গুগলের চমকপ্রদ নতুন ওপেন সোর্স মোবাইল প্ল্যাটফর্ম!

motorola modular phoneডেস্কটপ পিসি কেনার সময় নিশ্চয়ই একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় খেয়াল করেছেন, যেটি হচ্ছে এর কনফিগারেশন-জনিত স্বাধীনতা। ডেস্কটপ কেনার সময় আমরা ইচ্ছেমত যেকোন কোম্পানির ডিসপ্লে, প্রসেসর, র‍্যাম, মাদারবোর্ড প্রভৃতি যন্ত্রাংশ বাছাই করতে পারি। এগুলোর কার্যক্ষমতাও পছন্দানুযায়ী বেছে নেয়া যায়। যেমন ধরুন, আপনি ৪জিবি র‍্যাম, ১ টেরাবাইট হার্ডডিস্ক, ২০ ইঞ্চি মনিটর ইত্যাদি বিভিন্ন কনফিগারেশনের ডেস্কটপ কম্পিউটার সেটআপ করতে পারবেন। ল্যাপটপের ক্ষেত্রে এই স্বাধীনতা খুবই সীমিত।

কিন্তু এই প্রজন্মের সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যক্তিগত ডিভাইস স্মার্টফোনের কথা চিন্তা করলে উপরে উল্লিখিত স্বাধীনতা একেবারেই অনুপস্থিত! আপনি যেকোন স্মার্টফোনের ক্ষেত্রেই এর বিল্ট-ইন পারফর্মেন্স ব্যবহার করতে বাধ্য। গেজেটটির হার্ডওয়্যার স্পেসিফিকেশনে তেমন একটা উল্লেখযোগ্য কাস্টমাইজেশন আনা অসম্ভব।

কিন্তু, গুগল সেই বাধা দূর করার উদ্দেশ্যে নতুন এক উদ্যোগ “প্রোজেক্ট অ্যারা” হাতে নিয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় নির্মিত মোবাইল ফোন সমূহের হার্ডওয়্যার স্পেসিফিকেশন ব্যবহারকারী কর্তৃক বাছাই করে নেয়া যাবে। উদাহরণস্বরূপ, আপনি চাইলে স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর, স্যামসাংয়ের র‍্যাম, নকিয়ার ডিসপ্লে- এরকম কম্বিনেশনের হ্যান্ডসেট বানিয়ে নিতে পারবেন।

গুগলের মালিকানাধীন মটোরোলা মবিলিটির হাত ধরে নতুন এই মোবাইল হ্যান্ডসেট প্রজন্মের পথচলা শুরু হবে। এক বছরের বেশি সময় ধরে এই প্রকল্প নিয়ে কাজ করছে গুগল।

ফোনব্লকস নামের একটি কমিউনিটি সম্প্রতি একই ধারণা নিয়ে কাজ শুরু করেছিল। মটোরোলাও তাদের সাথে এই “মডিউলার স্মার্টফোন” তৈরির প্রকল্পে যোগ দেবে।

কেমন হবে, যদি আপনার স্মার্টফোনের র‍্যাম, স্ক্রিন সাইজ, পিক্সেল, ক্যামেরা কোয়ালিটি প্রভৃতি আপনি নিজেই নির্ধারণ করে দিতে পারেন? আশা করি মন্তব্যের মাধ্যমে শেয়ার করবেন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,039 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.