্ক জানান যে প্ল্যাটফর্মে থাকা অটোমেটেড একাউন্ট সম্পর্কে ইলন মাস্ককে ভুল তথ্য প্রদান করেছে টুইটার। পেইড এডস এর জন্য এই তথ্য আসল হওয়া কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেই বিষয়েও আলোকপাত করেন মাস্ক।

তবে ডেলওয়্যার কোর্ট এর জাজ ক্যাথালিন ম্যাককর্মিক কিন্তু ইলন মাস্ক এর হাতের পুতুল হিসেবে কাজ করেননি। এই ট্রায়াল বাদ দেওয়ার কোনো উপায় জানতে চান ইলন মাস্ক, যার পরিবর্তে অক্টোবর ২৮ তারিখের মধ্যে টুইটার কেনার ডিল সম্পন্ন করতে নির্দেশ দেন জাজ। আর মাস্ক যদি প্রদত্ত সময়ের মধ্যে এই কাজ করতে ব্যর্থ হন, সেক্ষেত্রে নভেম্বরে আবার ট্রায়ালের তারিখ দেওয়া হবে বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়।

টুইটার কোম্পানিকে কিনে নিলেন ইলন মাস্ক

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

অবশেষে টুইটারকে কিনেই নিলেন মাস্ক। তবে ইলন মাস্ক এর হাত ধরে টুইটার কোন পথে হাঁটবে সে সম্পর্কে এখনো কিছু জানা যায়নি। পূর্বে মাস্ক অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যা তিনি টুইটার কিনতে পারলে বাস্তবায়ন করবেন বলে জানান। যেমনঃ প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের একাউন্ট ব্যান হওয়ার পেছনের পলিসি পরিবর্তন করা, অটোমেটেড বট বাদ দেওয়া, ইত্যাদি।

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হিসেবে টুইটার এর হয়ত সমস্যা রয়েছে। এখন দেখার বিষয় হচ্ছে এসব সমস্যার কী সমাধান করেন মাস্ক। গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে টুইটার এর ৭৫% কর্মী ছাঁটাই করতে পরিকল্পনা করছেন মাস্ক। 

টুইটার এর মডারেশন ও সেফটি নিয়ে ভালোভাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন মাস্ক। তবে পরবর্তীতে মাস্ক বলেন, “Twitter obviously cannot become a free-for-all hellscape, where anything can be said with no consequences!” যার মানে হলো এডভার্টাইজারদের বিষয়টিও আমলে নিচ্ছেন মাস্ক।

ইলন মাস্ক এর এই ৪৪বিলিয়ন ডলার মূল্যে টুইটার কেনার বিষয়টি প্ল্যাটফর্মটিকে কোন পথে নিয়ে যাবে তা এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছেনা। ইলন মাস্ক এর টুইটার কেনার বিষয়টি সম্পর্কে আপনার মতামত জানাতে পারেন কমেন্ট সেকশনে।

👉 ভিডিওঃ কম্পিউটারের গতি বাড়াতে নতুন অ্যাপ আনছে মাইক্রোসফট

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,618 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.