গুগল প্লাসের ভবিষ্যৎ কী?

google plus fate imgগুগল প্লাস সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সার্ভিসের স্রষ্টা ভিক গান্দোত্রা গুগল থেকে বিদায় নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। মিঃ গান্দোত্রা ২০০৭ থেকে সার্চ কোম্পানিটিতে কর্মরত ছিলেন যার প্রাথমিক কাজ ছিল ফেসবুক-টুইটারের প্রতিদ্বন্দ্বী সেবা নির্মাণ করা। ২০১১ সালের জুন মাসে গুগল প্লাস লঞ্চ করা হয় বর্তমানে যার ৫৪০ মিলিয়নের অধিক ব্যবহারকারী রয়েছে।

যদিও, প্রযুক্তি বিশ্বে গুগল প্লাসের জনপ্রিয়তা ও ব্যবহারযোগ্যতা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব রয়েছে। অনেকে সাইটটিকে “ভূতুরে শহর” বলে অভিহিত করে থাকেন। অবশ্য গুগল এই ধারণাকে ভুল বলে দাবী করেছে।

গুগল প্লাসের জনক ভিক গান্দোত্রার অনুপস্থিতিতে সেবাটির ভবিষ্যৎ কী হবে? এটি বন্ধ হয়ে যাবে? নাকি প্রতিযোগিতা থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেবে? এই নিয়ে জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে।

গুগল প্লাস কি বন্ধ হয়ে যাবে?

প্রযুক্তি সাইট টেক ক্রাঞ্চ একাধিক নিজস্ব সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, গুগল খুব সম্ভবত, এবার সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং মিডিয়া সেবাদাতার তালিকা থেকে নিজেদেরকে প্রত্যাহার করে নেবে।

অর্থাৎ, গুগল প্লাস এরপর আর কোনো ‘প্রোডাক্ট’ হিসেবে না থেকে একটি ‘প্ল্যাটফর্ম’ হিসেবে থাকবে। অতঃপর গুগল এটি থেকে নজর ফিরিয়ে নেবে যার ফলে সাইটটিতে সচরাচর তেমন কোনো প্রযুক্তিগত উন্নয়ন আসবেনা। অন্তত এরকমই ইঙ্গিত দিচ্ছে টেকক্রাঞ্চের সূত্রগুলো।

অবশ্য, একজন গুগল মুখপাত্র এসব গুজব অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন তারা আগের মতই গুগল প্লাসে বিনিয়োগ করে যাবেন।

পত্রিকাটি আরও লিখছে, গুগল প্লাসের মেসেজিং ফিচার হ্যাংআউট ও লেটেস্ট ফটো ফিচার ভবিষ্যতে এন্ড্রয়েডের সাথে নিবিড়ভাবে যুক্ত করা হবে। এছাড়া গুগল প্লাস ডিপার্টমেন্ট থেকে জনবল সরিয়ে অন্য কাজে লাগাচ্ছে সার্চ ফার্মটি- এমনটিও দাবী করেছে টেকক্রাঞ্চ।

গুগলের সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সেবা নিয়ে বেশ ভালোই দ্বিধা-দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু গুগল প্লাসের ভাগ্যে ঠিক কী ঘটতে যাচ্ছে সেটি আপাতত কারো কাছেই পরিষ্কার নয়। তাই ঘুরেফিরে একটা প্রশ্নই আসছে। আর সেটি হচ্ছে- গুগল প্লাসের ভবিষ্যৎ কী?

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,565 other subscribers

Comments