আসুস ম্যাক্স প্রো এম১ ফোন এলো শাওমি রেডমি নোট ৫ প্রো এর সাথে লড়তে

আসুস জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম১

গতকাল আসুস তাদের নতুন স্মার্টফোন জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম১ বাজারে আনার ঘোষণা দিয়েছে। দাম ও স্পেসিফিকেশনের বিচারে এটি শাওমির বাজার কাঁপানো রেডমি নোট ৫ প্রো এর সাথে খুব ভালো টক্কর দিবে বুঝাই যাচ্ছে।

আসুস জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম১ ও শাওমি রেডমি নোট ৫ প্রো এর মাঝে স্পেসিফিকেশনের ক্ষেত্রে অনেকটাই মিল আছে। ম্যাক্স প্রো এম১ এ রয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৬৩৬ চিপসেট যা খুবই ভালো পারফর্মার ও সাথে ব্যাটারি এফিশিয়েন্ট। ৫.৯৯ ইঞ্চি ১৮:৯ রেশিওর ফুল এইচডি ডিসপ্লে আছে এটিতে। শুরুতে ৩ জিবি র‍্যাম-৩২ জিবি স্টোরেজ ও ৪ জিবি র‍্যাম-৬৪ জিবি স্টোরেজের দুটি ভ্যারিয়েন্টে আসবে ম্যাক্স প্রো এম১। এর পিছনে রয়েছে একটি ১৩ মেগাপিক্সেল ও একটি ৫ মেগাপিক্সেল সেন্সর এর ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ। সামনে থাকছে ৮ মেগাপিক্সেল এর সেলফি ক্যামেরা। ডুয়াল সিম স্লটের সাথে পাচ্ছেন ডেডিকেটেড মেমোরি কার্ড স্লট। এতে আরও পাবেন ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও ফেইস আনলক ফিচার।

আসুস জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম১

ওভারঅল ক্যামেরা পারফরমেন্সে রেডমি নোট ৫ প্রো তার ২০ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা নিয়ে কিছুটা এগিয়ে থাকবে। শাওমি রেডমি নোট ৫ প্রো যেখানে এন্ড্রয়েড ৭.১ ভিত্তিক এমআইইউআই ৯x এ চলছে, সেখানে আসুস জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম১ চলবে স্টক এন্ড্রয়েড ওরিও ৮.১ এ। এদিক থেকে আসুসের এই ফোনটি কিছুটা এগিয়ে থাকবে।

ম্যাক্স প্রো এম১ এর সবচেয়ে শক্তিশালী দিক হলো এর ব্যাটারি ব্যাকআপ। ৫০০০ এমএএইচ এর জায়ান্ট লিপো ব্যাটারি আছে এতে যা একে অন্যান্য ফোনের চেয়ে অনেক এগিয়ে রাখবে। স্টক এন্ড্রয়েড ওএসে রান করায় ফোনটি পর্যাপ্ত ব্যাকআপ দিতে পারবে বলেই আশা করা যাচ্ছে।

এবার আসা যাক দরদাম নিয়ে। ভারতের বাজারে ম্যাক্স প্রো এম১ এর ৩ জিবি ও ৪ জিবি ভ্যারিয়েন্ট এর দাম ধরা হয়েছে যথাক্রমে ১১০০০ ও ১৩০০০ রুপি। যেখানে শাওমি রেডমি নোট ৫ প্রো এর ইন্ডিয়ান প্রাইস ৪ জিবি ভ্যারিয়েন্টের জন্য ১৪০০০ রুপি। এছাড়া ৬জিবি-৬৪জিবি-১৬ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরার আরেকটি ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে আসবে ম্যাক্স প্রো এম১, যার দাম হবে ১৫০০০ রুপি।

মে মাসের ৩ তারিখ থেকে আসুস জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম১ ফ্লিপকার্টে বিক্রি শুরু হবে। ম্যাক্স প্রো এম১ বাংলাদেশে কবে আসবে কিংবা দাম কত হবে এই ব্যাপারে এখনো অফিশিয়ালি কোনো ঘোষণা আসে নি।

আসুস জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম১

নতুন নতুন ফিচার, উন্নত ক্যামেরা, ভালো ব্যাটারি লাইফ আর সবচেয়ে বড় কথা হলো কম প্রাইস নিয়ে লোয়ার মিডরেঞ্জ বাজারটা বেশ জমে উঠেছে। বিশেষ করে আমাদের এশিয়ান মার্কেটে মিডরেঞ্জ এর ক্রেতাই অনেক। কম দামে সব ধরনের ফিচার নিয়ে ওভারঅল একটি প্যাকেজ পেলেই এই শ্রেণির গ্রাহকেরা খুশি। যে কারণে লোয়ার মিডরেঞ্জের গ্রাহক ধরতে অনেক কোম্পানিই গুরুত্ব দিচ্ছে। আর যারা এই শ্রেণির ফোন বেশি তৈরি করছেনা তারাই বাজার হারাচ্ছে।

সম্প্রতি ২০১৭ এর শেষ কোয়ার্টারের হিসাব অনুযায়ী ভারতের বাজারে শাওমি স্যামসাংকেও পিছনে ফেলে দিয়েছে। যে কারণে অন্যান্য ইমার্জিং ব্র্যান্ডগুলো ও এই বাজারটি ধরতে উঠে পড়ে লেগেছে। আসুস ও কম যায় না। মার্কেটে তাদের অবস্থানকে আরেকটু শক্ত করতেই তারা উপমহাদেশের গ্রাহকরা কী চায় এটা নিয়ে সার্ভে করার পরই এই সেট বাজারে আনার প্ল্যান করে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,215 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.