উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করার নিয়ম (নতুন ও পুরাতন পিসিতে)

গত ২৪ জুন ২০২১ তারিখ উইন্ডোজ ১১ এর ঘোষণা দেয় মাইক্রোসফট। বর্তমানে উইন্ডোজ ১১ এর স্টেবল বিল্ডে নিজেদের কম্পিউটার আপগ্রেড করতে পারবেন উইন্ডোজ ব্যবহারকারীগণ। “উইন্ডোজ ১০ হতে যাচ্ছে উইন্ডোজ এর সর্বশেষ সংস্করণ” – এমন ঘোষণার পর অদ্ভুতভাবেই উইন্ডোজ ১১ নিয়ে হাজির হয় মাইক্রোসফট। আর এই পোস্টে আমরা জানব উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করার নিয়ম।

উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল এর ক্ষেত্রে রয়েছে কিছু নির্দিষ্ট প্রয়োজনীয় সিস্টেম রিকোয়ারমেন্ট। তবে এসব না থাকলেও কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার পদ্ধতি স্বয়ং মাইক্রোসট সরবরাহ করছে। অর্থাৎ প্রায় যেকোনো কম্পিউটারে ইন্সটল করা যাবে উইন্ডোজ ১১।

এই পোস্টের আলোচ্য বিষয়সমুহঃ

  • কিভাবে উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড করবো?
  • কি কি নতুন ফিচার থাকছে উইন্ডোজ ১১ তে?
  • উইন্ডোজ ১১ কি ফ্রি?
  • উইন্ডোজ ১১ এর সিস্টেম রিকোয়ারমেন্ট
  • কম্পিউটার উইন্ডোজ ১১ সাপোর্ট করে কিনা তা চেক করার নিয়ম
  • উইন্ডোজ ১১ কিভাবে ইন্সটল করবো?
  • আনসাপোর্টেড কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার নিয়ম

উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড

আপনার পিসির “উইন্ডোজ আপডেট” সেকশনে যদি উইন্ডোজ ১১ এর আপডেট ইতিমধ্যে দেখতে পান, তাহলে উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড করার প্রয়োজন পড়বেনা। তবে মাইক্রোসফট যেহেতু উইন্ডোজ এর আপডেট বেশ ধীরে রোল আউট করে, তাই সব কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ এর আপডেট পৌঁছাতে বেশ সময় লাগতে পারে।

উইন্ডোজ ১১ ম্যানুয়ালি ডাউনলোড করার জন্য “Download Windows 11” শিরোনামের আলাদা একটি পেজ রেখেছে মাইক্রোসফট। এই পেজ থেকে একাধিক উপায়ে ডাউনলোড করা যাবে উইন্ডোজ ১১।

প্রথমত উইন্ডোজ ১১ ইন্সটলেশন অ্যাসিস্ট্যান্ট ডাউনলোড করে তার মাধ্যমে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করা যাবে। এছাড়াও ইউএসবি বা ডিভিডি ব্যবহার করে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার জন্য উইন্ডোজ ১১ ইন্সটলেশন অপশন রয়েছে। এবং উইন্ডোজ ১১ ডিস্ক ইমেজ (আইএসও ফাইল) ডাউনলোড করেও উইন্ডোজ ১১ সেটাপ দেওয়া যাবে।

উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড

অর্থাৎ উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড করে কম্পিউটারে ইন্সটল করার একাধিক কার্যকরী উপায় রেখেছে মাইক্রোসফট। যেকোনো ব্যবহারকারী তার সুবিধামত তার পছন্দের উপায়ে ইন্সটল করতে পারবেন উইন্ডোজ ১১। উইন্ডোজ ১১ সেটাপ দেওয়ার আগে অবশ্যই দরকারী ফাইলসমুহের ব্যাকাপ নিতে ভুলবেন না।

উইন্ডোজ ১১ এর নতুন ফিচারসমুহ

নতুন স্টার্ট মেন্যুর সাথে আরো বেশ কিছু নতুন ফিচার যুক্ত হয়েছে উইন্ডোজ ১১ তে। উইন্ডোজ ১১ তে যুক্ত হয়েছে আকর্ষণীয় উইজেট। এর পাশাপাশি উন্নত গেমিং এক্সপেরিয়েন্স পাওয়া যাবে উইন্ডোজ ১১ থেকে।

উইন্ডোজ ১১ এর ডিফল্ট টাস্কবার ও স্টার্ট মেন্যু এখন স্ক্রিনের মাঝখানে রয়েছে, এ খবর সবার জানা। এছাড়াও নতুন স্প্লিট উইন্ডো ভিউ এসেছে উইন্ডোজ ১১ তে। আলাদা ব্যবহারের জন্য আলাদা ডেস্কটপ সেটাপের সুযোগ রয়েছে। উইন্ডোজ ১১ এর সকল ফিচার সম্পর্কে বাংলাটেক এর ডেডিকেটেড পোস্টে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

👉 উইন্ডোজ ১১ এর নতুন ফিচার সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন

উইন্ডোজ ১১ এর দাম

ইতিমধ্যে যারা উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করছেন, তারা বিনামূল্যে উইন্ডোজ ১১ তে আপডেট করতে পারবেন। তবে ফ্রিতেই উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করতে পারবেন সকল কম্পিউটার ব্যবহারকারী।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

উইন্ডোজ ১১ এর আইএসও ফাইল বিনামূল্যে ডাউনলোড এর সুযোগ করে দিয়ে যে কারো জন্য উইন্ডোজ ১১ এর আসল কপি বিনামূল্যে ডাউনলোড ও ইন্সটল করার সুযোগ করে দিয়েছে মাইক্রোসফট। তবে উইন্ডোজ ১১ এর পুরো সুবিধা উপভোগ করতে পরবর্তীতে লাইসেন্স কি দিয়ে পুরোপুরি এক্টিভেট করে নিতে হবে।

উইন্ডোজ ১১ সিস্টেম রিকোয়ারমেন্ট

উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করার নিয়ম (নতুন ও পুরাতন পিসিতে)

উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার জন্য কিছু মিনিমাম সিস্টেম রিকোয়ারমেন্ট রয়েছে। উইন্ডোজ ১১ এর মিনিমাম সিস্টেম রিকোয়ারমেন্ট হলোঃ

  • প্রসেসরঃ ১গিগাহার্জ বা তার চেয়ে দ্রুত কমপক্ষে দুই কোর বিশিষ্ট ও ৬৪-বিট সাপোর্টেড প্রসেসর
  • র‍্যামঃ ৪জিবি
  • স্টোরেজঃ ৬৪জিবি
  • সিস্টেম ফার্মওয়্যারঃ ইউইএফআই, সিকিউর বুট ক্যাপাবল
  • টিপিএমঃ ট্রাস্টেড প্ল্যাটফর্ম মডিউল ২.০
  • গ্রাফিক্স কার্ডঃ ডাইরেক্ট এক্স ১২ বা আপডেটেড ভার্সজ, WDDM 2.0 ড্রাইভারসহ
  • ডিসপ্লেঃ ৭২০পি, ৮-বিট পার কালার চ্যানেল, কমপক্ষে ৯ইঞ্চি সাইজ
  • ইন্টারনেট কানেকশনঃ উইন্ডোজ ১১ ইন্সটলের পর প্রথমবার সেটাপের ক্ষেত্রে ইন্টারনেট এর সংযোগ থাকা আবশ্যক।

উইন্ডোজ ১১ কি আপনার কম্পিউটারে চলবে?

উইন্ডোজ ১১ সাপোর্ট করার জন্য কি কি সিস্টেম রিকোয়ারমেন্ট থাকা জরুরি, তা আমরা জানলাম। তবে লাইন বাই লাইন রিকোয়ারমেন্ট মিলানোর কোনো প্রয়োজন নেই। মাইক্রোসফট এর পিসি হেলথ চেক অ্যাপ ব্যবহার করেই খুব সহজেই জানা যাবে আপনার কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করা যাবে কি না।

👉 উইন্ডোজ ১১ আপনার পিসিতে চলবে কিনা জেনে নিন

মাইক্রোসফটের পিসি হেলথ চেকার যদি বলে যে আপনার পিসিতে উইন্ডোজ ১১ চলবেনা, তাতে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। উইন্ডোজ ১১ এর একটি কৌশলের মাধ্যমে যেকোনো উইন্ডোজ ১০ চালিত পিসিতে উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করা যাবে। বিস্তারিত জানতে এই পোস্টটি পড়তে থাকুন।

উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার নিয়ম

একাধিক উপায়ে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার সুযোগ দিয়েছে মাইক্রোসফট। আপনার কম্পিউটার যদি উল্লিখিত উইন্ডোজ ১১ সাপোর্ট চেক এর ক্ষেত্রে পাস করে যায়, তাহলে বেশ সহজেই উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করতে পারবেন। (পাস না করলে বিকল্প উপায়ও আছে। দুশ্চিন্তার কিছু নেই।)

