বিকাশ একাউন্টে টাকা আনার বিভিন্ন পদ্ধতি জানুন

বিকাশ একাউন্টে ব্যালেন্স যোগ করা যায় বিভিন্ন উপায়ে। বিকাশ ব্যালেন্সে অর্থ যোগ করতে ক্যাশ ইন করতে হয়। অর্থাৎ বিকাশ একাউন্টে টাকা ঢুকানোকে বলা হচ্ছে ক্যাশ ইন বা অ্যাড মানি। অপরদিকে, বিকাশ ক্যাশ আউট মানে হলো এজেন্ট বা এটিএম থেকে বিকাশ ব্যালেন্সকে নগদ টাকা হিসেবে বের করা। এজেন্ট, ব্যাংক, এমনকি কার্ড থেকেও বিকাশ একাউন্টে টাকা আনা যায়।

বিভিন্ন প্রয়োজনে বিকাশে টাকা আনার দরকার হতে পারে। বিকাশের মাধ্যমে বিভিন্ন বিল প্রদান কিংবা কেনাকাটার পেমেন্ট দেওয়া যায়। এছাড়া জরুরি মুহূর্তে থেকে সহজেই বিকাশ থেকে ক্যাশ আউট করে নগদ টাকা হাতে পাওয়া যায়। বিকাশে এড মানি বা ক্যাশ ইন এর অনেকগুলো উপায় রয়েছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক বিকাশ একাউন্টে টাকা আনার বিভিন্ন পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত।

এজেন্টের কাছ থেকে ক্যাশ ইন

বিকাশ একাউন্টে ক্যাশ ইন বা টাকা আনার সবচেয়ে প্রচলিত উপায় হলো এজেন্টের কাছ থেকে ক্যাশ ইন করা। এই পদ্ধতিতে এজেন্টের কাছে নির্দিষ্ট অর্থ প্রদান করলে উক্ত অর্থ বিকাশ একাউন্টে ক্যাশ ইন করেন এজেন্ট। বিকাশ এজেন্টের কাছ থেকে ক্যাশ ইন করতেঃ

  • যেকোনো বিকাশ এজেন্টের কাছে যান
  • এজেন্টকে জানান যে আপনি ক্যাশ ইন করতে চান
  • উল্লেখ্য যে ক্যাশ ইন এর পরিমাণ ৫,০০০টাকা বা তার বেশি হলে জাতীয় পরিচয়পত্র কার্ড বা এনআইডি কার্ড দেখাতে হতে পারে
  • এজেন্ট রেজিস্টারে আপনার বিকাশ একাউন্টের নাম্বার ও ক্যাশ ইন এর এমাউন্ট লিখুন
  • এরপর ক্যাশ ইন এর অর্থ এজেন্টকে প্রদান করুন
  • এরপর আপনার বিকাশ একাউন্টে অর্থ পাঠিয়ে দিবেন এজেন্ট

এভাবে খুব সহজে এজেন্টের কাছ থেকে বিকাশ ক্যাশ ইন করা যাবে। ক্যাশ ইন সম্পন্ন হওয়ার পর আপনি ও এজেন্ট, উভয়েই কনফার্মেশন এসএমএস পাবেন। বাড়তি কোনো ফি ছাড়া বিকাশ একাউন্টে ক্যাশ ইন করা যাবে এজেন্টের কাছ থেকে। কোনো এজেন্ট যদি ক্যাশ ইন করতে বাড়তি অর্থ দাবি করে, তবে বিকাশ হেল্পলাইন বা কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে যোগাযোগ করে অভিযোগ জানাতে পারেন। 👉 বিকাশ ক্যাশ আউট করার নিয়ম জানুন

সেন্ড মানি

বিকাশ একাউন্টে টাকা আনার আরেকটি উপায় হতে পারে অন্যের একাউন্ট থেকে সেন্ড মানি করা। অর্থাৎ অন্য বিকাশ একাউন্ট থেকে আপনার একাউন্টে টাকা পাঠানোর মাধ্যমে বিকাশ একাউন্টে টাকা আনা যাবে। এক্ষেত্রে পরিমাণভেদে সেন্ড মানি চার্জ প্রযোজ্য হতে পারে।

বিকাশে এক নাম্বার থেকে অন্য নাম্বারে সেন্ড মানি করতে ১০০ টাকার বেশি হলে ও ২৫০০০ টাকার কম হলে প্রতি লেনদেনে ৫টাকা চার্জ প্রযোজ্য। আবার ২৫,০০০টাকার বেশি সেন্ড মানির ক্ষেত্রে ১০টাকা ফি কাটবে। তবে বিকাশ প্রিয় নাম্বারের ক্ষেত্রে এই চার্জ ভিন্ন হয়ে থাকে। আবার ১০০টাকা বা তার কম টাকা সেন্ড মানি করলে কোনো ফি কাটবেনা, অর্থাৎ ফ্রিতে সেন্ড মানি করা যাবে।

👉 বিকাশ ক্যাশ আউট ও সেন্ড মানি খরচ কত?

👉 বিকাশ প্রিয় নাম্বার সেট করার নিয়ম

বিকাশ অ্যাপ বা বিকাশ মোবাইল মেন্যু থেকে সেন্ড মানি করা যাবে। অ্যাপ থেকে সেন্ড মানি করতে অ্যাপে প্রবেশ করে সেন্ড মানি অপশনে ট্যাপ করুন, যাকে পাঠাবেন তার নাম্বার ও টাকার পরিমাণ লিখার পর বিকাশ পিন দিয়ে সেন্ড মানি সম্পন্ন করুন।

এছাড়া বিকাশ মোবাইল মেন্যু দ্বারাও সেন্ড মানি করা যাবে। বিকাশ মোবাইল মেন্যু দ্বারা সেন্ড মানি করতেঃ

  • *247# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে প্রবেশ করুন
  • Send Money অপশন সিলেক্ট করতে 1 লিখে রিপ্লাই করুন
  • এরপর যে নাম্বারে সেন্ড মানি করতে চান উক্ত নাম্বার লিখে রিপ্লাই করুন
  • কত টাকা সেন্ড মানি করতে চান, তা লিখে রিপ্লাই করুন
  • এরপর বিকাশ পিন প্রদান করে সেন্ড মানি সম্পন্ন করুন

সেন্ড মানি সঠিকভাবে হয়ে গেলে সেন্ডার ও রিসিভার উভয়েই কনফার্মেশন এসএমএস এর মাধ্যমে তা জানতে পারবেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

বিকাশ একাউন্টে টাকা আনার বিভিন্ন পদ্ধতি জানুন

ব্যাংক টু বিকাশ

ব্যাংক থেকে বিকাশে খুব সহজে দ্রুত টাকা আনা যাবে। মূলত বিকাশ এর এড মানি অপশন ব্যবহার করে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর সাহায্যে বিকাশে টাকার আনার ফিচারটি ব্যবহার করা যায়। ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবহার করে বিকাশে টাকা আনতে প্রথমে বিকাশ একাউন্টকে বেনিফিসিয়ারি হিসেবে এড করতে হবে। এরপর খুব সহজে ব্যাংক থেকে বিকাশে টাকা আনা যাবে।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, অগ্রনী ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, মিডল্যান্ড ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, জমুনা ব্যাংক, ইবিএল স্কাই ব্যাংকিং, এসআইবিএল, সোনালী ব্যাংক সহ আরো অনেক ব্যাংকের ইন্টারনেট ব্যাংকিং সুবিধা ব্যবহার করে বিকাশে টাকা আনা যাবে।

👉 ব্যাংক থেকে বিকাশে টাকা নেয়ার পদ্ধতি

👉 বিকাশ থেকে ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠানোর উপায়

কার্ড টু বিকাশ 

লোকালি ইস্যু করা ভিসা কার্ড ও মাস্টারকার্ড থেকে বিকাশে টাকা আনার ব্যবস্থা রয়েছে। ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে বিকাশে টাকা আনা যাবে। এছাড়া টাকার আনার পর উক্ত কার্ড পরে ব্যবহারের জন্য সেভ করে রাখা যাবে ভিসা কার্ড থেকে এড মানি করলে।

👉 বিকাশ একাউন্টে ভিসা কার্ড ব্যবহারের নিয়ম ও সুবিধা (বোনাস সহ)

আবার মাস্টারকার্ড থেকে বিকাশ একাউন্টে এড মানি করা বেশ সহজ। যেকোনো ব্যাংক বা অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান (যেমনঃ লংকাবাংলা) থেকে মাস্টারকার্ড ডেবিট ক্রেডিট ও প্রিপেইড কার্ড ব্যবহার করে বিকাশে টাকা আনার সুব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ড থেকেও বিকাশে টাকা আনা যায়।

বিকাশে রেমিট্যান্স বা বৈদেশিক মুদ্রা আনা

বিকাশে বৈদেশিক মুদ্রা বা রেমিট্যান্সও আনা যায়। আপনার বিকাশ একাউন্টে বিদেশ থেকে কেউ চাইলে টাকা পাঠাতে পারবে। আবার আপনি নিজের ফ্রিল্যান্সিংয়ের অর্থ পেওনিয়ার অথবা ওয়াইজ এর মাধ্যমে বিকাশে আনতে পারবেন।

👉 বিদেশ থেকে বিকাশে টাকা পাঠানোর ও আনার উপায়

👉 পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার নিয়ম

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,636 other subscribers

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.