ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করুন PeoplePerHour থেকে

ফ্রিল্যান্সারদের প্রয়োজনের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সংখ্যা। আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার ডট কম, ফাইভার ইত্যাদি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্মের মতো আরেকটি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট হলো পিপল-পার-আওয়ার।

চলুন জেনে নেওয়া যাক পিপলপারআওয়ার ডটকম ওয়েবসাইট সম্পর্কে বিস্তারিত ও এই ওয়েবসাইট থেকে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার নিয়ম।

পিপল পার আওয়ার কি?

পিপল-পার-আওয়ার হলো একটি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস, যেখানে স্বাধীন ব্যবসাসমূহ (যারা বায়ার নামে পরিচিত) রীতিমতো ফ্রিল্যান্সারের সমুদ্র থেকে নিজেদের কাজের জন্য ফ্রিল্যান্সার খুঁজে নেন। কপিরাইটিং থেকে শুরু করে লোগো ডিজাইন, আর্টিকেল রাইটিং থেকে শুরু করে ওয়েব ডেভলপমেন্ট পর্যন্ত, প্রায় যেকোনো ধরনের সেবা প্রদান করেন পিপলপারআওয়ার এর ফ্রিল্যান্সারগণ।

অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সার ও বায়ারদের কানেক্ট করার একটি ওয়ান-স্টপ নেটওয়ার্ক হলো পিপল পার আওয়ার। আপওয়ার্ক, ফাইভার এর পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস হিসেবে দিনদিন পিপলপারআওয়ার এর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

কাজের প্রকারভেদ

পিপলপারআওয়ার ওয়েবসাইটে কয়েকটি জব ক্যাটাগরি রয়েছে। ওয়েবসাইটটিতে লিস্টেড সকল কাজ এসব ক্যাটাগরির মধ্যে থাকা সাব-ক্যাটাগরির অন্তর্ভুক্ত।

পিপলপারআওয়ার ওয়েবসাইটের কাজের ক্যাটাগরিসমূহ হলোঃ

  • টেকনোলজি ও প্রোগ্রামিং
  • রাইটিং ও ট্রান্সলেশন
  • ডিজাইন
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ভিডিও, ফটো ও ইমেইজ
  • বিজনেস
  • মিউজিক ও অডিও
  • মার্কেটিং ব্র‍্যান্ডিং ও সেলস
  • সোশ্যাল মিডিয়া

একাউন্ট তৈরি ও প্রোফাইল বিল্ডিং

পিপল পার আওয়ার ওয়েবসাইটে সেলার হলেন ফ্রিল্যান্সারগণ, যারা কাজের বিনিময়ে অর্থ পেয়ে থাকেন। ইমেইল এড্রেস বা ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে পিপলপারআওয়ারে সেলার একাউন্ট খোলা যাবে। সেলার একাউন্ট খুলতেঃ

  • পিপলপারআওয়ার এর রেজিস্ট্রেশন পেজে প্রবেশ করুন
  • “I want to work as a freelancer” এ ক্লিক করুন
  • এরপর নিচে থাকা “Sign up with Facebook” বা “Sign up with email” অপশন সিলেক্ট করুন
  • “Sign up with email” সিলেক্ট করলে সেক্ষেত্রে নাম, ইমেইল ও পাসওয়ার্ড প্রদান করে Sign Up বাটনে ক্লিক করুন।

প্রোফাইল বিল্ডিং কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর। বায়াররা যাতে ফ্রিল্যান্সারকে সহজে খুঁজে পেতে পারে সে উদ্দেশ্যে প্রোফাইল কাস্টমাইজেশনকে বলা হচ্ছে প্রোফাইল বিল্ডিং।

একটি প্রোফাইল বিল্ড করতে বা গড়ে তুলতে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার সম্পর্কিত যত বিস্তারিত তথ্য আছে, তা আপনার প্রোফাইলে তুলে ধরুন। বায়ারকে কাজ প্রদানে আগ্রহী করে তুলতে এই বিষয়টি খুব গুরুত্বপূর্ণ।

একটি সম্পূর্ণ প্রোফাইলে প্রোফাইল পিকচার, বায়ো ডেসক্রিপশন, কাজের ক্যাটাগরি, আগের প্রজেক্টসমূহ, এভারেজ সেলিং প্রাইস, ইত্যাদি বিষয়ের উল্লেখ থাকা একান্ত জরুরি।

র‍্যাংকিং এলগরিদম ব্যবহার করে পিপলপারআওয়ার সাইটে ফ্রিল্যান্সারদের প্রোফাইল র‍্যাংক হয়। তাই প্রোফাইল যত সমৃদ্ধ হবে, র‍্যাংকিং ততো ভালো হবে। ফলাফলস্বরুপ বায়ারগণ সহজে প্রোফাইল খুঁজে পাবেন ও সুযোগ অফার করতে আগ্রহী হবেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

অফার পোস্ট করা নিয়ম

ফাইভারে গিগ পোস্ট করার সাথে পিপলপারআওয়ার এর এই ফিচারটিকে তুলনা করা চলে। পিপলপারআওয়ারে অফার পোস্ট করতেঃ

  • ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে একাউন্টে লগিন করুন, Post Offer বাটনে ক্লিক করুন
  • প্রথমত আপনি কি সেবা অফার করছেন সে বিষয়ক একটি নজরকাড়া টাইটেল লিখুন
  • প্রজেক্টের জন্য কি পরিমাণ সময় লাগবে তা উল্লেখ করুন
  • প্রজেক্টের ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে সাব-ক্যাটাগরি সিলেক্ট করুন
  • আপনার প্রজেক্টের সাথে সম্পর্কিত শক্তিশালী কিওয়ার্ড যুক্ত করুন 
  • ছবি, ভিডিও, অডিও বা অন্যান্য ফাইল ব্যবহার করে আপনার দক্ষতা ও কাজের ধরন তুলে ধরুন
  • আপনার অফারের ডেসক্রিপশনে আপনার কাজ সম্পর্কিত সম্পূর্ণ বিবরণ তুলে ধরুন
  • এছাড়াও সাধারণ সেবার পাশাপাশি কোনো বাড়তি সেবা (যেমনঃ ফাস্ট ডেলিভারি) দিয়ে থাকলে একই অফারে উক্ত সেবার রেট ও ধরন তুলে ধরতে পারেন
  • সকল গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান শেষ হলে অফারের সেটাপ কমপ্লিট করুন।
PeoplePerHour থেকে ফ্রিল্যান্সিং করে আয়

প্রোপোজাল

পিপলপারআওয়ারে বায়ার কোনো কাজ পোস্ট করলে সেলারগণ সরাসরি বায়ারদেরকে প্রোপোজাল পাঠাতে পারেন। সরাসরি প্রোপোজাল পাঠাতে হলে আপনার দক্ষতা সম্পর্কিত কাজসমূহের পোস্টের দিকে নিয়মিত নজর রাখতে হবে। যে কাজটি আপনি কোনো সমস্যা ছাড়া করতে পারবেন বলে মনে হবে, সেটির জন্য প্রোপোজাল পাঠাতে পারেন।

প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১৫টি প্রোপোজাল পাঠানো যায়। তাই প্রোপোজাল পাঠানোর সময় আপনি করতে পারবেন, শুধু এমন কাজ সিলেক্ট করুন। যে কাজটি আপনার জন্য সহজ হবে, সেটি নির্বাচন করতে পারেন।

👉 ফ্রিল্যান্সার ডটকম থেকে আয়ের উপায়

প্রোপোজাল পাঠানোর নিয়ম

“Search Projects” ট্যাবে প্রবেশ করলে বায়ারদের পোস্ট করা অসংখ্য প্রজেক্ট দেখতে পাবেন। এসব প্রজেক্ট ফিল্টার করে আপনার সুবিধামত কাজ খুঁজে নিতে পারবেন। এই তালিকা সময় ও তারিখের ভিত্তিকে তৈরি, অর্থাৎ সম্প্রতি পোস্ট করা কাজগুলো টপে দেখা যাবে।

বায়ারকে অফার পাঠানোর আগে কিছু বিষয় জেনে রাখা একান্ত জরুরি, এসব বিষয়সমূহ হলোঃ

  • প্রোপোজাল পাঠানোর সময় বায়ারকে আপনার কাজ সম্পর্কিত বিস্তারিত ধারণা প্রদান করুন, এতে বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়ে
  • সম্ভব হলে প্রোপোজালের সাথে আপনার করা কিছু কাজের স্যাম্পল সেন্ড করুন
  • প্রজেক্ট সম্পর্কিত শর্ট ডেসক্রিপশনে রিলেটেড ধারণা প্রদান করুন 
  • আওয়ারলি বা ফিক্সড প্রাইস, আপনার- সুবিধামত যেকোনো একটি মেথড সম্পর্কে বায়ারকে জানিয়ে দিন। তবে বায়ারের বাজেটের চেয়ে অধিক এমাউন্ট লিখলে সেক্ষেত্রে প্রোপোজাল যাবেনা
  • কোনো বিষয় সম্পর্কে কনফিউশান থাকলে তা বায়ারের সাথে কথা বলে মিটমাট করে নিন

পিপলপারআওয়ার এর ক্ষেত্রে একটি দারুণ বিষয় হচ্ছে এখানে বায়ার সহজে একজন ফ্রিল্যান্সারের সাথে ধোঁকাবাজি করতে পারেনা। ধরুনঃ একটি কাজের মূল্য ৫০০ডলার ঠিক করা হলো। এক্ষেত্রে উক্ত কাজের শুরুতেই ৫০০ডলার এর অর্ধেক অর্থাৎ ২৫০ডলার পিপলপারআওয়ার কেটে রাখবে ও কাজ শেষে সম্পূর্ণ অর্থ ফ্রিল্যান্সারকে প্রদান করবে। অর্থাৎ পিপলপারআওয়ারে বায়ার দ্বারা প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশ ক্ষীণ।

👉 অনলাইনে ইনকাম করার সেরা ১০ উপায়

একনজরে পিপলপারআওয়ার এর সুবিধা ও অসুবিধা

সুবিধা

  • অসংখ্য ব্যবসার বিস্তৃত নেটওয়ার্ক, অর্থাৎ সম্ভাব্য ক্লায়েন্টের সংখ্যা অনেক
  • স্থানীয়ভাবে ও গ্লোবালি বিশাল ভলিউমের কাজ পাওয়া যায়
  • ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বায়ারের জন্য নিজের রেট প্রস্তাবের সুযোগ রয়েছে ফ্রিল্যান্সারদের
  • অটোনোমাস ফ্রিল্যান্সিং থেকে অধিক নিরাপদ
  • ইনভয়েসিং অটোমেটেড হওয়ায় পেমেন্ট নিয়ে সমস্যা হয়না
  • ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজের ওয়ার্ক আওয়ার নিজেই নির্বাচনের সুযোগ থাকছে

অসুবিধা

  • অগণিত ফ্রিল্যান্সারসমৃদ্ধ একটি প্ল্যাটফর্ম হওয়ায় প্রতিযোগিতা বেশি
  • কাজের রেটের ক্ষেত্রে প্রতিযোগীতাপূর্ণ না হলে কাজ পাওয়া বেশ মুশকিল, কেননা একই কাজ অনেকেই কম দামে করতে প্রস্তুত থাকে।
পিপলপারআওয়ার কি পরিমাণে ফি চার্জ করে?

পিপলপারআওয়ারে ২৫০ইউরোর মধ্যে প্রজেক্টের ক্ষেত্রে ২০%, ৫০০০ইউরোর মধ্যে প্রজেক্টের ক্ষেত্রে ৭.৫% ও ৫০০০ইউরোর মধ্যে প্রজেক্টের ক্ষেত্রে ৩.৫% ফি চার্জ করে।

পিপলপারআওয়ারে পেমেন্ট কিভাবে দেওয়া হয়?

ওয়েবসাইটটি সেলারদের পেপাল ও ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে পেমেন্ট দিয়ে থাকে। অর্জিত অর্থ তোলা যাবে Payment area তে প্রবেশ করে Withdraw Funds সিলেক্ট করে। পেমেন্ট প্রসেস করতে ১দিন সময় নেয় ওয়েবসাইটটি।

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজের খোঁজ করে থাকলে পিপলপারআওয়ার আশার নাম হতে পারে। উল্লেখিত তথ্য অনুসরণ করে পিপলপারআওয়ারে আপনার দক্ষতাভিত্তিক কাজের সন্ধান করতে পারেন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,419 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.