ইনডাকশন চুলা কি? এর সুবিধা-অসুবিধা জানুন

সময়ের সাথে সাথে রান্না করার পদ্ধতিতে এসেছে ভিন্নতা। আর মডার্ন কুকিং এর একটি অন্যতম পদ্ধতি হলো ইনডাকশন কুকিং। ইনডাকশন কুকিং এর সাথে সাথে ইনডাকশন চুলার প্রচলন বেড়েছে অনেক বেশি। এই পোস্টে ইনডাকশন চুলা কি, কিভাবে কাজ করে ও এর সুবিধা-অসুবিধা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

ইনডাকশন চুলা কি?

ইনডাকশন বলতে হিট বা তাপ তৈরির একটি নিয়মকে বুঝানো হয়। ট্রেডিশনাল ইলেকট্রিক স্টোভ রেডিয়েন্ট হিট ব্যবহার করে খাবার রান্না করে। মাইক্রোওয়েভ মাইক্রো বা ছোট এনার্জি ওয়েভ ব্যবহার করে একই কাজ করে। ইনডাকশন রেঞ্জ মূলত ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্যান বা পটে থাকা খাবার রান্না করে।

ইনডাকশন রান্নার ক্ষেত্রে বার্নার এবং পট বা প্যান এর মধ্যে ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রিয়েকশন এর মাধ্যমে কাজ করে। তবে কোনো বার্নারে কোনো পট বা প্যান না থাকলে কোনো ধরনের হিট জেনারেট করেনা ইনডাকশন চুলা। 

ইনডাকশন চুলার সুবিধা

এবার জানি চলুন ইনডাকশন চুলা ব্যবহারের সুবিধাসমূহ সম্পর্কে। 

পরিবেশবান্ধব

ইনডাকশন চুলা যেহেতু সাধারণ চুলার চেয়ে বেশ দ্রুত, তাই এক্ষেত্রে বেশ কম এনার্জি ব্যবহৃত হয়। বাহ্যিক তেমন কোনো হিট নষ্ট হয়না ইনডাকশন চুলার ক্ষেত্রে, যার ফলে এনার্জি কম খরচ হয় যা বেশ পরিবেশবান্ধব। ইনডাকশন বর্তমানে সবচেয়ে এনার্জি-এফিসিয়েন্ট রান্নার প্রযুক্তি। ইনডাকশন দ্বারা তৈরী করা প্রায় ৯০% হিট খাবারে পৌঁছায় যা ট্রেডিশনাল গ্যাস ব্যবহার থেকে উত্তম। এছাড়া ইনডাকশনে কম ভেন্টিলেশন প্রয়োজন হয় যার ফলে শহরে বসবাসকারীদের জন্য এটি আদর্শ।

সময়সাশ্রয়ী

ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক সাইকেল এর দ্রুত রেসপন্স এর কারনে সাধারণ রান্নার চেয়ে অনেক ক্ষেত্রে ইনডাকশন চুলা ৫০% দ্রুত রান্না করতে পারে। ইনডাকশন কুকটপ পট ও প্যানে থাকা অণুগুলোকে উত্তেজিত করে যা থেকে ম্যাগনেটিক ফিল্ড ভাইব্রেশন তৈরী হয় ও খাবার রান্না হয়। ইনডাকশন চুলাতে মাত্র দুই মিনিটে এক পট পানি গরম করা যাবে যা অন্য যেকোনো মাধ্যমে কিছুটা সময়সাপেক্ষ বটে।

নিরাপদ

ইতিমধ্যে আমরা জেনেছি ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রিয়েকশন এর মাধ্যমে প্যান বা পটে হিট পৌঁছায় ইনডাকশন। সাধারণ ইলেকট্রিক বার্নার এর চেয়ে এই প্রক্রিয়ায় ইনডাকশন বার্নার বেশ কম গরম হয়। আবার বার্নার বন্ধ করার কিছুক্ষনের মধ্যেই প্যান ও বার্নার ঠান্ডা হয়ে যায়।

যাদের বাসায় বাচ্চা বা বয়স্ক ফ্যামিলি মেম্বার রয়েছে তাদের জন্য ইনডাকশন চুলা সবচেয়ে নিরাপদ। আবার ভুলে ইনডাকশন কুকটপ চালু করার কোনো ভয় থাকেনা। যেহেতু ইনডাকশন এর কারণ প্যান হিট আপ হয়, তাই ইনডাকশন-রেডি পট বা প্যান না রাখলে এটি চালু হবেনা। ইনডাকশন কুকটপ কিন্তু একটি স্মার্ট গ্যাজেট, কোনো ধরনের বয়েলওভার ধরা পড়লে এটি অটোমেটিক বন্ধও হয়ে যায়।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

সমস্যাবিহীন

ইনডাকশন কুকিং এর ক্ষেত্রে রান্না শেষে পরিষ্কার করার প্রক্রিয়া বেশ সহজ। গ্লাস কুকটপ রান্নার পর শুধুমাত্র মুছে নিলেই হয়। ইনডাকশন কুকটপ সাধারণ ইলেকট্রিক কুকটপ থেকে বেশ আলাদা। ইনডাকশন চুলার ক্ষেত্রে মূলত প্যান গরম হয়, বাকি অংশ তেমন একটা গরম হয়না। তাই কোনো ধরনের সমস্যা হলেও তা পরিষ্কার করা বেশ সহজ। রান্না শেষে ইনডাকশন সার্ফেস খুব সহজে মুছে ফেলা যায়।

সহজ

ইনডাকশন কুকটপ ও রেঞ্জ ইন্সটল করা বেশ সহজ এবং ঘরের যেকোনো স্থানে রাখা যায়। আপনার কাছে যদি পুরোনো ইলেকট্রিক রেঞ্জ থাকে তাহলে তা ইনডাকশন মডেলে সহজে রিপ্লেস করা যায়। তবে এভাবে রিপ্লেস করার আগে অবশ্যই চেক করে নিন ইলেকট্রিক ব্রেকারে যথেষ্ট এম্প আছে কিনা। ইনডাকশন চুলা অনেক শেপ ও সাইজে পাওয়া যায় যার ফলে যেকোনো স্থানে ইন্সটল করা যায়।

ইনডাকশন চুলার অসুবিধা

ইনডাকশন চুলার সুবিধার পাশাপাশি বেশ কিছু অসুবিধাও রয়েছে, চলুন জেনে নেওয়া যাক ইনডাকশন চুলার কিছু অসুবিধা সম্পর্কে।

👉 মোবাইলে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত লোন দিচ্ছে ব্র্যাক ব্যাংক ‘সুবিধা’ অ্যাপ

দামি

ইনডাকশন চুলা যেহেতু তুলনামূলক নতুন একটি প্রযুক্তি তাই ইনডাকশন কুকার এর দাম একই সাইজের গ্যাস বা ইলেকট্রিক কুকারের চেয়ে অনেকটা বেশি। তবে বর্তমানে মোটামুটি ৩ হাজার টাকার মধ্যে ইনডাকশন কুকার পাওয়া যায়।

জটিল 

ম্যাগনেটিক কুকওয়্যার ব্যবহার না করলে ইনডাকশন কুকিং করা যায়না ও খাবারও রান্না করা যায়না। তাই ঠিকভাবে ইনডাকশন চুলা কাজ করতে হলে কুকওয়্যার এর পাশাপাশি ইনডাকশন কুকটপ এর জন্যও ইনভেস্ট করতে হবে।

শব্দ

ইনডাকশন চুলা এক ধরনের সফট বাজ বা হাম এর মত শব্দ তৈরি করে যা কারো কানে লাগতে পারে আবার কারো নাও লাগতে পারে। এটি মুলত ব্যবহৃত কুকওয়্যার এর কারণে তৈরি শব্দ, এতে কুকটপ এর কোনো সম্পৃক্ততা নেই। আবার কমদামি স্টেইনলেস স্টিল প্যান আইরনের তৈরি অপেক্ষাকৃত বড় প্যান থেকেও বেশি শব্দ তৈরি করতে পারে।

ইনডাকশন চুলা কি? এর সুবিধা-অসুবিধা কি?

👉 আকাশ ডিটিএইচ কি? আকাশ ডিস এর সুবিধা কি?

পূর্বপ্রস্তুতি

এই বিষয়টিকে আসলে সম্পূর্ণভাবে অসুবিধাও বলা যায়না। আপনি যদি ট্রেডিশনাল ইলেকট্রিক কুকটপ এর সাথে অভ্যস্ত না হন, তবে ইনডাকশন আপনার কাছে বেশ দ্রুত মনে হবে। এই কারণে রান্নার পূর্বে সবজি বা রান্নার যেকোনো উপাদান আগে থেকে তৈরি রাখতে হয়।

বিদ্যুৎ-নির্ভর

যারা গ্যাস-নির্ভর রান্না অধিক পছন্দ করেন তারা বিদ্যুৎ না থাকলেও কিন্তু রান্না করতে পারছেন। অন্যদিকে ইনডাকশন চুলা বিদ্যুৎ নির্ভর হওয়ার কারণে বিদ্যুৎ না থাকলে বেশ সমস্যায় পড়তে হতে পারে। বিশেষ করে লোড শেডিং এর সময় এটি একটি প্রধান অসুবিধার মধ্যে থাকবে।

এইতো জানলেন ইনডাকশন চুলা এর সুবিধা ও অসুবিধা সম্পর্কে। এবার আপনি নিজে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারবেন ইনডাকশন চুলা আপনার জন্য কতটুকু উপযোগী সে সম্পর্কে।

👉 ভিডিওঃ উড়োজাহাজ নিয়ে অবিশ্বাস্য কিছু তথ্য জানুন

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,609 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.