গ্রামীণফোন ইন্টারনেট মেয়াদ বৃদ্ধি করার উপায়

ইন্টারনেট প্যাক পুরোপুরিভাবে ব্যবহার করে শেষ করার আগে মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে সেক্ষেত্রে অব্যবহৃত ডাটা নষ্ট হয়ে যায়। এমন অবস্থায় অকারণে টাকা নষ্ট হয়। তবে গ্রামীণফোন সিম ব্যবহারকারীদের জন্য সুখবর- তারা চাইলে তাদের প্রায় মেয়াদ শেষ হতে যাওয়া ইন্টারনেট প্যাক এর মেয়াদ বাড়িয়ে নিতে পারবেন বেশ সহজে। এই পোস্টে জানবেন গ্রামীণফোন ইন্টারনেট মেয়াদ বৃদ্ধি করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত।

গ্রামীণফোন এমবির মেয়াদ বাড়ানোর উপায়

গ্রামীণফোন সিমের ইন্টারনেট প্যাক কেনার ক্ষেত্রে মাইজিপি অ্যাপ বা ইউএসএসডি কোড ব্যবহার করা যেতে পারে। এবার আসি গ্রামীণফোন এমবির মেয়াদ বাড়ানোর উপায় প্রসঙ্গে। জিপি ইন্টারনেট এর মেয়াদ বাড়ানো বেশ সহজ৷ ব্যাপারটি বেশ মজার, বুঝিয়ে বলি।

গ্রামীণফোন তাদের ইন্টারনেট প্যাক ব্যবহারের নিয়ম ও শর্তাবলীর তালিকায় পরিস্কারভাবে উল্লেখ করেছে – যদি মেয়াদ থাকাকালীন পুনরায় একই ক্যাম্পেইন প্যাক ক্রয় অথবা অটো রিনিউ করেন সেক্ষেত্রে অব্যবহৃত ইন্টারনেট ভলিউম নতুন ক্রয়কৃত ইন্টারনেট ভলিউমের সাথে যোগ হবে।

এর মানে হলো কোনো একটি ইন্টারনেট প্যাকের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে উক্ত প্যাক পুনরায় কেনা হলে সেক্ষেত্রে আগে কেনা প্যাকের অব্যবহৃত ইন্টারনেট সদ্য কেনা প্যাকের ভলিউমের সাথে যুক্ত হবে। আরেকটি উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়ে বলি। ধরুন আপনি ১ মাস মেয়াদের ১০ জিবি ইন্টারনেট কিনলেন এবং এই প্যাকটির মেয়াদ আজকেই শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু এই প্যাকে এখনো ৬ জিবি ইন্টারনেট অব্যবহৃত রয়েছে। এমন অবস্থায় আপনি যদি সেই একই ১ মাস মেয়াদের ১০ জিবি ইন্টারনেট প্যাকটি আবার কিনেন, সেক্ষেত্রে আপনার অব্যবহৃত ৬ জিবি ইন্টারনেট এই ১০ জিবি ইন্টারনেট এর সাথে যোগ হবে, এবং সব ইন্টারনেট ভলিউম এর নতুন মেয়াদ হবে পরবর্তী একমাস।

অর্থাৎ একই ইন্টারনেট প্যাক একাধিকবার ক্রয় করলে মেয়াদ ও ইন্টারনেট ভলিউম একই সাথে যোগ হয়ে যাবে। এইভাবে বেশ সহজে গ্রামীণফোন এমবির মেয়াদ বাড়ানো যাবে। বলে রাখা ভালো, মাঝেমধ্যে একবারের জন্য আসা বিভিন্ন অফারের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য নয়। শুধুমাত্র রেগুলার ইন্টারনেট প্যাক এর ক্ষেত্রে এই এমবির মেয়াদ বাড়ানোর নিয়ম প্রযোজ্য হবে।

জিপি এমবি’র মেয়াদ বাড়ানোর নিয়ম তাহলে কি দাঁড়ালো? সেটা হচ্ছে, একই ইন্টারনেট প্যাক মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে পুনরায় ক্রয় করা।

কোনো ইন্টারনেট প্যাক কেনার সময় সবচেয়ে নিরাপদ উপায় হলো মাইজিপি অ্যাপ ব্যবহার করে উক্ত প্যাক কেনা। এইক্ষেত্রে পরবর্তীতে মেয়াদ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে উক্ত প্যাক কিনতে চাইলে তা কিনতে পারবেন মাইজিপি অ্যাপ থেকে।

অন্যদিকে কোড ব্যবহার করে কেনা ইন্টারনেট প্যাক এর ক্ষেত্রে এই সুবিধা মাঝেমধ্যেই পাওয়া যায়না। একটি কোড ব্যবহার করে পরবর্তীতে আবারও একই ইন্টারনেট প্যাক কেনা না-ও যেতে পারে। এর কারণ হলো অনেক অফার শুধুমাত্র একবার কেনার জন্যই আসে।

পুরো বিষয়টি যদি আরো একবার রিক্যাপ করি তাহলে জিপি এমবি মেয়াদ বাড়ানোর নিয়ম হচ্ছে – মাইজিপি অ্যাপ থেকে একই ইন্টারনেট প্যাক মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে পুনরায় ক্রয় করা। এর ফলে অব্যবহৃত ইন্টারনেট যোগ হবে মাত্র ক্রয় করা ইন্টারনেট প্যাকের সাথে ও মেয়াদ বেড়ে যাবে।

Grameenphone data validity increase

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

জিপি এমবি কেনার কোড সম্পর্কে জানতে নিচে লিংক করা পোস্ট ঘুরে আসতে পারেন।

👉 গ্রামীণফোন ইন্টারনেট প্যাকেজ ও অ্যাক্টিভেশন কোড সমূহ

👉 গ্রামীণফোন মেয়াদহীন ইন্টারনেট প্যাক

👉 গ্রামীণফোন আনলিমিটেড ইন্টারনেট প্যাক

গ্রামীণফোনের পাশাপাশি অন্য সিমেও এই নিয়ম কাজ করার কথা যেহেতু বিটিআরসি অব্যবহৃত ইন্টারনেট এর বিষয়ে এই নিয়ম জারি করেছিলো। তবে যেহেতু গ্রামীণফোন পাবলিক্যালি এই বিষয়ে তথ্য জানিয়েছে তাই এই পোস্টে আমরা শুধুমাত্র জিপি সিমে ইন্টারনেট বাড়ানোর নিয়ম সম্পর্কে জানিয়েছি।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,586 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *