নতুন উইন্ডোজ অ্যাপ ও সার্ফেস কম্পিউটার প্রকাশ করল মাইক্রোসফট

অ্যাপল ও গুগল এর মত টেক জায়ান্টগুলো সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ইভেন্টে তাদের নতুন প্রোডাক্ট ও প্রযুক্তি ঘোষণা করেছে। এবার এই তালিকায় যুক্ত হলো মাইক্রোসফট এর নাম। গতরাতে সারফেস ল্যাপটপ ৫, সারফেস প্রো ৯, সারফেস স্টুডিও ২+, এই নতুন প্রোডাক্টগুলো ঘোষণা করেছে মাইক্রোসফট। ব্র‍্যান্ড-নিউ মাইক্রোসফট ৩৬৫ অ্যাপের পাশাপাশি কিছু নতুন ওয়ার্ক-ফ্রম-হোম একসেসরিজও নিয়ে এসেছে মাইক্রোসফট। এছাড়া উইন্ডোজে আসছে অ্যাপল টিভি অ্যাপ। ব্যবহার করা যাবে অ্যাপল আইক্লাউড ফটোও! চলুন জেনে নিই মাইক্রোসফটের নতুন এসব পণ্য সম্পর্কে।

সারফেস ল্যাপটপ ৫

আগের জেনারেশনের সাথে তুলনা করলে বেশ কিছু পরিবর্তন চোখে পড়বে সারফেস ল্যাপটপ ৫ এ। তবে সেই আগের মত ১৩.৫ইঞ্চি ও ১৫ইঞ্চি সাইজে পাওয়া যাবে নতুন সারফেস ল্যাপটপ। ছোট সাইজের সারফেস ল্যাপটপ ৫ পাওয়া যাবে Sage ও Sandstone কালারে, এছাড়া Platinum ও Matte Black কালারেও পাওয়া যাবে উভয় সাইজের ভ্যারিয়েন্ট।

তবে পোর্ট এর ক্ষেত্রে কোন আপডেট থাকছেনা নতুন সারফেস ল্যাপটপে, এখানে পাবেন একটি ইউএসবি-এ পোর্ট, একটি ৩.৫মি.মি. হেডফোন জ্যাক, একটি সারফেস কানেক্ট পোর্ট, এবং একটি ইউএসবি-সি পোর্ট। থাকছে থান্ডারবোল্ট ৪ সাপোর্ট, যার ফলে ৪কে মনিটর কানেক্ট করা যাবে ও আরো ভালো স্পিডে বড় ফাইল ট্রান্সফার করা যাবে।

উভয় সাইজের নতুন সারফেস ল্যাপটপে ১২জেনারেশন ইন্টেল প্রসেসর রয়েছে – ১৩ইঞ্চি মডেল আই৫ ও আই৭, এবং ১৭ইঞ্চি মডেল শুধুমাত্র আই৭ প্রসেসর ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে। সারফেস ল্যাপটপ ৫ এর দাম শুরু ১,০০০ডলার থেকে।

সারফেস প্রো ৯

গতবছরের সারফেস প্রো ৮ মডেলে বেশ বড় আপগ্রেড আসে, উক্ত মডেলে ভালো ক্যামেরা, থান্ডারবোল্ট ৪ পোর্ট, স্লিম পেন ২ সাপোর্ট, ইত্যাদি ফিচার আসে। এবারের সারফেস প্রো ৯ মডেলে উক্ত ফিচারগুলোর পাশাপাশি আরো যোগ হয়েছে দুইটি ভার্সন থেকে নিজের পছন্দেরটি বেছে নেওয়ার সুযোগ। ১২জেনারেশনের আই৫ বা আই৭ প্রসেসর ভ্যারিয়েন্ট থেকে বেছে নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। থাকছে একটি ৫জি মডেল যা কোয়ালকম এর মাইক্রোসফট এসকিউ৩ চিপ দ্বারা চলবে। কয়েকটি কালারে ডিভাইসটি পাওয়া যাবে।

তবে মাইক্রোসফট জানিয়েছে ইন্টেল মডেলটি নিলে গত বছরের চেয়ে ৫০% অধিক শক্তিশালী পারফরম্যান্স ফেখা যাবে। তবে ৫জি মডেলে ব্যাটারি লাইফ অপেক্ষাকৃত ভাল। মাইক্রোসফট প্রদত্ত তথ্যমতে ৫জি ভ্যারিয়েন্ট ১৯ঘন্টা ব্যাটারি ব্যাকাপ প্রদান করে, যেখানে ইন্টেল ভ্যারিয়েন্ট ১৫.৫ঘন্টা পর্যন্ত টিকতে পারে। সারফেস প্রো ৯ এর দাম শুরু ১,০০০ডলার থেকে।

সারফেস স্টুডিও ২+

সারফেস টুডিও ২ বের করার প্রায় ৪ বছর পরে অবশেষে নতুন সারফেস স্টুডিও এর দেখা মিললো, নতুন মডেল এর নাম সারফেস স্টুডিও ২+। মূলত গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের জন্য অল-ইন-ওয়ান পিসি হিসাবে কাজ করবে এটি। বাহ্যিক দিক দিয়ে আগের ভার্সনের মত হলেও পোর্ট এর দিক দিয়ে আপগ্রেড এসেছে। এখানে পেয়ে যাবেন ৪টি ইউএসবি-সি/থান্ডারবোল্ট পোর্ট, দুইটি ইউএসবি-এ পোর্ট, হেডফোন জ্যাক ও ইথারনেট কানেক্টর। এছাড়া এক্সটার্নাল ডিসপ্লে সাপোর্ট রয়েছে যা দ্বারা ৬০হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ৩টি ৪কে ইউএইচডি মনিটির সাপোর্ট করবে সারফেস স্টুডিও ২+।

বড় পরিবর্তন এসেছে নতুন মডেলের হার্ডওয়্যারেও। ১১জেনারেশনের ইন্টেল কোর i7-11370H প্রসেসর ও Nvidia GeForce RTX 3060 গ্রাফিক্স কার্ড এর পাশাপাশি উইন্ডোজ ১১ প্রো দ্বারা চলবে সারফেস স্টুডিও ২+। মাইক্রোসফট প্রদত্ত তথ্যমতে ৫০% ফাস্টার সিপিউ পারফরম্যান্স ও ডাবল গ্রাফিক্স আউটপুট পাওয়া যাবে পূর্বের ডিভাইসের তুলনায়। স্টুডিও ২+ এর সাথে সারফেস পেন, সারফেস কিবোর্ড ও সারফেস মাউস বান্ডেল হিসেবে বিক্রি করবে মাইক্রোসফট। সারফেস স্টূডিও ২+ এর দাম শুরু হবে ৪,৫০০ডলার থেকে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

নতুন উইন্ডোজ অ্যাপ ও সার্ফেস কম্পিউটার উন্মোচন করল মাইক্রোসফট

👉 পিসির সাথে স্মার্টফোন যুক্ত করার নতুন অ্যাপ এলো

অন্যান্য একসেসরিজ

উল্লেখিত প্রোডাক্টগুলোর পাশাপাশি আরো কিছু প্রোডাক্ট ঘোষণা করেছে মাইক্রোসফট। চলুন বাকি প্রোডাক্টগুলো সম্পর্কে সংক্ষেপে জেনে নেওয়া যাক।

  • প্রেজেন্টার+: এই ব্লুটুথ ডিভাইসটি মাইক্রোসফট টিমস ব্যবহার করে প্রেজেন্টেশন দেখাতে ব্যবহার হবে। এটি ব্যবহার করে সাউন্ড মিউট ও আনমিউট করার পাশাপাশি মিটিং রুমেও জয়েন করা যাবে। ডেডিকেটেড বাটন দ্বারা মাইক্রোসফট টিমসে যেকোনো অ্যাকশন কাস্টমাইজ করা যাবে। প্রেজন্টার+ এর দাম ৮০ডলার।
  • অডিও ডকঃ মাইক্রোসফট অডিও ডকে রয়েছে ১৫-ওয়াট উফার ও ৮-ওয়াট ট্যুইটারস এর স্পিকার, মাইক্রোফোন ও একটি কম্পিউটার চার্জার যা একটি সুন্দর ডিজাইনের মধ্যে উপস্থাপন করা হয়েছে। চারটি পোর্টের পাশাপাশি রয়েছে দুইটি মনিটর কানেক্ট লরার সুবিধা। এছাড়াও নয়েস রিডাকশন সুবিধাযুক্ত মাইক রয়েছে। অডিও ডক এর দাম পড়বে ২৫০ডলার।
  • এডাপটিভ একসেসরিজঃ লিমিটেড মোবিলিটিযুক্ত মানুষদের সুবিধার্থে বেশ কিছু এডাপটিভ এসেসরিজও ঘোষনা করেছে মাইক্রোসফট। এর মধ্যে রয়েছে এডাপটিভ মাউস, প্রোগ্রামেবল বাটন ও কম্পিউটারের সাথে ওয়্যারলেসলি কানেক্ট করার জন্য একটি হাব।

মাইক্রোসফট ৩৬৫

শুধুমাত্র হার্ডওয়্যার নয়, সফটওয়্যার এর দিক দিয়েও নতুনত্ব নিয়ে এসেছে মাইক্রোসফট। মাইক্রোসফট ৩৬৫, মাইক্রোসফট এজ ও বিং এর মধ্যে এসেছে নতুন ক্রিয়েটর ফিচার। মাইক্রোসফট ৩৬৫ এ নতুন মাইক্রোসফট ডিজাইনার অ্যাপ রয়েছে যা গ্রাফিক্স, ইনভাইটেশন, ডিজিটাল পোস্টকার্ড, ইত্যাদি তৈরীতে ব্যবহার করা যাবে। ওপেনএআই এর DALL-E 2 দ্বারা চালিত এই অ্যাপ আপনার জন্য ছবি ও ডিজাইন জেনারেট করবে। এছাড়া এই ফিচার মাইক্রোসফট এজ এর সাথেও ইন্টিগ্রেটেড পাওয়া যাবে। ইমেজ ক্রিয়েটর এর নামে একই ধরনের একটি টুল এর অ্যাকসেস পাওয়া যাবে বিং এর ক্ষেত্রেও।

Clipchamp নামে একটি ভিডিও এডিটর যুক্ত হয়েছে যা উইন্ডোজ ১১ তে ব্রাউজারে ব্যবহার করা যাবে। ২০২১সালে এই কোম্পানিটিকে কিনে নেয় মাইক্রোসফট। মূলত ক্রিয়েটরদের প্রয়োজনীয় সকল টুল হাতের নাগালে এনে দিয়ে নিজেদের একটি আলাদা কাস্টমার বেস তৈরির দারুণ প্রচেষ্টায় নেমেছে মাইক্রোসফট।

👉 ভিডিওঃ উইন্ডোজ ১১ এর সেরা সুবিধা জানুন

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,636 other subscribers

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.