চলুন জেনে নেওয়া যাক, উইন্ডোজ ১১ সাপোর্টেড কম্পিউটারে কিভাবে উইন্ডোজ ইন্সটল করবেন।

পদ্ধতি ১ঃ উইন্ডোজ ইন্সটলেশন অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্যবহার করে

উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার নিয়ম

আপনার পিসিতে ইনস্টল থাকা বর্তমান উইন্ডোজ ভার্সন থেকেই উইন্ডোজ ১১ তে আপগ্রেড করতে পারবেন। প্রথমেই উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে Windows 11 Installation Assistant এর নিচে থাকা Download Now বাটন চেপে ইন্সটলেশন অ্যাসিস্ট্যান্ট ডাউনলোড করুন।

ডাউনলোড করার পর ইন্সটলেশন অ্যাসিস্ট্যান্ট ওপেন করুন ও স্ক্রিনে প্রদর্শিত নিয়মে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করুন। এটা খুবই সহজ একটা প্রক্রিয়া।

পদ্ধতি ২ঃ ডিভিডি বা ইউএসবি (পেন ড্রাইভ) ব্যবহার করে

উইন্ডোজ ১১ ইন্সটলেশন মিডিয়া তৈরি

কোনো কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল এর জন্য বুট ফাইল তৈরি করতে প্রথমে উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে Create Windows 11 Installation Media এর নিচে থাকা Download Now বাটন ব্যবহার করে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল এর জন্য প্রয়োজনীয় টুলটি ডাউনলোড করুন।

এই টুল ব্যবহার করে খালি ডিভিডি বা ইউএসবি ড্রাইভে (পেনড্রাইভ) উইন্ডোজ ১১ এর বুটেবল কপি তৈরী করা যাবে। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে ইউএসবি ড্রাইভে কমপক্ষে ৮জিবি স্টোরেজ থাকার প্রয়োজন হবে।

স্ক্রিনে প্রদর্শিত উপায়ে মিডিয়া ক্রিয়েশন টুল ব্যবহার করে বুটেবল ইউএসবি বা ডিভিডি তৈরি করার পর যে কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করতে চান, সে কম্পিউটারে ইউএসবি ড্রাইভ বা ডিভিডি প্রবেশ করিয়ে উক্ত ডিভাইস রিস্টার্ট করুন।

এরপর কম্পিউটার চালু হওয়ার সময় যখন ম্যানুফ্যাকচারার এর লোগো প্রদর্শিত হবে, তখন বুট মেন্যুতে প্রবেশ করতে কিবোর্ড এফ১২ কি বা এফ২ কি চাপুন। উল্লেখ্য, বুট মেন্যুতে প্রবেশের নিয়ম পিসি/মাদারবোর্ড কোম্পানি ভেদে ভিন্ন হয়ে থাকে। কম্পিউটার চালু হলে স্ক্রিনে প্রদর্শিত নির্দেশনা অনুযায়ী বুট মেন্যুতে প্রবেশ করুন।

বুট মেন্যু প্রদর্শিত হওয়ার পর ইউএসবি ড্রাইভ বা ডিভিডি থেকে (আপনি যেটা তৈরি করেছেন আরকি) বুট করার অপশন সিলেক্ট করুন। এরপর উইন্ডোজ ১১ ইন্সটলার প্রদর্শিত হবে। স্ক্রিনে প্রদর্শিত নির্দেশনা অনুসরণ করে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল এর প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন।

আনসাপোর্টেড বা পুরাতন কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করার নিয়ম

windows 11 requirements

আপনার কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১১ সাপোর্ট করবে কিনা তা চেক করতে গিয়ে যদি  “This PC doesn’t currently meet Windows 11 system requirements” অথবা “The processor isn’t currently supported for Windows 11,” এই ধরনের লেখা দেখতে পান, তাহলে বুঝতে হবে উইন্ডোজ ১১ এর আদর্শ সিস্টেম রিকোয়্যারমেন্ট আপনার পিসিতে অনুপস্থিত। তবে তারপরেও আপনি বিশেষ উপায়ে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করতে পারবেন।

আগেই বলে নিচ্ছি, এই উপায়টি অবলম্বন করার পরামর্শ কিন্তু মাইক্রোসফট দেয়না। তাও এটা অনুসরণ করলে আপনার নিজের দায়িত্বেই করতে হবে। আর এভাবে ইনস্টল করলে ভবিষ্যতে আপনি উইন্ডোজ ১১ এর নিরাপত্তা ও ফিচার আপডেট নাও পেতে পারেন। এতে আপনি উইন্ডোজ ১১ এর কিছু সুবিধা ঠিকঠাক নাও পেতে পারেন।

উইন্ডোজ রেজিস্ট্রি এডিট করে খুব সহজেই উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করতে পারবেন আনসাপোর্টেড কম্পিউটারসমুহেও। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে আনসাপোর্টেড কম্পিউটারে তিন ধাপে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করবেন।

ধাপ ১ – উইন্ডোজ ১১ আইএসও ডাউনলোড

উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে Download Windows 11 Disk Image (ISO) এর নিচে থাকা ড্রপডাউন মেন্যু থেকে Windows 11 সিলেক্ট করে Download বাটনে ক্লিক করুন। এরপর প্রোডাক্ট ল্যাংগুয়েজ সিলেক্ট করে Confirm এ ক্লিক করার পর 64-bit Download এ ক্লিক করুন।

এরপর ৫.১জিবির আইএসও ফাইলটি ডাউনলোড হবে। ফাইলটি ডাউনলোড হতে হতে চলুন আমরা প্রয়োজনীয় সেটিংসমুহ ঠিক করে নেই।

ধাপ ২ – বর্তমান পিসির উইন্ডোজ রেজিস্ট্রি এডিট

আপনার পিসিতে বর্তমানে যে উইন্ডোজ সেটআপ দেওয়া আছে সেটির রেজিস্ট্রি এডিট করেই উল্লিখিত কৌশল করতে হবে। এজন্য উইন্ডোজ Start মেন্যুতে ক্লিক করে regedit টাইপ করে Registry Editor ওপেন করুন। এরপর Computer\HKEY_LOCAL_MACHINE\SYSTEM\Setup\MoSetup এই এড্রেস কপি-পেস্ট করে কিংবা ন্যাভিগেট করে প্রবেশ করুন।

এছাড়াও ক্রমান্বয়ে এই সিরিয়াল অনুসরণ করে স্ক্রিনের ডানদিকে দেখানো অপশনসমুহ সিলেক্ট করেও একই অ্যাড্রেসে প্রবেশ করতে পারবেনঃ Computer > HKEY_LOCAL_MACHINE > SYSTEM > Setup > MoSetup

windows registry editor windows 11 patch

এরপর বামদিকের প্যানেলে রাইট মাউস বাটন ক্লিক করে New সিলেক্ট করে DWORD (32-bit) Value তে ক্লিক করুন। এরপর Value Name বক্সে লিখুন  “AllowUpgradesWithUnsupportedTPMOrCPU” ও Value Data বক্সে 1 লিখে OK চাপুন এবং Registry Editor ক্লোজ করে দিন। উপরের স্ক্রিনশট দেখুন।

ধাপ ৩ – উইন্ডোজ ১১ সেটাপ

আইএএসও ফাইল ডাউনলোড করা শেষ হলে ফাইলটির ওপর রাইট ক্লিক করে Open with থেকে Windows Explorer সিলেট করুন। আপনার কোনো ইউএসবি স্টিক কিংবা ডিভিডি তৈরি করতে হবেনা। উইন্ডোজ ১১ আইএসও ফাইলটি উইন্ডোজ এক্সপ্লোরারের সাহায্যে ওপেন করলে ভার্চুয়াল ডিস্ক হিসেবে ফাইলটি ওপেন হবে। এরপর ডাবল ক্লিক করে উইন্ডোজ ১১ সেটাপ ফাইল ওপেন করে ইন্সটলেশন প্রসেস শুরু করুন।

রেজিস্ট্রি এডিটরে করা পরিবর্তন যদি সফল হয়, তবে উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল করার ক্ষেত্রে রিজেকশন মেসেজ এর পরিবর্তে একটি ওয়ার্নিং মেসেজ পাবেন। এরপর স্ক্রিনে প্রদর্শিত নির্দেশনা অনুসরণ করে সহজেই উইন্ডোজ ১১ ইন্সটল এর প্রক্রিয়ায় প্রবেশ করতে পারবেন।

আপনি কি উইন্ডোজ ১১ ব্যবহার করছেন? আপনার অভিজ্ঞতা কমেন্টে জানান!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,720 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.