ইতিহাসের “বৃহত্তম সাইবার আক্রমণে” বিশ্বব্যাপী ধীরগতির ইন্টারনেট

By -

slow internet for cyber attackঅনলাইন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, সাম্প্রতিক এক সাইবার আক্রমণে বিশ্বব্যাপী ওয়েব ব্যবহারকারীরা অপেক্ষাকৃত ধীরগতির ইন্টারনেট যোগাযোগের সম্মুখীন হয়েছেন। বিশেষজ্ঞরা আরও বলেছেন এধরনের আক্রমণ ইতিহাসের মধ্যে এবারই বৃহত্তম মাত্রায় সঙ্ঘটিত হল। নিউইয়র্ক টাইমস জানাচ্ছে, স্প্যাম প্রতিরোধকারী অলাভজনক সংস্থা স্প্যামহস এবং ডাচ ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি সাইবারবাংকারের মধ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দিলে উক্ত সমস্যার সূচনা হয়।

লন্ডন এবং জেনেভা ভিত্তিক স্প্যাম ফিল্টারিং গ্রুপ স্প্যামহস অস্থায়ীভাবে ডাচ হোস্টিং ফার্মটিকে ইমেইল স্প্যামার হিসেবে কালো তালিকাভুক্ত করে। এতে ক্ষুব্ধ সাইবারবাংকার ব্যবহারকারীরা প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে “ডিস্ট্রিবিউটেড ডিনাইয়াল অফ সার্ভিস বা ডি-ডস” আক্রমণ শুরু করে। এতে বিশ্বের বেশ কয়েকটি বড় বড় ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক এবং এক্সচেঞ্জ পয়েন্ট (উদাহরণস্বরূপ লন্ডন ইন্টারনেট এক্সেচেঞ্জ) বাধাগ্রস্ত হয়। উক্ত ঘটনায় স্প্যামহসের বিশ্বব্যাপী কাঠামো এবং ডোমেইন নেম সিস্টেমও আক্রান্ত হয় যা ১৯ মার্চ থেকে প্রায় এক সপ্তাহব্যাপী চলছিল। এক পর্যায়ে ৩০০ বিলিয়ন বিট/সেকেন্ড মাত্রায় ডি-ডস অ্যাটাক শুরু হয় যা (উক্ত আক্রমণের) এ পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে বড় রেকর্ড।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 1,261 other subscribers

সাইবারবাংকার শুধুমাত্র শিশু পর্নগ্রাফি এবং সন্ত্রাসী কার্যক্রমের সাথে সংশ্লিষ্টতা ছাড়া অন্য সব ধরনের প্রতিষ্ঠান/উদ্যোগকেই সার্ভিস দিয়ে থাকে। প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র দাবি করা একজন ব্যক্তি একটি বার্তায় বলেছেন, ‘স্প্যামহস তাদের অবস্থানের অপব্যবহার করছে। ইন্টারনেটে কী যাবে-কী যাবেনা সে বিষয়ে তাদেরকে সিদ্ধান্ত নিতে দেয়া উচিত নয়।’

এদিকে সাইবারবাংকারের সাথে সন্ত্রাসী চক্রের যোগসূত্র থাকার অভিযোগ তুলেছে স্প্যামহস।

একটি ডিজিটাল কনটেন্ট ফার্মের চিফ আর্কিটেক্ট প্যাট্রিক গিলমোর নিউইয়র্ক টাইমসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সাইবারবাংকার সম্বন্ধে বলেন, কোম্পানিটির “লোকগুলো আসলে পাগল হয়েছে। খোলাখুলি বলতে, তারা ধরা পরে গেছে। তারা মনে করে তাদেরকে স্প্যামিং করতে দেয়া উচিত।”

উল্লেখিত আক্রমণের খবর প্রথম প্রকাশ করে সিলিকন ভ্যালিতে অবস্থিত ইন্টারনেট নিরাপত্তা কোম্পানি ক্লাউডফ্লেয়ার। প্রতিষ্ঠানটি সাইবার হামলা প্রতিরোধ করতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত নিজেরাই আক্রমণের শিকার হয়েছিল। ক্লাউডফ্লেয়ার সিইও ম্যাথু প্রিন্স উক্ত হামলাকে “নিউক্লিয়ার বোম্বিং” এর সাথে তুলনা করেন।

প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

 

Comments

1 Comment to ইতিহাসের “বৃহত্তম সাইবার আক্রমণে” বিশ্বব্যাপী ধীরগতির ইন্টারনেট

Leave a Reply