এন্ড্রয়েড ফোনে প্যাটার্ন লক দিয়েছেন? বিপদ এড়াতে এগুলো মেনে চলুন

২০০৮ সালের দিকে প্যাটার্ন লক ফিচার এন্ড্রয়েডে যুক্ত করে গুগল, যা বর্তমানে অধিকাংশ এন্ড্রয়েড ব্যবহারকারীর প্রিয় অথেনটিকেশন মেথড। ফিংগারপ্রিন্ট বা ফেস আইডির মত বায়োমেট্রিক অথেনটিকেশন মেথড এর পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয়ে থাকে প্যাটার্ন লক। তবে এন্ড্রয়েড ফোনে জনপ্রিয় প্যাটার্ন লক ব্যবহার নিয়ে সাবধানতা অবলম্বনের পরামর্শ দিচ্ছেন সিকিউরিটি এক্সপার্টরা। এই পোস্টে আমরা জানবো এন্ড্রয়েড ফোনে প্যাটার্ন লক অসচেতনভাবে ব্যবহার করলে কেনো বিপদের কারণ হতে পারে, এবং প্যাটার্ন লক এর কিছু কার্যকরী বিকল্প সম্পর্কেও জানবো।

প্যাটার্ন লক এর দুর্বলতা

প্যাটার্ন লক এর সবচেয়ে বড় সুবিধাই হলো এর সহজ ব্যবহারযোগ্যতা। বলছি প্যাটার্ন লক সহজে মনে রাখার সুবিধার কথা। পাসওয়ার্ড বিভিন্ন অক্ষর, চিন্হ, ইত্যাদি দ্বারা তৈরী বলে এটি এক দেখায় সহজে মনে রাখা যায়না, কিন্তু প্যাটার্ন লক এর ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটি সম্পূর্ণ বিপরিত। যেকেউ প্রায় এক দেখাতেই আপনার প্যাটার্ন লক মুখস্থ করে ফেলতে পারে৷ ইনপুটভিত্তিক অন্য অথেনটিকেশন মেথড অপেক্ষা প্যাটার্ন লক ব্যবহার করা ও মনে রাখা তুলনামূলক সহজ।

অধিকাংশ মানুষ প্যাটার্ন বাছাই করার ক্ষেত্রে সহজে মনে রাখা যায় এমন প্যাটার্ন ব্যবহার করে থাকেন। অধিকাংশ মানুষই তাই চেনাজানা প্যাটার্ন ব্যবহার করে থাকেন লকস্ক্রিন হিসেবে। অনেক মানুষ তাদের প্যাটার্ন টপ-লেফট কর্নার ডট থেকে শুরু করেন, অনেকে প্যাটার্ন শুরু করেন যেকোনো একটি কর্নার থেকে। আবার কেউ কেউ লক প্যাটার্ন এর ক্ষেত্রে কোনো অক্ষরের আকৃতিকে বেছে নেন। এইক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর নিজের নামের কিংবা প্রিয়জনের নামের প্রথম অক্ষর অধিকাংশ সময় ব্যবহৃত হয়। আবার অনেক সময় ফোনের স্ক্রিনে প্যাটার্ন লক খোলার দাগ পড়ে থাকে যা দেখে অন্য কেউ প্যাটার্ন আন্দাজ করতে পারে।

অধিকাংশ ব্যবহারকারী তাদের লক প্যাটার্ন তৈরীতে শুধুমাত্র চার থেকে পাঁচটি নোড ব্যবহার করে থাকেন। এর ফলে যেকোনো এ্যাটাকার বেশ সহজে লক স্ক্রিন প্যাটার্ন আন্দাজ করতে পারে। প্যাটার্ন এর ক্ষেত্রে সহজ প্যাটার্ন ব্যবহার করলে নিরাপত্তাগত ত্রুটি থাকে, আবার কঠিন প্যাটার্ন ব্যবহারের ক্ষেত্রে ভুলে যাওয়ার প্রবণতার পাশাপাশি এন্টার করার সময় ঝামেলা পোহানোর বিষয়টিও যুক্ত থাকে।

প্যাটার্ন লককে আরো শক্তিশালী যেভাবে করবেন

উল্লিখিত ব্যাপারগুলো দেখে নিশ্চয় বুঝতে পারছেন আপনার প্রিয় স্মার্টফোনে অথেনটিকেশন মেথড হিসেবে প্যাটার্ন লক ব্যবহার করতে হলে আরেকটু সচেতন হওয়া উচিত। যদি আপনি প্যাটার্ন লককে অথেনটিকেশন মেথড হিসেবে ব্যবহার করতে চান, সেক্ষেত্রে নিম্নলিখিত পরামর্শগুলো মেনে চলুন:

  • সহজে আন্দাজ করা যায় এমন ধরনের প্যাটার্ন ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন
  • আপনার প্যাটার্নকে কিছুটা জটিল ও কঠিন করার চেষ্টা করুন যাতে অন্যকেউ আন্দাজ করতে না পারে বা এক দেখায় বুঝে ফেলতে না পারে। লম্বা প্যাটার্ন ব্যবহারের চেষ্টা করুন, ৯টি পর্যন্ত নোড ব্যবহার করতে পারেন আরো নিরাপত্তা যোগ করতে
  • আপনার লক প্যাটার্ন যেকোনো কর্নার থেকে শুরু না করে অভ্যাসের বাইরে কোনো নোড থেকে শুরু করুন। এতে আপনার প্যাটার্ন লক আন্দাজ করা বা বুঝে ফেলার প্রবণতা কমে যাবে
android phone

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

প্যাটার্ন লক এর বিকল্প

আপনি যদি উল্লিখিত বিষয়গুলো বিবেচনায় রেখে প্যাটার্ন লক ব্যবহার করতে না চান, সেক্ষেত্রে অন্য নিরাপদ বিকল্পগুলো ব্যবহার করতে পারেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক প্যাটার্ন লক এর বিকল্পসমূহ সম্পর্কে।

প্রথমত ছোট ও বড় হাতের অক্ষর, চিন্হ, সংখ্যা, ইত্যাদি ব্যবহার করে জটিল পাসওয়ার্ড কম্বিনেশন ব্যবহার করতে পারেন। কঠিন পাসওয়ার্ড আন্দাজ করা বা বুঝা অবশ্যই এভারেজ প্যাটার্ন লকের চেয়ে বেশ কঠিন। এন্ড্রয়েড ফোনের লক স্ক্রিনের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাইলে পাসওয়ার্ড ব্যবহার করাই সর্বাপেক্ষা উত্তম।

এছাড়া পিন ব্যবহার করেও লক স্ক্রিনের নিরাপত্তা বাড়াতে পারেন। যদিও পিন বেশ সাধারণ হয়ে থাকে, তবে সহজ পিন ব্যবহার করার ফলেই নিরাপত্তাগত সমস্যায় পড়তে হয়। “1234” বা “0000” এর মত সহজ পিন ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। এছাড়া আপনার ফোন নাম্বার বা জন্মতারিখ, ইত্যাদি সহজে আন্দাজ করা যায় এমন সংখ্যা পিন হিসেবে ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। 👉 এন্ড্রয়েড ফোনের চার্জ দীর্ঘস্থায়ি করার জন্য কিছু টিপস

ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর, ফেসিয়াল রেকগনিশন, এমনকি আইরিশ স্ক্যানিং এর মত বায়োমেট্রিক অথেনটিকেশন টুল বর্তমানে আমাদের স্মার্টফোনেই রয়েছে। এসব পদ্ধতি চিরাচরিত অথেনটিকেশন মেথডের চেয়ে বেশ দ্রুত এবং নিরাপদ।

স্মার্ট লক হলো একটি এডভান্সড এন্ড্রয়েড ফিচার যা অন-বডি ডিটেকশন, ট্রাস্টেড প্লেস কিংবা ট্রাস্টেড ডিভাইস ব্যবহার করে ফোন আনলক করতে সাহায্য করে। এটি বেশ এডভান্সড একটি ফিচার, যা সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা না থাকলে ব্যবহার না করাই উত্তম।

স্মার্টফোন সিকিউরিটি সম্পর্কিত আপডেট প্রতিনিয়ত যোগ হয়েই চলেছে। এমন অবস্থায় প্যাটার্ন লক ব্যবহার করতে চাইলে অনেক সচেতন হতে হবে। সেই সাথে উল্লিখিত বিকল্প পথগুলো ব্যবহার করে সঠিক কৌশল অবলম্বন এর মাধ্যমে আপনার ব্যক্তিগত ফাইল ও ডিজিটাল জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ভুলবেন না

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,575 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *