যে কারণে আইফোন ১০ এর চেয়ে গ্যালাক্সি এস৯ এগিয়ে

রিয়াল মাদ্রিদ নাকি বার্সেলোনা, মেসি নাকি রোনালদো? ফুটবল বিশ্বে বিতর্কের শেষ নেই। তেমনি স্মার্টফোন বিশ্বে বর্তমানে একটি অমিমাংসিত বিতর্ক হল “অ্যাপল নাকি স্যামসাং?”। যদিও দুটি কোম্পানি ভিন্ন সফটওয়্যার প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে, আবার তাদের বিজনেস স্ট্রাটেজিও আলাদা। কিন্তু প্রতিবছর ফ্ল্যাগশিপ ফোনের ক্ষেত্রেও নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে দুটি কোম্পানিই অসাধারণ নৈপুণ্য দেখায় আর যার ফলে এদের নিয়ে আলোচনাটাও ভালই চলে।

তেমনি, ২০১৮ সালের ফ্ল্যাগশিপ ফোনের ক্ষেত্রে একদিকে রয়েছে স্যমসাং গ্যালাক্সি এস ৯ প্লাস/এস ৯ আর অন্যদিকে আইফোন টেন। চলুন দেখে নিই আপনাকে এই দুটোর একটি পছন্দ করতে দেয়া হলে আপনার এস৯ কেন বাছাই করা উচিত।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 2,643 other subscribers

১। ডিসপ্লে

আইফোন টেনের ওএলইডি ডিসপ্লে চমৎকার কিন্তু এস৯ এর ডিসপ্লে অসাধারণ। এস৯ এর ডিসপ্লে আইফোন টেনের চেয়ে অনেক বেশি ভাইব্রেন্ট কালার প্রদর্শন করে। এছাড়া কন্ট্রাস্ট রেশিও, ব্রাইটনেস, কালারও যথেষ্ট চমৎকার। তবে অ্যাপলের ডিসপ্লে তুলনামূলক বাস্তব কালার প্রদর্শন করে।

২। ফাস্ট চার্জিং

গ্যালাক্সি এস৯ কিনলে আপনি ফোনের বক্স খোলার সাথে সাথেই ফাস্ট চার্জিং সুবিধা পাচ্ছেন। ফাস্ট চার্জিং আসলেই একটা দরকারি ফিচার। উভয় ফোনেই ফিচারটি আছে। আইফোন টেনে এই ফিচার উপভোগ করতে চাইলে আপনাকে আলাদা ফাস্ট চার্জার কিনে নিতে হবে। কিন্তু গ্যালাক্সি এস৯ এ আপনি বক্সে দেওয়া চার্জারেই ফাস্ট চার্জিং সুবিধা পাবেন।

৩। লো-লাইট ক্যামেরা

আইফোন ১০ এর লো-লাইট মুডে তোলা ছবি। ক্রেডিটঃ সিনেট।

কম আলোতে গ্যালাক্সি এস ৯ তুলনামূলক ভালো ছবি তোলে। এস৯ এর ক্যামেরার এপারচার এফ/১.৫ যা আইফোন টেনের এফ/১.৮ এর চেয়ে অনেক বেশি আলো নিতে পারে।

গ্যালাক্সি এস৯+ এর লো-লাইট মুডে তোলা ছবি। ক্রেডিটঃ সিনেট।

পাশাপাশি রিয়েল লাইফ পারফরমেন্স বিচারে এস৯ এর ক্যামেরা কম আলোতে যে আইফোন টেন এর চেয়ে ভাল ছবি তুলতে পারে এক্ষেত্রে কোন বিতর্কের অবকাশই নেই। তবে ঠিকঠাক আলো পেলে আইফোন ১০ এর ক্যামেরা একটু বেশি ন্যাচারাল কালার তুলতে পারে বলে সিনেটের রিভিউতে উঠে এসেছে। কিন্তু আপনি তো সবসময় স্টুডিওর মত যথেষ্ট আলো পাবেন না!

৪। এক্সট্রা হেলথ সেন্সর

গ্যালাক্সি এস৯ এ হার্টরেট সেন্সর বিল্ট ইন রয়েছে। এই ফিচারটি সবার জন্য খুব জরুরি না হলেও কারো কারো জন্য আসলেই দরকারি। সেই হিসেবে এক্ষেত্রে এস৯ একটু এডভান্টেজ পাবেই।

৫। ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার

গ্যালাক্সি এস৯ এ ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার আছে। আজকাল এন্ট্রি লেভেলের ফোনেও ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার থাকে। তাহলে এটাকে এতো ঘটা করে বলার কী আছে? কারণ, আইফোন ১০ এ এটা নেই। অ্যাপল তাদের ফোনে ইনোভেটিভ ফেইস রিকগ্নিশন প্রযুক্তি ব্যবহার করায় তারা তাদের টাচ আইডি এই ফোনে দেয়নি। অনেকেই ফেইস আইডি নিয়ে অভিযোগ জানাচ্ছে। অপরদিকে এস৯ এ উভয় ফিচারই আছে।

৬। হেডফোন জ্যাক

গ্যালাক্সি এস৯ এ ৩.৫মিমি হেডফোন জ্যাক আছে। ফোনের ডিজাইন স্লিম করতে গিয়ে অনেক কোম্পানিই আস্তে আস্তে হেডফোন জ্যাক বাদ দিয়ে দিচ্ছে। আইফোন ১০ এও নেই ৩.৫মিমি হেডফোন জ্যাক। সবাই কোনরকম ঝামেলা ছাড়া সহজে হেডফোন কানেক্ট করতে পছন্দ করে। সেই হিসেবে স্যামসাং বাহবা পেতেই পারে।

৭। ডিসপ্লেতে নচ

গ্যালাক্সি এস৯ এর ডিসপ্লেতে বিরক্তিকর নচ নেই। এটা যদিও একেকজনের ব্যক্তিগত ব্যাপার, কারণ কেউ কেউ নচ পছন্দ করেন আবার অনেকে নচ পছন্দ করেন না। যদিও নচ এর কারণে আইফোন টেন এর চিন এরিয়া অনেক কম কিন্তু তাই বলে এস৯ এর ডিজাইন পুরনো ধাঁচের এটাও বলা যায়না। গ্যালাক্সি এস৯ ও যথেষ্ট চিকন চিন ও বেজেল প্রায় নেই বললেই চলে। যেহেতু নচ একটি বিতর্কিত বিষয় তাই এক্ষেত্রেও কোন বিতর্ক ছাড়াই এস৯ অনেকের কাছে এগিয়ে থাকবে।

৮। দাম

এবার আসি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে যেটি হলো আপনার বাজেট। বিক্রেতাভেদে গ্যালাক্সি এস৯ ও এস৯ প্লাস উভয়ের দামই আইফোন টেনের চেয়ে কম পেতে পারেন। তাই এক্ষেত্রেও অনেকের কাছে এস৯ বা এস৯ প্লাসই হতে পারে পছন্দের।

৯। অপারেটিং সিস্টেম

একটি ফোন এন্ড্রয়েড বেজড আর অন্যটি আইওএস অপারেটিং সিস্টেমে চলে। দুটি ওএস ই যথেষ্ট ফিচারবহুল। কিন্তু ফ্লেক্সিবিলিটি ও মার্কেট শেয়ার বিচারে অনেক ব্যবহারকারীই এন্ড্রয়েডে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন।

আইফোন ১০ এর বিস্তারিত ফিচার এখানে দেখুন। গ্যালাক্সি এস৯ ও এস৯+ এর বিস্তারিত ফিচার এখানে দেখুন

সবশেষে একটি কথা না বললেই নয়, প্রত্যেক ব্যক্তিরই আলাদা পছন্দ থাকে। ফলে এক একজনের এক একরকম পছন্দ। আপনার পছন্দ কোনটি? আইফোন ১০ নাকি গ্যালাক্সি এস৯ ?

আমাদের ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুন!

     
প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Comments