দারাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে কমবেশি সবাই জেনে থাকবেন। বাংলাদেশে জনপ্রিয় ই-কমার্স ওয়েবসাইট দারাজ থেকেও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করা সম্ভব। দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর মাধ্যমে দারাজে লিস্টেড প্রোডাক্টসমূহ প্রোমোট করে আয় করতে পারবেন যেকেউ। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে দারাজ থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয় করবেন। 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কী?

দারাজ থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার আগে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে সাধারণ ধারণা থাকা একান্ত জরুরি। মূলত অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের পণ্য নিজের ওয়েবসাইট, সোশ্যাল মিডিয়া, ইউটিউব চ্যানেল, প্রভৃতিতে প্রচারণা চালানো ও তার থেকে বিক্রিত প্রোডাক্টের উপর কমিশন পাওয়াকে বলা হচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

সহজ ভাষায় বলতে গেলে আপনি অন্য প্রতিষ্ঠানের পণ্য প্রোমোট করবেন ও সেল করার চেষ্টা করবেন। আপনার মাধ্যমে যেসব পণ্য বিক্রি হবে, তার রেভিনিউ এর একটি নির্দিষ্ট অংশ আপনি কমিশন হিসেবে পাবেন।

দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম কী?

৫০ হাজারের অধিক পণ্যের সমাহার নিয়ে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ অনলাইন মার্কেটপ্লেস হলো দারাজ। এতোসব প্রোডাক্ট এর মধ্যে দারাজে লিস্টেড থাকা পণ্যসমূহের প্রচারণা চালিয়ে বিক্রিত পণ্যের জন্য কমিশন পেতে পারেন। আর দারাজ এর এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রামকে বলা হচ্ছে দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম।

দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে কি পরিমাণে আয় করা সম্ভব?

দারাজ থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয়ের পরিমাণ নির্ভর করে যে প্রোডাক্ট রেফারেন্স এর মাধ্যমে বিক্রি করছেন তার ক্যাটাগরির উপর। ফ্যাশন প্রোডাক্টের উপর সর্বোচ্চ ১২% পর্যন্ত কমিশন পাওয়া সম্ভব, যা দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ।

উদাহরণস্বরুপঃ আপন যদি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে দশ হাজার টাকা মূল্যের ফ্যাশন প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারেন ও কমিশনের পরিমাণ ৯% হয়, তাহলে উক্ত দশ হাজার টাকা প্রোডাক্ট বিক্রির জন্য আপনার কমিশনের পরিমাণ হবে ৯০০টাকা।

দারাজ থেকে আয় করতে কী লাগবে?

দারাজ থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে কিছু প্রয়োজনীয় বিষয় থাকা জরুরি। দারাজ থেকে আয় করতে যা যা লাগবেঃ

  • নিজস্ব ওয়েবসাইট / ফেসবুক পেজ / ইউটিউব চ্যানেল, যাতে প্রোডাক্ট প্রোমোট করবেন
  • দারাজ অ্যাফিলিয়েট এর মাধ্যমে আয় করা অর্থ তোলার জন্য ব্যাংক একাউন্ট
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান

অর্থাৎ দারাজ অ্যাফিলিয়েট এর মাধ্যমে আয় করার ক্ষেত্রে আপনার দরকার হবে প্রোডাক্ট প্রোমোট করার যথাযোগ্য প্ল্যাটফর্ম। আপনার সোশ্যাল মিডিয়া, ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেলে যথেষ্ট অনুসারী থাকলে খুব সহজে দারাজ থেকে আয় করতে পারবেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খোলার নিয়ম

দারাজ থেকে অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর মাধ্যমে আয় করতে হলে দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট লাগবে। দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খোলা বেশ সহজ। দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খুলতেঃ

  • দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট তৈরির পেজে প্রবেশ করতে এই লিংকে ক্লিক করুন
  • SIGN UP NOW বাটনে ক্লিক করুন, Next বাটনে ক্লিক করুন
  • পরবর্তী ধাপে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য চাওয়া হবে ও একটি ফর্ম দেখতে পাবেন
  • এই ফর্মে সঠিকভাবে আপনার ইমেইল আইডি, ব্যবসার ধরণ, মাসব্যাপী ট্র‍্যাফিক, ইত্যাদি প্রদান করুন
  • আপনার ব্যাংক একাউন্টের তথ্য সঠিকভাবে সাবধানতার সহিত প্রদান করুন
  • ট্যাক্স ও ভ্যাট সম্পর্কিত তথ্য সঠিকভাবে প্রদান করুন
  • এরপর দারাজ বায়ার একাউন্টের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য চাওয়া হবে
  • দারাজ বায়ার একাউন্টের ধরণ, ব্যবসার নাম, ফোন নাম্বার, ন্যাশনাল রেজিস্ট্রেশন নাম্বার বা সরকার কতৃক ইস্যু করা আইডি নাম্বার, পোস্টাল এড্রেস, ইত্যাদি তথ্য সঠিকভাবে প্রদান লরুন
  • দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম শর্তসমূহের সাথে একমত হতে Yes বাটনে ক্লিক করে Next ধাপে যান
  • Submit এ ক্লিক করে দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খোলার ফর্মটি সাবমিট করুন

উল্লিখিত প্রক্রিয়া সঠিকভাবে অনুসরণ করলে আপনার দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খুলে যাবে।

👉 ডাটা এন্ট্রি করে আয় করার উপায়

এক্ষেত্রে কী পরিমাণ সময় ব্যয় করতে হবে?

দারাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে কি পরিমাণ সময় ব্যয় করতে হবে তা নির্ভর করে আপনার প্রোমোশন মিডিয়া অর্থাৎ সোশ্যাল মিডিয়া / ওয়েবসাইট / চ্যানেলের অবস্থার উপর। যেমনঃ আপনার চ্যানেল / পেজ বা ওয়েবসাইটে যদি যথেষ্ট অনুসারী থাকে, সেক্ষেত্রে শুধুমাত্র লিংক প্রদান করলেই আপনি সেল জেনারেট করতে পারছেন। আবার কম অনুসারী থাকলে সেক্ষেত্রে সেল জেনারেট করতে কনটেন্টের উপর আলাদা সময় ইনভেস্ট করতে হবে।

দারাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

দারাজ এর তথ্যমতে এক্সপার্ট মার্কেটারদের সর্বোচ্চ এক থেকে দুই ঘন্টা সময় প্রয়োজন হবে দারাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে। নতুন মার্কেটারদের একই গোল অর্জন করতে শুরুর দিকে তিন থেকে পাঁচ ঘন্টা পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। আপনি যদি সময় দিতে পারেন ও সঠিকভাবে প্রোডাক্ট প্রোমোটে সক্ষম হোন, তবস প্রতি মাসে  ১০হাজার থেকে ২০হাজার টাকা বা আরো বেশি আয় করতে পারেন।

👉 অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি? এর মাধ্যমে কিভাবে আয় করা যায়?

দারাজ থেকে আয় করার নিয়ম

দারাজ থেকে আয় করার নিয়মসমূহ ধাপে ধাপে জেনে নেওয়া যাক। দারাজ থেকে আয় করতে নিম্নে বর্ণিত প্রক্রিয়া অনুসরণ করুন।

  • দারাজ থেকে আয় করতে প্রথমে দারাজ অ্যাফিলিয়েট পার্টনার হতে হবে, যার জন্য প্রয়োজন হবে দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট এর। আমরা ইতোমধ্যে দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খোলার নিয়ম জেনেছি। প্রথমেই একটি দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খুলে নিন।
  • দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট খোলা হয়ে গেলে partner.net.daraz.com লিংকে প্রবেশ করে দারাজ অ্যাফিলিয়েট পার্টনার ড্যাশবোর্ডে প্রবেশ করুন, প্রয়োজন হলে ইমেইল এড্রেস ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগিন করুন।
  • AD MEDIA তে ক্লিক করে TYPE সিলেক্ট করে ADJUST এ ক্লিক করুন।
  • এরপর সার্চ ট্যাবে ক্লিক করার পর একটি লিংক দেখতে পাবেন, CLICK URL এ ক্লিক করে লিংকটি কপি করুন। এই URL টি প্রোমোট করে অ্যাফিলিয়েট ক্যাম্পেইন চালাবেন।
  • যে লিংকটি পেয়েছেন, সেটিতে ক্লিক করলে যে ব্যক্তি ক্লিক করেছেন, তা ফোনে দারাজ অ্যাপ থাকলে সরাসরি দারাজ অ্যাপে প্রবেশ করবে। আর যদি দারাজ অ্যাপ না থাকে তবে উক্ত ব্যাক্তি প্লেস্টোরে প্রবেশ করবেন লিংকে ক্লিক করার পর। উক্ত লিংকে প্রবেশ করার পর অ্যাপ থেকে কেনাকাটার ক্ষেত্রে কমিশন পেয়ে যাবেন।
  • অর্থাৎ দারাজ থেকে আয়ের জন্য আপনার কাজ হচ্ছে প্রাপ্ত ইউআরল বা লিংকটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়া, ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেলে প্রোমোট করা। কেউ এই লিংক ক্লিক করে দারাজ থেকে কিছু কিনলে আপনার দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্টে উক্ত অর্থ জমা হয়ে যাবে।
  • এছাড়াও লিংকে ক্লিক করা ব্যক্তির ফোনে যদি দারাজ অ্যাপ না থাকে ও উক্ত ব্যাক্তি আপনার লিংকে ক্লিক করে দারাজ অ্যাপ ইন্সটল করে সেক্ষেত্রে অ্যাপ ইন্সটলের জন্য ২০টাকা কমিশন পেতে পারেন শর্ত সাপেক্ষে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটং সম্পর্কে বাংলাটেক এর আলাদা পোস্ট রয়েছে, যা থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা পেতে পারেন।

👉 অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন

উল্লেখ্য, দারাজ এফিলিয়েটের শর্ত ও কমিশন রেট যেকোনো সময় পরিবর্তন করতে পারে দারাজ কর্তৃপক্ষ। তাই আপনি এফিলিয়েট হিসেবে নিবন্ধন করার পর দারাজ টিমের সাথে সংযুক্ত থেকে সর্বশেষ আপডেট জানতে পারবেন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 6,275 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.