উইন্ডোজ ৭ সাপোর্ট বন্ধ করছে মাইক্রোসফট – করণীয় জানুন

উইন্ডোজ ৭ বেশ সুপরিচিত একটি উইন্ডোজ ভার্সন যা মুক্তির এত বছর পরেও এখনো আমাদের দেশে এবং বিশ্বব্যাপী প্রচুর পরিমাণে ব্যবহার হচ্ছে। তবে দুঃখের বিষয় হলো অবশেষে উইন্ডোজ ৭ এর জন্য সাপোর্ট এর অবসান ঘোষণা করেছে মাইক্রোসফট। এতদিন Windows 7 এর জন্য প্রয়োজনীয় সিকিউরিটি আপডেটগুলো প্রদান করে যাচ্ছিলো মাইক্রোসফট, যার ফলে পুরোনো অপারেটিং সিস্টেমে কোনো ধরনের দূর্বলতা মোকাবেলা হয়েছে।

২০ জানুয়ারী, ২০২০ তারিখেই উইন্ডোজ ৭ এর জন্য সাপোর্ট শেষ এর ঘোষণা দেয় মাইক্রোসফট। তবে জানুয়ারি ২০২৩ পর্যন্ত এক্সটেনডেড সিকিউরিটি আপডেট প্রদানের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় যা এবার শেষ হতে চলেছে। উইন্ডোজ ৭ মুক্তি পায় ২০০৯ সালে। মুক্তির ৫বছর পর ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে লাইফ অফ সাপোর্ট শেষ হয় এই সফটওয়্যার ভার্সনের, আরো ৫বছর পর এক্সটেনডেড সাপোর্টও শেষ করার ঘোষণা দেয় মাইক্রোসফট। এক্সটেনডেড সিকিউরিটি আপডেট ছিলো পুরোনো কম্পিউটারে লিগ্যাসি মাইক্রোসফট প্রোডাক্ট ব্যবহারের একমাত্র উপায়।

তবে শুধুমাত্র উইন্ডোজ ৭ নয়, একই সাথে উইন্ডোজ ৮ ও ৮.১ এর সাপোর্ট এর অবসান ঘটেছে মাইক্রোসফট এর ঘোষণার মাধ্যমে। তবে উইন্ডোজ ৮ ব্যবহারকারীগণ এখনো এক্সটেনডেড সফটওয়্যার আপডেট প্রোগ্রাম এর অংশ হিসেবে প্রয়োজনে আপডেট রিসিভ করবে।

উইন্ডোজ ৭ সাপোর্ট শেষ হলে পুরোনো কম্পিউটারের কি হবে?

উইন্ডোজ ৭ ব্যবহারকারীদের মধ্যে যদি আপনিও একজন হয়ে থাকেন, তবে সময় চলে এসেছে আপনার পুরোনো সিস্টেমকে বিদায় জানানোর ও আপগ্রেড করার। লেটেস্ট সিকিউরিটি আপডেট পেতে ও ক্রোম ব্যবহার চালিয়ে যেতে উইন্ডোজ ৭ চালিত আপনার পুরোনো কম্পিউটার উইন্ডোজ ১০ বা উইন্ডোজ ১১ তে আপডেট করতে হবে।

ক্রোম ১১০ পরবর্তী মাসে আসতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে গুগল ও ক্রোম ১০৯ হতে যাচ্ছে শেষ ভার্সন যা উইন্ডোজ ৭, ৮ ও ৮.১ এ চলবে। এর মানে হলো উল্লেখিত অপারেটিং সিস্টেমে ক্রোমের নতুন ভার্সন কাজ করবেনা। তবে এর চেয়েও বড় সমস্যা হলো উইন্ডোজ ৭ চালিত ডিভাইসগুলো বর্তমানে ম্যালওয়্যার অ্যাটাক এর সবচেয়ে বড় ঝুঁকিতে রয়েছে।

