শাওমি MIUI কি? মিইউআই এর সুবিধা কি?

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন মার্কেটে শাওমি তুমুল পরিচিত একটি নাম। মার্কিন ব্যান সমস্যার কারণে হুয়াওয়ে পিছিয়ে পড়ায় বর্তমানে বিশ্বের প্রায় অপ্রতিদ্বন্দ্বী চীনা লাইফস্টাইল ব্র‍্যান্ডে পরিণত হয়েছে শাওমি। আর ব্যাপক জনপ্রিয় শাওমি মোবাইল ফোনগুলোতে ব্যবহার করা হয় শাওমির নিজস্ব কাস্টম এন্ড্রয়েড স্কিন। শাওমির এই নিজস্ব এন্ড্রয়েড স্কিন এর নাম হলো MIUI (মিইউআই) যা কেউ কেউ এমআইইউআই বলেও ডাকে।

নিজস্ব কাস্টম এন্ড্রয়েড স্কিন থাকার ফলে শাওমি ফোনগুলো অন্যান্য এন্ড্রয়েড ফোন থেকে দেখতে বেশ ভিন্ন। চলুন জেনে নেওয়া যাক শাওমি ফোনের কোর সফটওয়্যার মিইউআই কি,এমআইইউআই এর ইতিহাস, MIUI এর সেরা ফিচারসমুহ সম্পর্কে বিস্তারিত।

মিইউআই কি – What is MIUI in Bangla

মূল অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ডেভলপ করছে গুগল। সেই অরিজিনাল অপারেটিং সিস্টেমকে বলা হয় স্টক অ্যান্ড্রয়েড। অন্যদিকে স্যামসাং, ভিভো, শাওমির মত প্রতিষ্ঠানগুলো এই অ্যান্ড্রয়েডকে ভিত্তি হিসেবে ব্যবহার করে ডিজাইন করেছে অ্যান্ড্রয়েড এর কাস্টম স্কিন বা নিজস্ব রম। শাওমির কাস্টম অ্যান্ড্রয়েড স্কিন বা শাওমির নিজস্ব রম হলো মিইউআই (MIUI)।

মিইউআই দেখতে স্টক অ্যান্ড্রয়েড থেকে অনেকটাই ভিন্ন। মিইউআই’তে দেখা মিলবে ক্লিন ডিজাইন ও অসাধারণ সব এনিমেশনের। অনেকে বলেন, মিইউআই এর মাধ্যমে শাওমি অ্যাপল এর আইওএস কে অনুকরণ করতে চায়। তবে যাই বলা হোক না কেনো, মিইউআই ডিজাইন বা ফিচারসমূহ অন্যান্য কাস্টম এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম বা রমের চেয়ে বেশ আলাদা। এতে দারুণ সব সুবিধাও উপস্থিত।

MIUI এর একটি উল্লেখ্যযোগ্য সমালোচনার বিষয় হচ্ছে সিস্টেমে ছড়িয়ে থাকা বিজ্ঞাপন। শাওমি যেহেতু বেশ সুলভ মূল্যে তাদের ফোনগুলো গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দিয়ে থাকে, তাই ফোনে বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের মাধ্যমে লাভের অংকটা পুষিয়ে নেয়। বিশেষ করে বাজেট শাওমি ডিভাইসগুলোতে অতিরিক্ত বিজ্ঞাপন প্রদর্শনজনিত সমস্যা ছিলো।

মিইউআই তে দেখানো অতিরিক্ত বিজ্ঞাপন বিরক্তির কারণ হয়ে উঠেছিলো অনেকের কাছে। তবে শাওমি এই সমস্যা সমাধানে মিইউআই তে এড বা বিজ্ঞাপন দেখানোর সংখ্যা বেশ কমিয়ে দিয়েছে। এছাড়াও একজন ব্যবহারকারী চাইলে শাওমি ফোনের প্রায় সকল এড বা বিজ্ঞাপন বন্ধ করতে পারেন। 👉 শাওমি ফোনের মধ্যে এড বা বিজ্ঞাপন বন্ধ করার নিয়ম জানতে ক্লিক করুন

শাওমির নিজস্ব শাওমি ব্র‍্যান্ডেড ফোনের পাশাপাশি তাদের অন্যান্য সাব-ব্র‍্যান্ডের ফোনসমূহেও মিইউআই এর দেখা মিলবে। শাওমির সাব-ব্র‍্যান্ড, অর্থাৎঃ ব্ল্যাকশার্ক, রেডমি ও পোকো ব্র‍্যান্ডের স্মার্টফোনগুলোতেও সফটওয়্যার হিসেবে মিইউআই ব্যবহার করা হয়।

MIUI 12

মিইউআই সর্বশেষ সংস্করণ – MIUI Latest Version

বিগত বছরগুলোতে মিইউআই চালিত ফোনগুলোতে নিয়মিত অ্যান্ড্রয়েড সিস্টেম আপডেট প্রদানের মাধ্যমে শাওমি গ্রাহকদের মন জয় করে নিয়েছে। শাওমি প্রায়ই নতুন ফোন বাজারে আনলেও বেশ আগের ফোনগুলোতেও আপডেট প্রদান করে থাকে কোম্পানিটি। তবে শাওমি ব্র‍্যান্ডের ফোনের তালিকা বড় হওয়ায় অনেক ডিভাইস মিইউআই এর আপডেট পায়না, বা পেলেও বেশ সময় লাগে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

বর্তমানে মিইউআই এর লেটেস্ট ভার্সন হলো মিইউআই ১২, যা অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন ১১ এর উপর ভিত্তি করে নির্মিত। কিছু কিছু ডিভাইসে অ্যান্ড্রয়েড ৯ কিংবা ১০ ভিত্তিক মিইউআই ১২ ও দেখা যায়।

মিইউআই ভার্সন একই হলেও সকল শাওমি ফোনের ফিচার একই হয়না। আবার শাওমির ফোনগুলোতে দেশভেদে মিইউআই এর ফিচার ভিন্ন হয়ে থাকে। যেমনঃ চায়নার বাজারে বিক্রি করা শাওমির ফোনগুলোতে গুগল সার্ভিস, যেমনঃ প্লে স্টোর, ইউটিউব, জিমেইল, ইত্যাদি নেই। তবে বিশ্বের বাকি সব দেশের অফিসিয়াল শাওমি ফোনের মিইউআইতে রয়েছে গুগল সার্ভিস সাপোর্ট।

শাওমির অসংখ্য ফোনে বর্তমানে মিইউআই ১২ এর আপডেট পৌঁছে গেছে। ইতিমধ্যেই শাওমি মিইউআই ভার্সন ১৩ এর উপর কাজ করা শুরু করে দিয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে। আপনার শাওমি ফোন মিইউআই ১২ আপডেট পাবে কিনা, তা জানতে এখানে ক্লিক করুন।

👉 মিইউআই ১২ এর উল্লেখযোগ্য ফিচারসমুহ জানতে ক্লিক করুন

মিইউআই ভার্সন চেক করার নিয়ম – How To Check MIUI Version

শাওমি ফোনের অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন বা মিইউআই ভার্সন জানা না থাকলে খুব সহজে তা জেনে নিতে পারে। আপনার শাওমি স্মার্টফোনের MIUI ভার্সন চেক করতেঃ

  • নোটিফিকেশন সেন্টার বা অ্যাপ মেন্যু থেকে ফোনের সেটিংসে প্রবেশ করুন
  • About Phone এ ট্যাপ করুন
  • এখানে শাওমির ফোনের MIUI Version দেখতে পাবেন
  • এর একটু নিচে শাওমি ফোনের Android Version দেখতে পাবেন।
মিইউআই ভার্সন চেক করার নিয়ম - How To Check MIUI Version

মিইউআই এর ইতিহাস – History of MIUI in Bangla

শুনতে অবাক লাগলেও মিইউআই ছিলো শাওমির প্রথম প্রোডাক্ট। অর্থাৎ প্রথমে স্মার্টফোন নয়, বরং স্মার্টফোন এর জন্য সফটওয়্যার তৈরি দিয়ে যাত্রা শুরু করে শাওমি। এই কারণে নিজেদের সফটওয়্যার কোম্পানি হিসেবে পরিচয় দিতে গর্ববোধ করে শাওমি।

২০১০ সালে অ্যান্ড্রয়েড ২.২ ফ্রয়ো ভিত্তিক মিইউআই এর প্রথম অফিসিয়াল সংস্করণ মুক্তি পায়। আর্লি ইনভেস্টরদের রাজি করাতে শাওমি এই সফটওয়্যার ব্যবহার করে। মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার ফান্ডিং নিশ্চিত করার পর ২০১১ সালে নিজেদের প্রথম স্মার্টফোন মি১ বাজারে আনে শাওমি।

শুরুর দিকে মিইউআই দেখতে অনেকটা অ্যাপল আইওএস অপারেটিং সিস্টেমের ন্যায় ছিলো। অ্যাপল আইফোনে ব্যবহৃত আইওএস অপারেটিং সিস্টেমে যেমন কোনো অ্যাপ ড্রয়ার নেই, ঠিক তেমনি মিইউআই এর আর্লি ভার্সনে অ্যাপ ড্রয়ার ছিলনা। এমনকি বর্তমানেও মিইউআই তে ডিফল্টভাবে অ্যাপ ড্রয়ার চালু থাকেনা, তবে তা সেটিংস থেকে চালু করা যায়।

👉 শাওমি রেডমি ফোনের দাম জেনে নিন

সময়ের সাথে সাথে আইওএস এর মত দেখতে সফটওয়্যার ডিজাইন থেকে অনেকটাই সরে এসেছে শাওমি। মিইউআই এর প্রতিটি নতুন ভার্সন এর সাথে সফটওয়্যার কোম্পানি হিসেবে নিজেদের সফলতার পরিচয় দিয়ে আসছে শাওমি। যার ফলে শাওমি ফোনের সাথে মিইউআই এর জনপ্রিয়তা ও গ্রহণযোগ্যতা বেড়েই চলেছে।

মিইউআই এর সেরা ফিচারসমুহ – MIUI Best Features in Bangla

মিইউআই ভার্সন চেক করার নিয়ম - How To Check MIUI Version

প্রত্যেকটি অ্যান্ড্রয়েড স্কিন বেশ ইউনিক। স্যামসাং এর ওয়ান ইউআই তে এমন কিছু ফিচার আছে যা ওয়ানপ্লাস এর অক্সিজেন ওএস এ নেই। আবার একই ব্যাপার স্যামসাং এর ওয়ান ইউআই এর ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। মিইউআই ও তার ব্যাতিক্রম নয়। চলুন মিইউআই এর এসব সেরা ফিচারের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু ফিচার সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ফোকাস মোড

ঘরে হোক কিংবা বাইরে, কোনো কাজের উপর ফোকাস রাখতে বেশ সাহায্য করতে পারে মিইউআই এর ফোকাস মোড। এটির মাধ্যমে একটি নির্দিষ্ট সময় সেট করে কোনো কাজে মনোনিবেশ করা যায়। ফোকাস মোড চালু থাকলে ফোনের ক্যামেরা ও ডায়ালার ছাড়া বাকিসব ফিচার বন্ধ থাকে, যা কোনো কাজ মনোযোগ সহকারে সম্পন্ন করতে সাহায্য করে। এমনকি ফোন রিস্টার্ট করলেও ফোকাস মোড বন্ধ হয়না। কোনো কাজ করার সময় অল্পতেই বিভ্রান্ত হয়ে পড়লে ফোকাস মোডের ব্যবহার বেশ উপকারে আসতে পারে।

👉 শাওমি মি একাউন্ট কি? Mi Account এর সুবিধা কি?

কন্ট্রোল সেন্টার

অনেকটা আইওএস এর কন্ট্রোল সেন্টার থেকে ইন্সপিরেশন নিয়ে নিজের নোটিফকেশন শেড ঢেলে সাজিয়েছে শাওমি। মিইউআই ১২ তে উপরে বাম দিক থেকে নিচের দিকে সোয়াইপ করলে নোটিফিকেশনসমূহ দেখা যায়। আবার ডানদিক থেকে নিচের দিকে সোয়াইপ করলে কুইক সেটিংস প্যানেল এর দেখা মিলবে।

MIUI 12 কন্ট্রোল সেন্টার

মি শেয়ার

নাম শুনে এই ফিচারটি শাওমি মোবাইলের জন্য এক্সক্লুসিভ মনে হলেও প্রায় যেকোনো ব্র‍্যান্ডের ফোনে মি শেয়ার অ্যাপটি কাজ করে। ছবি, ভিডিও, সিনেমা বা যেকোনো ডকুমেন্ট সহজে শেয়ার করা যায় মি শেয়ার এর মাধ্যমে।

👉 আসল শাওমি ফোন চেনার উপায়

👉 শাওমি MIUI পিওর মোড কী?

আলট্রা ব্যাটারি সেভার

শাওমি ফোন অনেক আগে থেকেই তাদের অসাধারণ ব্যাটারি লাইফের জন্য পরিচিত। একইভাবে জরুরি মুহূর্তে ফোনের ব্যাটারি ব্যাকাপ বৃদ্ধি করতে মিইউআই এর আল্ট্রা ব্যাটারি সেভার ফিচারটি বেশ কাজে দেয়। এটি মূলত গুরুত্বপূর্ণ কিছু ফিচার, যেমনঃ কল, মেসেজ, ইত্যাদি ছাড়া বাকিসব ফিচার অফ করে দিয়ে ফোনের ব্যাটারি উল্লেখ্যযোগ্য হারে সাশ্রয় করে। এই ফিচারটি চালু করলে ফোনের ডার্ক মোড চালু হয়ে যায়, যার ফলে দীর্ঘক্ষণ ব্যাটারি ব্যাকাপ পাওয়া যায়।

আপনার কাছে কেমন লাগে শাওমির মিইউআই? MIUI সম্পর্কে আপনার মতামত আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,971 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.