শাওমি ফোনের দারুণ কিছু ফিচার যা সবার জানা উচিত

শাওমি ও এর সাবব্র‍্যান্ড, রেডমি ও পোকো এর ফোনে ব্যবহৃত হয় মিইউআই অপারেটিং সিস্টেম। মিইউআই ফিচারে ভরপুর একটি অ্যান্ড্রয়েড স্কিন। তবে মিইউআই এর জনপ্রিয় ফিচারগুলো সম্পর্কে সবাই জানলেও কিছু গোপন ও দরকারী ফিচার সম্পর্কে জানেন না অনেকে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক শাওমি ফোনের দারুণ কিছু সুবিধা ও ফিচার সম্পর্কে যা সবার জানা উচিত। উল্লেখ্য যে ডিভাইস ও ডিভাইসের সেটিংস এর উপর ভিত্তি করে উল্লেখিত এক বা একাধিক ফিচার আপনার শাওমি ফোনে খুঁজে নাও পেতে পারেন।

আলট্রা ব্যাটারি সেভিং

ব্যাটারি দ্রুত ড্রেইন হয়ে যাওয়া সকল স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর একটি প্রধান চিন্তার বিষয়। এমনিতে শাওমির ফোনগুলোর ব্যাটারি ব্যাকাপ বেশ ভালো। তবে আপনি যদি ব্যাটারি সেভিংকে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে চান, তবে কোনো থার্ড পার্টি অ্যাপের প্রয়োজন নেই। কোনো অ্যাপ ছাড়া শাওমি এর বিল্ট-ইন পাওয়ার সেভিং মোড ব্যবহার করে দীর্ঘ সময় ধরে ব্যাটারি সাশ্রয় করা যাবে।

মিইউআই এ বিভিন্ন ব্যাটারি মোড এডজাস্ট করার ইন-বিল্ট ফিচার রয়েছে। ফোনের সেটিংস থেকে “Battery” সেকশনে প্রবেশ করলে “Battery Saver” ও “Ultra Battery Saver” নামে দুইটি অপশন দেখতে পাবেন। এখান থেকে প্রথম মোডটি চালু করলে সাধারণ ব্যাটারি সেভিং মোড চালু হয়, যেখানে পরের অপশনটি এক্সট্রিম লেভেলের ব্যাটারি সেভিং এর কাজে ব্যবহার করতে পারেন।

ইউনিভার্সাল কাস্টিং টুল

মিইউআই এর সেরা একটি ফিচার হলো ইউনিভার্সাল কাস্টিং টুল যার অস্তিত্ব সম্পর্কে অসংখ্য ব্যবহারকারী জানেনই না। এই টুল ব্যবহার করে ফোনের স্ক্রিন যেকোনো বড় ডিসপ্লে, যেমনঃ টিভি বা কম্পিউটারে প্রচার করা যায়। প্রায় প্রতিটি মিইউআই ভার্সনে এই কার্যকরী টুলটির দেখা মিলবে। এই ইউনিভার্সাল কাস্টিং টুল ব্যবহার করতেঃ

  • ফোনের সেটিংসে প্রবেশ করে “Connection & Sharing” অপশন সিলেক্ট করুন
  • এরপর Cast সিলেক্ট করুন ও Cast বাটন এনাবেল করে দিন
  • যে ডিভাইসে স্ক্রিন কাস্ট করবেন, উক্ত ডিভাইস একই ওয়াইফাইয়ে কানেক্টেড আছে কিনা তা নিশ্চিত করুন
  • এরপর কাস্ট করা যাবে এমন ডিভাইসসমূহ খুঁজে বের করবে ফোন
  • প্রদর্শিত তালিকা হতে নিজের পছন্দের ডিভাইস সিলেক্ট করুন

অপটিক্যাল ক্যারেক্টার রিকগনিশন

মিইউআই ১২ এর অপটিক্যাল ক্যারেক্টার রিকগনিশন ফিচারটি যেকোনো ইমেজ থেকে টেক্সট খুঁজে বের করতে পারে। যেকোনো সাধারণ ছবি বা ডকুমেন্ট এর ক্ষেত্রে এই ফিচার কাজে আসতে পারে। এছাড়া এই ফিচার ব্যবহার করে ট্রান্সলেশন এর সুবিধাও রয়েছে।

এই ফিচার ব্যবহার করতে বাড়তি কোনো অ্যাপ ডাউনলোডের প্রয়োজন নেই। যেকোনো ছবি ফোনের ক্যামেরাতে ধরলে উক্ত ছবি থেকে ক্যারেক্টার খুঁজে দেওয়া হবে। আপাতত গুটিকয়েক শাওমি ফোনে এই ফিচারটি বিদ্যমান। আপনার ফোনে এই ফিচারটি না থাকলে গুগল লেন্স ব্যবহার করে একই ধরনের ফিচার উপভোগ করতে পারেন।

👉 গুগল লেন্স অ্যাপের দারুণ ৯টি সুবিধা জানুন

ফটো এডিটর

শাওমি ফোনের গ্যালারি অ্যাপটিকে সাধারণ ছবি বা ভিডিও ব্রাউজার অ্যাপ মনে করে ভুল করবেন না। এই গ্যালারি অ্যাপটি ব্যবহার করে ছবি এডিট করা যায়, ভিডিও তৈরী করা যায়, কোলাজ তৈরী করা যায়। একাধিক ছবি সিলেক্ট করে Creativity অপশনে ট্যাপ করে ছবিসমূহকে কোলাজ বা ভিডিওতে রুপান্তর করা যাবে।

এছাড়াও কোনো ছবি বা ভিডিওতে বেসিক এডিটিং এর পাশাপাশি অবজেক্ট রিমুভাল ও স্কাই চেঞ্জ এর মতো পাওয়ারফুল ফিচার রয়েছে অধিকাংশ শাওমি ফোনে।

👉 সেরা ১০ এন্ড্রয়েড ফটো এডিটিং অ্যাপ (ফ্রি)

হেলথ অ্যাপ

শাওমি ফোনে যে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ হেলথ অ্যাপ আছে, এই সম্পর্কে অনেকে জানেন না। তবে এর কারণ হলো অল্পকিছু রিজিওনে এই হেলথ অ্যাপ সরাসরি প্রদর্শিত হয়। আপনার ফোনে শাওমি হেলথ অ্যাপ খুঁজে না পেলে রিজিওন ইন্ডিয়া সেট করে দেখতে পারেন।

এই হেলথ অ্যাপ অন্য হেলথ অ্যাপসমূহের মত স্টেপ, সুইমিং, ওয়াকিং, রানিং, ইত্যাদি এক্টিভিটি রেকর্ড করে। এমনকি স্লিপিং ও স্নোরিং পর্যন্ত ট্র‍্যাক করা যায় অ্যাপটির সাহায্যে। আবার মি ব্যান্ড, ফিটবিট, গুগল ফিট সহ প্রায় সকল ব্র‍্যান্ডের ফিটনেস ব্যান্ড খুব সহজে এই অ্যাপে কানেক্ট করা যায়।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

বিল্ট-ইন স্ক্যানার

শাওমি ফোনে কোনো কিউআর কোড বা ডকুমেন্ট স্ক্যান করতে থার্ড পার্টি অ্যাপ ব্যবহার করার দরকার নেই। কেনন শাওমি ফোনে থাকা “Scanner” অ্যাপ ব্যবহার করে কিউআর কোড ও ডকুমেন্ট স্ক্যান করা যাবে। ফোনে অ্যাপটি থাকা স্বত্বেও এর কার্যকরিতা সম্পর্কে না জানার কারণে অনেকে অ্যাপটি ব্যবহার করেন না।

সেকেন্ড স্পেস

সেকেন্ড স্পেস শাওমি ফোনের অসাধারণ একটি ফিচার যা Security অ্যাপে লুকানো রয়েছে। একই ফোনের একাধিক ব্যবহারকারী থাকলে বা ফোন অন্য কারো হাতে দেওয়ার ক্ষেত্রে এই ফিচারটি বেশ কাজে আসতে পারে। এই সেকেন্ড স্পেস ফিচার দ্বারা মূলত একই ফোনে একাধিক পার্টিশন তৈরী করে প্রয়োজনীয় ফাইল বা অ্যাপ নিরাপদ রাখা যাবে ফিংগারপ্রিন্ট বা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে।

অর্থাৎ সাধারণ ব্যবহার ও আলাদা ব্যবহারের জন্য আলাদা সিস্টেম তৈরি করা যাবে সেকেন্ড স্পেস ফিচার ব্যবহার করে। সেকেন্ড স্পেসের মাধ্যমে তৈরী করা আলাদা সিস্টেমে সাধারণ সিস্টেমের কোনো ডাটা থাকবেনা।

শাওমি ফোনে সেকেন্ড স্পেস ফিচারটি চালু করতেঃ

  • শাওমি ফোনের সেটিংসে প্রবেশ করুন
  • নিচের দিকে স্ক্রল করে Special Features মেন্যুতে প্রবেশ করুন
  • Second Space অপশনে ট্যাপ করুন
  • এরপর “Turn on Second Space” অপশনে ট্যাপ করে সেকেন্ড স্পেস ফিচারটি চালু করুন

স্ক্রিনের প্রদর্শিত নির্দেশনা অনুসরণ করে সেকেন্ড স্পেস এর সেটাপ সম্পন্ন করুন। উল্লেখ্য যে ফোনে যথেষ্ট পরিমাণ র‍্যাম বা স্টোরেজ না থাকলে এই ফিচার ব্যবহার এড়িয়ে চলুন।

👉 এন্ড্রয়েড অ্যাপ ক্লোন করে ডুপ্লিকেট অ্যাপ চালানোর কৌশল

লাইট মোড

ফোনের হাজারটা সেটিংস টুইক করে কাস্টমাইজ করা যাদের পক্ষে সম্ভব নয়, তারা লাইট মোড ব্যবহার করতে পারেন। লাইট মোডে মূলত টেক্সট ও আইকন কিছুটা বড় দেখায় ও ভিজ্যুয়াল অনেকটা ক্লিন হয়ে যায়। লাইট মোড চালু করতেঃ

  • শাওমি ফোনের সেটিংসে প্রবেশ করুন
  • নিচের দিকে স্ক্রল করে Special Features মেন্যুতে প্রবেশ করুন
  • Lite Mode এ ট্যাপ করুন
  • Turn on Lite Mode অপশনে ট্যাপ করে লাইট মোড চালু করুন ল

ভিডিও টুলবক্স

ভিডিও টুলবক্স মিইউআই ১২ এর সেরা একটি ফিচার। ভিডিও টুলবক্স স্ক্রিনের বামদিকে অবস্থান করে ও বিভিন্ন ধরনের ভিডিও-সেন্ট্রিক টুল সহজে অ্যাকসেস এর সুবিধা করে দেয়। যেমনঃ কোনো মুভি বা শো দেখার সকয় স্ক্রিনের মোড পরিবর্তন করা যাবে সহজে রাইট সোয়াইপ করে।

এছাড়াও ফ্লোটিং ভিডিও দেখার সময় স্ক্রিনশট তোলা বা নোটস তৈরী করতে এই ফিচার ব্যবহার করা যায়। আবার কোনো ভিডিও দেখতে দেখতে ইন্টারনেট ব্রাউজ করা যাবে এই ফিচারের মাধ্যমে। এছাড়াও স্ক্রিন অফ রেখে ভিডিওতে থাকা সাউন্ড চালু রাখা যাবে। ভিডিও টুলবক্স ফিচারটি চালু করতে Settings > Special features > Video Toolbox অপশনে প্রবেশ করে সুইচ টোগল করে দিন। 

উল্লেখিত ফিচারসমূহের মধ্যে আপনার পছন্দের ফিচার কোনটি? আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,813 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.