বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

বিকাশে টাকা পাঠানোর একাধিক উপায় বা নিয়ম রয়েছে। শুধুমাত্র বিকাশ সেন্ড মানি নয়, বরং এর অন্যান্য ফিচারের মাধ্যমেও বিকাশ ব্যবহার করে টাকা পাঠানো বা বিকাশ ব্যালেন্স ব্যবহার করা যায়। এই পোস্টে বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে জানবেন।

সেন্ড-মানি

বিকাশে টাকা পাঠানোর সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হলো সেন্ড মানি করা। সেন্ড মানি করার মাধ্যমে বিকাশে টাকা পাঠালে এক বিকাশ একাউন্ট থেকে অন্য বিকাশ একাউন্টে ব্যালেন্স ট্রান্সফার হয়ে যায়। এইক্ষেত্রে এমাউন্টের উপর ভিত্তি করে একটি ছোট এমাউন্ট চার্জ কাটা হয়। বিকাশে টাকা পাঠানোর মূলত আসল মাধ্যমই হলো সেন্ড মানি। বিকাশ গ্রাহকগণ নিজেদের একাউন্ট থেকে অন্য একাউন্টে ব্যালেন্স ট্রান্সফার বা টাকা পাঠাতে সেন্ড মানি ফিচার এর ব্যবহার করে থাকেন।

সেন্ড মানি এর মাধ্যমে কাউকে বিকাশে টাকা পাঠানো মানে আপনার বিকাশ একাউন্টে থাকা ব্যালেন্স উক্ত ব্যক্তিকে পাঠানো। সেন্ড মানি করা বেশ সহজ, অ্যাপ বা বিকাশ ইউএসএসডি ব্যবহার করে ফিচারটি ব্যবহার করা যায়।

ক্যাশ আউট

বিকাশে টাকা পাঠানোর আরেকটি উপায় হতে পারে ক্যাশ আউট ফিচারটি। প্রত্যন্ত অঞ্চলে অনেকে টাকা পাঠানোর প্রক্রিয়াকে সহজ করার লক্ষ্যে ক্যাশ আউট এর মাধ্যমে বিকাশে টাকা আদানপ্রদান করে থাকে। এই প্রক্রিয়ায় আপনি যাকে টাকা পাঠাচ্ছেন তার নিকটবর্তী কোনো এজেন্টের কাছে ক্যাশ আউট করা হয়, এরপর উক্ত এজেন্ট ক্যাশ আউট করা অর্থ যাকে টাকা পাঠানো হয়েছে তাকে প্রদান করেন।

বিকাশে কাউকে সেন্ড মানি করলে উক্ত অর্থ ঐ ব্যক্তির বিকাশ ব্যালেন্সে যোগ হয়। ক্যাশ আউট প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বিকাশে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে যাকে টাকা পাঠানো হচ্ছে তিনি সরাসরি হাতে টাকা পেয়ে যান। এক্ষেত্রে বিকাশ স্ট্যান্ডার্ড ক্যাশ আউট ফি অবশ্যই প্রযোজ্য হবে।

বিকাশে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে ক্যাশ আউটের পদ্ধতিতে অনেক সময় প্রেরকের বিকাশ একাউন্টেরও প্রয়োজন হয়না। আপনি নিজে কোনো এজেন্টের কাছে গিয়ে যাকে টাকা পাঠাতে চান তাকে কোনো এজেন্টের কাছে যেতে বলে এজেন্টের মাধ্যমে অর্থের আদানপ্রদান করা যেতে পারে। অনেকে এই পদ্ধতি ব্যবহার করে বিকাশে টাকা পাঠিয়ে থাকেন।

বিকাশ ক্যাশ আউট ফি সাধারণ এজেন্ট ও প্রিয় এজেন্ট এর উপর ভিত্তি করে আলাদা হয়ে থাকে। বিকাশ ক্যাশ আউট ফি সম্পর্কিত বিষয় বিস্তারিত জানতে নিচে লিংক করা পোস্টগুলো ঘুরে আসুন:

👉 বিকাশ প্রিয় এজেন্ট নাম্বার সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন

👉 বিকাশ ক্যাশ আউট ও সেন্ড মানি খরচ কত? জানুন

bkash app

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

ক্যাশ ইন

আপনি চাইলে যেকোনো ব্যক্তিগত বিকাশ একাউন্টে “ক্যাশ ইন” পদ্ধতিতেও টাকা পাঠাতে পারেন। সেক্ষেত্রে বিকাশ এজেন্টের কাছে গিয়ে প্রাপকের বিকাশ নম্বর প্রদান করতে হবে এবং এজেন্টকে টাকা দিতে হবে। তারপর এজেন্ট উক্ত প্রাপককে ক্যাশ ইন পদ্ধতিতে টাকা পাঠাতে পারবেন যা প্রাপকের বিকাশ একাউন্টে জমা হবে।

অ্যাড মানি

বিকাশ অ্যাপের অ্যাড মানি ফিচারের মাধ্যমে নিজের বিকাশ একাউন্ট অথবা অন্য কারো বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠানো যায়। অ্যাড মানির মাধ্যমে বর্তমানে ব্যাংক থেকে বিকাশ অথবা কার্ড থেকে বিকাশে টাকা পাঠাতে পারবেন।

পে বিল

বিকাশে টাকা পাঠানোর আরেকটি উপায় হতে পারে পে বিল। সরাসরি টাকা পাঠানোর একটি মাধ্যম না হলেও গ্যাস, পানি, বিদ্যুৎ, কিংবা ইন্টারনেট এর বিল প্রদান করার জন্য বিকাশ ব্যবহার করে সাপ্লাইয়ারকে টাকা পাঠানো যায়। বিকাশ এর পে বিল ফিচার ব্যবহার করে ইউটিলিটি বিল প্রদান করা হতে পারে বিকাশ ব্যালেন্স ব্যবহার করার দারুণ একটি মাধ্যম।

পেমেন্ট

বিকাশে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে পেমেন্ট ফিচারটিও ব্যবহার করা যেতে পারে। পেমেন্ট ফিচারটি ব্যবহার করার মাধ্যমে বিকাশ পার্টনারড ব্যবসা বা আউটলেট পয়েন্টে বিকাশ দ্বারা পেমেন্ট করা যাবে। এই ফিচারটি বেশ অসাধারণ কারণ কোনো ধরনের বাড়তি ফি কাটা ছাড়াই বিকাশ পেমেন্ট করা যায়। আবার অনেক সময় বিকাশ পেমেন্ট ফিচার ব্যবহার করে অর্থ পরিশোধ করলে বাড়তি সুবিধা, বোনাস বা বিকাশ রিওয়ার্ড পাওয়া যায়। অর্থাৎ বিকাশ পেমেন্ট ফিচার ব্যবহার করে পেমেন্ট করলে চিরাচরিত পেমেন্টের চেয়ে বাড়তি সুবিধা পাওয়া যেতে পারে।

উল্লিখিত মাধ্যমগুলো ব্যবহার করে বিকাশে টাকা পাঠানো যাবে পরিবার, বন্ধু, ইউটিলিটি সার্ভিস প্রোভাইডার, এমনকি শপিং আউটলেটে কেনাকাটার ক্ষেত্রেও। বিকাশ ব্যবহার করে রীতিমত ক্যাশলেস একটি পেমেন্ট সিস্টেম ইমপ্লিমেন্ট করা সম্ভব, যা বর্তমান সময়ের বিচারে আমাদের দেশের জন্য বেশ অসাধরণ একটি বিষয়।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,558 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *