উইন্ডোজ ১১ এর লুকানো থিম চালু করার উপায়

মাইক্রোসফট প্রতিবার তাদের নতুন অপারেটিং সিস্টেম বাজারে আনার সময় নতুন নতুন থিম নিয়ে আসে ব্যবহারকারীদের জন্য। এসব নতুন থিম আপনার কম্পিউটার বা পিসির সৌন্দর্য যেমন বাড়ায় তেমনি নিজের মতো করে নতুন কোনো লুক দিতেও সাহায্য করে থাকে। এই থিম ব্যবহার করে আপনি নতুন রঙ, নতুন সাউন্ড ইত্যাদি সেট করে নিতে পারবেন। মাইক্রোসফট তাদের অপারেটিং সিস্টেমের সাথেই ডিফল্টভাবে কিছু থিম দিয়ে দেয়। এছাড়াও বাড়তি থিম আপনি চাইলে উইন্ডোজ স্টোর থেকে ইনস্টল করে নিতে পারেন।

উইন্ডোজ ১১ এ মাইক্রোসফট এই নতুন থিমের ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে। পুরো থিমিং সিস্টেমকে নতুনভাবে সাজানোর সাথে সাথে বেশ কিছু নতুন থিম যুক্ত করেছে অপারেটিং সিস্টেমে। বর্তমানে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ১১ তে ৬ টি ডিফল্ট থিম দিয়ে রাখে। অর্থাৎ অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে থিম সেকশনে এই থিমগুলো চাইলেই আপনি সিলেক্ট করে ব্যবহার করতে পারবেন।

তবে কিছুদিন আগে নতুন একটি আপডেটের মাধ্যমে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ১১ তে নতুন আরো কিছু থিম যোগ করেছে। এই থিমগুলো শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১১ এডুকেশনে আপডেটের পর পরই চলে আসছে। বাকি উইন্ডোজ ১১ ভার্সনে এই থিমগুলো মাইক্রোসফট লুকিয়ে রেখেছে। তবে চাইলেই আপনি লুকানো থিমগুলো এনাবল করে নিতে পারেন। আমাদের পোস্টে সেসব নতুন থিমগুলো কীভাবে পাবেন সেটির উপায় নিয়েই আমরা জানবো।

কী কী দরকার হবে?

এই থিমগুলো শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১১ এর জন্য। তাই আপনার পিসিতে অবশ্যই উইন্ডোজ ১১ অপারেটিং সিস্টেমে থাকতে হবে। না থাকলে এই অপারেটিং সিস্টেমে আপডেট করে নিন বা নতুন করে ইনস্টল করে নিন। তবে শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১১ তে থাকলেই হবে না, এর লেটেস্ট ভার্সন দরকার হবে আপনার। উইন্ডোজ ১১ এর জন্য সর্বশেষ বড় আপডেট এনেছে মাইক্রোসফট ২২এইচটু নামে। আপনাকে উইন্ডোজ ১১ এর এই ভার্সনে থাকতে হবে।

সেটিংস হতে ‘About PC’ সেকশন থেকে উইন্ডোজ ভার্সন জেনে নিতে পারবেন। যদি আপনি লেটেস্ট এই ভার্সনে না থাকেন তবে Settings > Windows Update > Check for updates হতে লেটেস্ট ভার্সনে আপডেট করে নিন। এছাড়া আপনি মাইক্রোসফট ওয়েবসাইট হতে প্যাকেজ নামিয়েও এই আপডেট করে ফেলতে পারেন। এখান থেকে প্যাকেজটি ডাউনলোড করে নিন। ম্যানুয়ালি ইনস্টল করার আগে আপনার অপারেটিং সিস্টেম ব্যাকাপ করে নিন।

যেভাবে পাবেন লুকানো থিম

মূলত মাইক্রোসফট তাদের এডুকেশন ইউজারদের জন্য এই নতুন থিমগুলো এনেছে যার নাম দেয়া হয়েছে ‘এডুকেশন থিমস’। এডুকেশন ইউজারদের জন্য আনা হলেও এই থিমগুলো সকল 22H2 আপডেটের মধ্যেই দিয়ে দেয়া হয়েছে। এডুকেশন সিস্টেম ছাড়াও তাই এই থিমগুলো পাওয়া যাচ্ছে রেজিস্ট্রি ফাইল এডিট করে নিলেই। তাই আপনি যদি এডুকেশন ভার্সনের ব্যবহারকারী না হয়ে থাকেন তবে নিচের উপায়ে রেজিস্ট্রি এডিটের মাধ্যমে এই থিমগুলো বের করে নিন।

প্রথমেই আপনাকে রেজিস্ট্রি এডিটর ওপেন করে নিতে হবে। সার্চবক্সে ‘regedit’ টাইপ করলেই এটি পেয়ে যাবেন। এছাড়াও কীবোর্ডে Windows+R কী চেপে রান চালু করে ‘regedit’ টাইপ করলেও এই এটি ওপেন হবে।

এবার রেজিস্ট্রি এডিট করার পালা। রেজিস্ট্রি এডিট করার সময় অবশ্যই সতর্ক থাকবেন। এটি উইন্ডোজের সিস্টেম থেকে বিভিন্ন ফাংশন পরিবর্তন করে ফেলে। তাই ভুল এডিট আপনার পিসি ব্যবহারে বড় রকমের সমস্যাও তৈরি করতে পারে। তাই সতর্ক হয়ে পরবর্তী কাজগুলো করুন।

রেজিস্ট্রি এডিটর ওপেন হলে বাম পাশের পেন হতে HKEY_LOCAL_MACHINE > Software > Microsoft > PolicyManager > current > device এখানে গিয়ে রাইট ক্লিক করুন। New > Key এটি সিলেক্ট করুন। এই কীয়ের নাম দিন ‘Education’। এবার এই কীয়ের উপর রাইট ক্লিক করে New > DWORD (32-bit) Value সিলেক্ট করুন এবং এটার নাম দিন ‘EnableEduThemes’ । আবারও এটির উপর রাইট ক্লিক করে সিলেক্ট করুন ‘Modify’ এবং ভ্যালু 1 সেট করে ‘OK’ ক্লিক করুন। রেজিস্ট্রি এডিটের কাজ হয়ে গেছে। আবারও ভালোভাবে চেক করে নিন উপরের নির্দেশনা সঠিকভাবে অনুসরণ করেছেন কিনা।

এবার এই পরিবর্তনগুলো এনাবল করতে আপনার পিসি একবার রিস্টার্ট করতে হবে। পিসি আবার চালু হলে উইন্ডোজ এই নতুন থিমগুলো ইনস্টল করতে কিছুটা সময় নেবে। তাই কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। এরপর Settings > Personalization এ চলে যান। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আপনি নতুন কিছু থিম এখানে দেখতে পাবেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

উইন্ডোজ ১১ এর লুকানো থিম চালু করার উপায়
উইন্ডোজ ১১ থিম সেটিংস

যেটি আপনার পছন্দ হয় সেটি এখন চাইলে ব্যবহার করতে পারবেন।

উইন্ডোজ ১১ এডুকেশন থিম ওয়ালপেপার ১
উইন্ডোজ ১১ এডুকেশন থিম ওয়ালপেপার

👉 উইন্ডোজের জন্য ফ্রি কিছু অ্যাপ যা আপনার কাজে লাগবে

এই পদ্ধতিতে আপনার পিসির আর কিছুই পরিবর্তন হবে না। শুধুমাত্র লুকানো থিমগুলো সেটিংসে যোগ হয়ে যাবে। আপনাকে আর কিছুই করবার দরকার পড়বে না।

উইন্ডোজ ১১ এডুকেশন থিম ওয়ালপেপার ২
উইন্ডোজ ১১ এডুকেশন থিম ওয়ালপেপার

চাইলে সমস্ত রেজিস্ট্রির একটি ব্যাকাপ রেখে দিতে পারেন এডিট করার আগে। এতে আপনার পুরো সিস্টেমকে পুনরায় আগের মতো করে ফেলতে পারবেন সহজেই। এই কাজের জন্য অন্য কোনো রেজিস্ট্রি ভ্যালু পরিবর্তন করা থেকে বিরত থাকুন। এতে সমস্যায় পড়তে পারেন। এভাবেই লুকানো থিমগুলো ব্যবহার করতে পারবেন যেকোনো উইন্ডোজ ১১ পিসিতে।

👉 ভিডিওঃ উইন্ডোজ ১১ এর সেরা সুবিধা জানুন

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,832 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.