২০ হাজার টাকার মধ্যে সেরা স্মার্টফোন ২০২৪

বাংলাদেশের অধিকাংশ স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর মোবাইলের জন্য বাজেট সাধারণত ১০ হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকার মধ্যে। দেশের বাজারে স্মার্টফোনের এই বিপুল চাহিদার কথা মাথায় রেখে ১০ হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকার মধ্যে অসাধারণ কিছু ফোন অফার করছে শাওমি ও রিয়েলমির মত চাইনিজ স্মার্টফোন নির্মাতাগণ। চলুন জেনে নেয়া যাক, ১০ হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে সেরা কয়েকটি স্মার্টফোন সম্পর্কে যেগুলো বাংলাদেশের বাজারে অফিসিয়ালি পাওয়া যাচ্ছে।

অপো এ৭৬ – Oppo A76

Oppo A76

গতবছর বাজারে আসা অপোর এই ফোনটি এখনও অন্যতম সেরা হয়ে আছে ২০ হাজার টাকা বাজেটে। এই দামের মধ্যেই অপো বেশ কিছু ভালো ফিচার দিচ্ছে। ফোনের সামনে পেয়ে যাবেন একটি উজ্জ্বল ৬.৫৬ ইঞ্চির এলসিডি ডিসপ্লে। ৯০ হার্টজের হাই রিফ্রেশ রেটও রয়েছে ডিসপ্লেতে। পারফর্মেন্সের মাধ্যমে দিক থেকেও সেরা কনফিগারেশন দিচ্ছে অপো। ফোনের ভেতরে পাবেন স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ ৪জি চিপ। মিড বাজেটের চিপ হিসেবে এটি যথেষ্ট শক্তিশালী এবং দৈনন্দিন কাজ বা টুকটাক গেমিং করা যায় সহজেই। সেই সাথে পেয়ে যাবেন ৬ জিবি র‍্যাম।

সব মিলিয়ে খুব স্মুথ একটি অভিজ্ঞতা হবে আপনার। ডুয়াল ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা আছে। সামনে ৮ মেগাপিক্সেলের একটি সেলফি ক্যামেরা। বাজেট অনুযায়ী ঠিকঠাক ছবি তোলা যায় এই ফোন দিয়ে। ফোনের অন্যতম আকর্ষণীয় দিক এর চার্জ সিস্টেম ও ব্যাকাপ। ৫০০০ মিলিএম্পের ব্যাটারির সাথে আছে ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধা। অর্থাৎ অনেকক্ষণ ব্যাকাপ ও সেই সাথে দ্রুত চার্জ করা যায় ফোনটি। ফোনটির ডিজাইন ও লুকও বেশ সুন্দর।

অপো এ৭৬ এর দামঃ ১৯,৭০০ টাকা

অপো এ৭৭ – Oppo A77

আরও উন্নত ক্যামেরা ও প্রসেসরের পরিবর্তন নিয়ে এই ফোনটি বাজারে এনেছে অপো যা খুব সহজেই ক্রেতাদের মন জয় করতে পেরেছে। ফোনটিতে আগের মডেলের মতোই ৬.৫৬ ইঞ্চির এলসিডি ডিসপ্লে আছে। হাই রিফ্রেশ রেট এখানে অনুপস্থিত। তবে প্রসেসর হিসেবে এখানে আছে মিডিয়াটেকের ডাইমেন্সিটি ৮১০ চিপ। যারা প্রসেসরের ক্ষেত্রে মিডিয়াটেক পছন্দ করেন তারা এই মডেলটি দেখতে পারেন। তবে এটি সমানভাবে শক্তিশালী এবং সকল দৈনন্দিন কাজ ও গেমিং খুব সহজে সামলাতে সক্ষম। সেই সাথে পাবেন ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ। ক্যামেরা সেকশনে এসেছে উন্নতি। মূল লেন্স হিসেবে দেয়া হয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের একটি সেন্সর, আছে ২ মেগাপিক্সেলের একটি মনো সেন্সরও। সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। এই ফোনের ক্যামেরা পারফর্মেন্স বাজেট অনুযায়ী বেশ উপরের দিকেই থাকবে। এছাড়া ৫০০০ মিলিএম্প বড় ব্যাটারি ও ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জের সুবিধা ফোনকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছে। এই ফোনটির দাম ২০ হাজারের কিছুটা উপরে হলেও নানা অফারে ফোনটি পাওয়া যায় ২০ হাজারের মধ্যেই।

Oppo A77 4G

অপো এ৭৭ এর দামঃ ২০,৯৯০ টাকা

টেকনো ক্যামন ১৭পি – Tecno Camon 17P

টেকনোর ক্যামন সিরিজ বাজেটে সেরা ক্যামেরা দেয়ার জন্য অত্যন্ত জনপ্রিয়। এই ফোনটি কিছুটা পুরনো হলেও ২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে অন্যতম সেরা একটি ক্যামেরা ফোন হিসেবে এটি পরিচিত। এছাড়া পারফর্মেন্সের দিক থেকেও পিছিয়ে নেই ফোনটি। সামনে থাকছে ৬.৮ ইঞ্চির বড় একটি উজ্জ্বল এলসিডি ডিসপ্লে। হাই রিফ্রেশ রেট নেই এই ডিসপ্লেতে। তবে ফোনের সাথে পাবেন মিডিয়াটেকের হেলিও জি৮৫ এর পারফর্মেন্স। গেমিং ও দৈনন্দিন কাজে এই চিপ বেশ ভালো পারফর্ম করে। এছাড়া এই বাজেটেই পেয়ে যাচ্ছেন ৬ জিবি র‍্যাম।

Tecno Camon 17P

ফোনের সবথেকে আকর্ষণীয় দিক এর উভয় দিকের ক্যামেরা। সামনের ১৬ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরাটি এই বাজেটের অন্যতম সেরা সেলফি ক্যামেরা। খুবই শার্প ও সুন্দর ছবি তুলতে পারে এই ক্যামেরা। এছাড়া পিছনে থাকছে ৪ টি ক্যামেরা। মূল ৬৪ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরাটি অসাধারণ সব ছবি তুলতে পারে। নাইট মোডেও এই ক্যামেরা বেশ ভালো পারফর্ম করে। কাজেই এই দামের মধ্যে যারা ভালো ক্যামেরা ফোন খুঁজছেন তাদের জন্য এই ফোনটি সেরা পছন্দ হতে পারে। এছাড়া ৫০০০ মিলিএম্প বড় ব্যাটারি ও ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধাও পাওয়া যাবে।

টেকনো ক্যামন ১৭পি এর দামঃ ১৮,৯৯০ টাকা

টেকনো স্পার্ক ১০ প্রো – Tecno Spark 10 Pro

Tecno Spark 10 Pro

অসাধারণ সুন্দর ডিজাইনের এই ফোনটি এ বছর নতুন বাজারে এসেছে বেশ কিছু ভালো ফিচার নিয়ে। ফোনটি পারফর্মেন্স, ক্যামেরা, ব্যাটারি সব দিক থেকেই খুব ভালো স্পেক দিচ্ছে এই বাজেটে। ৬.৮ ইঞ্চি ৯০ হার্টজ বড় ডিসপ্লের ফোন এটি। ফলে কন্টেন্ট ওয়াচিংয়ে পাবেন ভালো অভিজ্ঞতা। ফোনকে পাওয়ার দিতে আছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৮৮ গেমিং প্রসেসর। বাজেটের মধ্যে যারা গেমিং করতে চান তাদের জন্য সেরা প্রসেসর এটি। এছাড়া দৈনন্দিন কাজেও খুব ভালো পারফর্ম করে এটি। ৪ জিবি ও ৮ জিবি দুটি র‍্যাম ভ্যারিয়েন্টেই ফোনটি পাওয়া যায়। সফটওয়্যারের মাধ্যমে আরও ৮ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম বাড়িয়ে নেয়ার সুযোগ আছে। ফোনের পিছনে থাকছে ৫০ মেগাপিক্সেলের ডাবল ক্যামেরা। মূল ক্যামেরা থেকে খুবই ভালো ছবি তোলা যায় বাজেট অনুযায়ী। সামনের ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরাটিও এই বাজেটের অন্যতম সেরা সেলফি ক্যামেরা। এছাড়া ৫০০০ মিলিএম্প বিশাল ব্যাটারি রয়েছে, থাকছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধাও। এছাড়া এনএফসি, এফএম রেডিও, মাইক্রো এসডি ইত্যাদি অনেক বাড়তি ফিচারও পেয়ে যাবেন।

টেকনো স্পার্ক ১০ প্রো এর দামঃ ১৫,৬৯০ টাকা ( ৪ জিবি+১২৮ জিবি ) এবং ১৭,৯৯০ টাকা  ( ৮ জিবি+১২৮ জিবি )

ইনফিনিক্স নোট ১২ ২০২৩ – Infinix Note 12 2023

Infinix Note 12 2023

২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যেই যারা অ্যামোলেড ডিসপ্লে ও গেমিং ফোন খুঁজছেন তাদের জন্য সেরা পছন্দ হবে এই ফোনটি। ফোনের সামনেই রয়েছে ৬.৭ ইঞ্চির বড় একটি অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ফলে গেমিং বা কন্টেন্ট ওয়াচিংয়ে পাবেন বাড়তি সুবিধা। তবে সুন্দর ও উজ্জ্বল এই ডিসপ্লেতে কোন হাই রিফ্রেশ রেটের সুবিধা নেই। সহজে গেমিং করতে দেয়া হয়েছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৯৯ প্রসেসর। ৬ ন্যানোমিটারের এই প্রসেসরটি এই বাজেটের সেরা গেমিং প্রসেসর। সব ধরণের গেমসই এতে খেলতে পারবেন। এছাড়া দৈনন্দিন কাজেও সেরা পারফর্মেন্স পাওয়া যায় এই প্রসেসর থেকে। গেম খেলায় বাড়তি সুবিধার জন্য এতে ৮ জিবি র‍্যাম রয়েছে। সফটওয়্যারের মাধ্যমে এই র‍্যাম আরও বাড়ানো যায়। ফোনের পিছনে পাবেন ৫০ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা। বাজেট অনুযায়ী বেশ ভালো ছবি তোলা যায় এই ক্যামেরা থেকে। সামনেও রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেলের একটি ভালো মানের সেলফি ক্যামেরা। ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধা রয়েছে এই ফনে। আর ব্যাটারি ব্যাকাপ দিতে আছে ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারি। সব মিলিয়ে ফোনটি এই বাজেটে অন্যতম জনপ্রিয় একটি ফোন।

ইনফিনিক্স নোট ১২ ২০২৩ এর দামঃ ১৯,৯৯৯ টাকা ( ৮ জিবি+১২৮ জিবি )

রিয়েলমি সি৫৫ – Realme C55

Realme C55

এই বছর বাজারে আসা রিয়েলমির নতুন বাজেট ফোন এটি। এই ফোনে রিয়েলমি ক্যামেরার দিকে বাড়তি দৃষ্টি দিয়েছে। তবে পিছিয়ে নেই পারফর্মেন্সের দিক থেকেও। ফোনের সামনে আছে ৬.৭২ ইঞ্চির একটি ৯০ হার্টজ এলসিডি ডিসপ্লে যা ৬৮০ নিটস পর্যন্ত উজ্জ্বল হতে পারে। ফিনের পারফর্মেন্স দিতে আছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৮৮ চিপ। এটি বাজেটের মধ্যে বেশ শক্তিশালী একটি চিপ যেখানে গেমিং ও দৈনন্দিন সকল কাজ ভালোভাবেই করা যায়। এই বাজেটের মধ্যে আপনি ৬ জিবি র‍্যাম ভ্যারিয়েন্টের ফোনটি পেয়ে যাবেন। ফলে খুব ফাস্ট ও স্মুথ পারফর্মেন্স পাবেন এই ফোন থেকে। ফোনের মূল আকর্ষণ এর ক্যামেরা। ৬৪ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। ৬৪ মেগাপিক্সেলের এই মূল ক্যামেরাটি এই বাজেটের অন্যতম সেরা একটি ক্যামেরা। ফলে দিনের আলোতে বা রাতে বেশ ভালো ছবি তোলা যায়। সামনে আছে চলনসই ৮ মেগাপিক্সেলের একটি ক্যামেরা। ফোনের ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারি সহজেই সারাদিন ব্যাকাপ দিতে পারে। এছাড়া আছে ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধা। সব মিলিয়ে এই বাজেটের অন্যতম সেরা ফোন বলা যায় এই ফোনটিকে।

রিয়েলমি সি৫৫ এর দামঃ ১৯,৯৯৯ টাকা ( ৬ জিবি+১২৮ জিবি )

রিয়েলমি নারজো ৫০এ প্রাইম – Realme Narzo 50a Prime

Realme Narzo 50a Prime

রিয়েলমির নারজো সিরিজের এই ফোনটি দেখতে কিছুটা অন্যরকম, সুন্দর এবং প্রিমিয়াম ডিজাইনের স্লিম একটি ফোন। যারা সুন্দর ও স্লিম ফোন পছন্দ করেন তাদের কাছে ভালো লেগে যাবে এই ফোনটি। ফোনের সামনে পাবেন ৬.৬ ইঞ্চির একটি এলসিডি ডিসপ্লে। এটি বেশ উজ্জ্বল একটি ডিসপ্লে হলেও হাই রিফ্রেশ রেটের সুবিধা নেই। ফোনের পারফর্মেন্স দিতে আছে ইউনিসকের টাইগার সিরিজের টি৬১২ প্রসেসর। এটি একটি বাজেট প্রসেসর এবং এর মাধ্যমে টুকটাক গেম ও সাধারণ কাজগুলো করা যায়। ফোনটি পাওয়া যায় ৪ জিবি র‍্যামে। দৈনন্দিন কাজগুলো তাই স্মুথভাবেই করে ফেলা সম্ভব। ফোনের পিছনে পাবেন ৫০ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা। মূল ক্যামেরা দিনের আলোতে সুন্দর ছবি তুলতে পারে। সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। এছাড়া ফোনে পাবেন ৫০০০ মিলিএম্পের বড় ব্যাটারি যা সারাদিন ব্যাকাপ দেবে খুব সহজেই। ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধাও রয়েছে। সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, ডেডিকেটেড মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট, টাইপ সি পোর্ট ইত্যাদি বাড়তি সুবিধাও পাবেন এই ফোনে।

রিয়েলমি নারজো ৫০এ প্রাইম এর দামঃ ১৬,৯৯৯ টাকা

নকিয়া জি২১ – Nokia G21

Nokia G21

কম বাজেটেই যারা স্টক অ্যান্ড্রয়েডের সুবিধা এবং ভালো সফটওয়্যার আপডেট চান তারা এই ফোনটি দেখতে পারেন। ফোনের সামনে আছে ৬.৫ ইঞ্চির ৯০ হার্টজ এলসিডি প্যানেল। চিপ হিসেবে দেয়া হয়েছে ইউনিসকের টি৬০৬। বাজেট অনুযায়ী এই চিপ কিছুটা কম শক্তিশালী অন্যান্য ফোন থেকে। তবে দৈনন্দিন কাজগুলো করার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে হবে না। ফোনের সাথে আছে ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ। ফোনের পিছনে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ আছে। মূল ক্যামেরা ৫০ মেগাপিক্সেলের একটি উন্নত ক্যামেরা। খুব ভালো মানের ছবি তুলতে পারে এটি। সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ফোনের ব্যাটারি লাইফও খুবই ভালো, ৫০৫০ মিলিএম্পের ব্যাটারি রয়েছে। নকিয়ার মতে ৩ দিন টানা ব্যাকাপ দিতে পারবে এই ব্যাটারি। এছাড়া ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জও সাপোর্ট করে ফোনটি। দীর্ঘ সময় সফটওয়্যার আপডেট নিয়ে যারা ফোন ব্যবহার করতে চান তাদের জন্য প্রথম পছন্দ হতে পারে এটি।