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ৭ ব্যবহারকারীদের উইন্ডোজ ১০ এ আপগ্রেড করার পরামর্শ জানিয়েছে। মাইক্রোসফট এর মতে অধিকাংশ উইন্ডোজ ৭ চালিত ডিভাইসে উইন্ডোজ ১১ এর আপগ্রেড আসবে, তবে চাইলে ব্যবহারকারীগণ উইন্ডোজ ১০ কিনে সফটওয়্যারটির সম্পুর্ন ভার্সন ইন্সটল করতে পারবেন। আবার এদিকে উইন্ডোজ ১০ এর সাপোর্ট শেষ হতে যাচ্ছে অক্টোবর ১৪, ২০২৫ এ, তাই আপগ্রেড করার সময় এই বিষয়টিও খেয়াল রাখার পরামর্শ জানিয়েছে মাইক্রোসফট।

যদি আপনার ডিভাইস সম্প্রতি বের হওয়া কোনো উইন্ডোজ ভার্সন সাপোর্ট না করে, তাহলে উক্ত পিসি রিপ্লেস করার পরামর্শ দিয়েছে মাইক্রোসফট। নতুন পিসি কেনার সময় সবচেয়ে উত্তম হয় লেটেস্ট উইন্ডোজ ১১ সাপোর্ট করে এমন পিসি কেনা।

উইন্ডোজ ৭ সাপোর্ট বন্ধ করছে মাইক্রোসফট - করণীয় জানুন

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

উইন্ডোজ ১১ মুক্তি পায় ২০২১ সালে ও মুক্তির পর থেকেই মাইক্রোসফট এখনো এটিকে ইম্প্রুভ করতে কাজ করে যাচ্ছে। অনেকটা উইন্ডোজ ১০ এর মডিফাইড ভার্সন এই নতুন সফটওয়্যার যা মাইক্রোসফট এর মতে পিসি অপারেটিং সিস্টেম এর ভবিষ্যৎ।

লেটেস্ট মাইক্রোসফট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে ভয়েস অ্যাকসেস যা ভয়েস দ্বারা পিসি কন্ট্রোল করে, লাইভ ক্যাপশন যা অডিও থেকে ক্যাপশন দেখায় রিয়েলটাইমে, ইত্যাদি এর মত অনেক নতুন ফিচার রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন অ্যাপ, সেটিংস ও প্রোগ্রামে এসেছে নতুন ফিচার ও উন্নতি।

আপনি যদি আপনার উইন্ডোজ ডিভাইস আপডেট করতে চান, তবে দেখে নিতে পারেন নিচে লিংক করা উইন্ডোজ আপগ্রেড সম্পর্কিত একাধিক গাইড যা আপনার কাজ অনেক সহজ করে দিবে ও সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে। এছাড়া বিনামূল্যে উইন্ডোজ আপগ্রেড সহ আরো একাধিক বিষয়ে লিংক পেয়ে যাবেন নিচে।

👉 সস্তায় বা ফ্রি উইন্ডোজ ব্যবহারের কৌশল

👉 উইন্ডোজ ১০ এবং উইন্ডোজ ১১ এর মধ্যে পার্থক্য কি? কোনটি বেশি ভাল?

👉 উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করার নিয়ম (নতুন ও পুরাতন পিসিতে)

আপনি যদি এখনো উইন্ডোজ ৭ চালিত ডিভাইস ব্যবহার করে থাকেন, তবে খুব শীঘ্রই উইন্ডোজ ১০ বা উইন্ডোজ ১১ তে আপগ্রেড করুন। যদি নতুন উইন্ডোজ ভার্সনে ডিভাইস আপডেট না করেন তবে তা ম্যালওয়্যার বা হ্যাকিং এর ঝুঁকিতে থাকতে পারে। তাই লেটেস্ট কোনো ভার্সনে আপনার কম্পিউটার আপডেট করে নিন যত দ্রুত সম্ভব।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,812 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.