ব্লুটুথ স্পিকার ফোনের সাথে সংযুক্ত না হলে করণীয়

আমরা অনেক সময়ই আমাদের ফোনের সাথে ব্লুটুথ স্পিকার কানেক্ট করে সেটি দিয়ে বিভিন্ন কাজ করে থাকি। তবে এমন ক্ষেত্রে যদি ফোনের সাথে ব্লুটুথ স্পিকার কানেক্ট না হয় তাহলে সেটি প্রচুর বিরক্তিকর অবস্থার সৃষ্টি করে। তবে চিন্তার কোনো কারণ নেই। কেননা আপনি খুব সহজেই অল্প সময়ের মধ্যে এই সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ব্লুটুথ স্পিকার ফোনের সাথে কানেক্ট না হলে কি করতে হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

আপনার ফোনে ব্লুটুথ চালু আছে কিনা সেটা খেয়াল রাখা

অন্য কোনো কিছু করার আগে প্রথমে আপনার ফোনে ব্লুটুথ অপশন চালু করা আছে কি না সে ব্যাপারে লক্ষ্য রাখুন। যদিও এটা অনেক সাধারণ একটি পদক্ষেপ কিন্তু অনেক সময় আমরা ব্লুটুথ কানেক্ট না হওয়ায় বিরক্ত হয়ে এই ছোট ব্যাপারে খেয়াল করি না। বিশেষ করে আপনি যখন ব্লুটুথ সব সময় চালু রাখেন তখন এই ব্যাপারটার দিকে খুব বেশি একটা খেয়াল রাখা হয় না। 

আইফোন এবং বেশির ভাগ এন্ড্রয়েডে আপনি আপনার ফোনের স্ক্রিন উপর থেকে নিচের দিকে সোয়াইপ ডাউন করে নোটিফিকেশন প্যানেল নামিয়ে ব্লুটুথ আইকনে ট্যাপ করে এটি চালু করতে পারবেন। কিন্তু আপনি যদি তাও এখানে এটি না পান তাহলে ফোনের সেটিংস অ্যাপ চালু করে সার্চ বারে ব্লুটুথ টাইপ করলে এটি আপনাকে ব্লুটুথ মেনুতে নিয়ে যাবে। যদি আপনার ব্লুটুথ সব সময় চালু করা থাকে তাহলে এটি একবার বন্ধ করে পুনরায় চালু করুন। এই দ্রুততম উপায়ে ঠিক করার ফলে আপনার ফোন আশে পাশে থাকা ব্লুটুথ ডিভাইস খোঁজা শুরু করবে এবং সেখানে আপনার ব্লুটুথ ডিভাইস চলে আসবে।

ব্লুটুথ স্পিকার অন্য কোনো ডিভাইসের সাথে কানেক্ট আছে কি না তা চেক করা

আপনি যদি আপনার ব্লুটুথ স্পিকার বাসার অন্য কোনো ডিভাইসের সাথে কানেক্ট করে ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনার স্পিকার অন্য কোনো ডিভাইসের সাথে এখনো কানেক্ট থাকার বেশ ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। আপনার কাছে থাকা সকল ডিভাইস যেগুলোতে অডিও প্লে ব্যাক করার সুযোগ রয়েছে সেগুলো চেক করুন। এর মধ্যে অন্য কোনো ফোন, ট্যাবলেট, ল্যাপটপ, কম্পিউটার, গাড়ির স্টেরিও, গেমিং কনসোল এমনকি স্মার্ট ওয়াচও অন্তর্ভুক্ত। কাছাকাছি থাকা সকল ডিভাইসের ব্লুটুথ সেটিংস চালু করে দেখুন কোনোটির সাথে আপনার স্পিকার কানেক্ট করা আছে কি না। যদি কানেক্ট করা থাকে তাহলে সেটিকে ডিসকানেক্ট করে দিয়ে আপনার ফোনের সাথে কানেক্ট করার সুযোগ তৈরি করে দিন।

স্পিকার সম্পূর্ণ রূপে চার্জ করা আছে কি না তা দেখে নেওয়া

একটি স্পিকারে যদি খুব অল্প পরিমানে চার্জ থাকে তাহলে এটি হয়তো চালু নাও হতে পারে অথবা চালু হলেও কোনো ডিভাইসের সাথে কানেক্ট না হতে পারে। বেশির ভাগ ব্লুটুথ ডিভাইসে একটি বিল্ট ইন ব্যাটারি লাইট ইন্ডিকেটর রয়েছে যেটি চেক করে দেখতে পারবেন যে আপনার বুটুথ স্পিকারে চার্জ আছে কি না। তবে সুরক্ষার খাতিরে আপনি আপনার ব্লুটুথ স্পিকারে ৩০ মিনিট চার্জ দিয়ে দেখতে পারেন যে আপনার সমস্যার সমাধান হচ্ছে কি না।

ব্লুটুথ স্পিকারকে পেয়ারিং মোডে নিয়ে যাওয়া

আপনি যখন কোনো ডিভাইসকে ব্লুটুথ স্পিকারের সাথে প্রথম বার সংযুক্ত করতে চাবেন তখন অবশ্যই সেই ব্লুটুথ স্পিকারের পেয়ারিং মোড চালু করতে হবে। আপনি যদি স্পিকারটি নতুন কিনে থাকেন তাহলে এর পাওয়ার বাটনে প্রেস এবং হোল্ড করে ধরে রাখুন। তবে বেশির ভাগ ব্লুটুথ স্পিকার যখন চালু করা হয় তখন অটোমেটিক ভাবে পেয়ারিং মোডে চলে যায়। পেয়ারিং মোডে আপনার ব্লুটুথ স্পিকার আছে কি না সেটি জানানোর জন্য এটি একটি শব্দ বা এলইডি ফ্ল্যাশের মাধ্যমে সংকেত দিয়ে থাকে।

তবে কিছু কিছু মডেলের ব্লুটুথ স্পিকারের জন্য ম্যানুয়ালি এই পেয়ারিং মোড চালু করতে হয়। এজন্য এখানে ব্লুটুথ কিংবা পেয়ারিং বাটন থাকবে যেটিকে কিছু সময় প্রেস করে ধরে রাখতে হবে। এরপর আপনি আপনার ফোন এই ব্লুটুথ স্পিকারের সাথে সংযুক্ত করতে পারবেন। তবে আপনি যদি এটি না খুঁজে পান তাহলে স্পিকারের সাথে আসা নির্দেশনা ম্যানুয়াল অনুসরণ করতে পারেন। 

আপনার ফোন থেকে অন্যান্য ব্লুটুথ ডিভাইস ডিসকানেক্ট করা

আপনার ফোন যদি ইতিমধ্যে অন্যান্য ব্লুটুথ ডিভাইস যেমন এয়ার বাডের সাথে কানেক্ট করা থাকে তাহলে এটি নিকটস্থ ব্লুটুথ ডিভাইস খুঁজে বের করা বন্ধ করে দেয়। কিংবা আপনি হয়তো আপনার ব্লুটুথ স্পিকারকে লিস্টে খুঁজে পাবেন কিন্তু এটি তার সাথে কানেক্ট হবে না। এই কারনে আপনার ব্লুটুথ স্পিকারের সাথে কানেক্ট করার আগে এরকম অন্য ডিভাইসকে ডিসকানেক্ট করে তারপর চেষ্টা করুন।

ব্লুটুথ স্পিকারকে ফোনের কাছে নিয়ে আসা

ব্লুটুথ ২.৪ গিগা হার্জ ফ্রিকুয়েন্সি ব্যান্ডে কাজ করে থাকে। আশে পাশে থাকা ডিভাইসগুলোও যদি একই ব্যান্ডে থাকে তাহলে এটি ব্যবহার করা অনেক কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়ে। এজন্য পেয়ারিং মোডে থাকা অবস্থায় আপনার ব্লুটুথ স্পিকারকে ফোনের যত কাছে পারেন নিয়ে আসার চেষ্টা করুন। এছাড়াও অন্যান্য যে সকল ডিভাইস সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে সেগুলো থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করুন। এগুলোর মধ্যে আপনার ঘরে থাকা ওয়াইফাই রাউটার, মাইক্রো ওয়েভ, টিভি, স্মার্ট হোম সামগ্রী, ওয়ারলেস কম্পিউটার পেরিফেরাল এবং সকল ধরনের ব্লুটুথ এবং ওয়াইফাই যুক্ত ডিভাইস অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। 

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

bluetooth speaker

স্পিকারকে ফোনের সাথে পেয়ার এবং আনপেয়ার করা

আপনার ফোন যদি আপনার ব্লুটুথ স্পিকারের সাথে ইতিমধ্যে পেয়ার করা থাকে তাহলে একটি সহজ উপায় হলো এটিকে আনপেয়ার করে পুনরায় পেয়ার করে ব্যবহার করা। আপনি আপনার ফোনের ব্লুটুথ সেটিংসে যেয়ে এই কাজ সহজেই করতে পারেন। ফোন থেকে আপনার ব্লুটুথ স্পিকারকে আনপেয়ার করে পুনরায় স্পিকারকে পেয়ারিং মোডে নিয়ে যেতে হবে। সেখানে পুনরায় আপনার ফোনের সাথে স্পিকার কানেক্ট করার মাধ্যমে আপনি ব্লুটুথ স্পিকার ব্যবহার করতে পারেন। 

আপনার ফোন ব্লুটুথে ডিসকভারেবল আছে কি না যাচাই করা

যখন আপনার ফোন ব্লুটুথে ডিসকভারেবল থাকে না তখন অনেক ব্লুটুথ স্পিকারের জন্য এটি খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। এন্ড্রয়েড ফোনের ক্ষেত্রে এই কাজটি সহজে করার জন্য আপনাকে সেটিংস অপশন থেকে ব্লুটুথ সেকশনে যেতে হবে। সেখান থেকে দেখতে হবে আপনার ডিভাইসে ভিজিবল টু আদার ডিভাইস অপশনটি চালু আছে কি না। যদি চালু না থাকে তাহলে সেটি চালু করে অন্য ডিভাইসের জন্য ডিসকভারেবল করে দিতে হবে।

উভয় ডিভাইস রিস্টার্ট করা

যেকোনো ধরনের টেক ডিভাইসের ক্ষেত্রে সবচেয়ে সহজ এবং কার্যকরী উপায় হলো সেটিকে একবার বন্ধ করে পুনরায় চালু করা। আপনি আপনার স্মার্টফোন এবং ব্লুটুথ স্পিকার দুটি ডিভাইসই রিস্টার্ট করে দেখতে পারেন আপনার সমস্যার সমাধান করা যায় কি না।

যদি এগুলোর মধ্যে কোনো উপায় অনুসরণ করে আপনার ব্লুটুথ ডিভাইস কানেক্ট না হয়ে থাকে তাহলে ব্লুটুথ স্পিকার উৎপাদন করা কোম্পানির কাস্টমার সাপোর্টের সাথে যোগাযোগ করে সমস্যা দূর করার চেষ্টা করুন। এছাড়া যদি আপনার স্পিকারের কোনো ধরনের ওয়ারেন্টি থেকে থাকে তাহলে সেটি ব্যবহার করে আপনার স্পিকার পরিবর্তন করে দেওয়ার দাবি জানাতে পারেন। 

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,586 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *