উইন্ডোজের সাথে কী এমন শত্রুতা অ্যাপলের?

By -

টেক্সচারকে বলা হয় “ম্যাগাজিনের নেটফ্লিক্স”। সাশ্রয়ী মূল্য ও যেখানে-সেখানে, যখন-তখন পড়া যায় বলে এই সার্ভিসটি খুবই জনপ্রিয়তা পেয়েছে। নেক্সট ইস্যু মিডিয়া কোম্পানির জনপ্রিয় ম্যাগাজিন সাবস্ক্রিপশন সার্ভিস টেক্সচার। মোবাইল ও ডেস্কটপ অ্যাপ ব্যবহার করে মাসিক নির্দিষ্ট অর্থের বিনিময়ে এখানে অনলাইনে ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক, ফরচুন সহ ২০০টিরও অধিক জনপ্রিয় আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন পড়া যায়।

এই জনপ্রিয়তা থেকেই গত মার্চে অ্যাপল টেক্সচারকে কিনে নিয়েছে। যদিও এখনো এটা নেক্সট ইস্যু মিডিয়ার নামেই চলছে। খুব বড় কোন ডিল না হওয়াতে প্রযুক্তি বিশ্বেও এটা নিয়ে খুব বেশি হৈচৈ শোনা যায়নি।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 2,221 other subscribers

কিন্তু হঠাত করেই টেক্সচার এর উইন্ডোজ অ্যাপ বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণায় বিতর্কের সৃষ্টি হয়। ধারণা করা হচ্ছে গ্রাহকদেরকে উইন্ডোজ প্ল্যাটফর্ম থেকে সরিয়ে অ্যাপলের ইকোসিস্টেমে নিয়ে আসার জন্যই অ্যাপল এটা করছে।

একে উইন্ডোজের প্রতি অ্যাপলের বিরূপ মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ হিসেবেও দেখছেন কেউ কেউ। কারণ টেক্সচার এর কোনো ওয়েব ভার্সন নেই। তাই উইন্ডোজ অ্যাপ বন্ধ করে দিলে টেক্সচারের উইন্ডোজ অ্যাপ ব্যবহারকারী গ্রাহকদেরকে টেক্সচার পড়ার জন্য অবশ্যই অন্য কোন ডিভাইস বা প্ল্যাটফর্মে শিফট করতে হবে। যদিও এন্ড্রয়েড ও অ্যামাজনের ফায়ার ওএস এর জন্য টেক্সচার অ্যাপ এর সার্ভিস বন্ধ হচ্ছে না।

তাছাড়া টেক্সচার উইন্ডোজ অ্যাপটি অনেকদিন ধরে কোনো আপডেটও পাচ্ছেনা।

তবে টেক্সচার অফিশিয়ালি তাদের গ্রাহকদেরকে জানিয়েছে যে, সবকিছু ঠিকঠাক রাখতেই তাদেরকে উইন্ডোজ অ্যাপ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে। বরাবরের মতোই অ্যাপল এই ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে নারাজ।

অ্যাপল-মাইক্রোসফটের টক-মিষ্টি সম্পর্কের গল্প ভীষণ পুরোনো। বিল গেটসের বাসায় কোনো অ্যাপল পণ্য ব্যবহৃত হয়না, এ কথা হয়ত আপনি এর আগেও শুনেছেন। বিভিন্ন সময়ে অ্যাপল-মাইক্রোসফটের এরকম সম্পর্ক নিয়ে বিভিন্ন ট্রল তৈরি হয়েছে। মাইক্রোসফট নিজেও অ্যাপল আইফোন সম্পর্কে মানুষের ক্রেজ নিয়ে মজার একটি ভিডিও বানিয়েছিল।

অ্যাপল সিইও টিম কুক একবার দ্যা টেলিগ্রাফের সাথে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ডেস্কটপ ও নোটবুক কম্পিউটারের দিন ফুরিয়ে এসেছে। এখন আপনার আর পিসি (PC বলতে সাধারণভাবে অনেকে উইন্ডোজ কম্পিউটারকে বুঝিয়ে থাকেন) কেনার দরকার নেই, বরং অ্যাপলের আইপ্যাড প্রো দিয়েই কম্পিউটারের কাজ চালাতে পারবেন।

সমসাময়িক কোম্পানি অ্যাপল-মাইক্রোসফটের মাঝে প্রচুর প্রতিদ্বন্দ্বিতা বিদ্যমান। মাইক্রোসফটের নিজেদের অফিস সফটওয়্যার ও অফিস ৩৬৫ এর মতো সার্ভিসগুলো অ্যাপলের সবধরনের ডিভাইসেই নিয়মিত সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে অ্যাপলও তাদের জনপ্রিয় আইটিউনস অ্যাপ মাইক্রোসফটের স্টোরে উন্মুক্ত করেছে। এখনও উভয় কোম্পানিরই একে অপরের ডিভাইস-সাপোর্টেড একাধিক অ্যাপস রয়েছে। তাহলে টেক্সচার উইন্ডোজ অ্যাপের সাথে অ্যাপলের এই আচরণ কেন?

     
প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Comments