আইফোন ১২ সিরিজ প্রকাশ করল অ্যাপল – বাদ গেলো চার্জার ও হেডফোন!

অবশেষে ২০২০ সালের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন, আইফোন ১২ সিরিজ উন্মোচন করলো অ্যাপল। এই বছর আইফোন ১২, আইফোন ১২ প্রো ও আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স – মডেল তিনটির পাশাপাশি অপেক্ষাকৃত ছোট স্ক্রিনের আইফোন ১২ মিনি নিয়ে এসেছে অ্যাপল। এবার প্রত্যেকটি মডেলের আইফোনে থাকছে অ্যাপলের লেটেস্ট ও গ্রেটেস্ট, এ১৪ বায়োনিক চিপ। এই চিপের সুবাদে নতুন সিরিজের প্রত্যেকটা আইফোনেই থাকবে ৫জি কানেকটিভিটি সুবিধা। প্রত্যেকটি মডেলের আইফোন ১২ এ থাকছে ওলেড ডিসপ্লে। আইফোন ১২ প্রো মডেলগুলোতে থাকছে স্টেইনলেস স্টিল ডিজাইন, যেখানে অন্য দুইটি মডেলে দেখা মিলবে অ্যালুমিনিয়াম এর।

আইফোন ১২ নতুন ফিচার

চলুন দেখে নিই নতুন কী নিয়ে আসছে আইফোন ১২ ডিভাইসগুলো!

ডিজাইন ও চিপসেট

আইফোন ১২ সিরিজের অন্যতম প্রধান পরিবর্তন এসেছে এর ডিজাইনে। আইফোন ৪ এ প্রথম দেখা মিলেছিল এই ধরনের স্কয়ার ডিজাইন। স্টিভ জবসের করা জনপ্রিয় সেই বক্স টাইপ ডিজাইন আবারো ফিরে এসেছে আইফোন ১২ সিরিজে। আইফোন ১০ সিরিজ বেজেল ছাড়া ডিজাইন আনার পর এটাই আইফোন এর ডিজাইনে লক্ষণীয় পরিবর্তন। অ্যাপল এর দাবি, আইফোন ১২ সিরিজে ব্যবহৃত এ১৪ বায়োনিক চিপ গতবছরের এ১৩ বায়োনিক চিপ অপেক্ষা ৫০% অধিক দ্রুতগতি সম্পন্ন।

আইফোন ১২ ও আইফোন ১২ মিনি

আইফোন ১২ ও আইফোন ১২ মিনি

আইফোন এসই বাজারে এনে ব্যবহারকারীদের কাছে ব্যাপক সাড়া পেয়েছিলো অ্যাপল। যেখানে প্রত্যেকটি স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ফোনের স্ক্রিনে বড় করার প্রতিযোগীতায় নেমেছে, সেখানে অ্যাপলের ছোট ডিসপ্লের ফোন, আইফোন এসই, রাতারাতি ব্যবহারকারীদের অন্যতম প্রিয় ফোনের তালিকায় জায়গা করে নেয়। সেই ব্যাপারটিকে গুরুত্ব দিয়ে ২০২০ এর আইফোন লাইন-আপে যুক্ত হয়েছে আইফোন ১২ মিনি। ৫.৪ইঞ্চির অপেক্ষাকৃত ছোট ডিসপ্লের এই আইফোনে আইফোন ১২ মডেল এর সকল সুবিধাই থাকছে। আরো থাকছে “সিরামিক শিল্ড” প্রযুক্তি, যা ফোন হাত থেকে পড়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে স্ক্রিনের জন্য চারগুণ অধিক সুরক্ষা নিশ্চিত করবে। থাকছে উন্নততর লো-লাইট ক্যামেরা পারফর্মেন্স।

আইফোন ১২ ও ১২ মিনিতে থাকছে ডুয়াল ক্যামেরা সেটাপ – ১২ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড ও আল্ট্রা-ওয়াইড ক্যামেরা। আইফোন ১২ মিনি এর দাম ধরা হয়েছে ৬৯৯ মার্কিন ডলার। ৬.১ইঞ্চি স্ক্রিনের আইফোন ১২ কিনতে হলে ক্রেতাদের গুণতে হবে বাড়তি ১০০ ডলার। আইফোন ১২ এর দাম ৭৯৯ মার্কিন ডলার। দুইটি আইফোন মডেলের বেস ভ্যারিয়েন্ট ৬৪জিবি স্টোরেজ। এছাড়াও ১২৮ জিবি ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টেও পাওয়া যাবে ফোন দুইটি। ব্লু, গ্রিন, ব্ল্যাক ও হোয়াইট – এই চারটি কালারে পাওয়া যাবে আইফোন ১২ ও আইফোন ১২ মিনি।

আইফোন ১২ প্রো ও আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স

আইফোন ১২ প্রো ক্যামেরা

৬.১ ইঞ্চি ডিসপ্লের আইফোন ১২ প্রো এর দাম ধরা হয়েছে ৯৯৯ মার্কিন ডলার। অন্যদিকে ৬.৭ইঞ্চি ডিসপ্লের আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স পাওয়া যাবে ১০৯৯ মার্কিন ডলারে। প্রো মডেল দুইটিতে পাওয়া যাবে লাইডার সেন্সর এর সুবিধা, যা এআর ইফেক্টে ব্যবহৃত হয়। প্রো মডেল দুইটিতে আরো থাকছে “সিরামিক শিল্ড” প্রযুক্তি, যা ফোন হাত থেকে পড়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে স্ক্রিনের জন্য চারগুণ অধিক সুরক্ষা নিশ্চিত করবে। আইফোন ১২ প্রো ও আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স পাওয়া যাবে চারটি কালার ভ্যারিয়েন্টে – গ্রে, স্টেইনলেস স্টিল, গোল্ড ও ব্লু।

আইফোন ১২ প্রো ও আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স এ থাকছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ। গতবছরের ন্যায় ১২ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড, আল্ট্রা-ওয়াইড ও টেলিফটো ক্যামেরা থাকছে আইফোন ১২ প্রো মডেল দুইটিতে। অ্যাপল এর দাবি, গতবছরের আইফোন অপেক্ষা ২৭% ভালো লো-লাইট ছবি তুলতে পারবে এইবছরের আইফোন ১২ প্রো ও প্রো ম্যাক্স। এছাড়াও ৫২ ন্যানোমিটারের টেলিফটো লেন্স দিয়ে ৪এক্স অপটিক্যাল জুম এর সুবিধাও পাওয়া যাবে। আইফোন ১২ প্রো ও আইফোন ১২ প্রো এর বেস মডেল এ থাকছে ১২৮ জিবি স্টোরেজ। এছাড়াও ২৫৬ জিবি এবং ৫১২ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টেও পাওয়া যাবে আইফোন ১২ এর প্রো মডেল দুইটি।

আইফোন ১২ এর সাথে থাকছেনা হেডফোন ও চার্জার

অ্যাপলের পরিবেশবান্ধব প্রকল্পের অংশ অনুসারে এইবারের আইফোন ১২ সিরিজের বক্সে ইউএসবি ওয়াল চার্জার ও ইয়ারপড হেডফোন দিচ্ছেনা অ্যাপল। কিছুদিন আগে লঞ্চ করা অ্যাপল ওয়াচেও ওয়াল চার্জার অ্যাডাপ্টার দেয়নি অ্যাপল। তবে আইফোন ১২ সিরিজের ফোনগুলির বক্সে দেওয়া থাকবে ইউএসবি-সি টু লাইটেনিং ক্যাবল। ফলে আপনি কোনো ইউএসবি-সি পোর্টে ঐ ক্যাবলটি ইনসার্ট করে আইফোন চার্জ দিতে পারবেন।

রেকর্ডসংখ্যকবার ফাঁস হওয়ার পর অবশেষে এলো আইফোন ১২। কেমন লাগল আপনার? কোনটি কিনবেন?

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,592 other subscribers

Comments