কম দামে ৫জি আইফোন আনলো অ্যাপল – আইফোন এসই ২০২২

অ্যাপল স্প্রিং ইভেন্টে নতুন আইফোন এসই ঘোষণা করেছে অ্যাপল। শক্তিশালী এ১৫ বায়োনিক চিপ, ৫জি সাপোর্ট, ভালো ব্যাটারি লাইফ ও স্থায়িত্ব, ইত্যাদি হলো নতুন আইফোন এর উল্লেখযোগ্য কিছু ফিচার। নতুন ক্যামেরা সিস্টেমে স্মার্ট এইচডিআর ৪, ফটোগ্রাফিক স্টাইলস ও ডিপ ফিউশন যুক্ত হয়েছে বাজেট আইফোনটিতে। চলুন জেনে নেওয়া যাক নতুন বাজেট আইফোন, আইফোন এসই ৫জি ২০২২ সম্পর্কে বিস্তারিত।

ডিজাইন ও ডিসপ্লে

আগের আইফোন এসই এর মত একই ডিজাইন রাখা হয়েছে নতুন আইফোনেও। অ্যাপল জানিয়েছে, আইফোন ১৩ ও ১৩ প্রো এর মতো একই অ্যালুমিনিয়াম ও গ্লাস ডিজাইন ব্যবহার করা হয়েছে নতুন আইফোনে। এছাড়া ডিভাইসটি আইপি৬৭ রেটেড, যার মানে ধুলাবালী ও পানিতে ফোনটির ক্ষতি কম হবে। সাধারণ পানির ঝাপটায় এর কোনো সমস্যা হবেনা।

আইফোন এসই ২০২২ তে পরিচিত হোম বাটন ও টাচ আইডি থাকছে। অর্থাৎ ডিজাইনের ক্ষেত্রে এই নতুন আইফোনে উল্লেখ্যযোগ্য কোনো পরিবর্তন আসেনি। পূর্ববর্তী ৪.৭ইঞ্চি রেটিনা ডিসপ্লে থাকছে আইফোন এসই ২০২২ ফোনটিতে। অর্থাৎ ডিজাইন ও ডিসপ্লে এর দিক দিয়ে এই নতুন আইফোনে তেমন কোনো পরিবর্তন আসেনি পুরোনো জেনারেশনের আইফোন এসই বিবেচনায়।

চিপসেট

নতুন আইফোন এসই এর হাইলাইট ফিচার হলো এতে ব্যবহৃত হওয়া অ্যাপল এ১৫ বায়োনিক চিপ। অ্যাপলের হাজার ডলার ফ্ল্যাগশিপে ব্যবহৃত হওয়া এই চিপসেট এবার বাজেট আইফোনেও দেখা যাবে। দামে প্রায় অর্ধেক হওয়ার পরও আইফোন ১৩ সিরিজের মতো একই প্রসেসর ব্যবহার করায় আইফোন এসই অনেকের পছন্দের তালিকায় যুক্ত হবে।

এ১৫ এর ৬-কোর সিপিইউ বেশ শক্তিশালী, যা ইতিমধ্যে বাজারের অনেক ফ্ল্যাগশিপকে সমানে প্রতিযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। দুইটি হাই-পারফরম্যান্স কোর ও চারটি পাওয়ার এফিসিয়েন্স কোর যুক্ত এই প্রসেসর এর কল্যাণে আইফোন ৮ এর তুলনায় ১.৮গুণ দ্রুত নতুন এই আইফোন। এছাড়া প্রসেসরে থাকা ১৬-কোর নিউরাল ইঞ্জিন প্রতি সেকেন্ডে ১৫.৮ট্রিলিয়ন অপারেশন পারফর্ম করতে পারে।

এ১৫ বায়োনিক চিপ সবচেয়ে বেশি কাজে দেবে ফটোগ্রাফি, গেমিং ও অগুমেন্টেড রিয়েলিটি এক্সপেরিয়েন্স এর ক্ষেত্রে। এ১৫ বায়োনিক এর কারণে আইফোন এসই ব্যবহারের অভিজ্ঞতা অসাধারণ হতে চলেছে। পাশাপাশি আইওএস ১৫ এর সাথে ইন্ট্রিগ্রেশন এর সুবাদে ব্যাটারি লাইফে উন্নতি দেখা যাবে আইফোন এসই ২০২২ ফোনটিতে। এছাড়া Qi-সার্টিফাইড চার্জার দ্বারা ওয়্যারলেস চার্জিং সুবিধা থাকছে নতুন আইফোনে। ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট ও উপস্থিত রয়েছে ফোনটিতে।

ক্যামেরা

আইফোন এসই এর ক্যামেরা ফিচার সম্পূর্ণ নতুন এক্সপেরিয়েন্স প্রদান করবে ফোনে থাকা এ১৫ বায়োনিক চিপ এর কল্যাণে। ফোনের ব্যাকে থাকা ১২মেগাপিক্সেল এফ১.৮ এপার্চারের ক্যামেরা দ্বারা স্মার্ট এইচডিআর ৪, ফটোগ্রাফিক স্টাইলস, ডিপ ফিউশন ও পোর্ট্রেইট মোড এর মত অসাধারণ সব ক্যামেরা ফিচার উপভোগ করা যাবে।

স্মার্ট এইচডিআর ৪ প্রথমে আইফোন ১৩ সিরিজে নিয়ে আসা হয়, যা অল্পসময়ের মধ্যে আইফোন এসই তে যুক্ত হলো। এই ফিচারটি মূলত চ্যালেঞ্জিং লাইটিং কন্ডিশনে সাবজেক্ট, ব্যাকগ্রাউন্ড, লাইটিং, স্কিন টোন, ইত্যাদি বিষয়ে আপডেট নিয়ে এসেছে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

এছাড়া ফটোগ্রাফি স্টাইলস ফিচার দ্বারা পার্সোনালাইজ করা যাবে আইফোন এসই এর ফটোগ্রাফি। ডিপ ফিউশান প্রযুক্তিটি ছবিতে থাকা টেক্সচার, নয়েজ ও ডিটেইলস অপটিমাইজ করবে। এ১৫ বায়োনিক এর ফলাফল দেখা যাবে নতুন আইফোনে, যা কম নয়েজযুক্ত ভিডিও আউটপুট দিবে লো লাইটেও।

৫জি

বাজেট ফোনে ৫জি এর প্রচলনকে ত্বরান্বিত করবে নতুন আইফোন এসই এর ৫জি ফিচার। আইফোন এসই ৩ তে থাকা ৫জি প্রযুক্তির সুবিধা অধিক দ্রুত আপলোড স্পিড ও ডাউনলোড স্পিড পাওয়া যাবে। আবার ফেসটাইমে এইচডি কলের সময় ওয়াইফাই ছাড়াই শেয়ারপ্লে এর মতো ফিচার ব্যবহার করা যাবে।

বিশ্বের ৭০টি দেশের ২০০টি ক্যারিয়ার এই বছর ৫জি সুবিধা আসতে চলেছে। আইফোন এসই ২০২২ সুলভ মূল্যে পাওয়া যাবে বলে ৫জি এর প্রসারে সাহায্য করবে ফোনটি।

কম দামে ৫জি আইফোন নিয়ে এলো অ্যাপল
আইফোন এসই ২০২২

আইওএস ১৫

আইওএস ১৫ কে সাথে নিয়ে বেশ কিছু নতুন ফিচার যুক্ত হয়েছে নতুন আইফোনে। ফেসটাইম কলে যুক্ত হয়েছে স্পেশাল (Spatial) অডিও ও নতুন পোর্ট্রেইট কোড। আরো যুক্ত হয়েছে শেয়ারপ্লে, যা ব্যবহার করে ইউজারগণ বন্ধু ও পরিবারের সাথে ফেসটাইম কলে থাকা অবস্থায় কোনো কনটেন্ট একই সাথে উপভোগ করতে পারবেন।

এছাড়া ফোকাস ফিচারটি যুক্ত হয়েছে ফেসটাইম কলে, যা ডিসট্রাকশন কমাতে সাহায্য করবে কলের সময়। লাইভ টেক্সট ইঞ্জিন ও নতুন ৩ডি ম্যাপ ন্যাভিগেশনের মত আরো অনেক ফিচার এসেছে আইওএস ১৫ এর কল্যাণে।

আইফোন এসই ও পরিবেশ

অ্যাপল এর পরিবেশবান্ধব উপপাদ্য বজায় থাকছে এই বছরের আইফোনের ক্ষেত্রেও। অ্যাপল জানিয়েছে, আইফোন এসই তৈরী করা হয়েছে ১০০% রিসাইকেলড ম্যাটেরিয়াল থেকে। ২০২৫সালের মধ্যে নিজেদের প্রোডাক্ট প্যাকেজিং থেকে প্লাস্টিক সম্পূর্ণভাবে সরিয়ে নিতে চাত অ্যাপল।

অ্যাপল আরো জানায়, ২০৩০সালের মধ্যে তারা নেট-জিরো ক্লাইমেট ইমপ্যাক্ট অর্জন করতে চায়। অর্থাৎ উক্ত সময়ের মধ্যে একটি ডিভাইসের কম্পোনেন্ট থেকে শুরু করে প্যাকেজিং পর্যন্ত, সকল ব্যবহৃত উপাদান ১০০% কার্বন নিউট্রাল হবে।

দাম

আইফোন এসই পাওয়া যাবে ৬৪জিবি, ১২৮জিবি ও ২৫৬জিবি মডেল ভ্যারিয়েন্টে। মিডনাইট,স্টারলাইট প্রোডাক্ট রেড রংয়ে পাওয়া যাবে আইফোন এসই। ৪২৯ডলার গুণতে হবে হবে আইফোন এসই কিনতে হলে।

যদিও অনেক গুঞ্জন ছিল যে আইফোন এসই ২০২২ এর দাম হয়ত ৩০০ ডলার বা ৩৪৯ ডলারের মত হতে পারে, তবে শেষ পর্যন্ত এর দাম আসলে সেই প্রত্যাশা পূরণ করেনি। তবুও এর ফিচার বিবেচনায় এটা ভাল একটা ডিল হতে পারে। কেননা মূল ফ্ল্যাগশিপ আইফোন ১৩ বেইজ মডেলের দাম বর্তমানে ৮০০ ডলার থেকে শুরু হচ্ছে।

আইফোন এসই ২০২২ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৪.৭ইঞ্চি রেটিনা ডিসপ্লে
  • প্রসেসরঃ অ্যাপল এ১৫ বায়োনিক
  • সফটওয়্যারঃ আইওএস ১৫
  • র‍্যামঃ ৪জিবি
  • স্টোরেজঃ ৬৪জিবি / ১২৮জিবি / ২৫৬জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ১২মেগাপিক্সেল
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৭মেগাপিক্সেল 

আপনার কাছে কেমন লেগেছে আইফোন এসই ২০২২ ফোনটি? আপনার মতামত আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,069 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.