হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্টের নিরাপত্তা বাড়ানোর উপায়

অন্যান্য মেসেজিং অ্যাপ এর তুলনায় হোয়াটসঅ্যাপ অধিক নিরাপদ বলে পরিচিত হলেও অজান্তেই হোয়াটসঅ্যাপ হ্যাক হয়ে যেতে পারে। বেশিরভাগ সময় আমাদের নিজেদের গাফিলতির কারণে হোয়াটসঅ্যাপ হ্যাক হয়ে থাকে। চলুন জেনে নেওয়া যাক হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্টের নিরাপত্তা বাড়ানোর উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত। 

টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন

টু ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন বা ভেরিফিকেশন বর্তমানে অনলাইন নিরাপত্তা নিশ্চিত করার সবচেয়ে কার্যকরী উপায়গুলোর মধ্যে শীর্ষে। হোয়াটসঅ্যাপেও “Two-step verification” ফিচারটি রয়েছে। হোয়াটসঅ্যাপ এর টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু করতেঃ

  • হোয়াটসঅ্যাপ সেটিংসে প্রবেশ করুন
  • Account অপশন সিলেক্ট করুন
  • “Two-step verification” সিলেক্ট করুন ও পরবর্তী ধাপে “Enable” অপশনে ট্যাপ করুন

স্ক্রিনে প্রদর্শিত নির্দেশনা অনুসরণ করে হোয়াটসঅ্যাপ টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু করুন। মনে রাখার মত একটি পাসকোড সেট করতে ভুলবেন না।

আনঅথোরাইজড ওয়েব লগিন

কেউ যদি আপনার অনুমতি ছাড়া আপনার ফোন অ্যাকসেস করে, তবে তারা হোয়াটসঅ্যাপ ওয়েব এর মাধ্যমে কম্পিউটারে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট কানেক্ট করে নিতে পারে। কেউ কম্পিউটারে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ দ্বারা লগিন করেছে কিনা তা জানতে হোয়াটসঅ্যাপে প্রবেশ করে থ্রি-ডট মেন্যু থেকে “Linked Devices’ অপশনে ট্যাপ করুন। এরপর সম্প্রতি করা সকল ওয়েব লগিন অপশন দেখতে পাবেন। অপরিচিত কোনো লগিন ডিভাইস দেখলে অপশনে ট্যাপ করে “Log Out” সিলেক্ট করুন।

ডিভাইস স্থানান্তর

আপনার মোবাইল চুরি হয়ে গেলে তৎক্ষণাৎ উক্ত হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট অন্য ফোনে স্থানান্তর করে দেওয়া উচিত৷ হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট স্থানান্তর করা বেশ সহজ। অন্য যেকোনো ফোনে একই নাম্বার দিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্টে সাইন ইন করলে আগের ফোনে থাকা হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্ট লগ আউট যাবে। অর্থাৎ কেউ আপনার ফোন চুরি করে ফেললেও হোয়াটসঅ্যাপে থাকা ব্যক্তিগত তথ্য নিরাপদ থাকবে।

সন্দেহজনক চ্যাট রিপোর্ট

অপরিচিত নাম্বার থেকে বিরক্তিকর মেসেজ আসলে সেক্ষেত্রে উক্ত ব্যক্তিকে রিপোর্ট করতে পারেন। কোনো রকমের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে এই ধরনের চ্যাট রিপোর্ট করা উচিত। কোনো চ্যাট রিপোর্ট করতে কনটাক্ট এর নাম এর উপর ট্যাপ করুন ও তারপর নিচের দিকে থাকা “Report” অপশনে ট্যাপ করুন। এছাড়া আপনি চাইলে উক্ত ব্যক্তিকে Block ও করতে পারবেন।

প্রাইভেসি সেটিংস

হোয়াটসঅ্যাপে কিছু প্রাইভেসি সেটিংস রয়েছে যা ব্যবহার করে হোয়াটসঅ্যাপে আপনার তথ্য কে দেখতে পাবেন তা ঠিক করতে পারবেন। এই প্রাইভেসি সেটিংস দ্বারা প্রোফাইল পিকচার ভিসিবিলিটি, এবাউট, স্ট্যাটাস, ও আরো অনেক কিছু সেট করা যায়। হোয়াটসঅ্যাপের সেটিংসে প্রবেশ করে Privacy মেন্যুতে প্রবেশ করলে উল্লেখিত সেটিংস সেট করতে পারবেন।

এড টু গ্রুপস

কেউ যাতে আপনাকে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে এড করতে না পারে তা সেট করা যাবে। সাধারণত এই সেটিংস বন্ধ করা থাকে, কিন্তু এটি চালু থাকলে যেকেউ আপনাকে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে এড করতে পারবে। এইসব গ্রুপের দ্বারা ফিশিং লিংক এর মাধ্যমে আপনার ক্ষতি হতে পারে।

এই ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত গ্রুপে এড হওয়া থেকে বাঁচতে চাইলে হোয়াটসঅ্যাপ সেটিংসে প্রবেশ করে Account > Privacy মেন্যুতে প্রবেশ করুন। এরপর “Who Can Add You to Groups” অপশন সিলেক্ট করে কে বা কারা আপনাকে গ্রুপে এড করতে পারবে তা সেট করা যাবে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

হোয়াটসঅ্যাপ একাউন্টের নিরাপত্তা বাড়ানোর উপায়

ব্লু টিক হাইড

কারো মেসেজ পড়ার পর যে উক্ত মেসেজ পাঠিয়েছে, সে তার নিজের ইনবক্সে ওই মেসেজের পাশে ব্লু টিক দেখতে পাবে। এখন আপনাকে যদি কেউ মেসেজ করে বিরক্ত করে, তাহলে তাদের মেসেজ পড়ার পর যাতে এই ব্লু টিক শো না করে তা সেট করতে পারবেন। এই ব্লু টিক হাইড না করলে আপনি কারো মেসেজ দেখলে বা ইগ্নোর করলেও সে জানতে পারবেনা। হোয়াটসঅ্যাপ সেটিংসে প্রবেশ করে Account > Privacy অপশনে প্রবেশ করে Read Receipts অপশন থেকে এই সেটিংস ঠিক করতে পারবেন।

👉 হোয়াটসঅ্যাপে অনলাইন স্ট্যাটাস লুকিয়ে রাখার উপায়

লাইভ লোকেশন শেয়ারিং

আপনার ফোনের অ্যাকসেস কারো কাছে থাকলে খুব সহজে তাদের নাম্বারের সাথে Live Location শেয়ার করে নিতে পারে, তাও আপনার অজান্তে। হোয়াটসঅ্যাপের এই লাইভ লোকেশন ফিচার দ্বারা অন্যদের সাথে রিয়েল-টাইম লোকেশন শেয়ার করা যায়।

আপনার লোকেশন কারো সাথে শেয়ার করা হয়েছে কিনা তা জানতে হোয়াটসঅ্যাপ সেটিংস থেকে Account > Privacy সিলেক্ট করুন। এরপর Live Location সিলেক্ট করলে যেসব কনটাক্টের সাথে লোকেশন শেয়ারিং চালু আছে তার তালিকা দেখতে পাবেন।

ডিসঅ্যাপিয়ারিং ফটো

কাউকে কোনো ছবি পাঠাতে চান, কিন্তু উক্ত ব্যক্তি যাতে তা সেভ করতে না পারে বা একাধিকবার দেখতে না পারে সে অপশনও রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপে৷ অর্থাৎ এই ছবি প্রাপক দেখার পরেই মুছে যাবে। হোয়াটসঅ্যাপে ডিসঅ্যাপিয়ারিং ফটো সেন্ড করতে ইমেজ সিলেক্ট করে সেন্ড বাটনের পাশে থাকা “1” যুক্ত আইকনে ট্যাপ করুন। এরপর উক্ত ফটো পাঠানোর পর যখন একবার দেখা হবে, এরপর মুছে যাবে।

হোয়াটসঅ্যাপে ডিসঅ্যাপিয়ারিং ছবির পাশাপাশি ডিসঅ্যাপিয়ারিং মেসেজ ও পাঠানো যায়। ডিসঅ্যাপিয়ারিং মেসেজ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিচে লিংক করা ডেডিকেটেড পোস্ট ঘুরে আসতে পারেন।

👉 হোয়াটসঅ্যাপে সমস্যা দেখা দিলে ঠিক করার উপায়

👉 হোয়াটসঅ্যাপে গোপনীয় মেসেজ অটো-ডিলিট করার উপায়

সন্দেহজনক লিংক

হোয়াটসঅ্যাপে আমরা যা কিছু দেখি, তার সবটুকু কিন্তু সত্য নয়। হ্যাকাররা ক্ষতিকর লিংকের মাধ্যমে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য চুরির চেষ্টা করতে পারে। আপনি যদি কোনো গ্রুপে বা কোনো অপরিচিত ব্যক্তি থেকে মেসেজে লিংক পেয়ে থাকেন, তবে উক্ত লিংকে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন। এই ধরনের লিংক এর মাধ্যমে অধিকাংশ ফিশিং অ্যাটাক সম্পন্ন হয়ে থাকে।

ওটিপি

ওটিপি বা ওয়ান টাইম পাসকোড হলো ফোন নাম্বার দ্বারা অধিকাংশ ইন্টারনেট একাউন্ট ভেরিফিকেশন এর মাধ্যম। তাই কখনো কারো সাথে আপনার ফোনে আসা ওটিপি শেয়ার করবেন না। বিশেষ করে হোয়াটসঅ্যাপ এর ক্ষেত্রে ফোনে আসা ওটিপি কোড হ্যাকারকে প্রদানের মাধ্যমে সে আপনার একাউন্টের অ্যাকসেস পেয়ে যাবে ও আপনার ডিভাইস থেকে উক্ত একাউন্ট লগ আউট হয়ে যাবে।

ফলে ঐ ব্যক্তি আপনার নাম করে অন্যদের সাথে প্রতারণা করতে পারে। আবার উক্ত একাউন্টে যদি ঐ হ্যাকার টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু করে, তবে আপনার সমস্যা আরো কয়েকগুণ বেড়ে যাবে। সুতরাং হোয়াটসঅ্যাপ হোক বা অন্য যেকোনো অ্যাপ, কখনো ওটিপি কারো সাথে শেয়ার করবেন না।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,060 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.