নগদ একাউন্টের দারুণ ৯টি সুবিধা ২০২৪

বাংলাদেশ ডাক বিভাগের মোবাইল আর্থিক সেবা নগদ। শীর্ষস্থানে থাকা মোবাইল আর্থিক সেবাদাতা কোম্পানি বিকাশের সাথে প্রতিযোগিতায় থাকা এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবা অসাধারণ সব সুযোগ সুবিধা প্রদান করছে। বিশেষ করে নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে নগদ এর সকল অফার ও সুবিধা ভালোভাবে ব্যবহার করা সম্ভব। দেখে নিন নগদ একাউন্টের ৯টি সুবিধা যা আপনার জানা দরকার।

একাউন্ট খোলা সহজ

দেশের যেকোনো মোবাইল অপারেটরে যেকোনো নাম্বারে বেশ সহজে নগদ একাউন্ট সেল্ফ রেজিস্ট্রেশন করা যাবে। ডাক বিভাগের সেবা হওয়ায় নগদ একাউন্ট তৈরী করার প্রক্রিয়া বেশ সহজ। মাত্র দুটি ধাপে পিন সেটাপ করে চালু করা যাবে নগদ একাউন্ট। নগদ ইউএসএসডি কোড *১৬৭# ডায়াল করে নগদ একাউন্ট খোলার এই সুবিধা উপভোগ করা যাবে।

আবার অ্যাপ ব্যবহার করেও নগদ একাউন্ট তৈরী করা বেশ সহজ। একাউন্ট খোলার পর এনআইডি কার্ড এর উভয় পাশ স্ক্যান করে কেওয়াইসি আপডেট করলেই নগদ একাউন্ট একটিভ হয়ে যায়।

সেন্ড মানি করা ফ্রি! (মাসে ৫টি)

নগদ অ্যাপ থেকে মাসে ৫টি যেকোনো এমাউন্টের সেন্ড মানি করা যাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। অর্থাৎ এক্ষেত্রে নগদ নাম্বার থেকে অন্য নগদ নাম্বারে টাকা পাঠাতে কোনো চার্জ প্রযোজ্য নয়। এর ফলে সেন্ড মানি খরচ এর বিষয়টি নিয়ে মাসে প্রথম ৫টি লেনদেনের ক্ষেত্রে ভাবার কোনো প্রয়োজন নেই নগদে সেন্ড মানি করার ক্ষেত্রে।

নগদ অ্যাপ থেকে সেন্ড মানি করতেঃ

  • নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে সেন্ড মানি সিলেক্ট করুন
  • যাকে সেন্ড মানি করতে চান, তার নগদ একাউন্টের ফোন নাম্বার ও টাকার পরিমাণ লিখুন
  • এক শব্দের একটি রেফারেন্স প্রদান করুন
  • নগদ পিন নাম্বার প্রদান করে সেন্ড মানি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন

তবে ৫টির পর প্রতি সেন্ড মানিতে ৫টাকা খরচ হবে।

👉 নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায়

ক্যাশ আউট চার্জ কম

নগদে ক্যাশ আউট চার্জ অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট, যেমন বিকাশ একাউন্ট থেকে কম। নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে ক্যাশ আউট করলে প্রতি হাজারে ১২.৫০ টাকা চার্জ প্রযোজ্য হয়। আবার ইউএসএসডি কোড ব্যবহার করে ক্যাশ আউট করলে সেক্ষেত্রে প্রতি হাজারে ১৫টাকা ক্যাশ আউট চার্জ কাটে। অন্য জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সাথে তুলনা করলে নগদ এর ক্যাশ আউট চার্জ কম বলা চলে।

ডিসকাউন্ট ও অফার

নগদে সবসময় বিভিন্ন ধরনের ডিসকাউন্ট ও অফার চলতে থাকে। পোস্টটি লেখার সময় চালু ছিল এমন কিছু উল্লেখযোগ্য নগদ অফার ও ডিসকাউন্ট হলোঃ

  • গ্রামীণফোন, রবি, এয়ারটেল, টেলিটক, বাংলালিংক এ মোবাইল রিচার্জে ৫০% পর্যন্ত ক্যাশব্যাক
  • NOVOAIR এ ১০% ডিসকাউন্ট
  • Go Zayaan এ ৬৫% পর্যন্ত ডিসকাউন্ট
  • চরকি স্ট্রিমিং সার্ভিসে সাবস্ক্রিপশনে ৫০% পর্যন্ত ডিসকাউন্ট
  • ওভাই এ নগদ পেমেন্টে ৩০% পর্যন্ত ইন্সট্যান্ট ক্যাশব্যাক
  • লংকা বাংলায় প্রথমবার বিল পেমেন্টে ১০% ক্যাশব্যাক

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

এসব অফার আর ডিসকাউন্ট এর পাশাপাশি নগদ অ্যাপে বিভিন্ন ধরনের নিয়মিত ডিল সম্পর্কে জানতে পারবেন। নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে টপ রাইট কর্নারে থাকা নোটিফিকেশন বেল এ ট্যাপ করলে চলমান অফারসমূহ সম্পর্কে জানতে পারবেন।

বিল পে এর ক্ষেত্রে সীমিত চার্জ

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর “বিল পে” সেবার মাধ্যমে বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি, ইন্টারনেট, টেলিফোন ও অন্যান্য অসংখ্য সার্ভিসের বিল পে করা যাবে সীমিত খরচে। আগে এটি ফ্রি ছিল।

আবার মোবাইল থেকেই বিল পেমেন্ট করার সুযোগ থাকায় লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করে বিল পেমেন্ট করতে হচ্ছেনা, যা অসাধারণ একটি সুবিধা। সরকারি বিভিন্ন সেবাসহ বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিলও নগদ এর মাধ্যমে প্রদান করা যাবে। খরচ জানতে এই পেজ দেখুন।

মুনাফা

নগদ একাউন্টের ব্যালেন্সের উপর যে মুনাফা বা সুদ পাওয়া যায়, এই বিষয়টি অনেক ব্যবহারকারীই জানেন না। নগদ ব্যালেন্স ১,০০০টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৩০০,০০০ টাকার জন্য মুনাফা পাওয়া যাবে। নগদ একাউন্টে প্রতি মাস শেষে নির্দিষ্ট ব্যালেন্স থাকলে বছর শেষে নির্দিষ্ট অংকের মুনাফা পাওয়া যাবে নগদ থেকে। নগদ ব্যালেন্সের উপর ভিত্তি করে মুনাফা পেতে নগদ একাউন্টের “মুনাফা” ফিচারটি চালু রাখতে হবে। তবে আপনি যদি এই সুদ বা ইন্টারেস্ট না নিতে চান তাহলে এটি বন্ধ করে রাখতে পারবেন।

👉 বিকাশ অফার

কোভিড-১৯ টেস্ট ফি প্রদান

কম খরচে কোভিড-১৯ টেস্ট এর ফি প্রদান করা যাবে নগদে। মাত্র ১০০টাকায় নগদে বিল পে করে কোভিড-১৯ টেস্ট করা যাবে। অন্যদিকে বিদশগামী যাত্রীগণ ১,৫০০টাকায় কোভিড-১৯ টেস্ট এর ফি প্রদান করতে পারবেন। অ্যাপ ও ইউএসএসডি কোড, উভয় উপায়ে কোভিড-১৯ টেস্ট এর ফি প্রধান করা যাবে।

উল্লেখ্য যে এই সেবাটি বর্তমানে শুধুমাত্র ঢাকা ও চট্টগ্রামে পাওয়া যাচ্ছে। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে এই সেবাটি পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে নগদ কতৃপক্ষ।

নগদ ইসলামিক একাউন্ট

ইসলামিক বিধিনিষেধ মেনে মোবাইল ব্যাংকিং করতে চান? নগদ ইসলামিক একাউন্ট এর কল্যাণে সে সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন যেকোনো নগদ গ্রাহক। খুব সহজে নগদ অ্যাপের একাউন্ট টাইপে ট্যাপ করে ইসলামিক একাউন্টে কনভার্ট করা যাবে।

নগদ ইসলামিক একাউন্টে উপরে উল্লেখিত মুনাফা ফিচারটি পাওয়া যাবে না। আবার সাধারণ অ্যাপ থেকেই নগদ এর সকল ফিচার ব্যবহারের সুযোগ থাকছে নগদ ইসলামিক একাউন্টে। নগদ ইসলামিক একাউন্টের পদমর্যাদা, লেনদেন সীমা, প্রযোজ্য ফি সাধারণ একাউন্টের মতোই উপভোগ করা যাবে।

👉 বিকাশ লোন নেওয়ার উপায়

নগদ অ্যাপ

নগদ অ্যাপ

নগদ এর সকল সেবার মধ্যে নগদ অ্যাপ এর কথা আলাদা করে না বললেই নয়। নগদ অ্যাপ এর ইউজার ইন্টারফেস অনেক সাবলীল। নগদ অ্যাপে প্রবেশ করলে সকল ফিচার সুন্দরভাবে সাজানো দেখতে পাবেন। অ্যাপের টপে ব্যালেন্স দেখার সুন্দর ফিচার রয়েছে।

অ্যাপ এর বোটম মেন্যুতে হোম, ট্রানজেকশন, পিপল, মাই নগদ নামের চারটি ট্যাব রয়েছে যেগুলোতে নগদ অ্যাপের প্রয়োজনীয় সকল তথ্য ও ফিচার রয়েছে। নগদ অ্যাপ এর ইউজার ইন্টারফেস এতোটাই বেসিক যে, যে কেউ প্রথমবার ব্যবহার করলেও নগদ অ্যাপ ব্যবহারে কোনো সমস্যা হবেনা।

আপনি কি নগদ ব্যবহার করেন? কেমন লাগে নগদের সেবাগুলো?

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,561 other subscribers

3 comments

  1. Paul Halder Reply

    আরো সম্প্রসারিত করুন।
    Uber, pathao, food delivery, super shop, school, college, university fees, credit card payment, more bank and insurance, Salary payment and many more.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *