বিকাশ লোন নিতে চান? আগে এগুলো জেনে রাখুন

বিকাশ থেকে লোন পাওয়া যায় এটা এখন সবাই জানেন। বিকাশ অ্যাপে কয়েক বছর ধরেই ডিজিটাল লোন পাওয়া যাচ্ছে। বিকাশ অ্যাপ থেকে এই ডিজিটাল মাইক্রো লোন নিতে কোনো ধরনের জামানত কিংবা কাগজপত্র জমা দিতে হয়না। লাগেনা কোনো লোন ইন্ট্রোডিউসার কিংবা গ্যারান্টার। ঘরে বসেই কয়েক ক্লিকে অ্যাপের মধ্যে লোন পাওয়া যায়। যদিও বিকাশ অ্যাপে সবার জন্য লোন ফিচারটি উন্মুক্ত নয়।

সহজেই পাওয়া যায় বলে গ্রাহকরা বিকাশ থেকে লোন নিতে আগ্রহী। কিন্তু এই লোনের প্রাপ্যতা এবং পরিমাণ সম্পর্কে অনেকেই জানেন না। এই পোস্টে আমরা জেনে নিব এমন কিছু তথ্য যা বিকাশ থেকে লোন নিতে যারা আগ্রহী তাদের প্রত্যেকের জানা প্রয়োজন।

বিকাশ লোন আসলে কে দিচ্ছে? 

নামে একে বিকাশ লোন বলা হয় কারণ লোনটি বিকাশ অ্যাপ থেকে পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু মজার ব্যাপার হচ্ছে, লোনের টাকাটা কিন্তু বিকাশ কোম্পানি দিচ্ছেনা। বরং, এই লোনের অর্থায়ন আসে সিটি ব্যাংক থেকে। বিকাশের মাধ্যমে সিটি ব্যাংকের অর্থ লোন বা ঋণ হিসেবে পাওয়া যাচ্ছে। তবে যেহেতু লোনটি গ্রাহকের বিকাশ একাউন্টে আসবে এবং বিকাশ অ্যাপ থেকে এর লেনদেন হবে তাই একে সহজ ভাষায় সবাই বিকাশ লোন বলে থাকে। অবশ্য বিকাশের অফিসিয়াল পেজে লেখা আছে “যখনই প্রয়োজন, সিটি ব্যাংকের লোন নিন বিকাশ অ্যাপ থেকে মুহূর্তেই!”

বিকাশ অ্যাপ থেকে কত টাকা লোন পাওয়া যায়?

বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে সিটি ব্যাংকের ডিজিটাল লোন পাওয়া যায় সেটা তো জানতে পারলেন। এখন নিশ্চয়ই মনে প্রশ্ন জাগছে ঠিক কত টাকা লোন পাওয়া যাবে? যেহেতু সবার লোন পাওয়ার উপযুক্ততা সমান না, তাই সবাই সমান পরিমাণ অর্থ লোন পাবেন না। বিকাশে সর্বনিম্ন ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২০,০০০ টাকা পর্যন্ত লোন পাওয়া যায়। কে কত টাকা লোন পাবেন কিংবা আদৌ পাবেন কি না তা বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী সিটি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। আপনার বিকাশ অ্যাপের লেনদেন যদি ভালো পরিমাণের হয় এবং আপনি যদি অতীতে অন্য কোনো লোন নিয়ে তা সময় মত শোধ করে থাকেন তাহলে আপনার এই লোন পাওয়ার সম্ভাবনা বাড়তে পারে।

কে বিকাশ লোন পাওয়ার উপযোগী?

এটি আরেকটি জনপ্রিয় প্রশ্ন। কেউ কেউ অভিযোগ করেন যে তিনি বিকাশ অ্যাপের মধ্যে গিয়ে লোন অপশনে দেখেন যে তিনি লোনের জন্য উপযুক্ত না। মূলত যারা বিকাশ অ্যাপ থেকে বিকাশ একাউন্ট খুলেছেন এবং যাদের একাউন্ট এজেন্টের নিকট থেকে খোলা হলেও পরে বায়োমেট্রিক তথ্য আপডেট করা হয়েছে তাদের মধ্য থেকে এই লোন পাওয়ার উপযুক্ত গ্রাহক বাছাই করা হয়। ঠিক কী কী যোগ্যতা অনুযায়ী লোন পাওয়া যায় তার কোনো সরাসরি তালিকা বিকাশের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে আমরা দেখতে পাইনি। বিকাশ ও সিটি ব্যাংক প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের সার্ভার থেকেই উপযুক্ত সম্ভাব্য লোন গ্রহীতা বাছাই করে।

আমি কীভাবে জানব আমি বিকাশ লোন পাবো কিনা?

আপনি বিকাশ থেকে সিটি ব্যাংকের লোন পাবেন কি না তা জানতে বিকাশ অ্যাপে লগিন করুন। এরপর বিকাশ অ্যাপ থেকে লোন অপশন ওপেন করলেই দেখতে পাবেন আপনি লোন পাবেন কি না। যদি আপনি এই লোন পাওয়ার উপযোগী হন তাহলে লোন সেকশনে গেলে আপনার জন্য নির্বাচিত লোনের টাকার পরিমাণ দেখতে পাবেন। এটা ৫০০ থেকে ২০,০০০ টাকার মধ্যে একটা পরিমাণ হবে। যদি আপনি এই লোন পাওয়ার উপযুক্ত না হন তাহলে সেখানে লেখা থাকবে যে আপনি লোনটি পাওয়ার জন্য বর্তমানে উপযুক্ত না।

কতদিনের মধ্যে বিকাশ লোন ফেরত দিতে হবে?

আপনি যদি লোন পাওয়ার উপযুক্ত হন তাহলে বিকাশ অ্যাপ থেকে কয়েক ক্লিকেই লোন নিতে পারবেন। লোন রিসিভ করার সময় সেই স্ক্রিনেই দেখতে পারবেন আপনার লোন পরিপূর্ণভাবে ফেরত দেওয়ার তারিখ কত। সাধারণভাবে, বিকাশ থেকে লোন নিলে সেই লোন পরিশোধ করতে হয় ৩ মাসের মধ্যে। 

আপনি চাইলে লোন পরিশোধের নির্দিষ্ট তারিখে আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ অটো ডেবিট হিসেবে কেটে নেয়া হবে। অথবা, আপনি চাইলে নির্দিষ্ট দিনের আগে নিজেই লোনের অর্থ পরিশোধ করতে পারেন। এতে করে ইন্টারেস্টের খরচ কমে আসার সুবিধা পেতে পারেন।

বিকাশ লোনে কি সুদ দিতে হবে? কত শতাংশ?

বিকাশ লোনে ৯% সুদ দিতে হয়। তবে আপনি যদি আগে আগে লোনের অর্থ পরিশোধ করতে পারেন তাহলে সুদের খরচ কিছুটা কমে আসতে পারে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

bkash loan info

যদি সময়মত লোন পরিশোধ না করা হয় তাহলে কী হবে?

নির্দিষ্ট তারিখে লোন গ্রহীতার বিকাশ একাউন্টে যথাযথ পরিমাণ অর্থ না থাকলে এবং নির্দিষ্ট দিনের আগেই লোনের অর্থ গ্রাহক কর্তৃক পরিশোধ না করা হলে, বিলম্ব ফি প্রযোজ্য হবে। এই বিলম্ব ফি’র হার লোনের পরিমাণের উপর বাৎসরিক ২ শতাংশ। বিকাশ থেকে সিটি ব্যাংকের এই লোন নিয়ে তা পরিশোধ না করলে কর্তৃপক্ষ গ্রহীতার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপও নিতে পারে।

আপনার অন্যান্য অপশনও ট্রাই করুন

পারতপক্ষে লোন না নেয়াই ভাল। লোন নিলে আপনার সুদ হিসেবে বাড়তি টাকা খরচ করতে হবে। এর চেয়ে আপনি যদি পরিচিত কারো কাছ থেকে এমনি ধার নিতে পারেন অথবা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে আপনার প্রয়োজন মেটাতে পারেন তাহলে হয়ত আপনি বাড়তি খরচ এড়াতে পারবেন। তাই সেদিকটাও ভেবে দেখতে পারেন। 👉 বিকাশ থেকে লোন নেয়ার আগে এই বিষয়গুলো বিবেচনা করুন

বিকাশ অ্যাপ থেকে লোন নেয়া সংক্রান্ত আমাদের এই পোস্টটি আপনার কেমন লেগেছে কমেন্টে জানান!

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,586 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *