বিকাশ একাউন্ট হ্যাক থেকে রক্ষা পেতে করণীয়

বাংলাদেশে মোবাইলে আর্থিক সুবিধার ক্ষেত্রে বিকাশ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। বাংলাদেশে মোবাইলে আর্থিক সুবিধা গ্রহন করে কিন্তু বিকাশ ব্যবহার করে না বা সে সম্পর্কে জানে না এমন মানুষের সংখ্যা প্রায় শূন্যের কাছাকাছি।

প্রত্যেক জিনিসেরই একটি ভালো এবং খারাপ দিক আছে। বিকাশের ভালো দিক হলো এর মাধ্যমে সাধারণ জনগন মোবাইলে আর্থিক সুবিধা গ্রহন করে তাদের জীবন পরিচালনা করছেন। কিন্তু বিকাশের অতি ব্যবহারের ফলে কিছু অসাধু মানুষ বিকাশ একাউন্ট হ্যাক করে রাতারাতি বড়লোক হতে চায়। আজকের আর্টিকেলে আমরা বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হওয়া সম্পর্কে এবং হ্যাক হলে করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিবো। 

বিকাশ একাউন্ট হ্যাক কিভাবে হয়?

বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হলে কি করতে হবে এটি জানার আগে যদি আমরা বিকাশ একাউন্ট হ্যাক কিভাবে হয় সে বিষয়ে জানতে পারি তাহলে আমাদের বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হওয়া থেকে বাচতে পারবো। মোবাইলে আর্থিক সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশের একাউন্ট সরাসরি হ্যাক করা সম্ভব হয় না কারন বিকাশের সিকিউরিটি সিস্টেম অত্যন্ত কঠোর।

হ্যাকাররা সাধারণত ধোকা দিয়ে মানুষের বিকাশ একাউন্টের এক্সেস নিয়ে নেয়, আর মূলত এটাকেই বিকাশ একাউন্ট হ্যাক বলা হয়ে থাকে। বিকাশ একাউন্ট হ্যাক সাধারণত যেভাবে হয়ে থাকে সেগুলো হলো –

মিথ্যা ভয় দেখিয়ে

যেহেতু বিকাশ একাউন্ট হ্যাকাররা সরাসরি হ্যাক করতে পারে না তাই তারা অনেক সময় মিথ্যা ভয় দেখিয়ে থাকে। তারা নিজেদের বিকাশে কর্মরত দাবি করে একাউন্ট নষ্ট হয়ে যাবার ভয় দেখিয়ে তথ্য চেয়ে সাহায্য চেয়ে থাকেন। এতে করে ভিকটিমরা তাদের বিকাশে থাকা অর্থ হারিয়ে যাবার ভয় পেয়ে অপরাধীর কথা মতো তাকে তার একাউন্টের তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে থাকে। এমন পরিস্থিতিতে পড়লে অপরাধীরা ভিকটিমের মোবাইল ফোনে আসা OTP সংগ্রহ করে বিকাশ একাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে ফেলে অথবা একাউন্ট থেকে টাকা অন্য কোথাও সরিয়ে ফেলে। অপরাধীরা জানে যে যদি তারা ভিকটিমকে সময় দেয় তাহলে ভিকটিম সকল তথ্য যাচাই করে তাদের ধরে ফেলতে পারবে। এজন্য তারা ভিকটিমকে কোনো প্রকার সময় না দিয়ে তাদের তথ্য সংগ্রহ করে ফেলে।

ফিশিংয়ের মাধ্যমে

বিকাশের সিকিউরিটি সার্ভিস অত্যন্ত শক্ত হওয়ায় কেউ চাইলেই বিকাশের সিকিউরিটি সার্ভিস ভেদ করে কোনো একাউন্ট হ্যাক করতে পারবে না। সাধারণত হ্যাকাররা ভিকটিমদের ফিশিং এর পাল্লায় ফেলে দিয়ে তাদের কাছ থেকে বিকাশের পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করে নেয়। ফিশিং বলতে মূলত অপরাধীরা বিভিন্ন লিংক পাঠিয়ে দেয় এবং ভিকটিম সেই লিংকে প্রবেশ করলে বিকাশের নিরাপত্তা জনিত তথ্য চলে যেতে পারে।

পুরস্কারের লোভ দেখিয়ে

অনেক সময় অপরাধীরা ভিকটিমকে বিভিন্ন অর্থ বা লটারির লোভ দেখায়। ভিকটিম লোভে পড়ে তখন অপরাধীর কথা মতো বিকাশের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করে ফেলে। যার ফলে ভিকটিমের বিকাশের নাম্বার, পাসওয়ার্ড সহ জাতীয় পরিচয়পত্র এর মতো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও বেহাত হয়ে যেতে পারে।

বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে করণীয় কি?

আপনি যখনই বুঝতে পারবেন আপনার বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হয়ে গেছে কিংবা কোনো প্রকার অনিয়ন্ত্রিত কার্যকলাপ সম্পন্ন হচ্ছে তখনই নিম্নলিখিত উপায় গুলো অনুসরণ করতে হবে।

  • বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে কিংবা অনিয়ন্ত্রিত কার্যকলাপ হলে সবার আগে বিকাশ একাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করার চেষ্টা করতে হবে।
  • বিকাশ একাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে সক্ষম হলে অপরাধীরা আপনার বিকাশ একাউন্টের এক্সেস হারিয়ে ফেলবে এবং আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে আর কোনো কার্যকলাপ পরিচালনা করতে পারবে না।
  • আপনি আপনার পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে না পারলে যত দ্রুত সম্ভব বিকাশের হেল্প লাইন নাম্বারে কল দিয়ে আপনার বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হবার বিষয়টি জানিয়ে দিন। বিকাশের হেল্প লাইন নাম্বার ১৬২৪৭ অথবা ০২-৫৫৬৬৩০০১ নাম্বারে কল করে আপনি আপনার সমস্যার কথা জানিয়ে দিতে পারেন।
  • হেল্প লাইন নাম্বারে কল দেওয়ার পরে আপনি যে একাউন্টের প্রকৃত মালিক সে বিষয়ে নিশ্চিত হবার জন্য আপনার কাছে প্রয়োজনীয় তথ্য জানতে চাইবে। প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করা হলে তারা আপনার বিকাশ একাউন্টটি সাময়িক বন্ধ করে দিবে যার ফলে হ্যাকার আপনার একাউন্টে কোনো প্রকার লেনদেন করতে পারবে না।
  • বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হবার তথ্য যত জলদি বিকাশের হেল্প লাইনে জানানো যাবে ততো বেশি সম্ভাবনা থাকবে একাউন্ট এর টাকা বাচানোর। এছাড়া যদি আপনার একাউন্ট থেকে টাকা অন্য বিকাশ একাউন্টে ট্রান্সফার হয়ে যায় তাহলে বিকাশ কর্তৃপক্ষ সেই একাউন্টের তথ্য প্রদান করে সহায়তা প্রদান করতে পারে। 
  • সর্বশেষে আপনি ৯৯৯ নাম্বারে কল করে পুলিশকে আপনার সকল সমস্যা সম্পর্কে অবহিত করতে পারেন এবং থানায় একটি জিডি দায়ের করতে পারেন। এর ফলে আপনি আপনার হারানো অর্থ পাবার ক্ষেত্রে পুলিশের সহায়তা পেতে পারেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

prevent bkash account from being hacked

👉 মোবাইল ব্যাংকিংয়ে নিরাপদ থাকার উপায়

বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হওয়া থেকে বাচার জন্য করণীয় কি?

বিকাশ একাউন্ট সুরক্ষিত রাখার জন্য কিছু সতর্কতা মেনে চলা উচিত। এসকল সতর্কতা মেনে চললে আপনি খুব সহজেই আপনার অর্জিত অর্থ হ্যাক হওয়া থেকে বাচতে পারেন। যে সকল বিষয় মেনে চলা উচিত সেগুলো হলো- 

  • একাউন্টের পাসওয়ার্ড হিসেবে স্ট্রং কোনো কিছু নির্বাচন করুন। জন্ম সাল, বিবাহের সাল কিংবা পছন্দনীয় সংখ্যা এগুলো পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাসওয়ার্ড একান্তই আপনার নিজস্ব জিনিস। আপনার বিকাশ একাউন্টের পাসওয়ার্ড কখনো কারো কাছে প্রকাশ করবেন না। আপনার অতি আপনজন হলেও কখনো আপনার পাসওয়ার্ড অন্য মানুষের কাছে দিবেন না।
  • সব সময় মনে রাখবেন বিকাশ কখনো আপনার OTP জিজ্ঞাসা করে না। কেউ কখনো আপনার কাছে আপনার ফোনে আসা OTP জানতে চাইলে তাকে সেটি দেওয়া থেকে বিরত থাকুন।
  • আপনার জন্ম তারিখ কিংবা ন্যাশনাল আইডি কার্ড নাম্বার আপনার খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি তথ্য। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া এসকল তথ্য ব্যবহার করবেন না।
  • অনেক সময় অপরাধীরা আপনাকে অতিরিক্ত অর্থ কিংবা লটারির লোভ দেখিয়ে আপনার কাছে ইনফরমেশন জানার জন্য ফোন দিবে। অপরাধীদের ফাদে পা না দিয়ে সাথে সাথে বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে সেটা জানিয়ে দিন। 
  • আপনার একাউন্ট বন্ধ হয়ে যাবে আপনার একাউন্টের কাজ চলছে এসব ফাঁদে ফেলা কথা বার্তা এড়িয়ে চলুন এবং বিকাশের কাস্টমার কেয়ারে এ বিষয়ে জানিয়ে দিন।
  • বিকাশের সিস্টেম ব্যতীত অন্য কোনো থার্ড পার্টি সফটওয়্যার কিংবা ওয়েবসাইটে আপনার বিকাশ একাউন্টের তথ্য প্রবেশ করানো থেকে বিরত থাকুন।

উপরে বর্নিত বিষয়গুলোর প্রতি খেয়াল রাখতে পারলে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হওয়া থেকে বাচতে পারেন। এতে করে আপনার অর্থ সুরক্ষিত থাকবে।

বিকাশ দিন দিন দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক ভূমিকা পালন করছে। বিকাশ ব্যবহার করে এখন বিদেশ থেকেও রেমিট্যান্স হিসেবে অর্থের লেনদেন করা সম্ভব। বিকাশের সঠিক ব্যবহার ব্যবহারকারীকে তাদের অর্থ নিশ্চিন্তে রাখার সুবিধা প্রদান করে। বিকাশ একাউন্ট হ্যাক হওয়া সম্পর্কে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারবেন। এছাড়া প্রযুক্তি ভিত্তিক সকল প্রকার নতুন নতুন তথ্য এবং টিপস পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েবসাইটে। 

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,572 other subscribers

3 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *