অ্যাংরি বার্ডস এর বেহাল দশা কেন?

স্মার্টফোন ব্যবহার করেন অথচ অ্যাংরি বার্ডস গেমসের নাম শোনেননি এরকম মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন। আর যদি আপনি আজই প্রথম অ্যাংরি বার্ডস এর নাম শুনে থাকেন, তাহলে সেটা ঐ গেমটির দুর্ভাগ্য। সে যাই হোক, অ্যাংরি বার্ডস এক সময় জনপ্রিয়তার তুঙ্গে ছিল, বিশেষ করে ২০১৩-১৪ সালের দিকে। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় বর্তমানে খারাপ সময় পার করছে অ্যাংরি বার্ডস নির্মাতা কোম্পানি রোভিও। এমনকি, কোম্পানিটির একটি অফিস বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং রোভিওর গেমস বিভাগের প্রধান উইলহাল্ম তাট পদত্যাগ করেছেন। কিন্তু কেন?

লাইসেন্সিং ব্যবসায় মন্দা

ফিনল্যান্ড ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান রোভিও তাদের গেমসের ব্র্যান্ড যেমন ‘অ্যাংরি বার্ডস’ এর কিছু লাইসেন্স তৃতীয় পক্ষকে প্রদান করে থাকে যা দিয়ে অন্যান্য কোম্পানি অ্যাংরি বার্ডসের জনপ্রিয়তা কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন পণ্য (যেমন খেলনা) তৈরি করে বিক্রি করে। কিন্তু চলতি বছর সেই লাইসেন্স থেকে আয় প্রায় অর্ধেক (৪০%) কমে যাবে বলে আশঙ্কা করছে রোভিও। সুতরাং এটা একটা বড় ধাক্কা।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 2,641 other subscribers

প্রতিযোগিতা ও খরচ

বর্তমান বিশ্বে প্রতিযোগিতা একটা বড় এবং গৌরবময় অনিশ্চয়তার ব্যাপার। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অ্যাপের ট্রেন্ড চলে আসে। যেমন, ক্ল্যাশ অব ক্ল্যানস গেম, পোকেমন গেম- এগুলোও জনপ্রিয়। সুতরাং নতুন গেমসের ভীড়ে পুরাতনের মার্কেট শেয়ার কমবেই। রোভিও বলছে, তাদের মার্কেটিং খরচও বেড়ে গিয়েছে আগের চেয়ে। কোম্পানিটি ৬০ জন বা ১৩% কর্মীও ছাঁটাই করেছে।

ভুল সম্প্রসারণ

২০১৭ সালে রোভিও লন্ডনে একটি অফিস চালু করেছিল। কিন্তু আর্থিক মন্দার শিকার হয়ে গত সপ্তাহে রোভিও লন্ডনের অফিসটি বন্ধ করে দেয়। এটি তাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি। লন্ডনের অফিস বন্ধ করার ঘোষণার সাথে সাথে রোভিও তাদের গেমস বিভাগের প্রধান উইলহাল্মের পদত্যাগের খবরও প্রকাশ করে। তবে রোভিও ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের অফিসে কাজ চলতে থাকবে।

এরপর কী হবে?

রোভিও ২০১৬ সালে অ্যাংরি বার্ডস অ্যানিমেশন মুভি থেকে ৩৫০ মিলিয়ন ডলার আয় করে। ২০১৯ সালেও এই মুভির একটি সিক্যুয়েল মুক্তি পাবে। এছাড়া কোম্পানিটি মাল্টিপ্লেয়ার গেমস নির্মাণ করবে এবং গেম স্ট্রিমিং (বা ক্লাউড গেমিং) সার্ভিস হ্যাচ এ আরও বিনিয়োগ করবে।

রোভিও ২০১৫ সালে ১৪.৭৫ মিলিয়ন ডলার অপারেটিং লসের সম্মুখীন হয়েছিল, যখন তারা তাদের এক তৃতীয়াংশ কর্মী ছাঁটাই করে দেয়।

আমাদের ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুন!

     
প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Comments