অবশেষে ‘স্পন্সরড স্টোরিজ’ সরিয়ে ফেলছে ফেসবুক!

fb zuckerbergসোশ্যাল নেটওয়ার্কিং কোম্পানি ফেসবুক বহুল সমালোচনা ও আইনী জটিলতার সম্মুখীন হওয়ার পরে অবশেষে সাইটটি থেকে বিজ্ঞাপনমূলক একটি প্রোগ্রাম ‘স্পন্সরড স্টোরিজ’ সরিয়ে ফেলার ঘোষণা দিয়েছে। আজ ১০ জানুয়ারি শুক্রবার মাত্র কয়েক ঘন্টা আগে বিষয়টি টেক-মিডিয়ার নজরে আসে।

ফেসবুকের ঐ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ৯ এপ্রিল থেকে সেবাটিতে আর কোন স্পন্সরড স্টোরি দেখা যাবেনা। তাই আপনি যদি আপনার নিজস্ব কোম্পানির জন্য এ ধরণের অ্যাডভার্টাইজিং ক্যাম্পেইন করতে চান, তাহলে এপ্রিলের আগেই যত দ্রুত সম্ভব তা সম্পন্ন করে ফেলুন।

২০১২ সালের জুন মাসেই ফেসবুক কর্তৃপক্ষ স্পন্সরড স্টোরিস সরিয়ে ফেলার পরিকল্পনা প্রকাশ করেছিল। এখন তারা এর নির্দিষ্ট দিন-তারিখও বলে দিল।

এই ক্যাম্পেইনটি ছিল ফেসবুকের সবচেয়ে বেশি সমালোচিত অ্যাড ইউনিটগুলোর মধ্যে অন্যতম। এতে বিজ্ঞাপনদাতারা ফেসবুক ব্যবহারকারীদের প্রোফাইল পিকচার ও নাম নিয়ে তাদের বিজ্ঞাপন দেখানোর সুযোগ পেত। উদাহরণস্বরূপ, ধরুন আপনি বিক্রয় ডটকমের ফেসবুক ফ্যানপেজ লাইক করলেন। এরপর স্পন্সরড স্টোরির মাধ্যমে বিক্রয় ডটকম তাদের ফেসবুক অ্যাডে আপনার নাম ও প্রোফাইল ছবি ব্যবহার করে আপনার অন্যান্য বন্ধু/ ফেসবুকারকে তাদের পেজ লাইক করতে উৎসাহ দিতে পারে। বিভিন্ন পেজের ক্ষেত্রে এর বহুমুখী ব্যবহার ও তা থেকে বিড়ম্বনারও সৃষ্টি হতে পারে। নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন!

২০১১ সালে ক্যাম্পেইনটি চালুর অল্প কিছুদিন পরেই এ নিয়ে মামলায় জড়িয়েছিল ফেসবুক। শেষ পর্যন্ত গত বছর ঐ মামলায় ২০ মিলিয়ন ডলারের সমঝোতায় যায় কোম্পানিটি। হয়ত ফেসবুকের জন্য এই আর্থিক পরিমাণ খুব বেশি বড় নয়, তবে এরকম একটি সার্ভিসের উপর প্রাইভেসিমূলক জরিমানা নিঃসন্দেহে অনাকাঙ্ক্ষিত এবং সুনামহানিকর।

স্পন্সরড স্টোরিজ সরিয়ে ফেললে আপনি কি খুশি হবেন?

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,636 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.