ব্যবহারকারীদের মেসেজ গোপনে পড়ছে ফেসবুক

facebook-messenger-dd

ফেসবুকের জন্য এ বছরের শেষটা খুব একটা ভাল যাচ্ছেনা কেননা এটি যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবহারকারীদের অনুমতি ব্যতিত তাদের ব্যক্তিগত মেসেজ স্ক্যানিং বা খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখার কারনে আইনি ব্যবস্থার সম্মুখীন হবে বলে জানা গেছে যাতে জরিমানার ঝুঁকিও রয়েছে।

বিচারক ফিলিস হ্যামিল্টন মঙ্গলবার অকল্যান্ড, ক্যালিফোর্নিয়ার আদালতে আদেশ জারি করেন যে, ফেসবুককে অবশ্যই ব্যাবহারকারীদের গোপনীয়তা রক্ষার নীতি ভঙ্গের কারনে আইনি ব্যবস্থার সম্মুখীন হতে হবে।

ব্যবহারকারীদের প্রকৃতি অনুযায়ী তাদের ফেসবুক পাতাসমূহে বিজ্ঞাপন সরবরাহের জন্য তথ্য সংগ্রহের নিমিত্তে ফেসবুক গ্রাহকদের অগোচরেই তাদের মেসেজ পড়ছিল কোম্পানিটি। ফেসবুক দাবি করেছে তাদের এই কার্যক্রম ফেডারাল ইলেক্ট্রনিক্স কমিউনিকেশনের প্রাইভেসি আইনে মেসেজ স্ক্যানিংয়ের বিষয়টি তাদের সাধারন কার্যক্রমের অংশের মধ্যেই পড়ে।

অপর দিকে আদালত বলছে ফেসবুক এটা ব্যাখ্যা করেনি যে তাদের মেসেজ স্ক্যানিং কীভাবে “সেবা প্রদানকারীর সাধারন কার্যক্রমের অংশ” এর মধ্যে পরে।

এই মামলা দুই বছর আগে করা হয়েছে যেখানে ফেসবুক হেরে গেলে প্রতি ব্যবহারকারীর জন্য (যারা ব্যাক্তিগত ম্যাসেজিং সেবার মাধ্যমে লিংক গ্রহন করেছেন বা পাঠিয়েছেন) ১০,০০০ ডলার জরিমানা গুনতে হবে। এবং স্ক্যানিংও বন্ধ করতে হবে।

যেহেতু ফেসবুকের বেশীরভাগ আয় বিজ্ঞাপনের মাধমেই হয় তাই মনে করা হচ্ছে যে ফেসবুক আপ্রাণ চেষ্টা করবে এই মামলায় জিততে। এই মামলায় জেতা শুধু জরিমানা এড়াতেই নয় বরং ম্যাসেজ স্ক্যানিং চালিয়ে রাখা যাতে তারা টার্গেটেড মার্কেটিং এর স্বার্থে ব্যবহারকারীদের জন্য আরও সর্বাঙ্গীণ প্রোফাইল তৈরি করতে পারে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,949 other subscribers

Comments