রিয়েলমি সি৩৩ এলো সুলভ দামে দুর্দান্ত ব্যাটারি নিয়ে

বাংলাদেশের বাজারে প্রায় প্রতি মাসেই কোনো না কোনো নতুন ফোন নিয়ে আসছে রিয়েলমি, তবে এর মধ্যে অধিকাংশ ফোন কম বাজেটের হয়ে থাকে। যেহেতু এই প্রাইস রেঞ্জে স্মার্টফোনের প্রতিযোগিতা সবচেয়ে বেশি তাই সবসময় কম দামে সেরা ফিচার প্রদানের চেষ্টা করে স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। আর এই প্রতিযোগিতায় সবচেয়ে এগিয়ে আছে রিয়েলমি।

এরই মধ্যে দেশের বাজারে আরো একটি বাজেট ফোন নিয়ে হাজির হয়েছে রিয়েলমি। কথা বলছি রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটিকে নিয়ে। এই পোস্টে ফোনটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানবেন।

রিয়েলমি সি৩৩ – ডিজাইন ও ডিসপ্লে

একটি বাজেট ফোন থেকে যে ধরনের ডিজাইন আশা করা যায়, রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটিতেও একই ডিজাইনের দেখা মিলবে। তবে বাজেট সেকশনের ফোনগুলোর ডিজাইন দিনদিন আগের চেয়ে ভালো হচ্ছে। তাই রিয়েলমি সি৩৩ এর ডিজাইন দেখে খুব কম বাজেটের ফোন বলে মনে হয়না কোনোভাবেই। তবে ফোনের ফ্রন্টে থাকা ওয়াটারড্রপ নচ ডিসপ্লে অধিকাংশ মানুষের অপছন্দ হবে যেহেতু বর্তমানে ডিসপ্লেতে নচের পরিবর্তে পাঞ্চ-হোল এর ব্যবহার অধিক।

প্লাস্টিক বডির ফোনটি দেখতে ভালোই আকর্ষণীয় ও ভালোভাবে তৈরি তা বুঝা যায়। তবে এই ডিজাইন তরুণ স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে অধিক ভালো লাগবে বলে আশা করা যায়। ফোনের ব্যাকে থাকা রিয়ার ক্যামেরা আলাদা আলাদা করে স্থান পেয়েছে যা ফোনটির দাম বিবেচনায় ডিজাইনে অনন্য মাত্রা যোগ করেছে। তবে ক্যামেরা লেন্সে কোনো প্রটেকশন না থাকায় কেস ব্যবহার করা বুদ্ধিমানের কাজ হতে পারে।

ফোনের সাইড প্যানেল ফ্ল্যাট হওয়ায় ধরতে বেশ গ্রিপ পাওয়া যাবে। ফোনের পাওয়ার ও ভলিউম বাটন বেশ কমফোর্টেবল পজিশনে রয়েছে। পাওয়ার বাটনে স্থান পেয়েছে ফোনের ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর। এবার কথা বলা যাক রিয়েলমি সি৩৩ এর ডিসপ্লে নিয়ে।

রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটিতে ৬.৫ইঞ্চি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে রয়েছে, যা দাম বিবেচনায় মানানসই কোয়ালিটির বলা চলে। যেহেতু এটি একটি বাজেট ফোন, তাই ডিসপ্লে সেকশনে কিছুটা হলেও কমপ্রোমাইজ থাকবেই। তবে এর চেয়ে কম দামের ফোন থেকে কেউ যদি এই ফোনে সুইচ করে তবে কমতি চোখে পড়ার কথা না।

পারফরম্যান্স

রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটিতে ইউনিসক টাইগার টি৬১২ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এই চিপসেট ইতিমধ্যে আমরা অন্যান্য রিয়েলমি ফোন, যেমনঃ রিয়েলমি সি৩০, রিয়েলমি নারজো ৫০এ প্রাইম, ইত্যাদি ফোনেও দেখেছি। এই চিপসেট এর পারফর্মেন্সকে অনেকটা মিডিয়াটেক এর হেলিও জি৮৫ এর সাথে তুলনা করা চলে।

যদিও এই চিপসেটযুক্ত ফোন রিয়েলমি সি৩৩ কোনোভাবেই একটি গেমিং ফোন নয়, তবে টুকটাক গেমিং এই ফোনে করা যাবে। তবে এখানে ৩জিবি র‍্যাম ও ৩২জিবি স্টোরেজ থাকায় ফোনটিতে মাল্টিটাস্ক করা কিছুটা গোলমেলে হয়ে যাবে। ফোনের র‍্যাম কম থাকায় মাঝেমধ্যে স্টার্টার ও ল্যাগ এর দেখা মিলতে পারে, যদিও এটাই স্বাভাবিক। তাই এই ফোনটি সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য অধিক উপযোগী বলা চলে।

রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটিতে অ্যান্ড্রয়েড ১২ ভিত্তিক রিয়েলমি ইউআই এস ব্যবহার করা হয়েছে। এই সফটওয়্যার রিয়েলমি ইউআই এর কাটছাঁট সংস্করণ, তবে রিয়েলমি ইউআই গো এর চেয়ে এখানে অনেক বেশি ফিচার রয়েছে। রিয়েলমি জানিয়েছে এই ফোনে কমপক্ষে দুইটি অ্যান্ড্রয়েড ওএস আপডেট ও তিন বছর সিকিউরিটি আপডেট প্রদান করা হবে।

ক্যামেরা

রিয়েলমি সি৩৩ এলো সুলভ দামে দুর্দান্ত ব্যাটারি নিয়ে

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটির প্রধান আকর্ষণ কিন্তু এর ৫০মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা। এছাড়া সাথে আরেকটি ০.৩মেগাপিক্সেল ডেপথ সেন্সর রয়েছে যা মূলত ডিজাইনের শোভা বাড়াতে রাখা হয়েছে। ফোনের ফ্রন্টে রয়েছে ৫মেগাপিক্সেল এর সেলফি ক্যামেরা।

এখানে ৫০মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা ভালো আলো পেলে চলনসই ছবি তুলতে পারবে। তবে অন্য সব বাজেট ফোনের মত এখানে পোর্ট্রেইট ছবির ব্লার কিছুটা আনন্যাচারাল লাগে। মাঝেমধ্যে এই ক্যামেরা সিনে থাকা অনেক বিষয়ের ডিটেইলস গুলিয়ে ফেললেও দাম হিসেবে এসব বিষয় মেনে নেওয়াই যায়।

অন্যদিকে ভিডিও সেকশনে সর্বোচ্চ ১০৮০পি রেজ্যুলেশনে রেকর্ড করা যাবে। ফ্রন্ট ক্যামেরা দ্বারা সর্বোচ্চ ৭২০পি রেজ্যুলেশনে ভিডিও করা যাবে, যা একটি ডাউনসাইড বলা চলে যেহেতু আজকাল সকল ফোনেই কমপক্ষে ১০৮০পি ভিডিও রেকর্ড এর ফিচার রয়েছে। রিয়েলমি সি৩৩ এর ফটোগ্রাফি পারফরম্যান্স ভালো হলেও ভিডিওতে বেশ পিছিয়ে থাকবে এই ফোনের ক্যামেরা। 

👉 রিয়েলমি মোবাইল দাম বাংলাদেশ

ব্যাটারি

রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটিতে ৫০০০মিলিএম্প এর ব্যাটারি রয়েছে। তবে ফোনের বক্সে ফাস্ট চার্জার না থাকার কারণে এই ফোনটি চার্জ করতে প্রায় তিন ঘন্টার কাছাকাছি সময় নেয় যা বর্তমান সময় বিবেচনায় বেশি। যেহেতু ফোনটিতে থাকা প্রসেসরটি বেশ পাওয়ার এফিসিয়েন্ট, তাই যেকোনো ধরনের ব্যবহারকারী ফোনটি থেকে দেড় থেকে দুই দিন ব্যাটারি ব্যাকাপ পেয়ে যাবেন।

দাম

রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটি শুধুমাত্র ৩জিবি র‍্যাম ও ৩২জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে দেশের বাজারে পাওয়া যাবে। তবে রিয়েলমি চাইলে এখানে অন্তত ৪জিবি র‍্য্যাম ও ৬৪জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্ট রাখতে পারতো যা ফোনটিকে অনেক নতুন ক্রেতার কাছে আকর্ষণীয় করতে পারতো। রিয়েলমি সি৩৩ ফোনটির দাম ১২,৯৯৯টাকা। দাম বিবেচনায় এই ফোনটিকে মাঝামাঝি মাত্রায় আকর্ষণীয় বলা যায়। মূলত এটি সাধারণ স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কথা চিন্তা করে তৈরি একটি ফোন। যারা ফোন কিনতে অনলাইনে গবেষণা করতে পছন্দ করেন, এই ফোন তাদের কতটুকু পছন্দ হবে তা সময়ই বলে দেবে।

আপনি কি এই ফোনটি কিনতে আগ্রহী? আপনার মতামত কমেন্টে জানান!

👉 ভিডিওঃ উড়োজাহাজ নিয়ে অবিশ্বাস্য কিছু তথ্য জানুন

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,611 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.