স্ন্যাপচ্যাট অ্যাপের সেরা কিছু ফিচার সম্পর্কে জেনে নিন

স্ন্যাপচ্যাট হলো একটি ফটো ভিত্তিক বার্তা আদান প্রদান এবং মাল্টিমিডিয়া মোবাইল অ্যাপ। স্ন্যাপচ্যাট ছবি ও ভিডিও আদান প্রদানের পাশাপাশি ডিসঅ্যাপিয়ারিং মেসেজ এর সুবিধা দিয়ে থাকে। স্ন্যাপচ্যাট এর মধ্যে একবার আপনার পাঠানো মেসেজ ভিউ হওয়ার পর সেটা নিজে নিজে অদৃশ্য হয়ে যাবে- এরকম ফিচার আছে। তবে, আপনি এমন কিছু সেটিংস করে রাখতে পারবেন যার ফলে চ্যাট/মেসেজগুলো ওপেন করার ২৪ ঘন্টা পর সেগুলো অদৃশ্য হবে।

তবে অনেকে এটিকে শুধুমাত্র ক্যামেরা অ্যাপও মনে করেন, কেননা এই অ্যাপটির মূল লক্ষ্যই হচ্ছে ফিল্টারযুক্ত ছবি তোলা বা ভিডিও রেকর্ড করা। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা স্ন্যাপচ্যাটের কিছু আকর্ষণীয় ফিচার যেগুলো এই অ্যাপ ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আপনাকে নতুন অভিজ্ঞতা প্রদান করবে সে ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

ইউজার নেম এবং ডিসপ্লে নেম পরিবর্তন 

অনেক স্ন্যাপচ্যাট ব্যবহারকারী এই ভুল ধারণায় থাকে যে তারা একবার তাদের ইউজারনেম দিয়ে দিলে সেটি আর পরিবর্তন করতে পারবে না। কিন্তু স্ন্যাপচ্যাট সাপোর্ট পেজের মতে ব্যবহারকারী প্রতি বছর সর্বোচ্চ একবার তাদের ইউজারনেম পরিবর্তন করতে পারবে। তবে এক্ষেত্রে লক্ষণীয় বিষয় হলো একবার যদি কেউ তাদের ইউজারনেম পরিবর্তন করে তাহলে পুনরায় আগের নেমে ফিরে যাওয়া সম্ভব না।

যেহেতু অনেক স্ন্যাপ চ্যাট ব্যবহারকারী এটা বিশ্বাস করে যে তাদের ইউজার নেম পরিবর্তন করা যায় না তাই ডিসপ্লে নেমও কখনো পরিবর্তন করা সম্ভব না। কিন্তু স্ন্যাপচ্যাটে ডিসপ্লে নেম পরিবর্তন করার জন্য প্রোফাইল পেজের ডান দিকের কর্ণারে থাকা সেটিংস আইকনে ট্যাপ করতে হবে। সেখান থেকে মাই একাউন্টে গিয়ে নেম অপশন নির্বাচন করতে হবে। একটি নতুন নাম যখন এখানে ম্যানুয়ালি প্রবেশ করানো হবে তখন সেভ বাটনে ক্লিক করলে সাথে সাথে আপনার ডিসপ্লে নেম পরিবর্তন হয়ে যাবে। স্ন্যাপচ্যাটে কাউকে ব্লক করে দিয়ে নিজের গোপণীয়তা রক্ষার ক্ষেত্রে এই ফিচারটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। 

টেক্সট কালার, সাইজ এবং ওরিয়েন্টেশন পরিবর্তন করা

অনেক স্ন্যাপচ্যাট ব্যবহারকারী এই অ্যাপ ব্যবহার করার সময় শুধু মাত্র ডিফল্ট সাদা টেক্সটই ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু স্ন্যাপচ্যাটে লেখার রঙ, আকার এবং স্থান পরিবর্তন করার একটি উপায় আছে, যা অনেক সুন্দর নান্দনিক এবং আরও ব্যক্তিগত অনুভূতি প্রদান করে থাকে। স্ন্যাপচ্যাপে একটি ফটো বা ভিডিও নেওয়া হয়ে গেলে, টাইপ করা শুরু করুন এবং এখন একটি “T” আইকন স্ক্রিনে দেখতে পাবেন৷ এই আইকনে আলতো ভাবে ট্যাপ করলে ব্যবহারকারীরা টেক্সটের আকার পরিবর্তন করার এবং কালার প্যালেট অ্যাক্সেস করার অপশন খুঁজে পাবেন।

টেক্সটের রঙ পরিবর্তন করতে হলে পছন্দ অনুযায়ী রঙ না পাওয়া পর্যন্ত কালার প্যালেট জুড়ে একটি আঙুল টেনে আনুন। পিছনের ছায়াযুক্ত ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করতে, “T” আইকনে দুবার আলতো ভাবে ট্যাপ করুন।এই ফিচারটি যোগাযোগের টুলকে কাস্টমাইজ করার এবং প্রতিটি ব্যবহারকারীর স্পেসিফিকেশন অনুসারে এটিকে সাজানোর একটি দুর্দান্ত উপায় হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে।

ডার্ক মোড

রাতে অনেক দীর্ঘ সময় ব্যবহারের ক্ষেত্রে চোখের যাতে কোনো ক্ষতি সাধন না হয় সেজন্য প্রায় প্রতিটি টেক ডিভাইসে ডার্ক মোড ব্যবহার চালু হয়েছে। ক্লান্তি এবং মাইগ্রেন কমানোর একটি দুর্দান্ত উপায় হিসেবে স্ন্যাপচ্যাটে আইওএসে “অলওয়েজ ডার্ক” বা “অলওয়েজ লাইট” ব্যবহার করার সুযোগ রয়েছে।

আইওএস ব্যবহার করার সময়, ব্যবহারকারীদের প্রথমে স্ক্রীনের বামদিকে বিটমোজি আইকনে ট্যাপ করতে হবে। এবার ডান কোণায় “সেটিংস” চালু করে, “অ্যাপ এপিয়ারেন্স” ট্যাপ করে এবং “অলওয়েজ ডার্ক” অপশন নির্বাচন করে ডার্ক মোড চালু করতে পারবে। যদিও অ্যান্ড্রয়েডে ডার্ক মোড জোর করে চালু করা বেশ কষ্টসাধ্য।

ট্রাভেল মোড

স্ন্যাপচ্যাট ব্যবহার করার সময় অনেকেই এর দ্রুত ব্যাটারি শেষ হওয়ার ব্যাপারটি লক্ষ্য করে থাকেন। সৌভাগ্যক্রমে এই অ্যাপে আলাদা করে একটি ট্রাভেল মোড রয়েছে যার মাধ্যমে খুব সহজেই ব্যাটারি ব্যাকআপের পাশাপাশি ডাটা সেভ করা যাবে। স্ন্যাপচ্যাটে ট্রাভেল মোডে সুইচ করার মাধ্যমে এটি যেকোনো ধরনের স্ন্যাপ এবং স্টোরি অটোমেটিক ডাউনলোড হওয়ার সুযোগ বন্ধ করে দেয়। 👉 হোয়াটসঅ্যাপে কন্ট্যাক্ট নেম না দেখা গেলে যেভাবে ঠিক করবেন

snapchat

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

ট্রাভেল মোড ডাটা ব্যবহার কমিয়ে দেয় এবং সাথে সাথে ব্যাটারি ব্যাক আপ বাড়িয়ে তোলে। এটি বাড়ির বাইরে কখনো ঘুরতে গেলে খুব বেশি উপকারে আসে। এই ফিচারটি ভিডিও রেকর্ড করার সময় ল্যাগ টাইম কমাতে পারে, যা একটি মসৃণ এবং বেশ আনন্দদায়ক অভিজ্ঞতা প্রদান করে থাকে।

মাল্টি ফিল্টার টুল

বেশিরভাগ স্ন্যাপ চ্যাট ব্যবহারকারীর জন্য, ফিল্টার সব থেকে আকর্ষণীয় বিষয়। কিন্তু বেশিরভাগ স্ন্যাপ চ্যাট ব্যবহারকারী এই ব্যাপারে অবগত নয় যে তারা একাধিক ফিল্টার একবারে অ্যাক্সেস করতে পারে। এটি একটি বড় ফিচার যা অ্যাপটির জনপ্রিয়তা বাড়াতে বেশ সাহায্য করে। স্ন্যাপচ্যাট ব্যাবহারকারী প্রতি ছবি বা ভিডিওতে তিনটি পর্যন্ত ফিল্টার ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে ব্যবহারকারীদের অবশ্যই প্রথম ফিল্টারটি প্রয়োগ করতে হবে, ফিল্টারটিকে তার জায়গায় লক করতে একটি আঙুল দিয়ে স্ক্রীনটি ধরে রাখতে হবে এবং দ্বিতীয় বা তৃতীয় ফিল্টার বেছে নিতে অন্য আঙুল দিয়ে স্ক্রীন সোয়াইপ করতে হবে।

জিও ফিল্টারস

পিতামাতাদের কাছে এই জিও ফিল্টারটি খুব বেশি আকর্ষণীয় মনে হবে। কেননা এই জিও ফিল্টারের মাধ্যমে স্ন্যাপ চ্যাট ব্যবহারকারীর একদম নিখুঁত ফিজিক্যাল লোকেশন পাওয়া সম্ভব। যার ফলে কম বয়সী টিন এজের বাচ্চাদের মনিটর করার ক্ষেত্রে এটি দারুন ভূমিকা রেখে থাকে। ব্যবহারকারীরা চাইলে তাদের লোকাল কমিউনিটির জন্য একটি কমিনিউটি জিও ফিল্টার তৈরি করতে পারে। এছাড়াও কোনো বিশেষ অনুষ্ঠানের জন্য আলাদা করে অন ডিমান্ড জিও ফিল্টার তৈরিও করা সম্ভব। 

যদিও জিও ফিল্টার অনেক সময় গোপনীয়তা জনিত সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে, তবে নিজের পরিবার এবং বন্ধুদের মধ্যে জিও ফিল্টারের মাধ্যমে লোকেশন শেয়ার করা গেলে যেকোনো বিপদের সময় দ্রুত সাহায্য পাওয়া যেতে পারে। যেটি এই ফিচারকে অনেক বেশি প্রয়োজনীয় একটি ফিচার হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করে। 

গান চেনা

অনেক সময় স্ন্যাপচ্যাট ব্যবহারকারীরা তাদের স্ন্যাপের সাথে কোনো গানের অংশ বিশেষ যোগ করে দিয়ে থাকে। যদি এমন সময় ব্যবহারকারী সেই টিউনটি কোন গানের অংশ বিশেষ কিংবা কোন গায়ক এই গানটি গেয়েছেন সেটি জানতে চায় তাহলে ক্যামেরা স্ক্রিনে কিছুক্ষণ ট্যাপ করে রাখলে এই টিউন সম্পর্কে সকল তথ্য পাওয়া যাবে। একবার চিনে ফেলার পরে ব্যবহারকারী সেই গানটি তার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করার পাশাপাশি গায়ককে স্ন্যাপচ্যাট বন্ধু হিসেবেও যুক্ত করে নিতে পারবেন।

স্ন্যাপচ্যাট বর্তমান সময়ের তরুণ প্রজন্মের কাছে অনেক আকর্ষণীয় একটি অ্যাপ। সঠিকভাবে পরিচালনা করার মাধ্যমে আপনিও এই অ্যাপের সকল ধরনের ফিচারের সুবিধা গ্রহন করতে পারবেন। স্ন্যাপচ্যাটের আকর্ষণীয় কিছু ফিচার সম্পর্কে আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট এর মাধ্যমে জানিয়ে দিন।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,584 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *