আইফোন ১১ সিরিজ প্রকাশ করল অ্যাপল

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ অ্যাপল তাদের নতুন আইফোন সিরিজ প্রকাশ করেছে। এগুলো হচ্ছে আইফোন ১১, আইফোন ১১ প্রো এবং আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স।

চলুন জেনে নিই কী নিয়ে আসছে নতুন আইফোন সিরিজ।

আইফোন ১১

আইফোন ১১ হল নতুন এই সিরিজের বেইজ মডেল, যেটা মূলত আইফোন টেনআর এর উত্তরাধিকারী। আইফোন ১১ দিচ্ছে ৬.১ ইঞ্চি স্ক্রিন এবং ডুয়াল ক্যামেরা। এর মোট ছয়টি কালার ভেরিয়েশন হবে। আইফোন ১১তে আরো রয়েছে ডলবি এটমস স্পিকার।

আইফোন ১১ এর ক্যামেরার ক্ষেত্রে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কথা হচ্ছে, এর পেছনের দিকে যে দুটি ক্যামেরা লেন্স আছে তার একটি আল্ট্রা ওয়াইড লেন্স। দুটি লেন্সেই আছে ১২ মেগাপিক্সেল সেন্সর।

আইফোন ১১ স্মার্টফোনে যখন আপনি একটি ওয়াইড শট নিবেন তখন এটা নতুন ইন্টারফেসে আল্ট্রা ওয়াইড শটের প্রিভিউ দেখানো হবে। সেখান থেকে আপনি আল্ট্রা ওয়াইড শট নিতে পারবেন আরও বেশি এরিয়া কভার করার জন্য। এটা ভিডিওর ক্ষেত্রেও কাজ করে। সাথে থাকছে উন্নততর এইচডিআর।

আইফোন ১১ এর ক্যামেরার নাইট মোড চমৎকার কাজ করে বলেই এপলের ডেমোতে দেখা গেছে। এখন দেখতে হবে এটা বাস্তবে আসলে এরকম কাজ করে কিনা। সেজন্য আমাদের কয়েকটি রিভিউর জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

আইফোন ১১ এর ফ্রন্ট ক্যামেরায় ১২ মেগাপিক্সেল সেন্সর দেয়া হয়েছে। এটি দিয়ে আপনি ফোরকে ভিডিও করতে পারবেন। এছাড়া এই ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়ে আপনি স্লো মোশন সেলফি ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

আইফোন ১১তে রয়েছে অ্যাপলের নতুন এ১৩ বায়োনিক চিপ। অ্যাপল বলছে এটি যেকোন স্মার্টফোনে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে দ্রুত সিপিইউ। আইফোন ১১ আইফোন টেনআরের চেয়ে ১ ঘন্টা বেশি ব্যাটারি ব্যাকআপ দেবে। আইফোন ১১ এর দাম শুরু হবে ৬৯৯ ডলার থেকে।

আইফোন ১১ প্রো

আইফোন ১১ প্রো হচ্ছে আইফোন ১১ এর “প্লাস” ভার্শন। অ্যাপল বলছে তারা এটাকে প্রো নামে ডাকছে কারণ এটা আসলেই অনেক ভালো হবে। এটা মোট চারটি কালার নিয়ে আসছে।

আইফোন ১১ প্রো মডেলে থাকছে ৫.৮ ইঞ্চি স্ক্রিন এবং আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স ফোনে পাচ্ছেন ৬.৫ ইঞ্চি স্ক্রিন।

এতেও থাকছে এ১৩ বায়োনিক চিপ সিপিইউ ও ডলবি এটমস অডিও।

আইফোন ১১ প্রো হতে যাচ্ছে আইফোন টেনএস এর উত্তরাধিকারী। অপরদিকে আইফোন টেনএস ম্যাক্স এর জায়গা দখল করবে আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স।

আইফোন টেনএস এর তুলনায় আইফোন ১১ প্রো ১ ঘন্টা বেশি ব্যাটারি ব্যাকআপ দেবে। আইফোন টেনএস ম্যাক্স এর চেয়ে আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স ৫ ঘন্টা পর্যন্ত বেশি ব্যাটারি ব্যাকআপ দেবে।

আইফোন ১১ প্রো এর মূল ক্যামেরায় মোট তিনটি লেন্স রয়েছে (প্রতিটি ১২ মেগাপিক্সেল)। একটি হচ্ছে ওয়াইড লেন্স, আরেকটি টেলিফটো লেন্স এবং অন্যটি আলট্রা ওয়াইড লেন্স। এর মাধ্যমে আপনি চারগুণ অপটিক্যাল জুম করার সুবিধা পাবেন। এগুলো দিয়ে ৬০ ফ্রেম/সেকেন্ড রেটে ফোরকে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

আইফোন ১১ প্রো এর দাম শুরু হবে ৯৯৯ ডলার থেকে এবং প্রো ম্যাক্স এর দাম শুরু ১০৯৯ ডলার থেকে। ২০ সেপ্টেম্বর থেকে নতুন এই আইফোন মডেলগুলো বাজারজাত করা শুরু হবে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 3,163 other subscribers

Comments