টাচস্ক্রিন ডিভাইসে দ্রুত লিখবে “থাম্ব টাইপ” কিবোর্ড!

thumb typeস্কটল্যান্ডের সেন্ট এন্ড্রিউস বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক নতুন ধরণের “থাম্ব-টাইপিং” কিবোর্ড আবিষ্কার করেছেন যা টাচ স্ক্রিন ডিভাইসে আরও দ্রুত ওয়ার্ড প্রসেসিংয়ে সাহায্য করবে। নির্মাতারা দাবি করছেন, লে-আউটটির মাধ্যমে ট্যাবলেট ও বড় আকারের স্মার্টফোনে প্রচলিত কোয়ের্টি কিবোর্ডের চেয়ে সহজে এবং দ্রুততার সাথে লেখা যাবে। এর একটি লাইনে অবস্থিত বর্ণ সমাবেশ নিয়ে নতুন এই নকশার নাম রাখা হয়েছে কাল্ক (KALQ)।

সেন্ট এন্ড্রিউস বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐ গবেষকরা জার্মানি ও যুক্তরাষ্ট্রের আরও দুটি টিমের সাথে একত্রে কাজ করে একটি ভার্চুয়াল কিবোর্ড এপ তৈরি করতে যাচ্ছেন যা এন্ড্রয়েড নির্ভর ডিভাইসের জন্য বিনামূল্যে পাওয়া যাবে। লেয়াউটটির ডেভলপারদের মতে কর্মদক্ষতার দিক দিয়ে থাম্ব টাইপিং বাস্তব কোয়ের্টি কিবোর্ডের চেয়ে ভিন্ন যা কিনা উনবিংশ শতাব্দীতে তৈরি হয়েছিল। তাদের মতে টাচস্ক্রিন ডিভাইসে সাধারণ কোয়ের্টি কিবোর্ড ব্যবহারকারীরা প্রতি মিনিটে সর্বোচ্চ ২০টির মত শব্দ লিখতে পারেন, যা কম্পিউটারে ব্যবহৃত সচরাচর কিবোর্ডের তুলনায় অনেক ধীরগতির।

দুই বৃদ্ধাঙ্গুলির সাহায্যে স্ক্রিনের উভয় পাশে অবস্থিত বর্ণমালার সমন্বয়ে এই থাম্ব কিবোর্ডের ডিজাইন করা হয়েছে। এতে বেশি ব্যবহৃত অক্ষরগুলোকে সুবিধাজনক স্থানে রাখা হয়েছে বলেও জানায় এর নির্মাতা দল। এক্ষেত্রে আরও কিছু অক্ষরের সাথে ইংরেজি বর্ণমালার সবগুলো ভাওয়েল রয়েছে ডান পাশে।

কিবোর্ড লেয়াউটের সাথে সাথে একটি ভুল সংশোধনমূলক এলগোরিদমও তৈরি করেছেন গবেষকরা। এর সমন্বিত ব্যবহারের মাধ্যমে থাম্ব টাইপিং পদ্ধতিতে মিনিটে সর্বোচ্চ ৩৭টি শব্দ লেখার রেকর্ড হয়েছে। প্রযুক্তিটি পহেলা মে প্যারিসে এক সম্মেলনে প্রদর্শিত হবে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,983 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.