কিউআর কোড কি এবং এটি কিভাবে কাজ করে? QR কোড তৈরির নিয়ম

কিউআর কোড অনেক সময় নতুন একটি ট্রেন্ড অথবা কিছু সময় বিরক্তের কারন হতে পারে। তবে ২৫ বছর পুরানো এই প্রযুক্তি আমাদের কাছে যা মনে হয় তার থেকে অনেকাংশে বেশি দরকারি একটি জিনিস। এটি কিভাবে কাজ করে এবং বানানোর উপায় একবার আপনি শিখে গেলে আপনার যেকোনো প্রয়োজনে আপনি কিউআর কোডের সঠিক ব্যবহার করতে পারবেন। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা কিউআর কোড কি, কিভাবে কাজ করে এবং কিউআর কোড তৈরি করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

কিউআর কোড কি?

বর্তমান সময়ের কিউআর কোড এর সম্পূর্ণ রূপ হলো কুইক রেসপন্স কোড। এটি পূর্বে ব্যবহৃত ইউপিসি বারকোডের অত্যাধুনিক রূপ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এটি একটি মেশিন কর্তৃক পড়া যায় এমন একটি লেবেল যার মধ্যে ডাটা দেওয়া থাকে। কিউআর কোড কম্পিউটার বা স্মার্টফোনে খুব দ্রুততার সাথে এবং প্লেইন টেক্সট কিংবা কোনো কোডের তুলনায় জলদি ইন্ট্রারপ্রেট করা যায়। 

ট্রাডিশনাল ইউপিসি বারকোডে শুধুমাত্র ১২ টি নাম্বার থাকতে পারে যেগুলো দিয়ে কোনো গ্রোশারি পণ্য বা অন্য যে কোনো ধরনের পণ্যকে চেনা যায়। তবে কিউআর কোড এই ইউপিসি বারকোডের তুলনায় অনেক বেশি ডাটা সংরক্ষণ করতে পারে। নির্দিষ্ট করে বলতে গেলে একটি কিউআর কোডের মধ্যে ৭০৮৯ টি নাম্বার, ৪২৯৬ টি নাম্বার অথবা ১৮১৭ টি জাপানিজ কানজি সংরক্ষণ করে রাখা যায়। আপনি যেকোনো ওয়েবসাইটের ইউআরএল, শিপিং ইনফরমেশন, স্বয়ংক্রিয় পার্টস নাম্বার এবং অন্যান্য যেকোনো জটিল তথ্য সংরক্ষণ করে রাখার জন্য কিউআর কোড ব্যবহার করতে পারেন। 

কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কিউআর কোড যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট কিংবা অ্যাপের শর্টকাট হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এমনকি প্রযুক্তিগত দিক থেকে এগিয়ে থাকা কোনো রেস্টুরেন্ট তাদের খাবারের মেনু কাস্টমারদের দেখানোর জন্য কিউআর কোডের ব্যবহার করতে পারে। কিংবা কোনো ক্লিনিকে রোগীদেরকে একটি কিউআর কোড স্ক্যান করার মাধ্যমে ওয়েব বেজড পেপার ওয়ার্ক করার সুবিধা করে দিতে পারে। 

কিউআর কোড কিভাবে কাজ করে?

মানুষের চোখে কিউআর কোড দেখতে মূলত কিছু র‍্যানডম পিক্সেলের সমষ্টি এর মতো দেখায়। কিন্তু কিউআর কোডটি খুব বুদ্ধিমত্তার সাথে তৈরি করা হয় কেননা এই কিউআর কোডে শুধুমাত্র প্রচুর পরিমানে ডাটা ই থাকে না, এটিকে দ্রুততম, সহজ  এবং নির্ভরযোগ্য উপায়ে ব্যবহার করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। আপনি যখন একটি কিউআর কোড দেখবেন তখন খেয়াল করবেন যে এই কোডটির তিন কোণায় তিনটি বড় বর্গক্ষেত্র রয়েছে। কম্পিউটার এই কিউআর কোডের অরিয়েন্টেশন ঠিক করার জন্য এই তিনটি বর্গক্ষেত্রে ব্যবহার করে থাকে। তাই আপনি কিউআর কোডকে উল্টে পাল্টে যেভাবেই স্ক্যান করে থাকেন না কেন এটি সঠিকভাবে কাজ করবে। কেননা কিউআর কোডটি যখন লম্বভাবে রাখা হয় তখন নিচের ডান দিকে কোনো বর্গক্ষেত্র থাকে না। 

এই বর্গক্ষেত্রের বাইরের পিক্সেলগুলো এই কিউআর কোডের ভার্শন নাম্বার এবং আরো গুরত্বপূর্ণ তথ্য অর্থাৎ এর ফরম্যাট নির্ধারণ করে থাকে। আপনি যদি আপনার ওয়াইফাই লগইন এর তথ্য শেয়ার করার জন্য কিউআর কোড ব্যবহার করে থাকেন তাহলে এই ফরম্যাট ফোন কিংবা কম্পিউটারকে বোঝাবে যে ইন্টারনেট কানেকশন এর নাম এবং পাসওয়ার্ড কেমন হবে। 

সবশেষে এর বাকি পিক্সেলগুলো ব্যবহার করার হয় এর পাঠ যোগ্যতা বৃদ্ধি করার জন্য। এই পিক্সেলগুলোর মধ্যে কছু সংখ্যক ব্যবহার করা হয় ত্রুটি সংশোধন এবং টাইমিং প্যাটার্নের জন্য। কিন্তু এর বেশিরভাগ পিক্সেলই র ডাটা সংরক্ষণ করার জন্য ব্যবহার করা হয়। একটি কিউআর কোডের ডাটা পিক্সেলগুলোকে ছোট ছোট অনেক প্যাটার্নের ক্লাস্টারে তৈরি করা হয় কেননা এর মাধ্যমে সাদা অথবা কালো ডটের থেকে বেশি ডাটা সংরক্ষণ করা যায়। মজার বিষয় হলো কিউ আর কোডকে আনুভূমিক কিংবা উলম্ব যেকোনো উপায়েই স্ক্যান করা যায়। যার ফলে ডেটার ঘনত্ব পূর্বের তুলনায় বাড়িয়ে তোলা যায়। প্রথাগত বারকোডগুলোকে শুধুমাত্র একদিক থেকে স্ক্যান করা হয় বলে এতে ডাটা সংরক্ষণ করার পরিমাণ অনেক কম থাকে। 👉 এন্ড্রয়েড ফোনের ৫টি সাধারণ সমস্যা এবং সমাধানের উপায়

প্রতিটি ফোনেই কি বিল্ট ইন কিউআর কোড স্ক্যানার রয়েছে? 

টেকনিকালি চিন্তা করলে আপনি নিজ হাতে কিউআর কোড ডিকোড করতে পারেন। কিন্তু আপনার ফোনেই একটি কিউআর কোড স্ক্যানার রয়েছে যার ফলে আপনাকে আর বাড়তি কষ্ট করতে হবে না। মডার্ণ ভার্শনের এন্ড্রয়েড কিংবা আইওএস ডিভাইসে বিল্ট ইন কিউআর কোড স্ক্যানার রয়েছে। আপনাকে এর জন্য কোনো ধরনের নতুন অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে না, শুধুমাত্র ক্যামেরা অ্যাপ ওপেন করে কিউআর কোডের দিকে তাক করলেই হয়ে যাবে। কোড যেই ফরম্যাটে থাকবে তার উপর ভিত্তি করে আপনাকে কোনো ইউআরএল ওপেন করার জন্য বলতে পারে অথবা অ্যাপ স্টোরের যেকোনো পেজ কিংবা ওয়াইফাই কানেকশনের জন্য লগ ইন পেজে নিয়ে যাবে। 

আপনি আপনার ফোনে তোলা ছবি থেকেও কিউআর কোড স্ক্যান করতে পারবেন। আইওএসের ক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে ফটোস অ্যাপ ওপেন করে কিউআর কোডের তোলা ছবি ওপেন করতে হবে। এরপর সেই কিউআর কোডকে প্রেস করে ধরে রাখলে একটি ড্রপ ডাউন মেনু সামনে আসবে যেখানে ইউআরএল ওপেন করার জন্য অপশন থাকবে। এন্ড্রয়েডে এই প্রোসেস ফলো করার জন্য গুগল লেন্স বা গুগল ফটোসের প্রয়োজন পড়বে।

গুগল লেন্সে আপনার কিউআর কোডের ছবি ওপেন করলে সেটি অটোমেটিকালি কিউআর কোড স্ক্যান করে ফেলবে। আপনি যদি গুগল ফটোস ব্যবহার করে থাকেন তাহলে কিউআর কোড সংবলিত ছবি ওপেন করে স্ক্রিনের ডান কর্ণারে থাকা থ্রি ডট মেনু চালু করে সার্চ অপশনটি নির্বাচন করে নিতে হবে। এই একই উপায়ে আপনি আইওএসের গুগল ফটোস থেকেও কিউআর কোড স্ক্যান করে নিতে পারবেন। 👉 বাংলা কিউআর পেমেন্ট কী? Bangla QR এর সুবিধা ও ব্যবহার জানুন

তবে কিউআর কোড স্ক্যান করার ক্ষেত্রে অবশ্যই যেটি আপনি বিশ্বাস করেন না সেরকম কোনো জায়গা থেকে কিউআর কোড স্ক্যান করা থেকে বিরত থাকবেন। কেননা স্ক্যামাররা এই কিউআর কোড ব্যবহার করে আপনাকে কোনো ম্যালওয়্যার ওয়েবসাইটে নিয়ে যেতে পারে অথবা অনিরাপদ নেটওয়ার্কে নিয়ে যেতে পারে। কিন্তু আপনার ফোনে স্ক্যান করে সেই লিংকে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার কাছ থেকে অনুমতি চেয়ে নিবে। তাই একটু সতর্কতার সাথে ব্যবহার করলে কিউআর নিরাপত্তা প্রদান করবে। 

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

qr code explained

কিভাবে নিজের কিউআর কোড ফ্রিতে করা যাবে?

কিউআর কোড মূলত একটি ওপেন স্ট্যান্ডার্ড। এর মানে যেকেউ তার নিজের অথবা ব্যবসার কাজের জন্য কোনো প্রকার লাইসেন্স অথবা রেজিষ্ট্রেশন ছাড়াই কিউআর কোড ফ্রিতে তৈরি করে নিতে পারবে। আপনি যদি মোবাইল কিংবা কম্পিউটারের মাধ্যমে গুগল ক্রোম কিংবা মাইক্রোসফট এজ ব্যবহার করে থাকেন তাহলে যেকোনো ওয়েবসাইটের জন্য কিউআর কোড তৈরি করে নিতে পারবেন। এছাড়া এই কিউআর কোড আপনি চাইলে ডাউনলোড করে প্রিন্টও করে নিতে পারবেন। এজন্য আপনাকে আপনার পছন্দের ওয়েবসাইট ওপেন করে নিয়ে শেয়ার বাটনে ক্লিক করতে হবে। সেখান থেকে আপনি ক্রিয়েট কিউআর কোড অপশন সিলেক্ট করে কোডটি তৈরি করে নিতে পারবেন।

কিউআর কোড বর্তমান সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে অনেক উন্নত একটি প্রযুক্তি হিসেবে পরিলক্ষিত হয়। কিউআর কোড সম্পর্কে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট এর মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারবেন। নিত্য নতুন টেকনোলজি বিষয়ক নানা ধরনের তথ্য এবং টিপস এন্ড ট্রিকস পেতে চোখ রাখুন আমাদের এই ওয়েবসাইটে। 

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,485 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *