অ্যাপলের আর্থিক ফলাফলে বিনিয়োগকারীরা হতাশ

apple image shareটেক জায়ান্ট অ্যাপল তাদের অক্টোবর-জানুয়ারি প্রান্তিকের আর্থিক ফলাফল প্রকাশ করেছে। এতে কোম্পানিটির মুনাফায় তেমন কোন উন্নতি লক্ষ্য করা যায়নি। এবার অ্যাপলের ১৩.১ বিলিয়ন ডলার ফ্ল্যাট প্রফিট অর্জিত হয়েছে। আর এই খবর প্রচারের পর পরই মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারমূল্য ৯% কমে যায়।

সর্বশেষ কোয়ার্টারে আইফোন নির্মাতার আয় প্রত্যাশার চেয়ে কম হয়নি, তবে অ্যাপল এই বছরের সামনের দিনগুলোতে তাদের বিক্রয়ের পরিমাণ একটু কম আশা করছে। এখানেই মূল সমস্যাটি দেখা দিয়েছে। কেননা বিনিয়োগকারীরা অ্যাপলের পণ্য বিক্রয় হার কমে যাওয়ার আশঙ্কা শুনে ভীত হয়ে পড়েছেন।

অক্টোবর-জানুয়ারি প্রান্তিকে রেকর্ড ৫১ মিলিয়ন আইফোন ও ২৬ মিলিয়ন আইপ্যাড বিক্রি করেছে অ্যাপল। কোম্পানিটির সিইও টিম কুক এক স্টেটমেন্টে এজন্য সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। সেইসাথে ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠানটির সেলস রেভিনিউয়ের পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে যার পরিমাণ ৪২-৪৪ বিলিয়ন ডলার। কিন্তু বিনিয়োগকারীরা এর থেকেও বেশি প্রত্যাশা করছেন।

সম্প্রতি চায়না মোবাইলের সাথে চুক্তির ফলে চীনের বিশাল স্মার্টফোন বাজারে গভীরভাবে প্রবেশ করেছে অ্যাপল। আর এর সুফল হিসেবে বৃহত্তর চীন অঞ্চলে অ্যাপলের বিক্রয়ের অংক ২৯% বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বছর ডিসেম্বরে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক চায়না মোবাইলের সাথে ডিল সই করেছে অ্যাপল, যা শিল্প বিশ্লেষকদের দৃষ্টিতে একটি গুরুত্বপূর্ন আর্থিক প্রভাবক।

অ্যাপল জানিয়েছে, বাদ-বাকী এশিয়া প্যাসিফিক এলাকায় তাদের সেলস ৯% কমেছে এবং মুদ্রা বিনিময় হারে ওঠানামার কারণে মুনাফায় নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,421 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.