ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্যে মার্কিন সরকারকে এক্সেস দিয়েছে মাইক্রোসফট!

মাইক্রোসফটের সার্ভারে থাকা ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্যে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের গভীর প্রবেশাধিকার আছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। কোম্পানিটির স্কাইপ, আউটলুক, স্কাইড্রাইভ, হটমেইল প্রভৃতির এনক্রিপশন সিস্টেম ভেঙে ইমেইল, চ্যাট, ভিডিও কল সহ ইউজারদের বিস্তারিত তথ্যের ওপর নজর রাখতে পারে/পারত এনএসএ (ন্যাশনাল সিক্যুরিটি এজেন্সি); মার্কিন কর্তৃপক্ষের প্রিজম প্রোগ্রামের আওতায় মাইক্রোসফটের সাথে সরকারের একযোগে কাজ করে যাওয়ার এসব চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক গার্ডিয়ান পত্রিকা।

এডওয়ার্ড স্নোডেন কর্তৃক সরবরাহকৃত কয়েকটি ফাইলের বরাত দিয়ে প্রকাশিত ঐ প্রতিবেদন থেকে গত তিন বছর যাবত এনএসএ’র সাথে মাইক্রোসফটের গোপন যোগাযোগের ব্যাপারে জানা যায়।

আউটলুক ডটকম অফিসিয়ালভাবে চালু হওয়ার আগেই এর এনক্রিপশন পদ্ধতি আনলক করার উপায় এনএসএ’কে জানিয়ে দিয়েছিল মাইক্রোসফট! এছাড়া হটমেইল সার্ভারেও এ ধরনের “মাস্টার এক্সেস” পেয়েছে এনএসএ।

ক্লাউড সেবা স্কাইড্রাইভকে প্রিজম টুলের মাধ্যমে এক্সেস দিতে চলতি বছর এফবিআইয়ের সাথেও কাজ করেছে মাইক্রোসফট। ফলে ২৫০ মিলিয়ন ব্যবহারকারী সমৃদ্ধ এই অনলাইন স্টোরেজেও লোকজনের তথ্য মনিটর করতে পারত মার্কিন সরকার।

স্কাইপ কিনে নেয়ার ৯ মাস পরে, গত বছর জুলাই মাসে সেবাটি থেকে এনএসএ কর্তৃক ভিডিও কল সংগ্রহ করার ক্ষমতা প্রায় ৩ গুন বেড়ে যায়।

মাইক্রোসফট বরাবরই বলে আসছে তারা ব্যবহারকারীর গোপনীয়তার প্রতি শ্রদ্ধাশীল, তবে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ থাকতে কোন কোন ক্ষেত্রে সরকারকে ইউজারদের তথ্য প্রদান করে আসছে রেডমন্ড।

শুধু মাইক্রোসফট একাই না, বরং গুগল, ইয়াহু, ফেসবুক, অ্যাপল প্রভৃতি বড় বড় প্রযুক্তি কোম্পানির সার্ভারে এনএসএ এর সরাসরি প্রবেশাধিকার রয়েছে বলেও উল্লেখ করেছে গার্ডিয়ান।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,970 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.