এন্ড্রয়েডে বাইরের APK ফাইল ইনস্টলের বিপদগুলো জানুন

আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে থাকেন, তবে হয়ত ইতিমধ্যে গুগল প্লে স্টোর এর বাইরে থেকে অ্যাপ ইন্সটল করার কথা জেনে থাকবেন। অ্যাপল অ্যাপ স্টোর ব্যতিত বাইরের উৎস থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করা যায়না অ্যাইফোনে। অ্যান্ড্রয়েডে এই সুবিধা থাকলেও এর কিছু নেতিবাচক দিক রয়েছে যা অনেকেই এড়িয়ে চলেন।

“Unknown Sources” থেকে অ্যাপ ইন্সটল করার সময় লোকজন গুগল এর তৈরি সকল ধরনের সিকিউরিটি চেক স্কিপ করে যায়। তাই বাইরের অজানা সোর্স থেকে অ্যাপ ডাউনলোড এর মাধ্যমে ইমেইল, পাসওয়ার্ড, ব্যাংকিং ডাটাসহ যেকোনো ব্যক্তিগত তথ্য চুরি হয়ে যেতে পারে।

আপাতদৃষ্টিতে দেখে কোনো অ্যাপ ক্ষতিকর কিনা তা বুঝার কোনো উপায় নেই। তবে কোনো অ্যাপ যদি কোনো কারণ ছাড়াই প্লে স্টোরে পাওয়া না যায়, তবে উক্ত অ্যাপ যে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা।

এই পোস্টে আমরা আলোচনা করবো কেনো বাইরের কোনো উৎস থেকে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে অ্যাপ ইন্সটল করা উচিত নয় সে সম্পর্কে।

সেসব অ্যাপ ক্ষতিকর হতে পারে!

৩মিলিয়নের অধিক অ্যাপ রয়েছে গুগল প্লে স্টোরে। এছাড়া প্রতিদিন ৩,৭০০ এর অধিক নতুন অ্যাপ আসে প্ল্যাটফর্মটিতে। তবে তার মানে এই নয় যে প্লে স্টোরে আপনি সকল অ্যাপ পেয়ে যাবেন। উদাহরণস্বরুপঃ জনপ্রিয় বেঞ্চমার্কিং অ্যাপ, AnTuTu প্লে স্টোর থেকে ২০২০সালে রিমুভ করে দেয় গুগল। তবে এখনো এই বেঞ্চমার্কিং অ্যাপটি ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যায়, যা “unknown source” এর মধ্যে পড়ে।

AnTuTu একটি উদাহরণ মাত্র, এই ধরনের অনেক অ্যাপ রয়েছে যা প্লে স্টোরে নেই। সে অ্যাপগুলো থার্ড-পার্টি সোর্স থেকে ডাউনলোড করতে হয়। যেহেতু এসব অ্যাপ এর নিরাপত্তা নিশ্চিত নয়, তাই এসব অ্যাপে ব্লোটওয়্যার, র‍্যানসমওয়্যার, স্পাইওয়্যার, কি-লগার সহ অনেক ধরনের ম্যালওয়্যার থাকতে পারে।

ক্ষতিকর অ্যাপ ডিভাইস এর মধ্যে লুকিয়ে থাকে ও ডিভাইস এর র‍্যাম, স্টোরেজ, ব্লুটুথ, সেলুলার, ওয়াইফাই, ইত্যাদি গোপনে অ্যাকসেস করতে থাকে। গুরুত্বপূর্ণ এসব সকল স্থানে অ্যাকসেস পেয়ে গেলে এসব অ্যাপ ডিভাইসে যা ইচ্ছা করতে পারে। গোপনে এসব ক্ষতিকর অ্যাপ আপনার ফোনে ম্যালওয়্যার এর বন্যা নিয়ে এলেও আপনি টেরই পাবেন না। এই ধরনের অ্যাপ সাধারণত ডিভাইস-ভিত্তিক সাইবার অ্যাটাক এর কাজে ব্যবহৃত হয়।

👉 গুগল একাউন্টে টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন ব্যবহারের বিভিন্ন পদ্ধতি জানুন

এন্ড্রয়েডে বাইরের APK ফাইল ইনস্টলের বিপদগুলো জানুন

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

ক্ষতিকর অ্যাপ থেকে বাঁচবেন যেভাবে

২০২১ সালে থার্ড-পার্টি অ্যাপ স্টোর, এপিকেপিউর প্ল্যাটফর্মে থাকা অ্যাপ এর মাধ্যমে ট্রজান ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে ব্যবহারকারীদের ডিভাইসে। গেমিং কনসোল ও কম্পিউটারের জন্য যখন Cyberpunk 2077 গেম আসে, তখন এই গেমের মোবাইল ভার্সন এর নাম করে অনেক ফোন এটাক করে হ্যাকাররা। এছাড়া এড ব্যানারে ক্লি করে ডাউনলোড করা বিভিন্ন এডাল্ট কনটেন্ট অ্যাপ এর মাধ্যমেও অগণিত হারে ম্যালওয়্যার ছড়াচ্ছে।

সাধারণত ডিফল্ট সেটিংসে বাইরের সোর্স থেকে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে অ্যাপ ইন্সটল করার পারমিশন চালু থাকেনা। এই ফিচার চালু করতে গেলে কি কি সমস্যা হতে পারে সে সম্পর্কে সাবধানতাও দেওয়া হয়। আর সাবধানতাই হলো ক্ষতিকর অ্যাপ ও স্মার্টফোন এর মধ্যে একমাত্র নিরাপত্তা বেড়ি। একবার এই পারমিশন চালু করে দেওয়ার পর অনেকেই আর থার্ড-পার্টি সোর্স থেকে অ্যাপ ইন্সটল করতে দুইবার ভাবেনা।

তাই ফোনকে উল্লেখিত ধরনের সমস্যা থেকে সহজে দূরে রাখতে unknown sources থেকে অ্যাপ ইন্সটল করা থেকে বিরত থাকুন। আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনকে নিরাপদ রাখতে গুরুত্বপূর্ণ সকল পদক্ষেপ নিতে ভুলবেন না। আর অবশ্যই র‍্যান্ডম লিংক ও ব্যানার এডে ক্লিক করা থেকে অবশ্যই দূরে থাকুন।

👉 এন্ড্রয়েড ফোন নিরাপদ রাখতে এই কাজগুলো করুন

গুগল প্লে স্টোর যেভাবে এই সমস্যার মোকাবেলা করছে

প্রতিটি অ্যাপ প্লে স্টোরে সাবমিট হওয়ার পর তার ওপর কঠোর পরীক্ষা চালায় গুগল। এই রিভিউ প্রসেসে উক্ত অ্যাপ ব্যবহারকারীদের জন্য ক্ষতিকর বলে মনে হলে ঐ অ্যাপ প্লে স্টোরে আসতে পারেনা। এছাড়া কোনো অ্যাপ কি কি পারমিশন চায়, তার তালিকা চেয়ে থাকে গুগল। প্লে স্টোর থেকে যেকোনো অ্যাপে প্রবেশ করে About সেকশনে গিয়ে App Permissions এর পাশে থাকা See More অপশনে ট্যাপ করলে একটি অ্যাপ কি কি পারমিশন নিবে তার তালিকা দেখতে পাবেন।

সকল অ্যান্ড্রয়েড ফোনে গুগল প্লে প্রটেক্ট ফিচারটি নিজ থেকে চালু থাকে। প্রতিটি অ্যাপ ইন্সটল এর আগে এই সিস্টেম চেক করে থাকে। প্লে প্রটেকশন যদি অ্যাপ স্ক্যান করে কোনো ক্ষতিকর কিছু পায়, তবে তা ডিভাইস থেকে ডিলিট করে দেয়। এছাড়া ব্যবহারকারীদের উক্ত অ্যাপ সম্পর্কে নোটিফিকেশন পাঠায় গুগল যাতে লেখা থাকে উক্ত অ্যাপ Unwanted Software Policy ভঙ্গ করেছে।

আপনার ফোনে গুগল প্লে প্রটেক্ট চালু আছে কিনা দেখতে প্লে স্টোরে প্রবেশ করে ডানদিকের টপে থাকা প্রোফাইল আইকনে ট্যাপ করুন, প্রথমে Play Protect ও এরপর Settings অপশনে ট্যাপ করুন। এবার চেক করুন Scan apps with Play Protect অপশনটি চালু আছে কিনা। সহজ ভাষায় বলতে গেলে থার্ড-পার্টি সোর্স বাদ দিয়ে শুধুমাত্র গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করা সবচেয়ে উত্তম ও নিরাপদ।

👉 ভিডিওঃ মোবাইল ব্যাংকিংয়ে নিরাপদ থাকার উপায়

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,636 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.