বিকাশের এই ফিচারকে পেপালের সাথে তুলনা করা হচ্ছে কেন?

বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত পেপাল নেই এটা সবার জানা। কিন্তু যাদের অনলাইন লেনদেন করতে হয় তারা সবাই পেপাল সম্পর্কে ধারণা রাখেন। কেননা বেশিরভাগ অনলাইন মার্কেটপ্লেস পেপাল সাপোর্ট করে। আবার ফ্রিল্যান্স ক্লায়েন্টদেরও সরাসরি পেমেন্ট করার জন্য পেপাল প্রথম পছন্দ। তাই পেপাল সম্পর্কে একটা ভাল ধারণা রাখেন অনেকেই।

কেউ কেউ বিদেশে কোম্পানি তৈরি করে বিজনেস পেপাল একাউন্ট ব্যবহার করে থাকেন বাংলাদেশে বসে। যদিও এভাবে পেপাল চালানো ঝুঁকিপূর্ণ, কেননা পেপাল কর্তৃপক্ষ চাইলে একাউন্ট লিমিট কিংবা বন্ধ করে দিতে পারে। আবার অনেকে বিদেশি বন্ধুদের একাউন্ট ব্যবহার করেন। পেপাল এতটাই জনপ্রিয়। তাই দেশে পেপাল অফিসিয়ালভাবে কার্যক্রম শুরু না করলে এর অভাব থেকেই যাবে।

পেপালের এত জনপ্রিয়তার কারণ হচ্ছে এর সহজ লেনদেন ব্যবস্থা। আপনার যদি পেপাল একাউন্টে ব্যালেন্স না থাকে তারপরেও আপনি পেপাল দ্বারা পেমেন্ট করতে পারবেন। নিশ্চয়ই মনে প্রশ্ন জেগেছে কীভাবে সম্ভব? পেপাল থেকে সেজন্য আপনার কোনো লোন নিতে হবেনা। বরং আপনি আপনার পেপাল একাউন্টে যুক্ত থাকা ব্যাংক একাউন্ট কিংবা কার্ড থেকে পেমেন্ট সম্পন্ন করতে পারবেন।

পেপাল একাউন্টের সাথে সাপোর্টেড দেশে থাকা ব্যাংক একাউন্ট অথবা ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড যুক্ত করা যায়। তাতে করে আপনি দুটি সুবিধা পাবেন। প্রথমত, তাতে পেপাল কর্তৃপক্ষ আপনার একাউন্টের মালিকানা ভেরিফাই করতে পারে। দ্বিতীয়ত আপনার পেপাল একাউন্টে আপনি টাকা আনতে এবং একাউন্ট থেকে টাকা নিতে সেই কার্ড/ব্যাংক একাউন্ট ব্যবহার করতে পারেন।

সম্প্রতি বিকাশ অ্যাপে এক আপডেটের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্টে যুক্ত কার্ড থেকে সরাসরি পেমেন্ট করার সুবিধা যুক্ত হয়েছে। আপনি যখন দোকানে কেনাকাটা করবেন তখন বিকাশ অ্যাপ থেকে কিউআর কোড স্ক্যান করে সহজেই কেনাকাটার অর্থ পরিশোধ করতে পারেন। এমনকি দোকানের মার্চেন্ট মোবাইল নম্বর বিকাশ অ্যাপ থেকে টাইপ করেও পেমেন্ট করা যায়। এতদিন বিকাশ অ্যাপ থেকে শুধুমাত্র বিকাশ ব্যালেন্স দিয়েই এই পেমেন্ট করা সম্ভব হত। অর্থাৎ আপনার বিকাশ একাউন্টে যত টাকা ব্যালেন্স আছে সেখান থেকে আপনি পেমেন্ট করতে পারতেন।

bkash app card payment

কিন্তু বিকাশের নতুন এই ফিচারের কল্যাণে আপনি বিকাশ একাউন্টে টাকা না থাকলেও বিকাশে যুক্ত কার্ড থেকে বিকাশ অ্যাপ দ্বারা পেমেন্ট করতে পারবেন। আপনার কার্ডটি আপনার সাথে থাকার দরকার হবেনা। বিকাশ অ্যাপের পেমেন্ট অপশনে গিয়ে কতটাকা পে করতে হবে তা লেখার পর সোর্স সেকশন থেকে আপনার সেইভ করা কার্ড সিলেক্ট করে দিন। এরপর পেমেন্ট সম্পন্ন করুন। তবে এক্ষেত্রে আপনি বিকাশে যে ব্যাংকের কার্ড সেইভ করেছেন সেই ব্যাংকের পলিসি অনুযায়ী ওটিপি প্রদান করতে হতে পারে। এমনকি যদি ক্রেডিট কার্ড হয় তাহলে ক্রেডিট কার্ড থেকে বিকাশে টাকা নেয়ার জন্য ফি প্রযোজ্য হতে পারে। তবে যদি ভিসা ডেবিট কার্ড হয় তাহলে আলাদা কোনো চার্জ হয়ত না’ও লাগতে পারে।

bkash app card payment screenshot

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

👉 বিকাশ একাউন্টে ভিসা কার্ড ব্যবহারের নিয়ম

👉 বিকাশের সাথে মাস্টারকার্ড ব্যবহারের উপায়

বাংলাদেশে পেপাল এখনও কার্যক্রম শুরু না করলেও পেপাল নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। যদিও পেপালের বেশ কিছু বিকল্প আছে (যেমন পেওনিয়ার, ওয়াইজ), তবুও পেপাল নিজে যে ব্র্যান্ড এবং বিশ্বস্ততা অর্জন করেছে সেজন্য অনেকেই অনলাইন লেনদেনে প্রথম পছন্দ হিসেবে পেপালকেই বেছে নেন।

আপনি কি বিকাশের এই নতুন সরাসরি কার্ড থেকে পেমেন্টের ফিচার ব্যবহার করবেন? কেমন লাগল নতুন এই ফিচার? কমেন্টে জানান!

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,586 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *