অ্যাপল প্রকাশ করল AR/VR হেডসেট, অ্যাপল ভিশন প্রো!

অ্যাপল ভিশন প্রো নামে একটি অগমেন্টেড রিয়েলিটি হেডসেট নিয়ে এসেছে অ্যাপল। এটি বাস্তব ও ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডকে একসাথে করতে সাহায্য করবে। অনেকদিন ধরে জল্পনাকল্পনার পর অবশেষে অ্যাপলের ম্যাজিক বক্স থেকে এলো বহুল কাঙ্ক্ষিত সেই চমক।

সিইও টিম কুক বেশ মজা করেই বলেছেন, “It’s the first Apple product you look through, and not at.” দেখতে স্কি গোগোলস এর মত এই এআর হেডসেট এর সেপারেট ব্যাটারি প্যাক রয়েছে। এটি কন্ট্রোল করা যাবে চোখ, হাত, ও ভয়েস এর মাধ্যমে। এর দাম শুরু হবে ৩,৪৯৯ ডলার থেকে ও বাজারে পাওয়া যাবে আগামী বছর। অর্থাৎ এখনই বাজারে আসছেনা এই এআর হেডসেট।

ভিশন প্রো কে এআর ডিভাইস হিসেবে ধরা হলেও ডিভাইসটি মূলত অগমেন্টেড ও ফুল ভার্চুয়াল রিয়েলিটির মধ্যে সুইচ করতে পারবে একটি ডায়াল ব্যবহার করে।

এই ডিভাইস ব্যবহার করতে কোনো ধরনের কন্ট্রোলারের প্রয়োজন পড়বেনা। ভিশনওএস নামে এক অপারেটিং সিস্টেম এর সাহায্যে অ্যাপ আইকনের দিকে তাকিয়েই ব্রাউজ করা যাবে। সিলেক্ট করা যাবে ট্যাপ করে ও ফ্লিক করে স্ক্রল করা যাবে৷ এছাড়া ভয়েস কমান্ডের মাধ্যমেও এটি ব্যবহার করা যাবে। অ্যাপল আরো জানিয়েছে অনেক পরিচিত আইফোন ও আইপ্যাড অ্যাপ ব্যবহার করা যাবে এই ডিভাইসে।

এর পাশাপাশি ব্লুটুথ সাপোর্ট এর কল্যাণে ব্লুটুথ একসেসরিজ, যেমন: ম্যাজিক কিবোর্ড, ম্যাজিক ট্র‍্যাকপ্যাড, ইত্যাদি ব্যবহার করে হেডসেট এর সাথে ম্যাক কানেক্ট করা যাবে। ডাউনওয়ার্ড-ফেসিং ক্যামেরার সাহায্যে হাতের মুভমেন্টও সূক্ষভাবে ট্র্যাক হবে। এই হেডসেটের ফ্রন্টে রয়েছে গ্লাস ও এলুমিনিয়াম এর ফ্রেম, যাতে ৫টি সেস্নর, ১২টি ক্যামেরা, প্রতি চোখের জন্য একটি ৪কে ডিসপ্লে ও কুলিং ফ্যানসহ একটি কম্পিউটারও রয়েছে। হেড ব্যান্ডটি মাথার চারপাশে জড়ানো থাকবে। একাধিক স্টাইল ও সাইজের হেড ব্যান্ড পাওয়া যাবে।

যারা চশমা পড়েন তাদের জন্য কাস্টম অপটিক্যাল ইনসার্ট তৈরী করেছে জাইস। এর একটি এক্সটার্নাল ব্যাটারিও রয়েছে যা সর্বোচ্চ ২ঘন্টা ব্যাকাপ প্রদান করবে। এই ব্যাটারি পকেটে নিয়ে ঘুরা যাবে ও ক্যাবলের মাধ্যমে হেডসেট চার্জ করা যাবে। অ্যাপল প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এর ডিসপ্লেটি শার্প হবে ও ৪কে ভিডিও ডেলিভার করতে পারবে কোনো সমস্যা ছাড়া। এখানে এম২ চিপ এর পাশাপাশি আর১ নামের একটি নতুন চিপ ব্যবহার করা হয়েছে।

অ্যাপল জানিয়েছে এই হেডসেট ব্যবহার করে আপনার আশেপাশের মানুষ থেকে দূরে সরে যাওয়ার ভয় নেই। এই হেডসেটে EyeSight নামে একটি সিস্টেম আছে যার মধ্যে দিয়ে চোখ দেখা যাবে। আর ফুল ভিআর মোড ব্যবহার করলে সেক্ষেত্রে একটি গ্লোয়িং স্ক্রিন দেখা যাবে। 

এর পাশাপাশি এটি একটি হাইপাররিয়েলিস্টিক এভেটার তৈরী করবে আপনার মুখের অবয়ব ব্যবহার করে। এই ডিভাইস ভিডিও ব্যবহার করে আশেপাশে কি আছে সেটিও দেখতে সাহায্য করবে। আবার চাইলে রিয়েল ওয়ার্ল্ডে ৩ডি অবজেক্টও প্রজেক্ট করা যাবে।

কারো সাথে রিমোটলি কথা বলার সময় Spatial অডিও ব্যবহার করে ফেসটাইমে ভিডিও টাইলস অ্যারেঞ্জ করা যাবে। ভিশন প্রো ডিভাইসে থাকা ৩ডি ক্যামেরা ব্যবহার করে ১৮০ডিগ্রি ভিডিও রেকর্ড করা যাবে ও তা পরে দেখা যাবে। এছাড়া অ্যাপল টিভি ও Arcade কনটেন্ট এর পাশাপাশি ডিজনি’র প্রিমিয়াম কনটেন্টও দেখা যাবে এটি ব্যবহার করে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

Apple Vision Pro

👉 আইফোনে নতুন সুবিধা নিয়ে আসছে আইওস ১৭

অনেক লম্বা সময় ধরে কাজ করার পর, একাধিকবার পিছিয়ে যাওয়ার পর অবশেষে অ্যাপল এর এই হেডসেট বাজারে আসতে যাচ্ছে আগামীবছর। ইতিমধ্যে মেটা তাদের কুয়েস্ট হেডসেট এর মাধ্যমে বাজার দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। দেখার বিষয় এই নতুন মার্কেটে অ্যাপল কতটুকু কতৃত্ব দেখাতে পারে।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,556 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *