ডাটা এন্ট্রি জব করার সেরা ৯ ওয়েবসাইট

ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার যে কয়টি মাধ্যম রয়েছে, তার মধ্যে ডাটা এন্ট্রি অন্যতম জনপ্রিয়। ডাটা এন্ট্রি করা বেশ সহজ বলে ডাটা এন্ট্রি করে আয় করতে পারবেন যে কেউ। খুব সামান্য ধারণা নিয়েও ডাটা এন্ট্রির কাজ শুরু করা যায়।

ডাটা এন্ট্রি হলো মূলত অনেকটা কপি-পেস্ট এর কাজ। অর্থাৎ ডাটা সংগ্রহ করে তা নির্দিষ্ট ডাটাবেসে জমা করার কাজকে বলা হচ্ছে ডাটা এন্ট্রি। এই ইন্টারনেটের যুগে সকল ডাটা বা তথ্যের অনলাইন কপি রাখা একান্ত জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে। যার ফলে ডাটা এন্ট্রির কাজের চাহিদা দিনদিন বেড়েই চলেছে। [Bonus: Best Investment Apps For Beginners]

ঘরে বসেই যেকেউ একটি ইন্টারনেট সংযোগ আছে এমন কম্পিউটার ব্যবহার করে ডাটা এন্ট্রি করে আয় করতে পারবে। ডাটা এন্ট্রির ক্ষেত্রে টাইপিং স্পিড একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ডাটা এন্ট্রির কাজ বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে, যেমনঃ ক্যাপচা দেখে লিখা, ফরম পূরণ, ডাটা এডিটিং ও ফরম্যাটিং, অনলাইন থেকে তথ্য সংগ্রহ, অডিও ফাইল শুনে লিখা, ইত্যাদি।

ডাটা এন্ট্রি সম্পর্কে সাধারণ ধারণা তো পাওয়া গেলো। এবার জানি চলুন ডাটা এন্ট্রি করে আয় করার সেরা ওয়েবসাইটসমূহ সম্পর্কে।

রেভ – Rev

রেভ (Rev) ডটকম একটি জনপ্রিয় ডাটা এন্ট্রি ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটে ট্রান্সক্রিপশন ও ক্যাপশনিং এর মতো ডাটা এন্ট্রির কাজ পাওয়া যায়। এই ওয়েবসাইটে কাজ শুরু করার আগে কোয়ালিফাইয়ার টাস্ক সম্পন্ন করতে হবে যেখানে বিভিন্ন ধরনের অডিও ট্রান্সক্রাইব করতে হয়।

অডিও মিনিট এর উপর ভিত্তি করে মেম্বারদের পেমেন্ট করে থাকে রেভ। প্রতি মিনিট অডিও এর জন্য $0.35 থেকে $0.75 পর্যন্ত প্রদান করে থাকে রেভ। ৬০মিনিট ট্রান্সক্রিপশন সম্পন্ন হলে পরবর্তী লেভেলে প্রোমোট করে দেওয়া হয়। আবার এই ওয়েবসাইটে কোনো ধরাবাঁধা শিডিউল নেই, অর্থাৎ যেকোনো সময় কাজ করার সুযোগ রয়েছে।

আপনি যদি একাধিক ভাষা জানেন, সেক্ষেত্রে সাবটাইটেল অনুবাদ করেও আয় করতে পারেন। পেপাল এর মাধ্যমে সাপ্তাহিক পেমেন্ট করে থাকে রেভ।

👉 ডাটা এন্ট্রি করে আয় করার উপায়

আপওয়ার্ক – Upwork

আপওয়ার্ক বিশ্বের সবচেয়ে বড় অনলাইন ডাটা এন্ট্রি জব সাইটসমূহের মধ্যে একটি। প্রায় ৫,৮৩৮টির অধিক ধরনের ডাটা এন্ট্রি জব রয়েছে আপওয়ার্কে। আপওয়ার্কে জব ব্রাউজ করতে হলে আপওয়ার্ক একাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক, যা বিনামূল্যে তৈরী করা যাবে। খুব সহজে নাম ও ইমেইল এড্রেস প্রদান করে আপওয়ার্কে একাউন্ট খোলা যাবে।

প্রোফাইল একটিভ হওয়ার পর আপওয়ার্কে থাকা জব ব্রাউজ করা যাবে। কোনো কাজের জন্য এপ্লাই করার আগে উক্ত কাজ করতে প্রয়োজনীয় দক্ষতা, পারিশ্রমিক, কাজের ধরন, ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে পারবেন জব ডেসক্রিপশন সেকশনে।

বিশ্বাসযোগ্য ফ্রিল্যান্সিং সাইটের তালিকায় আপওয়ার্ক একটি। এমনকি মাইক্রোসফট, এয়ারবিএনবি, ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানও আপওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকে। আপওয়ার্ক এর বিশাল কাজের লাইব্রেরী থেকে নিজের পছন্দের ডাটা এন্ট্রির কাজ খুঁজে নিতে পারবেন যেকেউ।

👉 আপওয়ার্কে কিভাবে কাজ শুরু করব

👉 আপওয়ার্কে কাজ পেতে সেরা স্কিলগুলো জেনে নিন

👉 আপওয়ার্ক এর মাধ্যমে অনলাইনে আয় শুরু করবেন যেভাবে

👉 আপওয়ার্কে বেশি বেশি ফ্রিল্যান্সিং কাজ পেতে করণীয়

ফ্রিল্যান্সার – Freelancer 

ব্যবসাসমূহ ও ফ্রিল্যান্সারদের এক স্থানে সংযুক্ত করে ফ্রিল্যান্সার ডট কম। বিশ্বের সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে এটি একটি যেখানে কিওয়ার্ড ব্যবহার করে অসংখ্য ধরনের ডাটা এন্ট্রি জব খুঁজে পাওয়া যাবে। এছাড়াও স্কিল, ভাষা, ইত্যাদি ফিল্টার ব্যবহার করে নিজের সুবিধামত কাজ খুঁজে বের করা যাবে বেশ সহজে।

ফ্রিল্যান্সার ডট কম ওয়েবসাইটটিতে ফ্রিল্যান্সারগণ কোনো কাজের জন্যে বিড করে থাকেন। ফ্রিল্যান্সার এর দক্ষতা ও ভ্যাকেন্সি বিবেচনা করে জব পোস্টদাতা পছন্দের ফ্রিল্যান্সার বেছে নেন উক্ত কাজের জন্য। ফ্রিল্যান্সার ডট কম ওয়েবসাইটটিতে যেকেউ ফ্রি একাউন্ট খুলে কাজ শুরু করতে পারে।

👉 ফ্রিল্যান্সার ডটকম থেকে আয়ের উপায়

ফাইভার – Fiverr

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম ফাইভার এ অসংখ্য ক্যাটাগরির ডাটা এন্ট্রি জব পাওয়া যায়। ডাটা-এন্ট্রি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে ফাইভার একটি সেরা প্ল্যাটফর্ম হতে পারে।

ফাইভার এ কাজ শুরু করতে প্রথমে একটি সেলার একাউন্ট তৈরী করতে হবে এবং যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, দক্ষতা, ইত্যাদি যুক্ত করতে হবে। কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে এসব ডিটেইলস বেশ গুরুত্বপূর্ণ। ফাইভারের ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সার তাদের সার্ভিস পোস্ট করেন ও কাস্টমার তাদের পছন্দের ফ্রিল্যান্সার বেছে নেন। তাই ডাটা এন্ট্রি হোক বা অন্য যেকোনো ধরনের কাজ, ফাইভারে সফলতা অর্জন করতে হলে নিয়মিত প্রোফাইল আপডেট বেশ গুরুত্বপূর্ণ।

👉 ফাইভারে নতুন সেলার হিসেবে কাজ পেতে করণীয়

👉 ফাইভারে কাজ পাওয়ার উপায়ঃ গিগ তৈরি ও অন্যান্য

👉 ফাইভার নাকি আপওয়ার্ক? কোনটি বেশি সুবিধাজনক?

পিপল পার আওয়ার

যুক্তরাজ্য ভিত্তিক ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম হলো পিপল পার আওয়ার। খুব সহজে একটি একাউন্ট খুলে যেকেউ আয় শুরু করতে পারে এই ওয়েবসাইটে। আপওয়ার্ক বা ফাইভার এর মত ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোর মত অসংখ্য জব লিস্টেড না থাকলেও পিপল পার আওয়ার থেকেও ডাটা এন্ট্রি করে আয় সম্ভব। প্রতিযোগিতা কিছুটা কম থাকায় এই প্ল্যাটফর্মটিতে কাজ পাওয়া অপেক্ষাকৃত সহজ।

👉 ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করুন PeoplePerHour থেকে

ফ্লেক্সজবস – Flexjobs

ডাটা এন্ট্রি জব এর ক্ষেত্রে ফ্লেক্সজবস একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। ঘরে বসে বা যেকোনো স্থান থেকেই এই ওয়েবসাইটটিতে কাজ করা যায়। বিনামূল্যে ফ্লেক্সজবস একাউন্ট খোলা গেলেও কাজ পেতে হলে অবশ্যই ফ্লেক্সজবস মেম্বারশিপ কিনতে হবে। আপনি যদি ডাটা এন্ট্রি করে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার তৈরী নিয়ে সিরিয়াস হোন, তবে ফ্লেক্সজবস এর মেম্বারশিপ ফি প্রদান করতে পারেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

বিশ্বের সব বড় বড় প্রতিষ্ঠান ফ্লেক্সজবস এ ডাটা এন্ট্রি সহ বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং জব প্রদান করে থাকে, তাই কাজের জন্য এপ্লাই করার নির্দিষ্ট ফি প্রদান তেমন একটা সমস্যার বিষয় নয়।

👉 ফ্রিল্যান্সিং করে আয় সম্পর্কে সেরা প্রশ্নগুলো এবং উত্তর

ক্লিকওয়ার্কার – Clickworker

ডাটা এন্ট্রির কাজ পাওয়ার জন্য ক্লিকওয়ার্কার একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটটির একটি ভালো দিক হলো আপনি একই সাথে একাধিক ধরনের টাস্ক করতে পারবেন। উদাহরণস্বরূপঃ প্রুফরিডিং বা কনটেন্ট রিডিং এর মত কাজের পাশাপাশি আপনি ডাটা এন্ট্রির কাজ ও করতে পারবেন। ক্লিকওয়ার্কার ডটকমে কাজ শুরু করতে ফ্রি একাউন্ট খুলতে হবে, তবেই ওয়েবসাইটটিতে পোস্ট করা কাজসমূহ এক্সপ্লোর করা যাবে।

👉 ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো?

মেগাটাইপারস – MegaTypers

মেগাটাইপারস হলো একটি ওয়ার্কফোর্স ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি যা বিভিন্ন সরকারী ও প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানকে ডাটা এন্ট্রি সেবা প্রদান করে থাকে। ইমেজ-টু-টেক্সট, ট্রান্সক্রিপশন, ভয়েস টু টেক্সট, ইত্যাদি ধরনের ডাটা এন্ট্রি জব অফার করে ওয়েবসাইটটি। যেকেউ মেগাটাইপারস ডটকম ওয়েবসাইটে কাজ শুরু করতে পারে। ওয়েবসাইটটি স্টুডেন্টদের আয়ের আদর্শ একটি প্ল্যাটফর্ম। ওয়েবসাইটটি ডেবিট কার্ড, পেপাল, ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন, ইত্যাদি মাধ্যমে পেমেন্ট করে থাকে।

👉 নতুন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে যে ভুলগুলো এড়িয়ে চলা দরকার

স্ক্রিবি – Scribie

বিভিন্ন ব্যবসাকে সাশ্রয়ী মূল্যে অনুবাদ, ট্রান্সক্রিপশন ও বিভিন্ন ধরনের ডাটা এন্ট্রি সেবা দিয়ে থাকে স্ক্রিবি। ডাটা এন্ট্রি প্রফেশনাল হতে উঠতে চাইলে স্ক্রিবি ডটকম একটি দারুণ ওয়েবসাইট হতে পারে। স্ক্রিবি ওয়েবসাইটটিতে কাজ করতে হলে ইংরেজি ভাষা পড়ার ও ইংরেজি ভাষায় কমিউনিকেট করার দক্ষতা থাকা প্রয়োজন।

স্ক্রিবি তে বিভিন্ন ধরনের কাজ পাওয়া যাবে, যেমনঃ অডিও ফাইলকে টেক্সটে রুপান্তর করা, ট্রান্সক্রিপশন, ট্রান্সক্রিপ্টে স্পেলিং কারেকশন, পাংচুয়েশন ও গ্রামাটিক্যাল মিসটেক কারেকশন, ইত্যাদি। অর্থাৎ খুব সাধারণ দক্ষতা থাকলেই এই ওয়েবসাইট থেকে আয় করা যাবে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,634 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.