ইউটিউব শর্টস কি? কিভাবে এর থেকে টাকা ইনকাম করা যায়?

ইউটিউব প্রায় প্রতিটি দেশে খুব জনপ্রিয় এবং বিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষ এই অনলাইন প্লাটফর্ম ব্যবহার করছে। বর্তমানে কেউ কেউ ইউটিউবের মাধ্যমে চ্যানেল তৈরি করে তাদের পণ্যের প্রচার করে। আবার অনেকেই ইউটিউব থেকে আয় করতে ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করছেন। এগুলোর পাশাপাশি অনেক ব্যবহারকারী আছেন যারা ইউটিউব এর মাধ্যমে পড়াশোনা, কোর্স, টিউটোরিয়াল ইত্যাদি গ্রহণ করছেন এবং বিভিন্ন জিনিস শিখতে পারছেন। ইউটিউব এর মাধ্যমে অনেকেরই জীবন বদলে গিয়েছে। 

ইউটিউবের গতানুগতিক ভিডিও প্রথার সাথে নতুন সংযোজন হলো ইউটিউব শর্টস। ইউটিউব শর্টস এর বৈশিষ্ট্য গুলি কিছুটা টিকটক এর অনুরূপ হওয়ার কারণে অনেকেই ইউটিউব শর্টস ব্যবহার করতে অনেক বেশি আগ্রহী। ইউটিউব শর্টসে ব্যবহারকারী টিক টক এর মত ছোট ছোট ভিডিও তৈরি করতে পারেন এবং সেগুলো অনলাইনে মানুষের কাছে শেয়ার করতে পারেন। ইউটিউব শর্টসের ক্ষেত্রে ছোট ভিডিও তৈরির জন্য প্রচুর ভিডিও ইফেক্ট দেওয়া রয়েছে। এর ফলে ব্যবহারকারী খুব সহজেই একটি পেশাদার ভিডিও তৈরি করতে পারবে। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ইউটিউব শর্টস এবং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

ইউটিউব শর্টস কি?

ইউটিউব শর্টস হল ইউটিউব এর এমন একটি সেবা যার মাধ্যমে ছোট ভিডিও তৈরি করা যায়। ইউটিউব থেকে বাড়তি ভিডিও ইফেক্ট থাকায় ভিডিও গুলোতে পেশাদারিত্ব দেখা যায়। টিকটক এর জনপ্রিয়তা লাভের পরে টিকটক এর মত করে অনেকগুলো অ্যাপ লঞ্চ হয়েছে। ব্যবহারকারীদের জনপ্রিয়তার কথা মাথায় রেখে ইউটিউব শর্টস নামে শর্ট ভিডিও সেবাটি চালু করেছে। 

কোনো ব্যবহারকারী যদি ইউটিউবে শর্ট ভিডিও তৈরি করতে চান তাহলে মোবাইল থেকেই সহজ ভাবে সেটি করে ফেলতে পারবেন। আপনি ইউটিউব অ্যাপের মাধ্যমে সরাসরি ছোট ভিডিও বানিয়ে সেগুলো সহজেই শেয়ার করতে পারবেন। ইউটিউব শর্টস এ মিউজিক, ভিডিও ট্রিমিং, ভিডিও স্পিড কন্ট্রোল সহ আরো অনেক ধরনের সুবিধা পাওয়া যায়। 

ইউটিউব শর্টস এর কিছু বৈশিষ্ট্য 

  • এখানে আপনি ১ মিনিটের ছোট ভিডিও করতে পারবেন। 
  • ইউটিউব শর্টসে একটি দুর্দান্ত মাল্টি সেগমেন্ট ক্যামেরা ফিচার রয়েছে যার ফলে আপনি খুব সহজেই একাধিক ভিডিও ক্লিপ একসাথে সংযুক্ত করতে পারবেন। 
  • আপনি আপনার রেকর্ড করা ভিডিওর সাথে বিভিন্ন ধরনের মিউজিক যুক্ত করতে পারবেন।
  • আপনার ভিডিওর গতি আপনি সহজে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। 
  • ইউটিউব শর্টসের মাধ্যমে আপনি আপনার ইউটিউব কমিউনিটি অথবা চ্যানেলকে অনেক দ্রুত বৃদ্ধি করতে পারবেন। 
  • আপনি ভিডিও রেকর্ড করতে টাইমার এবং কাউন্টডাউন ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন। 
  • ভিডিওতে খুব সহজেই স্লো মোশন ইফেক্ট ব্যবহার করতে পারবেন। 
  • আপনি ভিডিওর আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের ফিল্টার এবং ইফেক্ট ব্যবহার করতে পারবেন। 

কিভাবে ইউটিউব শর্টস ভিডিও বানাবেন? 

আপনি যদি ইউটিউব এর শর্টস ফিচার ব্যবহার করতে চান তাহলে আপনার মোবাইলের থেকে ইউটিউব অ্যাপ ওপেন করতে হবে। তবে এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে যে আপনার ইউটিউব অ্যাপটি যেন আপডেটেড অবস্থায় থাকে। 

  • একটি খোলার পরে আপনি নিচে মাঝখানে একটি প্লাস আইকন দেখতে পারবেন। সেই আইকনে ক্লিক করুন। 
  • এখানে থাকা ক্রিয়েট এ শর্ট অপশনে ক্লিক করুন।
  • এবার আপনার মোবাইলের ক্যামেরা ভিডিও রেকর্ডিং এর জন্য খোলা হবে। আপনি আপনার ইচ্ছামত এখান থেকে ভিডিও রেকর্ড করুন। 
  • ভিডিও রেকর্ড করার পরে আপনি ভিডিওতে গান যোগ করতে পারেন অথবা বিভিন্ন রকমের ফিল্টার এবং ইফেক্ট ব্যবহার করতে পারেন। 
  • সঠিকভাবে ভিডিও তৈরি ও এডিট করার পরে আপনাকে টাইটেল এবং বর্ণনা দিতে হবে। 
  • সবশেষে আপনি আপনার ভিডিওটি ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করতে পারবেন। 

তবে মনে রাখতে হবে যে ইউটিউব শর্ট ভিডিও করার জন্য আপনার অবশ্যই একটি ইউটিউব একাউন্ট থাকা দরকার। কেননা যখনই আপনি ভিডিও বানাবেন এবং আপলোড করবেন ভিডিওগুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড হবে। 

ইউটিউব শর্ট ভিডিও থেকে কিভাবে ইনকাম করা যায়?

শর্ট ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করে যারা ভালো মানের ভিউ এনগেজমেন্ট পেতেন তাদের প্রতিমাসে ইউটিউব এর পক্ষ থেকে ১০০ থেকে ১০ হাজার ডলার পর্যন্ত প্রদান করা হচ্ছিল। ২০২৩ সালের শুরুর দিকে এই শর্টস বোনাস ফান্ড বন্ধ করে বিজ্ঞাপন ভিত্তিক ইনকামের ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। অর্থাৎ এখন আপনি ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামের মাধ্যমে শর্টস থেকে আয় করতে পারবেন।

ইউটিউব শর্ট থেকে ইনকাম করার অন্যান্য উপায়

ইউটিউব শর্টস প্রথমে আপনাকে আপনার চ্যানেলের গ্রোথ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে। এর ফলে আপনার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার বাড়বে। চ্যানেলে ভিজিটরের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে গুগল এডসেন্সের আয়ও বৃদ্ধি পাবে। আপনি চাইলে ইউটিউব শর্টস ভিডিওর মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংও করতে পারেন। আপনার প্রোডাক্টের প্রচারের প্রয়োজন হলে আপনি ইউটিউব শর্টস ব্যবহার করতে পারেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

youtube shorts taka income

👉 ফাইভার থেকে টাকা ইনকাম করতে শুরুতেই এগুলো জানুন

কিংবা আপনি যদি নিয়মিত ইউটিউবে শর্টস ভিডিও আপলোড করেন এবং আপনার চ্যানেলে ভিউ এনগেজমেন্ট ভালো তাহলে ছোট বড় অনেক ব্র‍্যান্ড কিংবা কোম্পানি আপনাকে স্পন্সর করবে। তখন আপনি তাদের প্রোডাক্ট বা সেবাগুলো আপনার ভিডিওর মাধ্যমে প্রচার করার ক্ষেত্রে তাদের কাছ থেকে টাকা নিতে পারবেন। ব্র্যান্ড স্পন্সরশিপ বা ডিল পাবার জন্য আপনার কাছে লক্ষ লক্ষ সাবস্ক্রাইবার এবং ভিউ থাকতে হবে এমন প্রয়োজন নেই। আপনার একটি টার্গেটেড অডিয়েন্স এবং ভালো ইউটিউব প্রোফাইল থাকাটা জরুরী। ইউটিউব শর্টস এর দর্শক প্রচলিত দর্শকদের তুলনায় অনেক বেশি। তাই আপনার প্রচারমূলক বিষয়বস্তু অনেক মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারবে। 

বর্তমান সময়ে ইউটিউব এর মনিটাইজেশন প্রোগ্রাম এর মধ্যে শর্টস ভিডিও গুলোকে যুক্ত করা হয়েছে। আপনাকে লম্বা লম্বা ভিডিও বানিয়ে সেগুলো আপলোড করে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ওয়াচ আওয়ার এর নিয়ম মেনে ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামের জন্য এপ্লাই করতে হবে। তবে ২০২৩ এর শুরুতেই যে সব ইউটিউবারদের ৯০ দিনের মধ্যে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার এবং 10 মিলিয়ন শর্টস ভিউ হয়ে গেছে সেই সকল ক্রিয়েটররা ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রাম এর জন্য এপ্লাই করতে পারবে। এর ফলে ইউটিউব এর অন্যান্য মনিটাইজেশন টুল যেমন ভিডিও থেকে এড রেভিনিউ, সুপার থ্যাংকস, সুপার চ্যাট, চ্যানেল মেম্বারশিপ এসকল সুবিধা পাওয়া সম্ভব। 👉 ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

ইউটিউবের অন্যান্য ইনকাম করার মাধ্যম গুলোর মতোই ইউটিউব শর্টস রেভিনিউ শেয়ারিং মডেল হিসেবেই ইনকাম করার সুযোগ দিচ্ছে। ক্রিয়েটরদের কন্টেন্ট দ্বারা পাওয়া এডভার্টাইজিং রেভিনিউ এর ৪৫% ক্রিয়েটরদের দেওয়া হয়ে থাকে। তবে বড় ভিডিও গুলোর ক্ষেত্রে এটি ৫৫% হয়ে থাকে। কিন্তু ভিডিও দৈর্ঘ্যের অনুপাতে এটির মাধ্যমে ভালো ইনকামই করা যায়। 

শেষকথা

ইউটিউব শর্টস থেকে ইনকাম করার ক্ষেত্রে শর্টস ভিডিও এর ভিউ থেকে এড রেভিনিউ অনেক দারুন উপায় বলা যায়। কেননা এড রেভিনিউ এর মাধ্যমে বিগত অনেক বছর থেকেই বড় ভিডিও তৈরি করা ক্রিয়েটররা নিয়মিত লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করেই চলছেন। আশা করি ইউটিউব শর্টস থেকে ইনকাম করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারবেন। নিত্য নতুন প্রযুক্তি বিষয়ক নানা ধরনের তথ্য এবং টিপস পেতে চোখ রাখুন আমাদের এই ওয়েবসাইটে। 

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,562 other subscribers

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *