১০ মিনিট স্কুল এফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয়ের উপায়

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার অসংখ্য মাধ্যম রয়েছে। বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন ওয়েবসাইট এর বিভিন্ন প্রোডাক্টের অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করা যায়। ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজ বেশ অনেক দিন ধরেই দারাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রাম থেকে আয় করা সুযোগ দিয়ে আসছে। অনলাইন কোচিং ও শিক্ষা বিষয়ক সাইট ১০ মিনিট স্কুল থেকেও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার সুযোগ রয়েছে।

আপনি যদি একজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার হন, তবে ১০মিনিট স্কুলের অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম আপনাকে আয়ের ব্যবস্থা করে দিতে পারে। দেশি প্ল্যাটফর্মে যারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে চান, তাদের জন্য ১০ মিনিট স্কুল এর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম একটি আদর্শ পছন্দ।

১০ মিনিট স্কুল একটি জনপ্রিয় অনলাইন এডুকেশন প্ল্যাটফর্ম, যা বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের কোর্স অফার করছে। এসব কোর্স এর মার্কেটিং করে সেল থেকে ১৫% থেকে ২০% পর্যন্ত কমিশন পেতে পারেন। আবার পেমেন্ট উইথড্র করার কোনো ঝামেলা নেই, সহজে বিকাশে পেমেন্ট নেওয়া যায়।

চলুন জেনে নেওয়া যাক ১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম কী, এই অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয়ের উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত।

১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম কি?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি, সেই সম্পর্কে ইতোমধ্যে আপনারা কমবেশি সবাই জানেন। তবুও যারা জানেন না, তাদের জন্য বলিঃ অন্যের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস প্রোমোশন এর মাধ্যমে বিক্রিতে সাহায্য করে, বিক্রিত প্রোডাক্টের উপর কমিশন আয় করার মাধ্যমকে বলা হচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

বাংলাদেশে সহজে শিক্ষা ছড়িয়ে দিতে অনলাইন এডুকেশন প্ল্যাটফর্ম ১০ মিনিট স্কুল বেশ অনেকদিন ধরেই কাজ করে আসছে। দেশে অনলাইন শিক্ষার প্রচার ও প্রসারে ১০ মিনিট স্কুল অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেছে। ফ্রি শিক্ষা সংক্রান্ত ভিডিও, অডিও, ই-বুক, ইত্যাদির পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের পেইড কোর্ড ও পিডিএফ বই ও অফার করছে ১০ মিনিট স্কুল।

১০ মিনিট স্কুল এর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করলে উক্ত প্রোডাক্টসমূহের প্রোমোশন চালিয়ে সেল করতে পারবেন, উক্ত সেল থেকে কমিশন আয় করতে পারবেন। অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে জয়েন করার জন্য একাউন্ট খোলার পর প্রতিটি প্রোডাক্টের প্রোমোশন চালানোর জন্য ইউনিক ইউআরএল বা লিংক প্রদান করা হয়। এই লিংক বিভিন্ন মাধ্যমে পোস্ট করে প্রচারণা চালাতে হয়, শেয়ার করা পোস্টের লিংক ব্যবহার করে কেউ প্রোডাক্ট কিনলে সেখান থেকে ১৫% থেকে ২০% পর্যন্ত কমিশন পাওয়া যায়।

কোর্স ক্যাটাগরি

১০মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে বিভিন্ন ধরনের ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর প্রোমোশন চালিয়ে আয় করা সম্ভব। ১০ মিনিট স্কুল এর পেইড কোর্সের বিভিন্ন ক্যাটাগরি রয়েছে, যেমনঃ

  • স্পোকেন ইংলিশ ভিডিও কোর্স
  • স্পোকেন ইংলিশ পিডিএফ বই
  • শিক্ষার্থীদের জন্য একাডেমিক কোর্স
  • বিসিএস প্রস্তুতি বিষয়ক কোর্স
  • ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক কোর্স
  • ফ্রিল্যান্সিং পিডিএফ বই
  • ওয়েব ডিজাইন ও ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক কোর্স
  • মোবাইল, ওয়েডিং ফটোগ্রাফি
  • কার্টুন আঁকা ও ফটোগ্রাফি
  • মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট কোর্স

এসব কোর্স ছাড়াও আরো বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট সেল করে ১০ মিনিট স্কুল। প্রায় প্রতিটি প্রোডাক্ট এর অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ১০ মিনিট স্কুল থেকে আয় করা যাবে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামের শর্তাবলী

১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে অ্যাফিলিয়েট পার্টনার হিসেবে যুক্ত হলে নির্দিষ্ট কিছু বিষয় মেনে চলা একান্ত জরুরি। অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয় করতে চাইলে এসব নিয়ম মেনে চলা বাধ্যতামূলক। এসব নিয়ম না মানলে আপনার অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট স্থগিত করে দিতে পারে টেন মিনিট স্কুল কতৃপক্ষ। ১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয়ের শর্তাবলী নিম্নরুপঃ

  • ব্যক্তিগত কাজে প্রোমোশনাল কনটেন্ট ব্যবহার করা যাবেনা
  • প্রোডাক্ট প্রোমোশনের ক্ষেত্রে ভুল বা মিথ্যা কোনো তথ্য ব্যবহার করা যাবেনা
  • একজন অ্যাফিলিয়েট পার্টনার পাইরেটেড প্রোডাক্ট বিক্রি বা এই ধরনের কাজে নিয়োজিত হতে পারবেন না
  • অ্যাফিলিয়েট পার্টনারশিপের প্রথম ১৪দিনের মধ্যে কমপক্ষে ১০০টাকার সেল আনতে ব্যর্থ হলে অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট বাতিল হয়ে যেতে পারে
  • একজন অ্যাফিলিয়েট অন্য অ্যাফিলিয়েটের প্রোমোশনাল পোস্টে স্পাম করতে পারবেন না
  • অ্যাফিলিয়েট পার্টনার গ্রুপ, পেইজ বা অ্যাকাউন্ট তৈরিতে ১০ মিনিট স্কুলের নাম বা লোগো ব্যবহার করা নিষিদ্ধ
  • অবশ্যই একজন অ্যাফিলিয়েট তার নিজের আসল পরিচয় (যেমন এনআইডি কার্ড অনুযায়ী আপনার যে পরিচয়) বা নিজের প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে হবে
  • ভুয়া পরিচয়ে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করলে সেক্ষেত্রে অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট বাতিল করা হবে
  • অ্যাফিলিয়েট লিংকে ক্লিক করে কেউ কোনো প্রোডাক্ট কেনার ২৪ঘন্টা পর উক্ত প্রোডাক্ট বিক্রিত হিসেবে গণ্য হবে ও অ্যাফিলিয়েট কমিশন পাবেন।

👉 ডাটা এন্ট্রি করে আয় করার উপায়

১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয়

১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয় করা যাবে বেশ কয়েকটি সহজ ধাপে। প্রথমত একটি অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খুলতে হবে। তারপর প্রোডাক্টের লিংক বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে সেল জেনারেট করে বিক্রিত পণ্যের উপর ভিত্তি করে কমিশন পাওয়া যাবে।

অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হওয়া

টেন মিনিট স্কুল এফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয়ের উপায়

খুব সহজে অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খুলে জয়েনের জন্য এপ্লাই করা যাবে। ১০ মিনিট স্কুল এর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হতে কোনো ধরনের ডিগ্রি বা কোর্সের প্রয়োজন নেই। তবে মাঝে মধ্যে ১০ মিনিট স্কুলের পক্ষ থেকে অ্যাফিলিয়েটদের জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং ও অন্যান্য বিষয়ে কোর্সের আয়োজন করা হয়।

টেন মিনিট স্কুলের ওয়েবসাইটে ফর্ম ফিলাপ করে যেকেউ ১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হওয়ার আবেদন করতে পারে। তবে আপনি যদি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে প্রস্তুত না থাকেন, তবে তৎক্ষণাৎ একাউন্ট না খোলাই ভালো। কারণ ১০ মিনিট স্কুলের অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামের অন্যতম শর্ত হচ্ছে প্রথম ১৪দিনে কমপক্ষে ১০০টাকার প্রোডাক্ট বিক্রি করতে হবে, অন্যত্র একাউন্ট বাতিল বলে ঘোষিত হতে পারে।

👉 ১০ মিনিট স্কুলের এফিলিয়েট একাউন্ট খুলতে ক্লিক করুন

প্রোমোশন চালানো

১০ মিনিট স্কুল অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খোলা হয়ে গেলে প্রতিটি প্রোডাক্টের জন্য ইউনিক লিংক বা URL পাবেন। এসব লিংক বিভিন্ন মাধ্যমে শেয়ার করে সেল জেনারেট করলে তবেই আয় করা যাবে। অর্থাৎ কেউ যদি আপনার ইউনিক লিংক ব্যবহার করে কোনো প্রোডাক্ট ক্রয় করে, তবে আপনি অ্যাফিলিয়েট কমিশন পাবেন।

👉 বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং সাইট ‘কাজখুঁজি’ এলো দারুণ সব সুবিধা নিয়ে

ফেসবুক, ইউটিউব, ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়াতে যথেষ্ট সংখ্যক ফলোয়ার থাকলে এসব মাধ্যমে প্রচারণা চালাতে পারেন। এছাড়াও নিজের ওয়েবসাইট থাকলে সেটি ব্যবহার করেও প্রচারণা চালাতে পারেন। এমনকি ব্যাক্তিগত মেসেজে প্রদান করা অ্যাফিলিয়েট লিংক ব্যবহার করে কেউ প্রোডাক্ট কিনলে, সেক্ষেত্রেও উক্ত প্রোডাক্ট থেকে কমিশন পাওয়া যাবে। ফেসবুক পেজগ্রুপসমূহ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর সেরা স্থান।

প্রথম দিকে সেল করতে কিছুটা কষ্ট হলেও সময়ের সাথে সাথে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিজ শক্তিতে চলতে থাকে। একজন অ্যাফিলিয়েট হিসেবে আপনার কাজ হচ্ছে যথাযথ অডিয়েন্সের সামনে প্রোডাক্ট এর প্রোমোশন চালিয়ে যাওয়া। সময়ের সাথে সাথে সেল বৃদ্ধি পাবে।

আয়

আপনার অ্যাফিলিয়েট লিংক ব্যবহার করে কেউ প্রোডাক্ট কেনার পর ১৫% থেকে ২০% পর্যন্ত কমিশন পেতে পারেন। ১০ মিনিট স্কুলের প্রদত্ত তথ্যমতে, ১০ মিনিট স্কুলের অ্যাফিলিয়েটগণ মাসে গড়ে পাঁচ থেকে পঁচিশ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করে থাকেন। একজন অ্যাফিলিয়েট তার আয়ের হিসাব তার অ্যাফিলিয়েট ড্যাশবোর্ডে দেখতে পাবেন। খুব সহজে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয় করা অর্থ বিকাশের মাধ্যমে তোলা যাবে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 6,274 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.