ক্লাউড রোবটিক্সের যুগে স্বাগতমঃ চালু হল রোবটদের জন্য অনলাইন মস্তিষ্ক!

Rapyuta imageদিন দিন রোবটিক্স জগত জটিল থেকে জটিলতর হয়ে যাচ্ছে। কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার দিকে রোবটদের যতই এগিয়ে নেয়া হচ্ছে ততই নতুন নতুন সমস্যা সামনে আসছে। অপরদিকে যান্ত্রিক ধারনক্ষমতা জনিত সীমাবদ্ধতা তো রয়েছেই। কেমন হবে আধুনিক রোবটিক্স?

এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে ইউরোপিয়ান বিজ্ঞানীরা চালু করেছেন ওয়েব ভিত্তিক “রোবট ব্রেইন”; এতে রয়েছে অনলাইন ডেটাবেইস যেখান থেকে রোবটরা অচেনা বিষয়বস্তু সম্পর্কে ধারণা নিয়ে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পারবে।

“রেপিউটা” নামক এই অনলাইন মস্তিষ্কে সংযুক্ত রোবটের কাছে নতুন কোন বস্তুর বর্ণনা দিতে এবং এমনকি তার হয়ে বড় বড় হিসাব নিকাশ সম্পন্ন করতেও সক্ষম। রেপিউটা নির্মাতাদের প্রত্যাশানুযায়ী এটি রোবট তৈরির খরচ কমিয়ে একে সুলভ করে তুলবে কেননা ওয়েব নির্ভর ক্লাউড রোবটিক্স অন-বোর্ড প্রসেসিংয়ের ওপর থেকে চাপ হ্রাস করবে।

উক্ত প্রকল্প ২০১১ সালে ইউরোপে গৃহীত “রোবো আর্থ” উদ্যোগের অংশ যেখানে বিশ্বব্যাপী রোবট ও মানুষের মধ্যকার ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়ার একটি স্ট্যান্ডার্ড প্রতিষ্ঠা করার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছিল।

রেপিউটা ডেটাবেইস রোবটদের মানব ভাষা বোঝার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে পারবে। এটি চালকবিহীন গাড়ি, ড্রোনসহ অন্যান্য মোবাইল রোবটকে পথনির্দেশনা দিতেও সক্ষম হবে। প্রকল্পটির গবেষকরা মনে করেন এই ধরণের একটি অনলাইন প্রসেসিং সেন্টার বা ক্লাউড রোবটিক্স সিস্টেম না থাকলে রোবটরা শুধু কঠোর নিয়ন্ত্রিত পরিবেশেই কাজ করতে পারবে, যা নিত্যপ্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে রোবটিক্সের সুফল বয়ে আনতে বাঁধা স্বরূপ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রেপিউটা নামটি জাপানী ছবি “ক্যাসেল ইন দি স্কাই” থেকে নেয়া হয়েছে। ঐ সিনেমায় এটি ছিল এমন একটি স্থান যেখানে সব রোবটরা বসবাস করে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 3,163 other subscribers

Comments