নকিয়া জি২১ প্রাইম এর দামঃ ১৮,৯৯৯ টাকা

ওয়াল্টন প্রিমো এস৮ – Walton Primo S8

Walton Primo S8

ফোনটির সাধারণ দাম ২০ হাজার টাকা থেকে কিছুটা বেশি হলেও মাঝে মধ্যেই ডিস্কাউন্টে ২০ হাজার টাকার মধ্যেই পাওয়া যায় এই ফোনটি। অসাধারণ সব ফিচার নিয়ে এই বাজেটের অন্যতম সেরা ফোন এটি। ফোনের সামনে পাবেন ৬.৭৮ ইঞ্চির বড় ৯০ হার্টজের আইপিএস এলসিডি প্যানেল। খুব সুন্দর এবং ব্রাইট একটি ডিসপ্লে বলে কন্টেন্ট ওয়াচিংয়ে পাবেন ভালো অভিজ্ঞতা। ফোনের সাথে আছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৮৮ প্রসেসর যা বাজেট গেমিংয়ের ক্ষেত্রে বেশ পরিচিত। ফলে গেমিং বা সাধারণ কাজে খুব ভালো পারফর্মেন্স দেবে ফোনটি। এছাড়া এর ৬ জিবি আধুনিক র‍্যামও স্মুথ পারফর্মেন্সে সাহায্য করে। পিছনে থাকছে ৪ টি ক্যামেরার একটি সেটআপ যেখানে মূল ক্যামেরাটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের। বাজেট অনুযায়ী যথেষ্ট ভালো ছবি তোলা যায় এই ফোনে। সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। ব্যাটারির ক্ষেত্রেও ফোনটি সেরা, আছে ৫০০০ মিলিএম্পের বড় ব্যাটারি এবং সেই সাথে ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জ সুবিধা। এছাড়া ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, কম্পাস, গেমিংয়ের জন্য আলাদা বিভিন্ন সেন্সর আছে ফোনের সাথেই।

ওয়াল্টন প্রিমো এস৮ এর দামঃ ২০,৯৯০ টাকা

ওয়ানপ্লাস নর্ড এন২০ এসই – Oneplus Nord N20 SE

Oneplus Nord N20 SE

সুন্দর ডিজাইন আর ফিচার নিয়ে এই ফোনটি ক্রেতাদের অন্যতম পছন্দের একটি ফোন। ওয়ানপ্লাসের বিভিন্ন আইকনিক ফিচার ছাড়াও এই ফোনে পাবেন সেরা সব স্পেক। ফোনের ডিসপ্লে হিসেবে পাবেন ৬.৫৬ ইঞ্চির একটি এলসিডি প্যানেল। হাই রিফ্রেশ রেট না থাকলেও ডিসপ্লেটি অনেক উজ্জ্বল এবং উন্নত মানের। ফলে কন্টেন্ট ওয়াচিংয়ে মজা পাবেন। ফোনের পাওয়ার দিচ্ছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৩৫ চিপ। বাজেট অনুযায়ী এই চিপটি কিছুটা কম শক্তিশালী হলেও দৈনন্দিন কাজের ক্ষেত্রে স্মুথ পারফর্মেন্স পাওয়া যায়। ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি স্টোরেজও পাওয়া যাবে ফোনে। ফোনের আকর্ষণীয় দিক এর ৫০ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল ক্যামেরা। দিনে বা রাতে যে কোন সময় খুব ভালো ছবি তুলতে পারে এই ক্যামেরা। ৮ মেগাপিক্সেলের একটি সেলফি ক্যামেরাও থাকছে এখানে। ফোনের অন্যতম অসাধারণ ফিচার এর ৩৩ ওয়াটের সুপার ফাস্ট চার্জ সুবিধা। ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারিকে মাত্র ৬৯ মিনিটে ফুল চার্জ করা যায়। এছাড়া সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, ডুয়াল স্টেরিও স্পিকার, অক্সিজেন ওএস ১২.১ ইত্যাদি অনেক ফিচারও পাবেন।

ওয়ানপ্লাস নর্ড এন২০ এসই এর দামঃ ১৮,৯৯০ টাকা

রেডমি নোট ১২ – Redmi Note 12

Redmi Note 12

রেডমির নোট সিরিজ সবসময়ই বাজেট সেগমেন্টে রাজত্ব করে রিচ ফিচার ও অসাধারণ সব স্পেক দিয়ে। রেডমি নোট ১২ মডেলটি ক্রেতাদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়। ফোনটি দেশের বাজারে অফিসিয়ালভাবে না পাওয়া গেলেও আনঅফিসিয়াল বাজারে ২০ হাজার টাকার আশেপাশেই পাওয়া যায়। এই দামেই ফোনের সামনে পেয়ে যাবেন ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ৬.৬৭ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লে। অন্য কোন ফোনেই এই বাজেটে এরকম সুন্দর ও প্রিমিয়াম ডিসপ্লে পাওয়া যায় না। ফলে কন্টেন্ট ওয়াচিং বা গেমিংয়ে আরও বেশি সুন্দর অভিজ্ঞতা পাওয়া যায়। প্রসেসর হিসেবে আছে স্ন্যাপড্রাগনের নতুন বাজেট চিপ ৪ জেন ১। এই চিপটি বেশ শক্তিশালী এবং গেমিং বা সাধারণ কাজগুলোতে অসাধারণ পারফর্মেন্স দিয়ে থাকে। ৪ জিবি র‍্যামও থাকছে ফোনটিতে। পিছনের ৫০ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরাও এই বাজেটের অন্যতম সেরা ছবি তোলে। সামনে থাকছে ১৩ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যাম। এছাড়া ফোনের ব্যাটারি হিসেবে ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারি রয়েছে, আর আছে ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধা। সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং অন্যান্য বিভিন্ন ফিচারও এই ফোনটিকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছে।

রেডমি নোট ১২ এর দামঃ ২০,৯৯৯ টাকা (আনঅফিসিয়াল)

স্যামসাং গ্যালাক্সি এ০৪এস – Samsung Galaxy A04s

Samsung Galaxy A04s

স্যামসাংয়ের এ০৪ সিরিজ বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এটি সিরিজের একটি জনপ্রিয় বাজেট ফোন এ০৪এস। এই বাজেটেই স্যামসাং ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ৬.৫ ইঞ্চির একটি সুন্দর ডিসপ্লে দিচ্ছে। স্যামসাংয়ের ডিসপ্লের মান সবসময়ই থাকে উপরের দিকে, আর তাই কন্টেন্ট ওয়াচিং করতে চাইলে এটি একটি সেরা ডিসপ্লে হতে পারে এই বাজেটে। স্যামসাংয়ের নিজস্ব এক্সিনোস ৮৫০ চিপ দেয়া হয়েছে এই ফোনে। বাজেটের মধ্যে এটি মোটামুটি মানের শক্তিশালী চিপ এবং দৈনন্দিন কাজ করা যাবে স্মুথভাবেই। তবে গেমিংয়ের ক্ষেত্রে খুব একটা সাপোর্ট পাবেন না। ফোনের অন্যতম সেরা আকর্ষণ এর ৫০ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা। অসাধারণ সব ছবি তোলা যায় এই ফোন থেকে। সামনেও পাবেন ৫ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারি এবং ১৫ ওয়াটের চার্জ সুবিধা থাকায় চার্জ ব্যাকাপ নিয়েও কোন চিন্তায় থাকতে হবে না। দীর্ঘ সময় ব্যবহার করা যাবে এক চার্জেই। এছাড়া সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, টাইপ সি পোর্ট, অ্যান্ড্রয়েড ১৩ এ আপগ্রেড ইত্যাদি বিভিন্ন সুবিধাও আছে ফোনে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এ০৪এস এর দামঃ ১৬,৪৯৯ টাকা ( ৪ জিবি+৬৪ জিবি )

স্যামসাং গ্যালাক্সি এ১৩ – Samsung Galaxy A13

Samsung Galaxy A13

স্যামসাংয়ের এই বাজেট ফোনটি বেশ ফিচার সমৃদ্ধ এবং সুন্দর ডিজাইনের ফোন। ফোনের সামনেই পাবেন ৬.৬ ইঞ্চির একটি বড় এলসিডি ডিসপ্লে। তবে এখানে কোন হাই রিফ্রেশ রেট সুবিধা থাকছে না। ফোনের চিপ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে এক্সিনোস ৮৫০। এই চিপ মোটামুটি মানের শক্তিশালী যার মাধ্যমে আপনি দৈনন্দিন কাজগুলো সহজেই করে ফেলতে পারবেন। তবে অতি ভারী কাজ বা গেমের জন্য এটি ভালো চিপ নয়। এছাড়া ফোনের পিছনের চারটি ক্যামেরা খুবই ভালো মানের। মূল ৫০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা থেকে ভালো ভালো সব ছবি তোলা সম্ভব। এছাড়া সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেলের একটি সেলফি ক্যামেরা। এই ফোনেও ৫০০০ মিলিএম্পের বড় ব্যাটারি আছে যা এক দিনেরও বেশি সময় ব্যাকাপ দিতে পারে। আছে ১৫ ওয়াটের ফাস্ট চার্জের সুবিধাও। এছাড়া মাইক্রো এসডি, টাইপ সি পোর্ট, সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট ইত্যাদি বিভিন্ন সুবিধাও পাওয়া যাবে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এ১৩ এর দামঃ ১৮,৯৯৯ টাকা ( ৪ জিবি+৬৪ জিবি )

অপো এ৫৭ – Oppo A57

অপো এ৫৭ – Oppo A57

অপোর অন্যতম জনপ্রিয় বাজেট ফোন এটি। ২০ হাজার টাকা বাজেটে বেশ ভারসাম্যপূর্ণ এই ফোনটি। ফোনটি দেখতে সুন্দর এবং খুবই প্রিমিয়াম মনে হয়। বিল্ড কোয়ালিটি বেশ ভালো, লম্বা সময় ফোনটি আপনাকে সেবা দিতে পারবে। হেলিও জি৩৫ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে এই ফোনে। চলনসই দৈনন্দিন পারফর্মেন্স পাবেন। তবে ২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে ছবি তোলার জন্য সেরা একটি ফোন এটি। ১৩ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ থাকলেও এটি খুব ভালো ছবি তুলতে পারে। তাই যারা ২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যেই ভালো ক্যামেরার খোঁজ করছেন তারা এই ফোনটি দেখতে পারেন। এছাড়া আছে ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারি ও ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং। 

অপো এ৫৭ এর দামঃ ১৮,৯৯০ টাকা

টেকনো পোভা নিও ২ – Tecno Pova Neo 2

টেকনো সবসময় কম বাজেটে ভালো ফোন এনে থাকে বাজারে। এই ফোনটি তার ব্যাতিক্রম নয়। ২০ হাজার টাকার নিচেই এই ফোনে আপনি ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ পেয়ে যাবেন। তবে এই ফোনের মূল ফিচার হল এর বিশাল ব্যাটারি। যারা খুব লম্বা সময় ব্যাটারি ব্যাকাপ চান এটি ২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে তাদের জন্য সেরা ফোন। ৭০০০ মিলিএম্পের ব্যাটারি আছে এই ফোনে। তবে মাত্র ১৮ ওয়াটের চার্জ সুবিধা থাকায় এই ফোনটি চার্জ হতে বেশ সময় লাগে। মিডিয়াটেকের হেলিও জি৮৫ চিপ থাকায় পারফর্মেন্সেও পিছিয়ে নেই এই ফোন।

টেকনো পোভা নিও ২ – Tecno Pova Neo 2

টুকটাক গেমিং ও ভারী কাজও করা যাবে। সেই সাথে ৯০ হার্টজের এলসিডি ডিসপ্লে থাকায় ফোনের স্মুথনেসও বেশ ভালো। ১৬ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল ক্যামেরা আছে। এছাড়াও ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, কম্পাসসহ প্রয়োজনীয় বেশ কিছু ফিচারও আছে এই ফোনে। ২০ হাজার টাকা বাজেটে খুব ভালো ফোন এটি।

টেকনো পোভা নিও ২ এর দামঃ ১৭,৪৯০ টাকা

ইনফিনিক্স হট ২০এস – Infinix Hot 20S

ইনফিনিক্স হট ২০এস – Infinix Hot 20S

নতুন বাজারে আসা ফোনগুলোর মধ্যে ইনফিনিক্স হট ২০এস ফোনটি বেশ সারা ফেলেছে ২০ হাজার টাকা বাজেটে বেশ কিছু প্রিমিয়াম ফিচার নিয়ে আসার জন্য। এই ফোনটি গেমারদের বেশ পছন্দের কেননা এখানে দেয়া হয়েছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৯৬ প্রসেসর। এই প্রসেসর বাজেটে গেম খেলার জন্য বেশ ভালো এবং শক্তিশালী। তাই পারফর্মেন্স নিয়েও কোন চিন্তা নেই। সেরা পারফর্মেন্সের সাথে তাল মিলাতে এই বাজেটেই ইনফিনিক্স দিচ্ছে ৮ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ যা এই দামের ফোনে সাধারনত দেখা যায় না।

তাছাড়া আছে ১২০ হার্টজের এলসিডি ডিসপ্লে যা পুরো ফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতাকে আরও সমৃদ্ধ করবে। যারা ছবি তুলতে চান তাদের জন্য এই ফোনটি কোন অংশে কম নয়। আছে ৫০ মেগাপিক্সেলের মেইন লেন্সসহ ৩ টি ক্যামেরা। তাছাড়া ৫০০০ মিলিএম্পের বড় ব্যাটারি, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ইত্যাদি বিভিন্ন ফিচার এই ফোনকে করেছে ২০ হাজার টাকা বাজেটের অন্যতম সেরা একটি ফোন।

ইনফিনিক্স হট ২০এস এর দামঃ ১৮,৯৯৯ টাকা

রেডমি ১০ ২০২২ – Redmi 10 2022

রেডমি ১০ ২০২২ – Redmi 10 2022

২০ হাজার টাকা বাজেটে ভালো ক্যামেরা ও পারফর্মেন্সের ফোন পাওয়া কষ্টকর। তবে রেডমি এই ফোনে সেটাই দিচ্ছে আপনাকে। রেডমি ১০ ফোনটি দ্বিতীয়বার নতুন করে বাজারে আনে শাওমি রেডমি ১০ ২০২২ নামে। এই ফোনে দেয়া হয়েছে ৪ টি ক্যামেরা যার মেইন লেন্স ৫০ মেগাপিক্সেলের। পারফর্মেন্সের জন্য আছে মিডিয়াটেক হেলিও জি৮৮ যা বাজেটে বেশ ভালো একটি প্রসেসর। এই প্রসেসরের মাধ্যমে গেমিং কিংবা দৈনন্দিন কাজ সবকিছুই সহজে করা সম্ভব।

আছে ৯০ হার্টজের ডিসপ্লে। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, ৫০০০ মিলিএম্পের বড় ব্যাটারি, ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং ইত্যাদি অনেক ফিচারও দিয়েছে রেডমি এই ফোনে। ফোনটির বিল্ড কোয়ালিটিও বেশ ভালো এবং দেখতে সুন্দর। নিঃসন্দেহে ২০২৪ সালে ২০ হাজার টাকা বাজেটের অন্যতম সেরা ফোন এটি। তবে ফোনটি নেয়ার সময় ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ অপশনটি নেয়াই ভালো হবে। ২০২৪ সালে এসে ৪ জিবি র‍্যাম বেশ কম হয়ে যায়।

রেডমি ১০ ২০২২ এর দামঃ

  • ৪ জিবি র‍্যাম + ৬৪ জিবি স্টোরেজঃ ১৬,৯৯৯ টাকা
  • ৬ জিবি র‍্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজঃ ১৮,৯৯৯ টাকা

মটোরোলা মোটো জি৩১ – Motorola Moto G31

মটোরোলা মোটো জি৩১ – Motorola Moto G31

২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে অ্যামোলেড ডিসপ্লে দেয় এমন ফোন খুব কম পাওয়া যায় বাজারে। মোটো জি৩১ সেরকম একটি ফোন। ৬.৪ ইঞ্চির ভালো কোয়ালিটির অ্যামোলেড প্যানেল আছে এই ফোনে, তবে হাই রিফ্রেশ রেট দেয়া হয় নি। কন্টেন্ট দেখে বেশ আরাম পাবেন এই ফোনে। পারফর্মেন্স দিতে আছে হেলিও জি৮৫ চিপ যা দৈনন্দিন কাজ, টুকটাক গেম ভালোভাবেই সামাল দিতে পারবে। তবে ফোনটি ২০ হাজার টাকার মধ্যে ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি স্টোরেজের ভ্যারিয়্যান্টটি পাওয়া যাবে যা ২০২৪ এ এসে বেশ কম।

র‍্যাম ও স্টোরেজ বাড়াতে হলে আপনাকে আরও ৪ হাজার টাকা বেশি খরচ করতে হবে। ক্যামেরার দিকেও এই ফোন বেশ ভালো নজর রেখেছে। ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ আছে এতে ৫০ মেগাপিক্সেলের মেইন লেন্সসহ। তাছাড়া ১৩ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরাও রয়েছে। যারা মুভি, সিরিজ ও ভিডিও দেখতে পছন্দ করেন এবং সেই সাথে ভালো পারফর্মেন্স দিতে পারে এবং ছবি তুলতে পারে এমন একটি ফোন চান ২০ হাজার টাকার মধ্যে, তাদের জন্য এটি বেশ ভালো একটি প্যাকেজ।

মটোরোলা মোটো জি৩১ এর দামঃ ১৯,৯৯৯ টাকা (৪+৬৪ জিবি)

রেডমি নোট ১১ – Redmi Note 11

রেডমি নোট ১১ – Redmi Note 11

২০ হাজার টাকা নিচের বাজেটের ২০২৩ সালের অন্যতম জনপ্রিয় ফোন রেডমি নোট ১১। রেডমি সবসময়ই বাজেটের মধ্যে সেরা স্পেকের ফোন বাজারে আনে। এটিও তার ব্যতিক্রম নয়। এতে আছে ৯০ হার্টজের একটি হাই কোয়ালিটির অ্যামোলেড ডিসপ্লে। এটি বেশ ব্রাইট এবং কন্টেন্ট ওয়াচিংয়ের জন্য সেরা। তাই যারা ইউটিউব ভিডিও বা ওটিটি প্ল্যাটফর্মে বেশি সময় ব্যয় করেন তাদের জন্য এই ফোন এই বাজেটের সেরা। এই বাজেটে সাধারনত ভালো স্ন্যাপড্র্যাগন চিপ ব্যবহার করে না ফোন কোম্পানিগুলো। কিন্তু রেডমি এখানে ব্যতিক্রম।

আছে স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ প্রসেসর যা খুব ভালো পারফর্মেন্স দিতে পারে গেমিং বা দৈনন্দিন যে কোন কাজের ক্ষেত্রে। ক্যামেরা সেকশনেও অসাধারন এই ফোন। কোয়াড ক্যামেরা সেটআপে আছে ৫০ মেগাপিক্সেলের মেইন ক্যামেরা ও ৮ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড আঙ্গেল ক্যামেরা। সেই সঙ্গে ১৩ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরাও আছে। এছাড়া ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারি ও ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সুবিধা থাকায় ব্যাকাপ নিয়েও চিন্তা নেই। তবে ২০ হাজার টাকার কিছু বাড়তি টাকায় ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি স্টোরেজের মডেলটি পাওয়া যাচ্ছে। বিভিন্ন অফারে ফোনটি ২০ হাজার টাকার নিচেই নেমে আসে বেশিরভাগ সময়।

রেডমি নোট ১১ এর দামঃ ১৯,৪৯৯ টাকা (৪+৬৪ জিবি)

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

আরও জানুনঃ বিশ্বের সেরা স্মার্টফোন

রিয়েলমি নারজো ৫০ – Realme Narzo 50

হাই রিফ্রেশ রেট বর্তমানে একটি প্রধান ফিচার হয়ে উঠেছে আজকালকার স্মার্টফোনগুলোতে। আর সেই বিষয়টিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে রিয়েলমি নারজো ৫০ ফোনটিতে। এটি একটি গেমিং ফোন হওয়ায় বাজেটের মধ্যে পেয়ে যাচ্ছেন ১২০হার্জ রিফ্রেশ রেট এর মত আকর্ষণীয় ফিচার।

আবার প্রসেসর হিসেবে রয়েছে শক্তিশালী মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৬ প্রসেসর, যা অসাধারণ গেমিং অভিজ্ঞতা প্রধান করবে। ৪জিবি র‍্যাম এর এই ফোনটিতে ১১জিবি পর্যন্ত এক্সটেনডেড র‍্যাম ব্যবহার করা যাবে। ৫০মেগাপিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা থাকছে ফোনটির ব্যাকে ও ফোনের ফ্রন্টে থাকছে ১৬মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। এছাড়া ৫০০০মিলিএম্প এর ব্যাটারি বেশ দ্রুত চার্জ করা যাবে ফোনের বক্সে থাকা ৩৩ওয়াট ফাস্ট চার্জার দ্বারা।

রিয়েলমি নারজো ৫০ এর দামঃ ১৭,৯৯৯টাকা ( ৪ জিবি+৬৪ জিবি ) এবং ১৯,৯৯৯ ( ৬ জিবি+১২৮ জিবি )

রিয়েলমি ৬আই – Realme 6i

রিয়েলমি ৬আই - Realme 6i

বাংলাদেশের বাজারে অফিসিয়ালি ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ এর রিয়েলমি ৬আই পাওয়া যাচ্ছে ১৬,৯৯০ টাকায়। ৪৮ মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা সেটাপের ফোন, রিয়েলমি ৬আই ফোনটিতে ব্যবহার করা রয়েছে মিডিয়াটেক এর হেলিও জি৮০ প্রসেসর। ৫০০০ মিলিএম্প ব্যাটারির ফোনটিতে রয়েছে রিয়ার মাউন্টেড ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর।

রিয়েলমি ৬আই এর দামঃ ১৬,৯৯০ টাকা

রিয়েলমি ৯আই – Realme 9i

রিয়েলমি ৯আই
রিয়েলমি ৯আই ফোনটিতে স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ ও ৫০মেগাপিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরার মত উল্লেখযোগ্য ফিচার বিদ্যমান। রিয়েলমি ৯আই এর ৪জিবি র‍্যাম ও ৬৪জিবি ভ্যারিয়েন্ট এর দাম ১৭,৪৯০টাকা। অন্যদিকে ৬জিবি র‍্যাম ও ১২৮জিবি স্টোরেজ এর রিয়েলমি ৯আই এর দাম ২০,৯৯৯টাকা

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ – Samsung Galaxy M12

বাজেটের মধ্যে ভালো স্যামসাং ফোন এর খোঁজে থাকলে, দেখতে পারেন স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ ফোনটি। খুবই সুন্দর দেখতে ৬.৫ইঞ্চির ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেটযুক্ত ডিসপ্লের ফোন, স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এ ব্যবহৃত হয়েছে স্যামসাং এর নিজস্ব এক্সিনোজ ৮৫০ চিপসেট।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ – Samsung Galaxy M12

৪৮ মেগাপিক্সেলের কোয়াড ক্যামেরা সেটাপ রয়েছে গ্যালাক্সি এম১২ ফোনটিতে। ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে ফোনটি। এছাড়াও ফোনটিতে রয়েছে ৬০০০ মিলিএম্প এর বিশাল ব্যাটারি।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ দামঃ ২০,৬৯৯ টাকা। 

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম২১ – Samsung Galaxy M21

২০ হাজার টাকার মধ্যে সেরা স্মার্টফোন এর আমাদের এই তালিকাতে একমাত্র স্যামসাং এর ফোন, স্যামসাং গ্যালাক্সি এম২১। ফোনটি পাওয়া যাবে ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে, যার দাম ১৬,৯৯৯ টাকা। অন্যদিকে ১৮,৯৯৯ টাকায় পাওয়া যাবে ফোনটির ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টটি।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম২১ - Samsung Galaxy M21

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম২১ এ ডিসপ্লে হিসেবে থাকছে ৬.৪ ইঞ্চির সুপার অ্যামোলেড প্যানেল। ফোনটিতে প্রসেসর হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে স্যামসাং এর এক্সিনোজ ৯৬১১ প্রসেসর। ফোনটিতে রয়েছে ৪৮ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ। ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর এর পাশাপাশি ফোনটিতে থাকছে ৬০০০ মিলিএম্প এর বিশাল ব্যাটারি।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম২১ এর দামঃ ১৮,৯৯৯ টাকা

রিয়েলমি ৭আই – Realme 7i

৮ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ এর ফোন, রিয়েলমি ৭আই এর অফিসিয়াল দাম বাংলাদেশে ১৮,৯৯০ টাকা। ১৯ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে এই ফোনটি সর্বোচ্চ ফিচার অফার করছে।

রিয়েলমি ৭আই - Realme 7i

৬.৫ ইঞ্চি পাঞ্চ হোল ডিসপ্লের ফোন, রিয়েলমি ৭আই তে রয়েছে ৬৪ মেগাপিক্সেল এর কোয়াড ক্যামেরা সেটাপ। ফোনটিতে রিয়ার মাউন্টেড ফিংগারপ্রিন্ট। রিয়েলমি ৭আই এর ব্যাটারি ৫০০০ মিলিএম্প। রিয়েলমি ৭আই তে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকম এর স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর। এই প্রসেসরটি এন্ট্রি-মিড রেঞ্জের হলেও ৮ জিবি র‍্যাম থাকায় ফোনটি হতে দারুণ পারফরম্যান্স পাওয়া যাবে।

রিয়েলমি ৭আই এর দামঃ ১৭,৯৯০ টাকা

রিয়েলমি নারজো ৩০ – Realme Narzo 30

২০হাজার টাকার মধ্যেই মিডিয়াটেক এর অত্যন্ত শক্তিশালী প্রসেসর, হেলিও জি৯৫ যুক্ত ফোন হলো রিয়েলমি নারজো ৩০। নারজো সিরিজের ফোনগুলো সাধারণত তরুণদের কেন্দ্র করেই তৈরি বলে এসব ফোন থেকে ভালো ক্যামেরা থেকে শুরু করে ডিসেন্ট গেমিংয়ের এক্সপেরিয়েন্স পাওয়া যায়। রিয়েলমি নারজো ৩০ ফোনটির বক্সেই দেওয়া আছে ৩০ ওয়াটের চার্জার যা ফোনটির ৫০০০মিলিএম্প ব্যাটারিকে এক ঘন্টার মধ্যেই ফুল চার্জ করতে সক্ষম।

রিয়েলমি নারজো ৩০

রিয়েলমি নারজো ৩০ ফোনটিতে রয়েছে ৪৮মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ, যা দিয়ে ৪কে ভিডিও রেকর্ডিং সম্ভব। এছাড়াও ফোনটিতে স্টিরিও স্পিকার ও সাইড মাউন্টেড ফিংগারপ্রিন্ট এর মত আকর্ষণীয় সব ফিচার তো থাকছেই।

রিয়েলমি নারজো ৩০ এর দামঃ ১৯,৯৯০টাকা

বাংলাটেক ২৪ এর এই ২০ হাজার টাকার মধ্যে সেরা স্মার্টফোন এর তালিকায় মোটামুটি প্রত্যেকটি প্রাইস রেঞ্জকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। উল্লেখিত স্মার্টফোনগুলোর অফিসিয়াল দাম উল্লেখ করা হয়েছে এই তালিকায়। আনঅফিসিয়ালি ফোনগুলো উল্লেখিত দামের চেয়ে কম দামেও পাওয়া যেতে পারে।

১০ হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে আপনার কাছে কোন ফোনটি সবচেয়ে সেরা মনে হয়? এই ২০ হাজার টাকার মধ্যে সেরা স্মার্টফোন তালিকায় আপনি হলে কোন ফোনটি কিনবেন? আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনে।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,586 other subscribers

2 comments

  1. Md Ashik Reply

    সাওমি রেডমি 9 । নাকি পোকো m2 ফোনটা কিনব,,ভাই কোনটা ভালো হবে

    • বাংলাটেক টিম Post authorReply

      স্পেসিফিকেশনের দিক দিয়ে দুইটি ফোন একই হলেও পোকো এম২ প্রো নেওয়াই বেটার। কেননা পোকোফোনের ইউআই মিইউআই হলেও গেমিং-সেন্ট্রিক হওয়ায় বাড়তি কিছুটা বাড়তি পারফরম্যান্স পাওয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *