বাটন ফোন কেনার সময় যেসব বিষয় খেয়াল রাখা দরকার

বাটন ফোন বা ফিচার ফোন বর্তমানে বেশ জনপ্রিয়। বিশেষ করে সেকেন্ডারি ফোন হিসেবে অনেকে বাটন ফোন ব্যবহার করে থাকেন। এগুলো ডাম্বফোন নামেও পরিচিত। স্মার্টফোনের মত আহামরি ফিচার না থাকলেও বাটন ফোন কেনার সময় কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় খেয়াল রাখা একান্ত জরুরি। এই পোস্টে বাটন ফোন কেনার সময় যেসব বিষয় খেয়াল রাখা দরকার সেসব বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানবেন।

বিল্ড কোয়ালিটি

একটি ফোনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো বিল্ড কোয়ালিটি। ফোনের বিল্ড কোয়ালিটি যদি দুর্বল হয়, তবে সে ফোন সামান্য কারণেই ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বাটন ফোনের ক্ষেত্রে বিল্ড কোয়ালিটি আরো বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

বাজারে অসংখ্য চাইনিজ বাটন ফোন রয়েছে, যেগুলোর দাম একদম পানির মত। অন্যদিকে স্যামসাং ও নকিয়ার মত অনেক ব্র‍্যান্ডেড বাটন ফোন রয়েছে, যেগুলোর দাম কিছুটা বেশি। কিন্তু বিল্ড কোয়ালিটির কথা বিবেচনা করলে বাটন ফোনের ক্ষেত্রে ব্র‍্যান্ডেড ফোনগুলো অনেক অনেক এগিয়ে থাকবে।

বিশেষ করে নকিয়া’র বাটন ফোনগুলো বেশ বিখ্যাত অন্য মাত্রার টেকসই হওয়ার জন্য। যেহেতু ফোনের নিরাপত্তার বৃহৎ একটি অংশ নির্ভর করে ফোনের বিল্ড কোয়ালিটির উপর, তাই বাটন ফোন কেনার ক্ষেত্রে অবশ্যই শক্তপোক্ত ফোন কেনার চেষ্টা করুন।

সিম সাপোর্ট

অনেকের বাটন ফোন ব্যবহারের মূল উদ্দেশ্য হলো এটিকে সেকেন্ডারি ফোন হিসেবে ব্যবহার করা। বিশেষ করে কথা বলার জন্য অনেকেই ফিচার ফোন ব্যবহার করে থাকেন। এসব কারণে বাটন ফোন কেনার আগে ফোনের সিম সাপোর্ট বিবেচনায় রাখা উচিত।

আপনি যদি বাটন ফোনে শুধুমাত্র একটি সিম ব্যবহার করেন, সেক্ষেত্রে সিংগেল সিম এর বাটন ফোন কিনতে পারেন। তবে পরামর্শ থাকবে ডুয়াল সিম এর বাটন ফোন কিনতে যাতে পরবর্তীতে প্রয়োজন হলে তা ব্যবহার করা যেতে পারে। নকিয়া বাটন ফোন বা স্যামসাং গুরু মিউজিক বাটন ফোন গুলোতে সাধারণত ডুয়াল সিম সাপোর্ট থাকে।

৪জি সাপোর্ট

আপনি যে বাটন ফোন কিনতে যাচ্ছেন, সেটিতে ৪জি সাপোর্ট থাকলে তা থেকে বাড়তি সুবিধা পেয়ে যাবেন। এখন আপনি প্রশ্ন করতে পারেন, বাটন ফোনে ৪জি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট কি কাজে আসতে পারে।। চিন্তার কারণ নেই, এই প্রশ্নের উত্তর জানি চলুন।

বাটন ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার না করলেও ৪জি নেটওয়ার্ক বিভিন্নভাবে গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমত সকল নেটওয়ার্ক অপারেটর ৪জি নেটওয়ার্ক উন্নত করার কাজে ব্যস্ত। এমনকি ৩জি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে অনেক দেশে। ২জি নেটওয়ার্কে ভয়েস কলের মান ভালোনা। ইন্টারনেট স্পিড তো পাবেনই না। ফলস্বরূপ ৪জি নেটওয়ার্কে সবচেয়ে ভালোভাবে সিম ব্যবহার করা যাবে। আবার আগের নেটওয়ার্ক ব্যবস্থার চেয়ে ৪জি নেটওয়ার্কে কল কোয়ালিটি অনেক বেশি ক্লিয়ার, যার ফলে বাটন ফোন হলেও ৪জি নেটওয়ার্কে আপনি বেশ ক্লিয়ার কল কোয়ালিটি উপভোগ করতে পারবেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

বাটন ফোন কেনার সময় যেসব বিষয় খেয়াল রাখা দরকার

👉 ইন্টারনেট সংযোগ যুক্ত বাটন ফোন

ইন্টারনেট

এবার কথা বলা যাক বাটন ফোনের একটি ঈষৎ প্রয়োজনীয় ফিচার সম্পর্কে। বাটন ফোন কেনার ক্ষেত্রে ইন্টারনেট ফিচার থাকা কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা নির্ভর করছে আপনার বাটন ফোনের ব্যবহারের উপর।

আপনি যদি ইন্টারনেট থেকে দূরে থাকতে বা শুধুমাত্র কল করার কাজে ফিচার ফোন ব্যবহার করতে চান, সেক্ষেত্রে ইন্টারনেট সুবিধা নেই এমন বাটন ফোন কেনা উচিত। যেহেতু আপনি স্মার্টফোন এর ব্যবহার কমাতে চান বা আপনার ব্যবহারের ক্ষেত্র বেশ সীমিত, তাই আপনার কেনা বাটন ফোনে ইন্টারনেট ফিচার না থাকাই উত্তম।

অন্যদিকে আপনি যদি সম্পূর্ণভাবে স্মার্টফোন বাদ দিয়ে বাটন ফোন ব্যবহার করতে চান সেক্ষেত্রে হয়ত ইন্টারনেট আছে এমন বাটন ফোন কেনার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। অনেকে বাটন ফোন KaiOS দ্বারা চলে, যার ফলে হোয়াটসঅ্যাপ, ইউটিউব, ব্রাউজার এর মত কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইন্টারনেট ভিত্তিক ফিচার পাওয়া যায় এসব ফোনে। এখন আপনার যদি মনে হয় আপনার বাটন ফোনে এসব ফিচার থাকা জরুরি, তাহলে ইন্টারনেট ফিচার রয়েছে এমন বাটন ফোন কিনতে পারেন।

👉 শাওমি বাটন স্মার্টফোন, যাতে পাবজি গেমও চলে

উল্লেখ্য যে ইন্টারনেট সুবিধা রয়েছে এমন বাটন ফোন কেনার ক্ষেত্রে অবশ্যই ৪জি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট আছে কিনা তা চেক করুন। অনেক ফোনে ইন্টারনেট থাকলেও তাতে অব্যবহারযোগ্য ২জি ইন্টারনেট সাপোর্ট থাকে, যা আসলে কোনো কাজে আসেনা। আবার ইন্টারনেট ফিচার আছে এমন ভালো বাটন ফোনের দাম কিছুটা বেশি হতে পারে, যা বাটন ফোন কেনার সময় খেয়াল রাখা জরুরি।

বাড়তি সুবিধা

বর্তমানে অধিকাংশ বাটন ফোনে মিউজিক প্লেয়ার, রেডিও, মিডিয়া প্লেয়ার, ইত্যাদি মাল্টিমিডিয়া ফিচার থাকে। উল্লেখিত ফিচারসমূহ যদি আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকে, তবে বাটন ফোন কেনার সময় আপনার বাটন ফোনে উল্লেখিত ফিচারসমূহ রয়েছে কিনা সে বিষয়টি নিশ্চিত করুন। প্রায় সকল বাটন ফোনে এফএম রেডিও থাকে, যা বিভিন্ন পরিস্থিতিতে কাজে আসতে পারে। এছাড়া আপনার বাটন ফোনে টর্চ লাইট আছে কিনা সে বিষয় নিশ্চিত করুন। বাটন ফোনের ক্ষেত্রে টর্চ ও এফএম রেডিও বেশ গুরুত্বপূর্ণ দুইটি ফিচার।

ব্যাটারি

বাটন ফোন কেনার ক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময় ব্যাটারি ব্যাকাপ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফিচার বলে বিবেচনা করা হয়। সাধারণত বাটন ফোনের ব্যাটারি ব্যাকাপ বেশ অসাধারণ হয়ে থাকে। তবুও আপনি যে বাটন ফোন কিনতে যাচ্ছেন, সেটির ব্যাটারি ফিচারের তুলনায় যথেষ্ট কিনা তা বিবেচনা করুন।

উল্লেখিত বিষয়সমূহ খেয়াল রেখে বাটন ফোন কিনলে সেক্ষেত্রে আশা করি আপনি সঠিক ফিচার ফোনটি কিনতে পারবেন। স্মার্টফোন এর মত বাটন ফোন কেনার ক্ষেত্রেও প্রয়োজন বিবেচনা করে সঠিক ফোনটি নির্বাচন করুন।

👉 ভিডিওঃ স্মার্টফোন কেনার সময় যে বিষয়গুলো খেয়াল করা দরকার

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,408 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

2 comments

    • আরাফাত বিন সুলতান Reply

      Thank you so much for your kind words. Please stay with us :)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.