ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করার অ্যাপ

কোনো ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ বা পরিবর্তন করা অনেকটা প্রফেশনাল ফটো এডিটরের কাজের মধ্যেই পড়ে। পৃথিবীতে যত ধরনের ফটো এডিট সম্ভব, তার মধ্যে ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন অন্যতম বহুল জনপ্রিয়।

প্রয়োজন যা ই হোক না কেনো, ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করে তাতে নতুন ব্যাকগ্রাউন্ড যুক্ত করার দরকার পড়ে অনেকেরই। তবে এই কাজ করতে কোনো প্রফেশনাল ফটো এডিটর ভাড়া করার বাধ্যবাধকতা নেই। আপনার হাতের অ্যান্ড্রয়েড ফোন বা আইফোন ব্যবহার করে খুব সহজেই পরিবর্তন করতে পারেন যেকোনো ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড।

ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন এর আগে কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নেওয়া যাক। বেশ সহজে ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করা গেলেও এতে দরকার পড়বে ছবি এডিট করার বেসিক জ্ঞান। এতে আপনার কাজ আরো সহজ হয়ে যাবে।

এছাড়াও ফটোর ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করার আগে ফটোর ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করতে হয়। ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করা ফটোর ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করতে ছবিটি ট্রান্সপারেন্ট হওয়া জরুরি। অর্থাৎ ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করার পর ফটো PNG ফাইল হতে হবে।

এছাড়াও আপনার কাংখিত অ্যাপ শুধুমাত্র ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করে নাকি নতুন ব্যাকগ্রাউন্ড যোগ করে ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তনও করে, তার উপর এই প্রসেস নির্ভর করে। ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করার সময় অবশ্যই কাটআউট এর এজ রিফাইনড কিনা তাও নিশ্চিত করা উচিত।

ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন সম্পর্কে খুঁটিনাটি তো জেনে নেওয়া গেলো। এবার জানি চলুন ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করার কিছু কার্যকরী অ্যাপ ও সার্ভিস সম্পর্কে। এখানে প্রথমেই এন্ড্রয়েড ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করার অ্যাপ এর বর্ণনা ও ডাউনলোড লিংক দেয়া আছে। সেই সাথে আইফোনের জন্যও এরকম কিছু অ্যাপের ডাউনলোড লিংক পোস্টের মধ্যে দেয়া আছে।

ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ ও চেঞ্জ – Background Eraser – Remove Image Background

এই ফ্রি ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করার অ্যাপটি ব্যবহার করা অনেক সহজ। অ্যাপটির বেশিরভাগ ফিচারই বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়। অ্যাপটিতে রয়েছে এআই কাটআউট ব্যবহার করে ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করার ফিচার। এছাড়াও অ্যাপে দেওয়া ডিফল্ট শেপ কিংবা সাবজেক্টের পাশে সিলেকশন ড্র করেও ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করার সুবিধা রয়েছে।

👉 মোবাইলে বাংলা লেখার সেরা কিবোর্ড অ্যাপ ফ্রি ডাউনলোড করুন

অ্যাপটি ব্যবহার করে নতুন ছবি ব্যাকগ্রাউন্ড ছাড়াই ট্রান্সপারেন্ট বা স্বচ্ছ পিএনজি ফাইল হিসেবে সেভ করা যায়। এর ফলে সেভ করা ফাইল হোয়াটসঅ্যাপে স্টিকার হিসাবে কিংবা ফটো মনটেজে খুব সহজেই ব্যবহার করা যায়।

ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ এর পাশাপাশি ব্যাকগ্রাউন্ড এড করার অপশন রয়েছে এই অ্যাপটিতে৷ ব্যবহারকারী চাইলে ব্যাকগ্রাউন্ড হিসেবে সলিড কালার ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও মোবাইল থেকে যেকোনো ছবি কিংবা অ্যাপে দেওয়া বিভিন্ম গ্রাফিক্স ও ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড হিসেবে ব্যবহার করার সুযোগ থাকছে। অ্যাপে থাকা বেশিরভাগ ব্যাকগ্রাউন্ড ফ্রি হলেও প্রো ভার্সনে আরো ব্যাকগ্রাউন্ড পাওয়া যাবে।

ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ বা পরিবর্তন করার অ্যাপ

এছাড়াও অ্যাপটিতে সোশ্যাল মিডিয়া ফটো সাইজ এর সাথে মিল রেখে ক্রপ টুল ব্যবহার করা যায়। অর্থাৎ আপনার তৈরী করা ছবি চাইলে ইন্সটাগ্রামে পোস্ট করতে পারবেন কিংবা ইউটিউব ভিডিও এর থাম্বনেইল হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। টাইটেলে দেওয়া লিংক অথবা এই লিংক থেকে এন্ড্রয়েড অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারেন। আইফোনের জন্য এই লিংকে দেওয়া অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারেন।

Adobe Photoshop Mix

কম্পিউটারের ফটোশপ কিনতে হলেও মোবাইল এর জন্য ফটোশপ এর এই অ্যাপটি (আরো কিছু আছে) সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়। মোবাইলে ফটোশপ সহ এডোবি এর অ্যাপসমুহ ব্যবহার করতে দরকার পড়ে একটি এডোবি একাউন্টের যা বিনামূল্যে তৈরী করা যায়।

এডোবি ফটোশপ মিক্স কিন্তু শুধুমাত্র একটি ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ বা পরিবর্তন করার অ্যাপ নয়। এই অ্যাপটি ব্যবহার করে কম্পিউটারের ফটোশপের মতো লেয়ার আকারে ছবিকে নিয়ে কাজ করা যায়।

👉 সেরা ৫ এন্ড্রয়েড বাংলা ডিকশনারি অ্যাপ (ফ্রি ডাউনলোড)

একটি ফটোকে অন্য একটি ফটোর সাথে যুক্ত করা যায় একাধিক উপায়ে। এই অ্যাপটি ব্যবহার করে চাইলে ছবির সাবজেক্ট সিলেকশন এর মাধ্যমে কেটে নিয়ে অন্য ছবিতে বসানো যায়। এছাড়াও ক্লাসিক ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ এর মাধ্যমে একই কাজ করার সুবিধা তো থাকছেই। প্রত্যেকটি ছবি লেয়ার হিসেবে যুক্ত হওয়ায় এডিট বা ব্লেন্ড করার কাজ অনেকটা সহজ হয়।

এসবের পাশাপাশি এডোবি ফটোশপ মিক্স (এন্ড্রয়েড অ্যাপ লিংক) ব্যবহার করে বেসিক ফটো এডিটিং এর পাশাপাশি ছবিকে সুন্দর করতে বিভিন্ন এফএক্স লুক ছবিতে যুক্ত করার ফিচার রয়েছে। আপনি একটি ছবিকে যতই এডিট করুন না কেনো, আপনার ছবির অরিজিনাল ফাইল সবসময় অক্ষত রাখে অ্যাপটি।

আপনার কাজের ক্ষেত্র যদি ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ ও পরিবর্তনের পাশাপাশি আরো বিশাল পরিসরে হয়, তবে অবশ্যই এডোবি ফটোশপ মিক্স আপনার পছন্দের ফটো এডিটরের নামের তালিকায় থাকবে। আইফোনের জন্য এই লিংক থেকে ডাউনলোড করে ফটোশপ এক্সপ্রেস ফটো এডিটর ব্যবহার করতে পারেন।

Background Eraser – ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড ডিলিট করার অ্যাপ

এই অ্যাপটি ব্যবহার করে খুব সহজেই ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করে ট্রান্সপারেন্ট ফটো বানানো যায়। মূলত ফটো কোলাজ তৈরির ক্ষেত্রে এই অ্যাপের ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করার ফিচারটি অনেক কাজে আসে।

ব্যাকগ্রাউন্ড ইরেজার অ্যাপ ব্যবহার করে একাধিক উপায়ে ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করার অপশন রয়েছে। প্রথমত ম্যানুয়ালি টাচ এর মাধ্যমে ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ এর অপশন রয়েছে। এরপর লেসো ইরেজ এর সাহায্যে নির্দিষ্ট এরিয়া সিলেকশনের মাধ্যমে ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করা যাবে। আরো রয়েছে অটো ইরেজ যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে একই ধরনের পিক্সেল মুছে দেয়।

👉 মোবাইলে ভিডিও এডিট করার ১০ অ্যাপ

ভুলে রিমুভ করা ব্যাকগ্রাউন্ড সহ অন্য যেকোনো পার্ট খুব সহজে রিস্টোর এর মাধ্যমে ফিরিয়ে আনা যাবে। এছাড়াও আনডু, রিডু ও জুম এর মতো বেসিক টুল তো রয়েছেই।

এডিট করা ছবিতে টেক্সট ও স্টিকার এড করার সুবিধা আছে এই অ্যাপটিতে। ছবি ফোনে সেভ করার সুযোগ কিংবা সোশ্যাল মিডিয়াতে সরাসরি আপলোডের সুযোগও রয়েছে। আইফোন ব্যবহারকারীরা বিকল্প হিসেবে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারেন।

Background Changer – Remove Background Photo Editor

এই অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফটো থেকে যেকোনো সাবজেক্ট কেটে নিতে পারে। তবে কাটার আগে সাবকেক্ট কি পারসন না অবজেক্ট তা নিশ্চিত করার মাধ্যমে খুব সহজেই ফটো থেকে সাবজেক্ট কাটার কাজ সম্পন্ন করে অ্যাপটি।

ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ হয়ে যাওয়ার পর সেই ছবি নিয়ে আপনার ক্রিয়েটিভিটি ব্যবহার করে যা ইচ্ছা তা করতে পারবেন। ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করা ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড আপনার ইচ্ছামত পরিবর্তন করতে পারবেন। 

👉 সেরা ১০ এন্ড্রয়েড ফটো এডিটিং অ্যাপ (ফ্রি)

অ্যাপটি ব্যবহার করে ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড কাটআউট সেভ করার পাশাপাশি ছবিতে স্ট্রোক দেওয়া যাবে। এছাড়াও ছবিতে শ্যাডো ও বিল্ট-ইন এডিটর ব্যবহার করে ছবি ইচ্ছে মত এডিট কিংবা টেক্সট এড করার সুবিধাও রয়েছে এই অ্যাপটিতে

ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করার ওয়েবসাইট

ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ বা পরিবর্তন করার অ্যাপ ও ওয়েবসাইট

মোবাইলে ফটো ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করার কিছু অ্যাপ সম্পর্কে তো আমরা জানলাম। এর পাশাপাশি শুধুমাত্র ফোনের অথবা কম্পিউটারের ব্রাউজার ব্যবহার করেই ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড ডিলিট থেকে শুরু করে পরিবর্তন পর্যন্ত করা সম্ভব।

Remove.bg ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করে খুব সহজেই ফটোর ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করা যাবে ও ট্রান্সপারেন্ট পিএনজি আকারে ছবি সেভ করা যাবে। এছাড়াও ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড কাটার পর ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করার কিংবা পরিবর্তন করার ফিচার রয়েছে ওয়েবসাইটটিতে।

ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করে ছবি এডিট করতে প্রথমে ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ এর জন্য ছবি আপলোড করুন। এরপর ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ হওয়ার পর Edit Image এ ক্লিক করুন। এরপর আপনি চাইলে উক্ত ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করতে পারবেন। এছাড়াও ওয়েবসাইটের দেওয়া ব্যাকগ্রাউন্ড কিংবা আপনার ফোন থেকে যেকোনো একটি ছবি ব্যাকগ্রাউন্ড হিসেবে ব্যবহার করে উক্ত ছবি সেভ করতে পারবেন।

👉 ভিপিএন কী? এটা কী কাজে লাগে?

এই ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করে ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ বা পরিবর্তন এর সুবিধা হলো যেকোনো ডিভাইস থেকেই এই টুলটি ব্যবহার করা যায়। আপনার ডিভাইস অ্যান্ড্রয়েড হোক বা আইফোন, ম্যাক হোক কিংবা উইন্ডোজ, যেকোনো ডিভাইসেই এই ওয়েবসাইট ব্যবহার করে খুব সহজেই ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ বা পরিবর্তন করা যাবে।

আপনি কি ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন বা রিমুভ করার জন্য কোনো অ্যাপ বা ওয়েবসাইট ব্যবহার করেছেন? সেটা কেমন কাজ করে? আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারেন কমেন্টের মাধ্যমে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,719 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.